তথ্য অধিদফতর (পিআইডি) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ২৯ জুলাই ২০২১

তথ্যবিবরণী ২৯ জুলাই ২০২১

তথ্যবিবরণী                                                                                                 নম্বর : ৩৫১৯

 

টেলিভিশনে স্ক্রল আকারে প্রচারের জন্য

সকল ইলেকট্রনিক মিডিয়া

 

ঢাকা, ১৪ শ্রাবণ  (২৯ জুলাই) :

 

          সরকারি-বেসরকারি টিভি চ্যানেলসহ সকল ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় নিম্নোক্ত বিষয়টি স্ক্রল আকারে প্রচারের জন্য অনুরোধ করা হলো :  

          মূলবার্তা :  

        করোনা মহামারির এই দুর্যোগকালে শ্রমিক ছাঁটাই এবং কারখানা লে-অফ ঘোষণা না করতে মালিকদের বিশেষ অনুরোধ জানিয়েছেন শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান।

 

#

আকতারুল/সাহেলা/সঞ্জীব/আব্বাস/২০২১/২১১২ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                   নম্বর : ৩৫১৮

 

কোভিড-১৯ সংক্রান্ত সর্বশেষ প্রতিবেদন

 

ঢাকা, ১৪ শ্রাবণ (২৯ জুলাই) :

 

          স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এবং রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর)-এর তথ্যানুযায়ী গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ৫২ হাজার ২৮২ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ১৫ হাজার ২৭১ জনের শরীরে করোনা সংক্রমণ পাওয়া গেছে। এ নিয়ে বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত কোভিড-১৯ আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ১২ লাখ ২৬ হাজার ২৫৩ জন। 

 

          গত ২৪ ঘণ্টায় ২৩৯ জন-সহ এ পর্যন্ত ২০ হাজার ২৫৫ জন এ রোগে মৃত্যুবরণ করেছেন।

 

          করোনা ভাইরাস আক্রান্তদের মধ্যে এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ১০ লাখ ৫০ হাজার ২২০ জন।

 

 

#

ফেরদৌস/সাহেলা/সঞ্জীব/আব্বাস/২০২১/২০৫৫ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                                নম্বর : ৩৫১৭

ডাকটিকেট শতাব্দীর পর শতাব্দী সকল ইতিহাসকে প্রতিনিধিত্ব করে

                                                -- ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী

ঢাকা, ১৪ শ্রাবণ (২৯ জুলাই) :

          বাংলাদেশের ডাকটিকেট প্রকাশের সুবর্ণজয়ন্তী আজ। মুক্তিযুদ্ধকালীন ১৯৭১ সালের এই দিনে প্রথম ৮টি ডাকটিকেট মুজিবনগর সরকার প্রকাশ করে। মুজিব নগর সরকার প্রকাশিত এই ডাকটিকেট মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসের গৌরবোজ্জ্বল অংশ। এই উপলক্ষ্যে ডাক অধিদপ্তর স্মারক ডাকটিকেট প্রকাশ করেছে এবং ও ভার্চুয়াল আলোচনা সভার আয়োজন করে।

          আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বাংলাদেশের প্রথম ডাক টিকেট প্রকাশের ঐতিহাসিক গুরুত্ব তুলে ধরেন এবং মুক্তিযুদ্ধে বাঙালিদের বিজয়ের একটি হাতিয়ার হিসেবে উল্লেখ করেন। তিনি মুক্তিযুদ্ধে মুক্তিবাহিনী ও দেশের জনগণের কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে ডাকবিভাগের কর্মীদের লড়াইয়ের কথা স্মরণ করেন ও দেশের সকল শহীদের পাশাপাশি ডাক বিভাগের শহীদ কর্মকর্তাদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান। মন্ত্রী বলেন, ডাকটিকেট একটি জাতির ইতিহাস, ঐতিহ্য, সংস্কৃতি এবং বিশিষ্ট ব্যক্তি সম্পর্কে কথা বলে। তিনি বলেন, একটি ডাকটিকেট শতাব্দীর পর শতাব্দীর ইতিহাসকে প্রতিনিধিত্ব করে। মুক্তিযুদ্ধের ৯ মাসের প্রতিটি দিনই জাতির ত্যাগের ইতিহাসের অংশ উল্লেখ করে তিনি বলেন, সবগুলো ঘটনা নিয়ে হয়তো ডাকটিকেট প্রকাশ করতে না পারলেও প্রতিটি ঘটনার প্রতিনিধিত্বমূলক একেকটি বিষয় নিয়ে সরকার স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে ডাক টিকেট প্রকাশের উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। একই প্রয়াস মুবিজবর্ষেও নেওয়া হয়েছে। তিনি বলেন, নতুন প্রজন্মের কাছে এক একটি ডাকটিকেট একেকটি মহাকাব্য হতে পারে। মন্ত্রী নতুন প্রজন্মকে স্মারক ডাক সংগ্রাহক হিসেবে উদ্বুদ্ধ করতে ফিলাটেলিক সংগঠনসহ সংশ্লিষ্টদের প্রতি উদ্যোগ গ্রহণের আহ্বান জানান। দেশের সকল পোস্ট অফিসে যাতে স্মারক ডাকটিকেট সংগ্রহ করা যায় এ ব্যাপারে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য মন্ত্রী ডাক অধিদপ্তরকে নির্দেশ দেন।

          ডাক অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মোঃ সিরাজ উদ্দিন এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব মোঃ আফজাল হোসেন এবং বিটিআরসি’র চেয়ারম্যান শ্যামসুন্দর সিকদার বক্তৃতা করেন।

          বাংলাদেশের ডাকটিকেট প্রকাশের সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে দশ টাকা মূল্যমানের একটি স্মারক ডাকটিকেট, দশ টাকা মূল্যমানের একটি উদ্বোধনী খাম  এবং পাঁচ টাকা মূল্যমানের একটি ডেটা কার্ড ও একটি বিশেষ সীলমোহর প্রকাশ করেছে।

          মন্ত্রী অনুষ্ঠানে ডাকটিকেট ও উদ্বোধনী খাম অবমুক্ত করেন এবং ডেটাকার্ড প্রকাশ করেন। এই সময় বিশেষ সীলমোহর ব্যবহার করা হয়। বাংলাদেশের প্রথম ডাকটিকেট প্রকাশের সুবর্ণ জয়ন্তী উপলক্ষে মন্ত্রী বিবৃতি দিয়েছেন।

#

শেফায়েত/সাহেলা/সঞ্জীব/জয়নুল/২০২১/২০৪০ঘণ্টা 

তথ্যবিবরণী                                                                                                     নম্বর : ৩৫১৬

 

চট্টগ্রাম বিভাগের বিভিন্ন জেলায় করোনায় কর্মহীন জনগোষ্ঠীর মাঝে ত্রাণ বিতরণ অব্যাহত

 

 

ঢাকা, ১৪ শ্রাবণ (২৯ জুলাই) :

 

          চট্টগ্রাম বিভাগের বিভিন্ন জেলায় করোনায় কর্মহীন, অসহায় ও প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর মাঝে সরকারি ত্রাণসামগ্রী বিতরণ অব্যাহত রয়েছে।

 

          কুমিল্লা জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে আজ সদর উপজেলার বিভিন্ন স্থানে করোনায় কর্মহীন ১৩৪টি অসহায় ও দরিদ্র পরিবারের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করা হয় । ত্রাণসামগ্রী হিসেবে প্রতি প্যাকেটে ছিল চাল, ডাল, আলু, তেল সহ সর্বমোট ১০ কেজি খাদ্যদ্রব্য। এছাড়া কুমিল্লা জেলার বিভিন্ন উপজেলায় অনুরূপ ৯৫টি প্যাকেট সহ জেলায় সর্বমোট ২২৯টি অসহায় পরিবারের মাঝে ২২৯ প্যাকেট ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করা হয়। 

 

          লক্ষ্মীপুর জেলায় আজ জেলা প্রশাসন কর্তৃক প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে ১০০টি পরিবারের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হয়। খাদ্যসামগ্রী হিসেবে প্রতি পরিবারকে ১০ কেজি চাল, ১ কেজি ডাল, ০১ কেজি চিনি, ১ কেজি লবণ ও ১ লিটার সয়াবিন তেল প্রদান করা হয়।   

 

          আজ চাঁদপুর জেলা স্টেডিয়ামে জেলা প্রশাসন কর্তৃক ৭৯জন অসহায় ও কর্মহীন রিক্সাচালকের হাতে প্রধানমন্ত্রীর উপহারস্বরূপ এক হাজার টাকা করে  অর্থ সাহায্য প্রদান করা হয়।

 

          ভিজিএফ কর্মসূচির আওতায় আজ রাঙামাটি সদর উপজেলার বালুখালি ইউনিয়নে ৭৬৪ পরিবারকে ২০ কেজি হারে ১৫ দশমিক ২৮ মেট্রিক টন, বন্দুকভাঙা ইউনিয়নে ৬৩৮ পরিবারকে ২০ কেজি হারে ১২ দশমিক ৭৬ মেট্রিক টন এবং জীবতলী ইউনিয়নে ৫৮৫ পরিবারকে ২০ কেজি হারে ১১ দশমিক ৭০ মেট্রিক টন চাল বিতরণ করা হয়েছে।

        

#

ফয়সল/সাহেলা/সঞ্জীব/আব্বাস/২০২১/২০৩২ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                     নম্বর : ৩৫১৫

চালের মূল্য স্থিতিশীল রাখতে পদক্ষেপ নিয়েছে সরকার

                                                     ---খাদ্যমন্ত্রী

ঢাকা, ১৪ শ্রাবণ (২৯ জুলাই) :

          খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেছেন, সরকার ভোক্তাদের স্বার্থ রক্ষায় চালের মূল্য স্থিতিশীল রাখতে ইতোমধ্যে পদক্ষেপ নিয়েছে। বাজার মনিটরিং করা হচ্ছে, এটি আরো জোরদার করা হবে। পাশাপাশি অবৈধ মজুতদারদের বিরুদ্ধে শীঘ্র অভিযান শুরু হবে।

          আজ ঢাকায় তাঁর সরকারি বাসভবন থেকে ‘চালের মূল্য স্থিতিশীল রাখতে করণীয়' শীর্ষক মতবিনিময় সভায় ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে সভাপতির বক্তৃতায় মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

          মন্ত্রী বলেন, সরকারিভাবে চাল আমদানি হচ্ছে এবং বেসরকারিভাবে চাল আমদানির বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন। মিল মালিক ও ব্যবসায়ীদের ভোক্তাদের প্রতি মানবিক হওয়ার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, অতি মুনাফাখোর ও অবৈধ মজুতদারদের সাথে কোন আপোষ করা হবে না ।

          সভায় কৃষি মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব বলেন, এখন চালের হিউম্যান ও নন হিউম্যান কনজামশন হচ্ছে । ফলে চাহিদা বাড়ছে , এটি বিবেচনায় রাখতে হবে। এসময় তিনি বাজারে চালের সরবরাহ বাড়াতে বেসরকারিভাব চাল আমদানির পক্ষে মত দেন।

          সভায় মিল মালিকদের প্রতিনিধি কুষ্টিয়ার আব্দুর রশিদ বলেন, এবছর ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে। কৃষক নায্যমূল্যও পেয়েছে। ধান চালের ব্যবসার সাথে সম্পৃক্ত নন এমন কিছু ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান ধানের অবৈধ মজুদ করেছে অধিক মুনাফার আশায়। মনিটরিং এর মাধ্যমে এসকল ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে চিহ্নিত করে ব্যবস্থা নেয়ার কথা বলেন তিনি। একই সাথে মিল গেটের মূল্যের সাথে বাজার মূল্যের ব্যবধান বেশি হচ্ছে কেন তা খতিয়ে দেখার অনুরোধও জানান।

          ব্যবসায়ী প্রতিনিধি এসিআই লিমিটেডের অনুপ কুমার সাহা বলেন, বাংলাদেশে ধানের দাম বেশি হওয়ার কারনে চালের দাম বেশি হচ্ছে। কৃষকের উৎপাদন খরচ কম হলে চালের দামও কমে যাবে। কৃষি পণ্যের উৎপাদন খরচের সঠিক পরিসংখ্যান থাকলে বাজার মনিটরিং সহজ হবে বলে তিনি উল্লেখ করেন তিনি।

          এছাড়া খাদ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. মোছাম্মৎ নাজমানারা খানুম, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব তপন কান্তি ঘোষ, ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তেরর মহাপরিচালক বাবলু কুমার সাহা, কৃষি বিপণন অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মোহাম্মদ ইউসুফ, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তেরর মহাপরিচালক মোঃ আসাদুল্লাহ এবং খাদ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক শেখ মুজিবুর রহমান অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন।

          এসময় খাদ্য মন্ত্রণালয়, কৃষি মন্ত্রণালয় ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ, মিল মালিক নেতৃবৃন্দ এবং ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ ভার্চুয়ালি সভায় যুক্ত ছিলেন।

#

কামাল/সাহেলা/সঞ্জীব/আব্বাস/২০২১/২০০২ ঘণ্টা 

তথ্যবিবরণী                                                                                                                নম্বর : ৩৫১৪

কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে অক্সিজেন

কনসেন্ট্রেটর ও অক্সিজেন সিলিন্ডার প্রদান করলেন সমাজকল্যাণমন্ত্রী

ঢাকা, ১৪ শ্রাবণ (২৯ জুলাই) :

          সমাজকল্যাণমন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদ কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত অসহায় রোগীদের জরুরি চিকিৎসা সেবার জন্য লালমনিরহাট জেলার কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে অক্সিজেন কনসেন্ট্রেটর ও অক্সিজেন সিলিন্ডার প্রদান করেন।

          আজ অক্সিজেন কনসেন্ট্রেটর ও অক্সিজেন সিলিন্ডার প্রদান ও নতুন অ্যাম্বুলেন্স উদ্বোধন উপলক্ষে কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স মিলনায়তনে আয়োজিত অনুষ্ঠানে মন্ত্রী মিন্টু রোডস্থ সরকারি বাসভবন হতে ভার্চুয়ালি প্রধান অতিথি হিসেবে যুক্ত হন।

          কালীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুল মান্নানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা, বিভিন্ন পর্যায়ের সরকারি কর্মচারী ও উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

          করোনা সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় মন্ত্রী বলেন, দেশে যত উন্নয়ন হচ্ছে তা  সম্ভব হয়েছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্য। তিনি নিজেকে শাসক বলেন না, সেবক বলেন। করোনা অতিমারি মোকাবিলায় যখন পৃথিবীর অনেক দেশ সফল হতে পারেনি তখন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার মেধা ও প্রজ্ঞা দিয়ে করোনা মোকাবিলায় সফলতা দেখিয়েছেন।

          মন্ত্রী বলেন, সরকার সবসময় অসহায় দুর্দশাগ্রস্ত মানুষের পাশে আছে। অক্সিজেনের অভাবে যাতে কোন করোনা রোগীর চিকিৎসা ব্যাহত না হয় সরকার সে বিষয়ে সতর্ক রয়েছে। দেশের করোনাকবলিত জেলায় সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে অক্সিজেন সিলিন্ডার বিতরণ করা হচ্ছে।

          পরে মন্ত্রীর পক্ষে কালীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা উপজেলা স্বাস্থ্য কমকর্তার নিকট অক্সিজেন কনসেন্ট্রেটর, অক্সিজেন সিলিন্ডার ও হাসপাতালের নতুন অ্যাম্বুলেন্সের চাবি হস্তান্তর করেন।

#

জাকির/সাহেলা/সঞ্জীব/জয়নুল/২০২১/২০০০ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                     নম্বর : ৩৫১৩

শ্রমিক ছাঁটাই এবং কারখানা লে-অফ ঘোষণা না করতে মালিকদের প্রতি বিশেষ অনুরোধ  শ্রম প্রতিমন্ত্রীর

ঢাকা, ১৪ শ্রাবণ (২৯ জুলাই) :

          করোনা ভাইরাস সংক্রমণ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে সরকার কঠোর বিধি-নিষেধ আরোপ করেছে। এই বিধি-নিষেধের আওতায় সকল প্রকার কল-কারখানা বন্ধ রয়েছে। এই দুর্যোগ মুহূর্তে কোন শ্রমিক ছাঁটাই এবং কোন প্রকার শিল্প-কলকারখানা লে-অফ ঘোষণা না করতে মালিকদের প্রতি বিশেষ অনুরোধ জানিয়েছেন শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান।

          প্রতিমন্ত্রী আজ এক বিবৃতিতে আরএমজি এবং নন আরএমজিসহ সকল প্রকার শিল্প এবং কল-কারখানা মালিক এবং ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষের প্রতি এ অনুরোধ জানান।

          করোনা মহামারি শুধু বাংলাদেশ নয় সারা বিশ্বের জন্য দুর্যোগ উল্লেখ করে প্রতিমন্ত্রী দেশ ও জাতির বৃহত্তর স্বার্থে সবাই মিলে একসাথে এই দুর্যোগ মোকাবিলা করে দেশকে এগিয়ে নেয়ার আহ্বান জানান।

                                                                                              

#

আকতারুল/সাহেলা/সঞ্জীব/আব্বাস/২০২১/১৯৩৬ ঘণ্টা 

তথ্যবিবরণী                                                                                                           নম্বর : ৩৫১২

সুন্দরবনে বাঘের জন্য নিরাপদ আবাসস্থল নিশ্চিত করা হবে

                                                                  -- পরিবেশ উপমন্ত্রী

ঢাকা, ১৪ শ্রাবণ (২৯ জুলাই) :

          পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন উপমন্ত্রী বেগম হাবিবুন নাহার বলেছেন, সুন্দরবনের রক্ষক বাঘ সংরক্ষণে বর্তমান সরকার বদ্ধপরিকর। সুন্দরবনে বাঘের বসবাস উপযোগী নিরাপদ আবাসস্থল নিশ্চিত করতে প্রয়োজনীয় সকল ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এক্ষেত্রে বিভিন্ন উদ্দেশ্যে সুন্দরবনে মানুষের প্রবেশ বন্ধ করতে হবে। তিনি বলেন, কোভিডকালে সুন্দরবনে মানুষের উপদ্রব কম হওয়ায় বাঘের পরিমাণ বৃদ্ধি পেয়েছে। কিছু মানুষের জন্য বিশ্ব ঐতিহ্যের সুন্দরবন এবং জাতীয় পশু বাঘের কোনো প্রকার ক্ষতি হতে দেয়া হবে না।

          আজ ‘বাঘ বাঁচায় সুন্দরবন, সুন্দরবন বাঁচায় লক্ষ জীবন’ প্রতিপাদ্যে আন্তর্জাতিক বাঘ দিবস-২০২১ উদ্যাপন উপলক্ষ্যে বন অধিদপ্তর আয়োজিত ওয়েবিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে পরিবেশ উপমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

          উপমন্ত্রী তাঁর বক্তব্যে বাঘ সংরক্ষণে সরকারের বিভিন্ন উদ্যোগের কথা উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, সুন্দরবনের বাঘ সংরক্ষণের লক্ষ্যে রক্ষিত এলাকার পরিমাণ আরো বাড়ানো হবে। বাঘ শিকার প্রতিরোধে সুন্দরবনের মধ্যে জিপিএস এর সাহায্যে ‘স্মার্ট পেট্রোলিং’ পরিচালনা করা হচ্ছে। সুন্দরবনে বন ও বন্যপ্রাণী রক্ষায় পর্যবেক্ষণ কার্যক্রম পরিচালনার জন্য বন বিভাগ ড্রোন ব্যবহার করছে। বন্যপ্রাণীর সুপেয় পানির জন্য প্রয়োজনীয় সংখ্যক মিঠাপানির পুকুর খনন করা হয়েছে। সুন্দরবনে বর্তমানের ১১৪টি বাঘের সংখ্যা দ্বিগুণ করতে কাজ করছে সরকার। তিনি বলেন, বাঘ সংরক্ষণে সবাইকে সম্পৃক্ত করতে জনসচেতনতা বৃদ্ধির উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে।

          প্রধান বন সংরক্ষক মোঃ আমির হোসাইন চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ওয়েবিনারে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ মোস্তফা কামাল, অতিরিক্ত সচিব ইকবাল আবদুল্লাহ হারুন এবং প্রকৃতি ও জীবন ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান মুকিদ মজুমদার বাবু।

#

দীপংকর/সাহেলা/সঞ্জীব/জয়নুল/২০২১/১৯৩৫ঘণ্টা  

তথ্যবিবরণী                                                                                                               নম্বর : ৩৫১১

ঢাকা বিভাগের বিভিন্ন জেলায় ত্রাণসামগ্রী বিতরণ অব্যাহত

ঢাকা, ১৪ শ্রাবণ (২৯ জুলাই) :

          করোনা ভাইরাস মহামারির প্রেক্ষিতে মানবিক সহায়তা হিসেবে সরকারের পক্ষ হতে দেশব্যাপী ত্রাণসামগ্রী বিতরণ কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে। গতকাল ঢাকা বিভাগের বিভিন্ন জেলায় এ কার্যক্রম পরিচালিত হয়েছে।

          নরসিংদী জেলায় ত্রাণ হিসেবে ১০৫ দশমিক ৫০০ মেট্রিক টন চাল এবং  ভিজিএফ কার্ডের মাধ্যমে

১ হাজার ৩৭৬ দশমিক ৫৯০ মেট্রিক টন চাল বিতরণ করা হয়। এছাড়া ৩৩৩ কলের মাধ্যমে ৯২৩ টি পরিবার ও ৪ হাজার ৬১৫ জনকে  আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হয়।

           গোপালগঞ্জ জেলায় ত্রাণ হিসেবে ১০ লাখ টাকা নগদ এবং ৮৯ হাজার ৮৪০ মেট্রিক টন চাল বিতরণ করা হয়। এছাড়া ভিজিএফ কার্ডের মাধ্যমে ৮৯৩ দশমিক ৬৩ মেট্রিক টন চাল বিতরণ করা হয়। ৩৩৩ কলের এর মাধ্যমে ১ হাজার ৮৫৫ টি পরিবার ও ৮ হাজার ৩৪৭ জনকে ত্রাণ বিতরণ করা হয়।

          শরীয়তপুর জেলায় ৩ হাজার ৪৩০ টি পরিবারের মধ্যে ১০ কেজি করে চাল ৮টি পরিবারকে  ৫০০ টাকা করে নগদ আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হয়। 

          মুন্সিগঞ্জ জেলায় ত্রাণ হিসেবে ৫ লাখ টাকা নগদ এবং ৫১ মেট্রিক টন চাল বিতরণ করা হয়। এছাড়া, ভিজিএফ কার্ডের মাধ্যমে ৬২৩ দশমিক ১৫০ মেট্রিক টন চাল বিতরণ করা হয়। 

          ফরিদপুর জেলায় ত্রাণ হিসেবে ৯ মেট্রিক টন চাল বিতরণ করা হয় এবং ৩৩৩ কলের মাধ্যমে ৫ টি পরিবার ও ২০ জনকে আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হয়।

          সংশ্লিষ্ট জেলার  জেলা তথ্য অফিসসমূহ ঢাকা বিভাগীয়  তথ্য অফিসের মাধ্যমে  এসব তথ্য জানিয়েছে।

#

আনোয়ার/সাহেলা/সঞ্জীব/জয়নুল/২০২১/১৯৩০ঘণ্টা

 তথ্যবিবরণী                                                                                                             নম্বর : ৩৫১০

কুষ্টিয়ায় করোনাকালীন অসহায় মানুষের মাঝে ত্রাণ বিতরণ

 

ঢাকা, ১৪ শ্রাবণ (২৯ জুলাই) :

           কোভিড-১৯ এর সংক্রমণ প্রতিরোধে চলমান কঠোর লকডাউনের মধ্যে আজ খুলনা বিভাগের কুষ্টিয়া জেলায় অসহায়, কর্মহীন ও বিভিন্ন শ্রেণির প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর মাঝে প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে সরকারি ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে।

          কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে আজ ৭ শত উপকারভোগীর মাঝে ৩ লাখ ৫৭ হাজার ৫ শত টাকা এবং ৮ শত ৫০ টি উপকারভোগী পরিবারের মাঝে ত্রাণ হিসেবে ৮ দশমিক ৫ মেট্রিক টন চাল বিতরণ করা হয়।

          কুষ্টিয়া জেলা তথ্য অফিসারের পাঠানো প্রতিবেদন অনুযায়ী এ তথ্য জানা গিয়েছে।

#

দীপংকর/সাহেলা/সঞ্জীব/জয়নুল/২০২১/১৯২৫ঘণ্টা

 

 তথ্যবিবরণী                                                                                                           নম্বর : ৩৫০৯

 

প্রকল্প বাস্তবায়নে কোনো ধরনের অজুহাত না দিয়ে কাজ চালিয়ে যাওয়ার আহ্বান

                                                                                      -- শিল্পমন্ত্রী

ঢাকা, ১৪ শ্রাবণ (২৯ জুলাই) :

          প্রকল্প বাস্তবায়নে কোনো ধরনের অজুহাত না দিয়ে প্রকল্পের কাজ চালিয়ে যাওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন। তিনি বলেন, করোনা মহামারিতে সকল প্রকার স্বাস্থ্যবিধি মেনে প্রকল্পের কাজ এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে। এতে ডিজিটালি প্রকল্পের মনিটরিং কার্যক্রম জোরদার করতে হবে। যে সব জায়গায় প্রকল্পের জমি অধিগ্রহণের কাজ সম্পূর্ণ হয়েছে, সেখানে দ্রুত টেন্ডার প্রক্রিয়া শুরু করতে হবে। মন্ত্রী কাজের পরিধি উল্লেখ করে বলেন, শিল্প মন্ত্রণালয়কে সরকারের বহুমুখী দায়িত্ব পালন করতে হয়। তাই স্বাস্থ্যবিধি মেনে সকলের ওপর অর্পিত দায়িত্ব পালন করতে হবে। 

          মন্ত্রী আজ ২০২০-২১ অর্থবছরে শিল্প মন্ত্রণালয়ের সংশোধিত বার্ষিক উন্নয়ন কমর্মসূচি (আরএডিপি) পর্যালোচনা সভায় ভার্চ্যুয়ালি প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। শিল্প মন্ত্রণালয়ে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। শিল্প সচিব জাকিয়া সুলতানা'র সভাপতিত্বে শিল্প প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন। সভায় মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা এবং মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন বিভিন্ন সংস্থা ও কর্পোরেশনের প্রধানরা উপস্থিত ছিলেন। এসময় বিভিন্ন প্রকল্পের পরিচালকরা ভার্চ্যুয়াল মাধ্যমে সংযুক্ত ছিলেন।

          ২০২০-২১ অর্থবছরের ৪৮টি প্রকল্পের মধ্যে ১৫টি প্রকল্প শেষ হয়েছে। সভায় জানানো হয়, গতকাল একনেকের সভায় ‘বিসিক খাদ্য প্রক্রিয়াজাতকরণ শিল্পনগরী, ঠাকুরগাঁও’ শীর্ষক একটি প্রকল্পের অনুমোদন দেওয়া হয়। তিন বছর মেয়াদি এ প্রকল্পের ব্যয় ধরা হয়েছে ৯ হাজার ৮৬১ কোটি টাকা। প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প করপোরেশন (বিসিক)। এ প্রকল্পের প্রধান উদেশ্য হলো খাদ্য প্রক্রিয়াকরণ শিল্প  উদ্যোক্তাদের জন্য শিল্প কমপ্ল্যায়ান্স সমৃদ্ধ আধুনিক ইন্ডাস্ট্রিয়াল পার্ক স্থাপনের মাধ্যমে শিল্প প্লটের ব্যবস্থাকরণ।

          সভায় জানানো হয়, ২০২০-২১ অর্থবছরে শিল্প মন্ত্রণালয়ের বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচিতে মোট ৪৮টি উন্নয়ন প্রকল্প রয়েছে। এর মধ্যে ৪৪টি বিনিয়োগ প্রকল্প, ৩টি কারিগরি সহায়তা এবং ১টি নিজস্ব অর্থায়নে বাস্তবায়িত প্রকল্প রয়েছে। সব মিলিয়ে এসব প্রকল্পে বরাদ্দের পরিমাণ ছিল ৩ হাজার ৮৪২ কোটি ৫৫ লাখ টাকা। এর মধ্যে জিওবিখাতে ১ হাজার ৬৯৯ কোটি ৯১ লাখ টাকা, প্রকল্প সাহায্যখাতে ২ হাজার ৯৮ কোটি ৪৫ লাখ টাকা এবং সংস্থার নিজস্ব অর্থায়নখাতে ৪৪ কোটি ১৯ লাখ টাকা বরাদ্দ রয়েছে। ডিসেম্বর ২০২০ পর্যন্ত প্রকল্পগুলোর বিপরীতে ৩ হাজার ১৯ কোটি ২৫ লাখ টাকা ব্যয় হয়েছে বলে সভায় তথ্য প্রকাশ করা হয়। সভায় আরো জানানো হয়, শিল্প মন্ত্রণালয়ের বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির অগ্রগতি ৮২ দশমিক ৭১ শতাংশ, যা জাতীয় পর্যায়ের অগ্রগতির চেয়ে বেশি। 

          শিল্প প্রতিমন্ত্রী বলেন, নতুন অর্থবছরে যেন প্রত্যেক প্রতিষ্ঠান লাভজনক হয়, সে ব্যবস্থা করতে হবে। চলমান প্রকল্পগুলো যথাযথভাবে বাস্তবায়ন করতে হবে। করোনায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে প্রকল্প পরিচালকদেরকে স্ব স্ব প্রকল্প এলাকা থেকে কাজের তদারকি করতে হবে। যেসব জায়গায় বাফার গোডাউনের কাজ শেষ হয়নি, সেখানে দ্রুত শেষ করার তাগিদ দেন প্রতিমন্ত্রী।

#

জাহাঙ্গীর/সাহেলা/সঞ্জীব/জয়নুল/২০২১/১৯২০ঘণ্টা  

তথ্যবিবরণী                                                                                                     নম্বর : ৩৫০৮

সজীব ওয়াজেদের উদ্ভাবনী নেতৃত্বেই দেশ আজ ডিজিটাল

                                      ---প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য্য

ঢাকা, ১৪ শ্রাবণ (২৯ জুলাই) :

          জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দৌহিত্র ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সুযোগ্য পুত্র সজীব আহমেদ ওয়াজেদের উদ্ভাবনী নেতৃত্বেই দেশ আজ ডিজিটাল বলে মন্তব্য করেছেন পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য্য ।

          আজ সচিবালয়ে পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগের সম্মেলন কক্ষে পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগের ‘ইন্ট্রিগ্রেটেড ডিজিটাল সার্ভিস ডেলিভারি প্লাটফর্ম’ কার্যক্রমের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রতিমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

          স্বপন ভট্টাচার্য্য বলেন, নাগরিক সেবায় প্রযুক্তির ব্যবহার বৃদ্ধি করতে হবে। জনসেবায় তথ্যপ্রযুক্তির ব্যবহারে দ্রুত ও সহজে সেবা প্রদান করা সম্ভব হচ্ছে।

          পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগের সচিব মোঃ রেজাউল আহসানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য প্রদান করেন পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মোঃ রাশিদুল ইসলাম, বিআরডিবির মহাপরিচালক সুপ্রিয় কুমার কুন্ডু, এটুআই-এর চিফ স্ট্রাটেজিস্ট (ই-গভর্ন্যান্স) ফরহাদ জাহিদ শেখ। 

#

আহসান/সাহেলা/সঞ্জীব/আব্বাস/২০২১/১৮৫০ ঘণ্টা 

তথ্যবিবরণী                                                                                                          নম্বর : ৩৫০৭

ভুল রেকর্ড সংশোধনের জন্য এসিল্যান্ডদের নির্দেশ দিয়ে পরিপত্র জারি

ভূমি সংক্রান্ত জনদুর্ভোগ অনেকাংশে কমবে

ঢাকা, ১৪ শ্রাবণ (২৯ জুলাই) :

          ভূমি জরিপের পর চূড়ান্তভাবে মুদ্রিত ও প্রকাশিত খতিয়ানের করণিক ভুল, প্রতারণামূলক লিখন এবং যথার্থ ভুল মাঠ পর্যায়েই সংশোধন তথা রেকর্ড সংশোধন করার জন্য সহকারী কমিশনার (ভূমি)দের (এসিল্যান্ড) নির্দেশ দিয়ে বিস্তারিত ব্যাখ্যা সহ সুস্পষ্ট দিকনির্দেশনা সহ আজ একটি পরিপত্র জারি করেছে ভূমি মন্ত্রণালয়।

          মাঠ পর্যায়ে সহকারী কমিশনার (ভূমি) কর্তৃক প্রয়োজনীয় সেবা প্রদান নিশ্চিত করা সম্ভব হলে খতিয়ানের ছোটখাটো ভুল-ত্রুটি সংশোধনের জন্য ভূমির মালিককে দেওয়ানী আদালত ও ল্যান্ড সার্ভে ট্রাইব্যুনালে যাওয়ার প্রয়োজন হবে না। এতে ভূমি সংক্রান্ত জনদুর্ভোগ অনেকাংশে কমে আসবে।

          ইতোপূর্বে ২০১৫ সালে খতিয়ানের ভুল সংশোধন বিষয়ক একটি পরিপত্র জারি করা হলেও ভূমি সংক্রান্ত বিষয়াদি থেকে নানামুখী পরিস্থিতি সৃষ্টি হওয়ার কারণে ক্ষেত্রবিশেষে মাঠ পর্যায়ে সিদ্ধান্ত দেওয়া সহজ ছিল না। এমতাবস্থায়, ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী এমনভাবে পরিপত্র জারি করতে নির্দেশ দেন যেন তাতে সকল বিষয়াদি স্পষ্টীকরণ করা থাকে। অর্থাৎ, পরিপত্রটিই যেন একটি রেফারেন্স হিসেবে মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাবৃন্দ ব্যবহার করতে পারেন। ফলশ্রুতিতে ভূমি সচিব মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান স্বাক্ষরিত ভূমি সেক্টরের জন্য এক যুগান্তকারী, সময়োপযোগী ও ব্যতিক্রমী এ পরিপত্র আজ জারি করা হয়েছে।

          উপর্যুক্ত প্রসঙ্গে পরিপত্রে বলা হয়, জরিপ পরবর্তীকালে সেবাগ্রহীতাদের খতিয়ানের এ ধরনের ভুল  যুক্তিসঙ্গত সময়ের মধ্যে সংশোধনের সেবা দিতে সরকার বদ্ধপরিকর। আইন ও বিধিতে ক্ষমতা ও দায়িত্বপ্রাপ্ত এবং এ মন্ত্রণালয়ের পরিপত্রমূলে নির্দেশিত হওয়া সত্ত্বেও কোনো কোনো ক্ষেত্রে এতৎসংশ্লিষ্ট বিষয়ে সুস্পষ্ট ধারণা না থাকায় সর্বশেষ জরিপে প্রস্তুত ও চূড়ান্তভাবে প্রকাশিত স্বত্বলিপি বা খতিয়ানে পরিদৃষ্ট ভুল সংশোধনের বিষয়ে সহকারী কমিশনার (ভূমি)গণ কর্তৃক জনগণকে প্রার্থিত প্রতিকার প্রদান করা হচ্ছে না মর্মে পরিলক্ষিত হচ্ছে, যা কাম্য নয়।

          পরিপত্রে আরো বলা হয়েছে, খতিয়ানের করণিক ভুল, প্রতারণামূলক অন্তর্ভুক্তি এবং যথার্থ ভুল সংশোধন বিষয়ে আইন ও বিধিমালায় উল্লিখিত বিধান এবং জারিকৃত পরিপত্রের নির্দেশনা যথাযথভাবে অনুসরণের স্বার্থে মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাগণের এ বিষয়ে সচেষ্ট হওয়ার পাশাপাশি ধারণার সুস্পষ্টতা ও সমরূপতা একান্ত প্রয়োজন।

          উল্লেখ্য, পরিপত্রে বিভিন্ন আইনের সূত্র উল্লেখপূর্বক বিভিন্ন বিষয়ের ব্যাখ্যা করা হয়েছে। ভূম

2021-07-29-16-55-2d4eb1b1382ab5e1219ac964c26eacfd.doc 2021-07-29-16-55-2d4eb1b1382ab5e1219ac964c26eacfd.doc

Share with :

Facebook Facebook