তথ্য অধিদফতর (পিআইডি) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ১২ নভেম্বর ২০২১

তথ্যবিবরণী ১২ নভেম্বর ২০২১

তথ্যবিবরণী                                                                                                          নম্বর: ৫৩৮৫

 

ডিজিটাল বাংলাদেশ এখন স্বপ্ন নয় বাস্তব

                       -- আইসিটি প্রতিমন্ত্রী

 

ঢাকা, ২৭ কার্তিক (১২ নভেম্বর) :

 

          বঙ্গবন্ধুর ম‌তো মহান নেতা‌কে হত‌্যা করা গে‌লেও, তাঁর দর্শন ও আদর্শ‌কে কখ‌নো হত‌্যা করা যায় না ব‌লে মন্তব‌্য ক‌রে‌ছেন ডাক, টে‌লি‌যোগা‌যোগ ও তথ‌্য প্রযু‌ক্তি মন্ত্রণালয় সম্প‌র্কিত স্থায়ী ক‌মি‌টির সভাপ‌তি এ কে এম রহমতউল্লাহ।

 

          তি‌নি আজ বিআইসিসিতে আন্তর্জাতিক তথ্যপ্রযুক্তি সম্মেলন ‘ওয়ার্ল্ড কংগ্রেস অন ইনফরমেশন টেকনোলজি ২০২১ (ড‌ব্লিউসিআইটি)’ উপলক্ষ্যে জা‌তির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মু‌জিবুর রহমা‌নের জন্মশতবর্ষ বিষয়ক এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।

 

          তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ এ আলোচনা সভার আয়োজন করে।

 

          এ কে এম রহমতউল্লাহ ব‌লেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হা‌সিনার নেতৃত্বে ডি‌জিটাল বাংলা‌দেশ দুর্বার গ‌তি‌তে এগি‌য়ে যা‌চ্ছে, এগিয়ে যা‌বে। তি‌নি ব‌লেন, ডি‌জিটাল বাংলা‌দেশ এর অগ্রগ‌তি অব‌্যাহত থাক‌লে ২০৪১ সা‌লের ম‌ধ্যে উন্নত, সমৃদ্ধ, আধু‌নিক বাংলা‌দেশ গ‌ড়ে তোলা সম্ভব হ‌বে।

 

          অনুষ্ঠা‌নে সভাপ‌তিত্ব ক‌রেন তথ‌্য ও যোগা‌যোগ প্রযু‌ক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহ্‌‌মেদ পলক।

 

          অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সোমালিয়ার আইসিটি বিষয়ক মন্ত্রী আবদি শেখ আহমেদ, মালদ্বীপের পরিবেশ প্রতিমন্ত্রী মোঃ শরীফ ও মু‌ক্তিযুদ্ধ জাদুঘ‌রের সহ প্রতিষ্ঠাতা মু‌ফিদুল হক।

 

#

 

শহিদুল/সাহেলা/এনায়েত/মোশারফ/সেলিম/২০২১/২৩.০০ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                             নম্বর:  ৫৩৮৪

 

সন্তানদের একাডেমিক শিক্ষার মধ্যে সীমাবদ্ধ না রাখার আহ্বান স্থানীয় সরকার মন্ত্রীর

 

ঢাকা, ২৭ কার্তিক (১২ নভেম্বর):  

 

          ছেলে মেয়েদের একাডেমিক শিক্ষার মধ্যে সীমাবদ্ধ না রেখে বাস্তবভিত্তিক জ্ঞান অর্জনে উৎসাহিত করতে অভিভাবকদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন স্থানীয় সরকার মন্ত্রী মোঃ তাজুল ইসলাম।

 

          আজ ঢাকার অফিসার্স ক্লাবের সদস্যগণের মেধাবী সন্তানদের সংবর্ধনা-২০২০ প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এ আহ্বান জানান।

 

          মন্ত্রী বলেন, জ্ঞানের চেয়ে বড় কোনো শক্তি নেই। সফল ব্যক্তি হতে হলে মেধার বিকাশ ঘটাতে হবে। শুধু একাডেমিক শিক্ষা নয় এর পাশাপাশি সন্তানদের বিভিন্ন বিষয়ে বাস্তবভিত্তিক জ্ঞান অর্জন করতে হবে। আধুনিক বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলতে হবে।

 

          মোঃ তাজুল ইসলাম জানান, মানব সেবার চেয়ে বড় কোনো সেবা নেই। সেই প্রকৃত মানুষ যে অন্যের দুঃখ অনুভব করতে পারে। শিক্ষার্থীদের মানবিক গুণাবলী অর্জন করার পরামর্শ দিয়ে তিনি আরো বলেন, যার যে প্রাপ্য সম্মান তাকে তা দিতে হবে। একজন রিকশাচালক, শ্রমিক অথবা কৃষকের সম্মান রয়েছে। কাউকে অবহেলা বা ছোট করে দেখার সুযোগ নেই। একজন মানুষের জীবন তখনই সার্থক হয় যখন মানুষের জন্য কাজ করা যায়। জন্ম তখনই স্বার্থক হয় যখন অন্যের উপকারে নিজেকে উৎসর্গ করা যায়।

 

          আজকের তরুণ-তরুণীরা উন্নত বাংলাদেশ গড়ার সারথি উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত-সমৃদ্ধ বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়তে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পথ নকশা তৈরি করেছেন। সে লক্ষ্যে পৌঁছানোর জন্য সবাইকে এক সাথে কাজ করতে হবে।

 

          মন্ত্রী বলেন, পাকিস্তানের শাসন-শোষণ এবং মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস নতুন প্রজন্মকে জানতে হবে। ধ্বংসস্তূপ থেকে দেশকে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান অল্প সময়ের মধ্যে যে উন্নয়ন যাত্রা শুরু করেছিলেন তা স্বাধীনতাবিরোধীরা বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মাধ্যমে থামিয়ে দিয়েছিল। দীর্ঘসময় পর বঙ্গবন্ধুর কন্যা শেখ হাসিনা ক্ষমতায় এসে আবারও দেশ গঠনের দায়িত্ব গ্রহণ করেন। প্রধানমন্ত্রীর হাত ধরেই দেশ এখন বিশ্ব উন্নয়নের রোল মডেল। যে দেশে মানুষ না খেয়ে মারা যেতো সেই দেশকে খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেও জানান তিনি।

 

          অফিসার্স ক্লাবের কল্যাণ ও সেবা উপকমিটির চেয়ারম্যান মোঃ মোশাররফ হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে ক্লাবের ভাইস-চেয়ারম্যান কে এম মোজাম্মেল হোসেন, সাধারণ সম্পাদক মেসবাহ উদ্দিন বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।

 

          অনুষ্ঠানে এসএসসি ও সমমান এবং এইচএসসি ও সমমান কৃতী শিক্ষার্থীদের মাঝে ক্রেস্ট, মেডেল ও বই উপহার দেয়া হয়।

#

 

হায়দার/সাহেলা/এনায়েত/মোশারফ/সেলিম/২০২১/২২.২০ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                             নম্বর:  ৫৩৮৩

 

সম্প্রীতি বিনষ্টকারীদের কোনো ধর্ম নেই

                        -- ধর্ম প্রতিমন্ত্রী

 

মাদারীপুর, ২৭ কার্তিক (১২ নভেম্বর):  

 

            ধর্ম প্রতিমন্ত্রী মোঃ ফরিদুল হক খান বলেছেন, সম্প্রীতি বিনষ্টকারীরা মানবতাবিরোধী অপকর্মে লিপ্ত। তারা কোনো ধর্মেরই অনুসারী নয়। হীন রাজনৈতিক স্বার্থ চরিতার্থ করার অশুভ উদ্দেশ্যে তারা  ধর্মীয় উন্মাদনা তৈরি করে দাঙ্গা হাঙ্গামার সৃষ্টি করে। এসব অপতৎপরতা বন্ধে ইমাম,  আলেম-ওলামাসহ সকল ধর্মীয় নেতৃবৃন্দকে নিজ নিজ অবস্থান থেকে আরো দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করতে হবে।

 

            আজ মাদারীপুর জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সভাকক্ষে মাদারীপুর জেলার  সম্মানিত জনপ্রতিনিধিবৃন্দ, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, ধর্মীয় নেতৃবৃন্দ এবং সরকারি কর্মকর্তাদের অংশগ্রহণে আন্তঃধর্মীয় সংলাপে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় প্রতিমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

 

            প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন,  দেশের মানুষের মাঝে ধর্মীয় সম্প্রীতি ও সচেতনতা বৃদ্ধি করার লক্ষ্যে দেশের প্রতিটি জেলায় আন্তঃধর্মীয় সংলাপ অনুষ্ঠিত হচ্ছে। ভবিষ্যতে উপজেলা ও ইউনিয়ন পর্যায়ে আন্তঃধর্মীয়  সংলাপের আয়োজন করা হবে।  এ বিষয়ে ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয় ইতোমধ্যে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ গ্রহণ করেছে।

 

            প্রতিমন্ত্রী বলেন,  প্রাক প্রাথমিক পর্যায়ে শিশুদের মধ্যে নৈতিকতা ও অন্য ধর্মের প্রতি সম্মান প্রদর্শন বিষয়ে সচেতনতা তৈরি করার লক্ষ্যে মসজিদ, মন্দির ও প্যাগোডাভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রমের  শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ ও শিক্ষা  প্রদান করা হবে।

 

            ফরিদুল হক খান বলেন, সকল ধর্মের ধর্মীয় নেতৃবৃন্দের অংশগ্রহণে  জাতীয় পর্যায়ে আন্তঃধর্মীয় সংলাপের আয়োজন করা হবে।

 

            প্রতিমন্ত্রী বলেন, ধর্মের ওপর আঘাত আসলে প্রতিবাদ করার অধিকার সবার রয়েছে। কিন্তু  প্রাপ্ত তথ্য সঠিকভাবে যাচাই না করে কেবল গুজবের ওপর নির্ভর করে অন্য ধর্মের ওপর আঘাত হানাকে ইসলামসহ কোনো ধর্মই সমর্থন করে না। এ ধরনের কাজ ধর্ম,  সমাজ ও রাষ্ট্রবিরোধী।

 

            প্রতিমন্ত্রী সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার বিষয়ে সকলকে আরো সতর্ক ও সাবধান থাকার আহ্বান জানান।

 

            মাদারীপুর জেলা প্রশাসক ড. রহিমা খাতুন এর সভাপতিত্বে  আন্তঃধর্মীয় সংলাপে বিশেষ অতিথির  বক্তৃতা করেন  মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা শাজাহান খান এমপি, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা ড. মোঃ আব্দুস সোবহান মিয়া, এমপি।

 

            এর পূর্বে  ধর্ম প্রতিমন্ত্রী মোঃ ফরিদুল হক খান শরীয়তপুর জেলা প্রশাসকের সভাকক্ষে ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয় এর আওতাধীন "ধর্মীয় সম্প্রীতি ও সচেতনতা বৃদ্ধিকরণ" শীর্ষক প্রকল্পের  উদ্যোগে আন্তঃধর্মীয় সংলাপ ও সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তৃতা করেন।

#

 

আনোয়ার/সাহেলা/এনায়েত/মোশারফ/সেলিম/২০২১/২১.৪৫ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                             নম্বর:  ৫৩৮২

 

অ্যাসোসিও লিডারশিপ অ্যাওয়ার্ড পেলেন প্রধানমন্ত্রীর আইসিটি উপদেষ্টা

 

ঢাকা, ২৭ কার্তিক (১২ নভেম্বর):  

 

          ‘অ্যাসোসিও লিডারশিপ অ্যাওয়ার্ড-২০২১’ পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন ডিজিটাল বাংলাদেশের স্থপতি প্রধানমন্ত্রীর আইসিটি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব আহমেদ ওয়াজেদ। দেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতে  বৈপ্লবিক পরিবর্তন ও অবদানের জন্য সজীব আহমেদ ওয়াজেদকে এ পুরস্কার প্রদান করা হয়। আইসিটি উপদেষ্টার পক্ষে পুরস্কার গ্রহণ করেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহ্‌মেদ পলক। 

 

          এর আগে ১৯৯৭ সালে এ পুরস্কারে ভূষিত হন মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী ড. মাহাথির মোহাম্মদ, ২০০৪ সালে থাইল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী থাকসিন সিনাওয়াত্রা এবং ২০১০ সালে বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

 

          আজ ঢাকায় অনুষ্ঠিত তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি খাতের বিশ্ব সম্মেলন 'ওয়ার্ল্ড কংগ্রেস অন ইনফরমেশন টেকনোলজি ২০২১ (ডব্লিউসিআইটি২০২১)' এর দ্বিতীয় দিনে আজ এশিয়া-ওশেনিয়া অঞ্চলের ২৪টি দেশের সংস্থা এশিয়ান-ওশেনিয়ান কম্পিউটিং ইন্ডাস্ট্রি অর্গানাইজেশন (অ্যাসোসিও) সজীব আহমেদ ওয়াজেদকে এ পুরস্কারে ভূষিত করে। 

 

          অ্যাসোসিও এর বর্তমান চেয়ারম্যান ডেবিড এর পক্ষে ইমিডিয়েট চেয়ারম্যান সারাকনন্দা পুরস্কারটি হস্তান্তর করেন।

 

          এর আগে সম্মেলনে ‘অ্যাসোসিও অ্যাওয়ার্ড নাইট’ শীর্ষক অনুষ্ঠানে অ্যাসোসিও'র সাবেক চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ এইচ কাফি এ পুরস্কার ঘোষণা করেন। আন্তর্জাতিক এ সংস্থাটি তথ্যপ্রযুক্তি খাতে অনন্য অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ এ পুরস্কার দিয়ে থাকে।  এছাড়া বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে তথ্যপ্রযুক্তিতে সাফল্য অর্জন করায় বিভিন্ন দেশের সরকারি-বেসরকারি সংস্থা ও উদ্যোক্তাকে পুরস্কৃত করে সংস্থাটি।

 

          পুরস্কার গ্রহণকালে আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক তাঁর প্রতিক্রিয়ায় বলেন, এই পুরস্কার সজীব আহমেদ ওয়াজেদের শ্রম, মেধা ও সততার স্বীকৃতি। তিনি বলেন, আগামী প্রজন্ম তাঁর নেতৃত্বে কাজ করতে আরো অনুপ্রাণিত হবে। এ পুরস্কার প্রাপ্তিতে সবাই গর্ববোধ করছে।

 

#

 

শহিদুল/সাহেলা/রাহাত/এনায়েত/মোশারফ/সেলিম/২০২১/২১.০০ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                             নম্বর:  ৫৩৮১

 

যোগাযোগ ব্যবস্থার আধুনিকায়নে কাজ করে যাচ্ছে সরকার

                                   -- তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী

 

জামালপুর, ২৭ কার্তিক (১২ নভেম্বর):  

 

          তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী ডা. মোঃ মুরাদ হাসান বলেছেন, সারা দেশে যোগাযোগ ব্যবস্থার আধুনিকায়নে কাজ করে যাচ্ছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার। এই উন্নয়ন দেশবিরোধী একটি শ্রেণি চোখে দেখে না। তারা নানা ঘটনার জন্ম দিয়ে দেশের ভাবমূর্তি ক্ষতিগ্রস্ত করতে চায়। যোগাযোগের নেটওয়ার্ক শক্তিশালী করার মাধ্যমে বাংলাদেশ এগিয়ে যাবে। বাংলাদেশকে আর কেউ পেছনে টানতে পারবে না।

 

          আজ নিজ নির্বাচনী এলাকার ডোয়াইল ইউনিয়নের হরখালী গ্রামে প্রয়াত আওয়ামী লীগ নেতা এডভোকেট বদরুদ্দোজা বাহাদুরের নামে সড়ক নির্মাণ কাজের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রতিমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

 

          ডা. মুরাদ বলেন, শহরের সুবিধা গ্রামে সম্প্রসারণে কাজ করছে বঙ্গবন্ধু কন্যা। শহরের সুবিধা গ্রামে সম্প্রসারিত হলে এবং গ্রামীণ যুবক ও কৃষি উদ্যোক্তাদের প্রশিক্ষণের আওতায় আনা গেলে উৎপাদনশীল কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরি হবে। পাশাপাশি গ্রামে হালকা শিল্পের সম্ভাবনাও বাড়বে বলে ধারণা করা হচ্ছে। এতে গ্রামের মানুষের শহরমুখিতা কমবে- বলে আশা করছে সরকার।

 

          ডা. মোঃ মুরাদ হাসান আরো বলেন, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মাণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উন্নয়নের মহাসড়কে যে অভিযাত্রা শুরু করেছেন আমরা তাঁর হাতকে শক্তিশালী করি। আমাদের সকলের বিশ্বাস প্রধানমন্ত্রীর সাহসী ও বলিষ্ঠ মানবিক নেতৃত্বে গড়ে উঠবে সমৃদ্ধ আত্মপ্রত্যয়ী এক বাংলাদেশ। এ সময় স্বাধীনতার চেতনা ও মুক্তিযুদ্ধের মূল্যবোধকে ধারণ করে সাম্প্রদায়িকতামুক্ত একটি উদার গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রে পরিণত করতে শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করার আহ্বান জানান তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান।

         

          প্রতিমন্ত্রী নির্মাণ কাজের সূচনা করে কিছুক্ষণ নির্ম‍াণ কাজ পরিদর্শন করেন।

 

#

 

গিয়াস/রাহাত/এনায়েত/মোশারফ/সেলিম/২০২১/১৯.৪৫ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                                     নম্বর: ৫৩৮০

 

দেশ গড়তে প্রধানমন্ত্রী একজন যোগ্য আর্কিটেক্ট

 

ঢাকা , ২৭ কার্তিক (১২ নভেম্বর) :

            দেশ গড়তে প্রধানমন্ত্রীকে একজন যোগ্য আর্কিটেক্ট (স্থপতি) বলে মন্তব্য করেছেন আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী  আনিসুল হক।

            আজ রাজধানীর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন বাংলাদেশ (কেআইবি) এর অডিটোরিয়ামে সিনিয়র কৃষিবিদ সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ মন্তব্য করেন আইনমন্ত্রী। কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন বাংলাদেশের ঢাকা মেট্রোপলিটন শাখা এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

            আইনমন্ত্রী বলেন, দেশ গড়ার ক্ষেত্রে প্রধানমন্ত্রী একজন যোগ্য আর্কিটেক্ট। তাঁর প্রজ্ঞা ও দূরদর্শী নেতৃত্বে দেশ দূর্বার গতিতে এগিয়ে চলছে। বাংলাদেশ ২০১৫ সালে নিম্ন মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত হয়েছে। ২০২৬ সালে বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশের কাতারে যুক্ত হবে। আমাদের পরবর্তী লক্ষ্য ২০৩১ সালের মধ্যে উচ্চ মধ্যম আয়ের দেশের মর্যাদা অর্জন করা এবং ২০৪১ সালে দারিদ্র্য অবসান করে বাংলাদেশকে উচ্চ আয়ের দেশ হিসেবে গড়ে তোলা। দেশের উন্নয়নে এমন পরিকল্পনা বাংলাদেশের ইতিহাসে বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা ছাড়া কেউ নেয়নি। তিনি একটা ব-দ্বীপ পরিকল্পনা নিয়েছেন যেটা ২১০০ সাল পর্যন্ত। এটি ব্যতিক্রম। এটাতে বুঝা যায়, তিনি একজন দূরদর্শী আর্কিটেক্ট।

            এ সময় ১২ নভেম্বরের  তাৎপর্য উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, এই দিনে ইনডেমনিটির মতো কালো আইন বাতিল করে আইনের শাসনের দ্বার উন্মোচন হয়েছিল। ১৯৯৬ সালে এই কালো আইন বাতিল করা হয়। এর ফলেই বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ড ও জেল হত্যার বিচার হয়েছে। এছাড়া ১৯৭০ সালের এই দিনে ভয়াবহ ঘূর্ণিঝড় হয়েছিল। সেই ঘূর্ণিঝড়ে বহু মানুষ হতাহত হয়। তখন কিন্তু পাকিস্তান সরকার কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি। বঙ্গবন্ধু সে দিন পদক্ষেপ নেওয়ায় ১৯৭০ সালের নির্বাচনে তার বেশ প্রভাব পড়েছিল।

            প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গবেষণাবান্ধব উল্লেখ করে আইনমন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পর গবেষণায় গুরুত্বারোপ করেন। ২০০৯ সালে তিনি গবেষণার জন্য প্রচুর টাকা দিয়েছেন। আইনমন্ত্রী কৃষিবিদদের উদ্দেশে বলেন, আপনারা গবেষণা চালিয়ে যাবেন। সেই জন্য সরকার আপনাদের সব ধরনের সহযোগিতা করবে। ১৯৯৬ সালের ২৬ লাখ টন খাদ্য সংকট থেকে এখন খাদ্য শস্যে উদ্বৃত্ত দেশ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে বাংলাদেশ। প্রধানমন্ত্রী সারের দাম কমিয়েছেন। তিনি কৃষকবান্ধব নীতি গ্রহণ করেছেন।

            মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ পৃথিবীর অন্যতম জনবহুল দেশ। যেখানে প্রতিনিয়ত জনসংখ্যা বাড়ছে। নগরায়ন হচ্ছে, শিল্পায়ন হচ্ছে, কৃষি জমি কমছে। এর সঙ্গে জলবায়ু পরিবর্তনজনিত প্রভাবও রয়েছে। এ অবস্থা চলতে থাকলে খাদ্য সংকট হওয়া স্বাভাবিক। এটা মোকাবেলা করা আপনাদের জন্য একটা বড় চ্যালেঞ্জ। আপনাদের গবেষণার জন্য যে অর্থ প্রয়োজন হবে, সেই অর্থ সরকার সব সময় দেবে। ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য এমন একটি বাংলাদেশ গড়ে তুলতে চাই ,যার জন্য মানুষ গর্ব করবে।

            আয়োজক সংগঠনের সভাপতি মোঃ লিয়াকত আলী জুয়েলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, শের-ই- বাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোঃ শহীদুর রশীদ ভুঁইয়া, কেআইবি'র মহাসচিব মোঃ খায়রুল আলম (প্রিন্স), আয়োজক সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক ড. মোঃ তাসদিকুর রহমান সনেট প্রমুখ বক্তৃতা করেন।

 

#

রেজাউল/রাহাত/এনায়েত/মোশারফ/আব্বাস/২০২১/২০১০ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                          নম্বর: ৫৩৭৯

 

কোভিড-১৯ সংক্রান্ত সর্বশেষ প্রতিবেদন

 

ঢাকা , ২৭ কার্তিক (১২ নভেম্বর) :

 

            স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এবং রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর)-এর তথ্যানুযায়ী গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ১৭ হাজার ২৩১ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ২২১ জনের শরীরে করোনা সংক্রমণ পাওয়া গেছে। এ নিয়ে বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত কোভিড-১৯ আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ১৫ লাখ ৭২ হাজার ১২৭ জন। 

 

          গত ২৪ ঘণ্টায় ৫ জন-সহ এ পর্যন্ত ২৭ হাজার ৯১২ জন এ রোগে মৃত্যুবরণ করেছেন।

 

          করোনা ভাইরাস আক্রান্তদের মধ্যে এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ১৫ লাখ ৩৬ হাজার ১১১ জন।

 

#

 

নাজমুল/রাহাত/মোশারফ/আব্বাস/২০২১/১৮১০ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                           নম্বর: ৫৩৭৮

 

সুগন্ধা নদীতে জ্বালানি তেলবাহী ট্যাংকার ও ফতুল্লায় একটি ফ্ল্যাটে

গ্যাস লাইনে বিস্ফোরণে ঘটনায় জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগের দুঃখ প্রকাশ

 

ঢাকা , ২৭ কার্তিক (১২ নভেম্বর) :

          ঝালকাঠির সুগন্ধা নদীতে জ্বালানি তেলবাহী ট্যাংকার জাহাজে বিস্ফোরণ এবং নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় একটি ফ্ল্যাট বাসায় গ্যাসের লাইনে বিস্ফোরণের ঘটনায় জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগ গভীরভাবে দুঃখ প্রকাশ করেছে। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত তেলবাহী ট্যাংকার জাহাজে বিস্ফোরণে একজন ও গ্যাসের লাইনে বিস্ফোরণের  ঘটনায় একজন নিহত হয়েছে এবং উভয় ঘটনায় কয়েকজন আহত হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিষয়ক উপদেষ্টা ড. তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী (বীর বিক্রম); বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ এবং জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগের সিনিয়র সচিব মোঃ আনিছুর রহমান পৃথক শোকবার্তায় নিহতদের রুহের মাগফেরাত কামনা করে পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান এবং আহতদের প্রয়োজনীয় চিকিৎসার নির্দেশ প্রদান করেন।

          নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লা থানার লাল খা  এলাকায়  পাঁচ তলা ভবনের নিচতলায় আজ সকালে এ বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। বিস্ফোরণের পর তিতাস গ‍্যাসের নারায়ণগঞ্জ অফিসের ডিজিএমসহ  কর্মকর্তাবৃন্দ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। ভবনের নিচ তলায়  একটি সেপটিক ট‍্যাংক, বাইরে তিতাস গ‍্যাসের রাইজার ও নিচ তলার ফ্ল্যাটে গ‍্যাসের চুলা রয়েছে। উক্ত গ‍্যাসের উৎসসমূহ হতে গ‍্যাস জমে কিংবা তৃতীয় কোনো উৎস হতে এই বিস্ফোরণ ঘটতে পারে, যা তদন্তে জানা যাবে বলে সংশ্লিষ্টরা জানান।

          গ্যাস লিকেজের জন্যই বিস্ফোরণ ঘটে থাকতে পারে বলে নারায়ণগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স প্রাথমিকভাবে ধারণা করছে। এ ঘটনায় অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেটকে আহ্বায়ক করে সাত সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটিকে আগামী ১৫ দিনের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। পেট্রোবাংলার মহাব্যবস্থাপক শাহনেওয়াজ পারভেজের নেতৃত্বেও ৪ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। এ কমিটিকে আগামী ৭ দিনের ভেতর তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।

          অন্যদিকে আজ সুগন্ধা নদীর তীরবর্তী পদ্মা অয়েল কোম্পানির ডিপোর দক্ষিণপাড়ে সাগর নন্দিনী-৩  জাহাজে বিস্ফোরণ ঘটে। পরে ঝালকাঠি ফায়ার সার্ভিসের একটি দল ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

          উল্লেখ্য, ১০ নভেম্বর সাগর নন্দিনী-৩ নামের জাহাজটি ঝালকাঠি পদ্মা অয়েল কোম্পানির ডিপোতে পেট্রোল খালাস করার পর ডিজেল খালাস করার জন্য সুগন্ধা নদীর দক্ষিণপাড়ে অবস্থান করছিল। আজ সকালে জাহাজের ইঞ্জিনকক্ষের জেনারেটর চালু করতে গিয়ে হঠাৎ বিস্ফোরণ ঘটে আগুন ধরে যায়। পদ্মা ওয়েল কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ডিজেল অক্ষত রয়েছে বলে জানান।

 

#

আসলাম/রাহাত/মোশারফ/আব্বাস/২০২১/১৭৩১ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                          নম্বর: ৫৩৭৭

শিক্ষার্থীদের সাহিত্য-সংস্কৃতি চর্চায় উৎসাহিত করতে হবে

                                               -সমাজকল্যাণমন্ত্রী

রংপুর, ২৭ কার্তিক (১২ নভেম্বর) :

        সমাজকল্যাণ মন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদ বলেছেন, শিক্ষার্থীদের সাহিত্য-সংস্কৃতি চর্চায় উৎসাহিত করতে হবে। লেখাপড়ার পাশাপাশি সংস্কৃতি চর্চা করলে তাদের জ্ঞান ও মননশীলতার বিকাশ ঘটবে।

          মন্ত্রী আজ রংপুর কারমাইকেল কলেজের ১০৫তম বর্ষপূর্তি উদ্‌যাপন উপলক্ষ্যে কলেজ মাঠে  আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

          কারমাইকেল কলেজের সাবেক ছাত্র সমিতির সভাপতি জাহাঙ্গীর আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিরোধীদলীয় চিফ হুইপ মসিউর রহমান রাঙ্গা, সুপ্রিম কোর্টের (হাইকোর্ট বিভাগ) বিচারপতি এম এনায়েতুর রহিম, রংপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা এবং কারমাইকেল কলেজ অধ্যক্ষ প্রফেসর ড. মো. আমজাদ হোসেন।

          মন্ত্রী ছাত্রজীবনের স্মৃতি রোমন্থন করে বর্তমান ছাত্র-ছাত্রীদের উদ্দেশ্যে বলেন, সাবেক ও বর্তমান শিক্ষার্থীদের এ মিলনমেলা থেকে নতুন আত্মপ্রত্যয়ে উজ্জীবিত হয়ে জ্ঞান অর্জন করে মানুষের মতো মানুষ হয়ে দেশের সেবা করতে হবে। পুঁথিগত বিদ্যার পাশাপাশি সাহিত্য ও সংস্কৃতির চর্চা করতে হবে।

          মন্ত্রী, ১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যার নৃশংস ঘটনার উল্লেখ করে বলেন,  ইতিহাসের জঘন্যতম হত্যাকান্ডের পর স্বাধীনতাবিরোধী শক্তি স্বাধীনতার চেতনাকে ভুলুন্ঠিত করে দেশকে পাকিস্তান বানানোর ষড়যন্ত্র করেছিল। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সকল ষড়যন্ত্রকে প্রতিহত করে এক সময়ের অচেনা বাংলাদেশকে বিশ্বের দরবারে উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে পরিণত করেছেন। এ উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে তিনি সকলের প্রতি আহ্বান জানান।

#

জাকির/মেহেদী/জুলফিকার/রেজ্জাকুল/শামীম/২০২১/১৫৩৫ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                  নম্বর : ৫৩৭৬

 

স্কটিশ পার্লামেন্টারিয়ানের সাথে বৈঠকে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী

জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় উন্নত দেশগুলোকে তৎপর হওয়ার আহ্বান

 

ঢাকা, ২৭ কার্তিক (১২ নভেম্বর) :

          স্কটিশ পার্লামেন্ট ও বাংলাদেশের জাতীয় সংসদের মধ্যে পারস্পরিক বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক আরো এগিয়ে যাবার আশাবাদ ব্যক্ত করে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ড. হাছান মাহ্‌মুদ বলেছেন, জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় প্রতিশ্রুতি পূরণে উন্নত দেশগুলোকে আরো তৎপর হওয়া এখন সময়ের দাবি। 

          স্কটল্যান্ডের গ্লাসগোতে চলমান বিশ্ব জলবায়ু সম্মেলন কপ-২৬ এ যোগদানের পাশাপাশি গতকাল স্কটিশ পার্লামেন্টারিয়ান ফয়সল চৌধুরী এবং সারাহ বোয়াকের সাথে বৈঠকে তিনি একথা বলেন। লন্ডনে বাংলাদেশ হাইকমিশনের প্রেস মিনিস্টার আশেক-উন-নবী চৌধুরী মন্ত্রীর সাথে ছিলেন।  

          স্কটিশ পার্লামেন্টে অনুষ্ঠিত এই বৈঠকে তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বলেন, এখন পর্যন্ত জলবায়ু পরিবর্তনজনিত দুর্যোগ মোকাবিলায় বিশ্ব জলবায়ু তহবিল থেকে কিছু অর্থ বরাদ্দ হলেও পরিবর্তনের সাথে খাপ খাইয়ে দীর্ঘমেয়াদি অভিযোজনের জন্য অর্থ বরাদ্দ হচ্ছে না, ফলে বাংলাদেশসহ জলবায়ু ঝুঁকিতে পড়া দেশগুলোকে সংগ্রামে লিপ্ত হতে হচ্ছে।

          অভিযোজনের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্ব ও উৎসাহে দেশীয় অর্থায়নেই বাংলাদেশের বিজ্ঞানী ও গবেষকরা খরা, বন্যা, জলমগ্নতা ও লবণাক্ততা সহিঞ্চু জাতের শস্য উৎপাদন করছেন ও গবেষণা অব্যাহত রেখেছেন বলে স্কটিশ পার্লামেন্টারিয়ানদ্বয়কে জানান তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী। 

          বৈঠক শেষে এক সাক্ষাৎকারে মন্ত্রী বলেন, স্কটিশ পার্লামেন্ট ও বাংলাদেশের সংসদের মধ্যে একটি ফ্রেন্ডশিপ গ্রুপ গঠন ও সম্পর্কিত বিভিন্ন ক্ষেত্রে কিভাবে একসাথে কাজ করা যায় সে বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। এসময় ফয়সল চৌধুরী বাংলাদেশের সামগ্রিক অগ্রগতির প্রশংসা করেন এবং জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় নেতৃস্থানীয় ভূমিকাকে সাধুবাদ জানান। 

#

আকরাম/মেহেদী/রাহাত/মোশারফ/আব্বাস/২০২১/১৭০৪ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                                   নম্বর : ৫৩৭৫ 

বাংলাদেশ চতুর্থ শিল্প বিপ্লবে বিশ্বকে নেতৃত্ব দেবে

                                  -সজীব ওয়াজেদ জয়

ঢাকা, ২৭ কার্তিক (১২ নভেম্বর) :

          প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় বলেছেন, বাংলাদেশে আগামীদিনে চতুর্থ বিপ্লবের বিশ্বকে নেতৃত্ব দেয়ার লক্ষ্যে এগিয়ে যাচ্ছে। সে সক্ষমতা অর্জনে বিভিন্ন কর্মসূচি বাস্তবায়ন করছে সরকার।

            তিনি বলেন, শুধু অন্যের প্রযুক্তি গ্রহণ করা নয়, আমরা এখন প্রযুক্তির পরবর্তী প্রজন্মের নেতা হতে চাই। পরবর্তী প্রজন্মের প্রযুক্তির উৎকর্ষ সাধন করতে চাই।

            উপদেষ্টা গতকাল সন্ধ্যায় বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে আইসিটি বিভাগের উদ্যোগে প্রযুক্তি খাতের বিশ্ব সম্মেলন ওয়ার্ল্ড কংগ্রেস অন ইনফরমেশন টেকনোলজি ২০২১ উপলক্ষ্যে "এনস্যুরিং এন ইনক্লুসিভ, ট্রাস্টেড এন্ড সাসটেইনেবল ডিজিটাল সোসাইটি" (Ensuring an Inclusive, Trusted and Sustainable Digital Society) শীর্ষক মিনিস্ট্রিয়াল কনফারেন্সে’ ভার্চুয়াল মাধ্যমে যুক্ত হয়ে কী-নোট স্পিকারের বক্তৃতায় এ কথা বলেন।

            তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলকের সভাপতিত্বে সেমিনারে সরাসরি প্যানেলে অংশগ্রহণ করে বক্তব্য রাখেন  সোমালিয়ার যোগাযোগ ও প্রযুক্তি মন্ত্রী আদ্রিস শেখ আ

2021-11-12-17-06-95c31698a8c3919d928dccf2f7058846.doc 2021-11-12-17-06-95c31698a8c3919d928dccf2f7058846.doc

Share with :

Facebook Facebook