তথ্য অধিদফতর (পিআইডি) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ১৮ জুলাই ২০২১

তথ্যবিবরণী ১৮ জুলাই ২০২১

তথ্যবিবরণী                                                                                           নম্বর :  ৩৩৪৭

 

আশুগঞ্জ অভ্যন্তরীণ কন্টেইনার নদীবন্দর স্থাপন প্রকল্প

দ্রুত বাস্তবায়নের নির্দেশনা নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রীর

 

বোচাগঞ্জ (দিনাজপুর), ৩ শ্রাবণ  (১৮ জুলাই) :

 

            নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেছেন, আশুগঞ্জ অভ্যন্তরীণ কন্টেইনার নদীবন্দর স্থাপন’ প্রকল্পটি একটি ল্যান্ডমার্ক প্রকল্প। এ প্রকল্পটির দ্রুত বাস্তবায়ন জরুরি। এ প্রকল্পটি বাস্তবায়নের মাধ্যমে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে বন্ধুত্বের নতুন দিগন্ত উন্মোচিত হবে।

 

            প্রতিমন্ত্রী আজ দিনাজপুরের বোচাগঞ্জস্থ নিজ বাসভবন থেকে অনলাইন প্লাটফর্মে ‘আশুগঞ্জ অভ্যন্তরীণ কন্টেইনার নদী বন্দর স্থাপন প্রকল্প’ এর বিশদ নকশার খসড়া প্রতিবেদন সংক্রান্ত কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।

 

            বিআইডব্লিউটিএ’র চেয়ারম্যান কমডোর গোলাম সাদেকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের সচিব মোহাম্মদ মেজবাহ্ উদ্দিন চৌধুরী, ভারতের এক্সটার্নাল এফেয়ার্স মিনিস্ট্রির  উন্নয়ন অংশীদারিত্ব প্রশাসন-১ এর উপদেষ্টা (অবকাঠামো) পঙ্কজ কুমার সিং। বিআইডব্লিউটিএ, ভারতীয় হাইকমিশন, এক্সিম ব্যাংক ইন্ডিয়া, নৌপরিবহন মন্ত্রাণালয় এবং অন্যান্য মন্ত্রাণালয়  ও সংস্থার প্রতিনিধিগণ, টাটা কনসালটিং ইঞ্জিনিয়ার্স ও ডিপিসিজি’র পরামর্শকগণ ভার্চুয়াল সভায় অংশ নেন।

 

            উল্লেখ্য, অভ্যন্তরীণ নৌপথের মাধ্যমে চট্টগ্রাম, মংলা ও পায়রা সমুদ্র বন্দরসহ অভ্যন্তরীণ নদী বন্দর হতে কন্টেইনার আসা যাওয়ার সুবিধা সৃষ্টি, কার্গো পরিবহনের সুবিধার্থে মাল্টি পারপাস জেটিসহ ট্রানজিট সেড নির্মাণ, নদী পথে আঞ্চলিক ও উপ-আঞ্চলিক ব্যবসা বাণিজ্যকে সমৃদ্ধশালী ও প্রসার ঘটানোর লক্ষ্যে ‘আশুগঞ্জ অভ্যন্তরীণ কন্টেইনার নদী বন্দর স্থাপন’ বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।  নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের অধীন  বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ) প্রকল্পটির  বাস্তবায়ন করছে।

                                                                                                                                                                                                    প্রকল্পটির ব্যয় ধরা হয়েছে ১ হাজার ২৯৩ কোটি টাকা। স্থানীয় মুদ্রা ৮৬২ কোটি এবং প্রকল্প সাহায্য   ৪৩১ কোটি টাকা। প্রকল্পটি বাস্তবায়নের লক্ষ্যে ব্যক্তি মালিকানাধীন ২৫ দশমিক ৬০৫ একর এবং আশুগঞ্জ সার কারখানার ৬ দশমিক ১৭ একর জমি অধিগ্রহণ করা হয়েছে। প্রকল্পটির পরামর্শক প্রতিষ্ঠান হিসাবে TATA Consulting Engineers Limited and DPC Group of Consultant JV (TCE & DPCG JV) কে নিয়োগ প্রদান করা হয়েছে। পরামর্শক প্রতিষ্ঠান ইতোমধ্যে  Draft Detail Design Report, Draft Cost Estimate এবং Draft Contract/Tender Document দাখিল করেছে। যা চূড়ান্তকরণ প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

 

            ভারত ও বাংলাদেশের যৌথ অর্থায়নে নির্মিতব্য প্রকল্পটি  আঞ্চলিক ও উপ-আঞ্চলিক অর্থনীতিতে আমূল পরিবর্তন সাধন করবে এবং অত্র অঞ্চলের জনগণের আর্থসামাজিক উন্নয়নে বড় ভূমিকা পালন করবে। এ প্রকল্প বাস্তবায়িত হওয়ার পর শুধু জিডিপি বৃদ্ধিতে সীমাবদ্ধ থাকবেনা বরং প্রকল্পের পার্শ্ববর্তী এলাকা তথা নারায়ণগঞ্জ, নরসিংদী, ব্রাক্ষ্মণবাড়িয়া, গাজীপুর, ঢাকা, হবিগঞ্জের শিল্পাঞ্চলের শিল্পের কাঁচামাল ও উৎপাদিত পণ্য পরিবহনের ব্যয় হ্রাস এবং প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে কর্মসংস্থানসহ, আয় ও বিনিয়োগে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা পালন করবে। 

 

#

 

জাহাঙ্গীর/মাসুম/রেজুয়ান/মোশারফ/সেলিম/২০২১/২২৫০ ঘণ্টা 

তথ্যবিবরণী                                                                                           নম্বর :  ৩৩৪৬

 

ঢাকা বিভাগে সরকারি ত্রাণ তৎপরতা চলমান

 

ঢাকা, ৩ শ্রাবণ  (১৮ জুলাই) :

 

          করোনা ভাইরাস মহামারির প্রেক্ষিতে মানবিক সহায়তা হিসেবে  সরকারের পক্ষ থেকে দেশব্যাপী ত্রাণসামগ্রী বিতরণ কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে। গতকাল ১৭ জুলাই ঢাকা বিভাগের বিভিন্ন জেলায় এ কার্যক্রম পরিচালিত হয়েছে।

 

          ঢাকা জেলায় ত্রাণ হিসেবে নগদ ২ লাখ টাকা, ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন এলাকায়  ১ লাখ মে. টন চাল এবং উত্তর সিটি করপোরেশন এলাকায় ১ লাখ মে. টন চাল এবং ৩৩৩ কলের মাধ্যমে ৩ হাজার ৩টি পরিবার ও ১৪ হাজার ১৬৪ জন লোককে আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হয়েছে।

 

          নরসিংদী জেলায় ৫৪ হাজার মে. টন চাল ত্রাণ হিসেবে বিতরণ করা হয়। ভিজিএফ কার্ডের মাধ্যমে ৮ লাখ ২০ হাজার ৩০ মে. টন চাল এবং ৩৩৩ কলের মাধ্যমে ৯২৩টি পরিবার ও ৪ হাজার ৬১৫ জন লোককে আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হয়।

 

          গোপালগঞ্জ জেলায় ত্রাণ হিসেবে নগদ ৪০ হাজার টাকা, ৫৭ হাজার মে. টন চাল, ভিজিএফ কার্ডের মাধ্যমে ৫ লাখ ২০ হাজার মে. টন চাল এবং  ৩৩৩ কলের মাধ্যমে ১ হাজার ৮৩৫ পরিবার ও ৮ হাজার ১২৩ জন লোককে আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হয়েছে। একই সাথে ২ হাজার প্যাকেট শুকনো খাবার বিতরণ করা হয়েছে।

 

          সংশ্লিষ্ট  জেলার  জেলা তথ্য অফিসসমূহ ঢাকা বিভাগীয় তথ্য অফিসের মাধ্যমে  এসব তথ্য জানিয়েছে।

 

#

 

আনোয়ার/মাসুম/রেজুয়ান/মোশারফ/সেলিম/২০২১/২১৫০ ঘণ্টা 

 

তথ্যবিবরণী                                                                                           নম্বর :  ৩৩৪৫

 

বরিশালে করোনায় কর্মহীন শিল্পীদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর ঈদ শুভেচ্ছা সামগ্রী বিতরণ

 

ঢাকা, ৩ শ্রাবণ  (১৮ জুলাই) :

 

          বরিশাল বিভাগের কোভিড-১৯ দ্বিতীয় ঢেউ পরিস্থিতিতে ক্ষতিগ্রস্ত ও কর্মহীন হয়ে পড়া বিভিন্ন জনগোষ্ঠীর মাঝে সরকারের ত্রাণসামগ্রী বিতরণ মানবিক সহায়তা কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে। আজ বরিশাল জেলা প্রশাসন ও জেলা শিল্পকলা একাডেমি এর পক্ষ থেকে নগরীর বঙ্গবন্ধু উদ্যান সংলগ্ন জেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তন বরিশালে করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত ২০০ জন কর্মহীন শিল্পীর মাঝে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঈদ শুভেচ্ছা সামগ্রী বিতরণ করেন বরিশালের জেলা প্রশাসক জসীম উদ্দীন হায়দার।

 

          এ সময় উপস্থিত ছিলেন বরিশাল জেলা কালচারাল অফিসার হাসান রশিদ মাকসুদ, নাট্যজন সৈয়দ দুলাল, বরিশাল সাংস্কৃতিক সংগঠন সমন্বয় পরিষদের সাবেক সভাপতি কাজল ঘোষ, বরিশাল সাংস্কৃতিক সংগঠন সমন্বয় পরিষদের সাধারণ সম্পাদক দেবাশীষ চক্রবর্তী। করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত শিল্পীদের মাঝে চাল, ডাল, ময়দা, আলু, চিনি, তেল, সেমাই, লবণ, পোলাওয়ের চাল সামগ্রী বিতরণ করা হয়।

 

          বরিশাল জেলা তথ্য এবং জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তার কার্যালয়ের প্রতিবেদনে এ তথ্য জানা যায়।

 

#

 

জাহাঙ্গীর/মাসুম/রেজুয়ান/মোশারফ/সেলিম/২০২১/২২২০ ঘণ্টা 

তথ্যবিবরণী                                                                                           নম্বর :  ৩৩৪৪

 

ফেনী ও লক্ষ্মীপুরে হতদরিদ্র ও প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর মাঝে ত্রাণ বিতরণ অব্যাহত

 

ঢাকা, ৩ শ্রাবণ  (১৮ জুলাই) :

 

          করোনা ভাইরাসজনিত রোগ (কোভিড-১৯) এর বিস্তার রোধকল্পে সরকার আরোপিত চলমান বিধিনিষেধকালে ফেনী ও লক্ষ্মীপুর জেলায় অসহায়, কর্মহীন, হতদরিদ্র ও প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর মাঝে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার হিসেবে বিভিন্ন ত্রাণসামগ্রী বিতরণ অব্যাহত রয়েছে।

 

          ফেনী পৌরসভার উদ্যোগে আজ শহরের আনন্দ কমিউনিটি সেন্টারে পৌরসভার ২৫০ জন পরিচ্ছন্নতাকর্মীর মাঝে ঈদ উপহার বিতরণ করেন মেয়র নজরুল ইসলাম স্বপন মিয়াজি। ঈদ উপহার হিসেবে প্রত্যেককে ১০ কেজি চাল, ১ কেজি ডাল, ৪ প্যাকেট সেমাই, ১ কেজি চিনি, ১ লিটার তেল, ১ কেজি পেঁয়াজ ও ১ কেজি লবণ প্রদান করা হয়।

 

          লক্ষ্মীপুর জেলায় আজ জেলা প্রশাসন কর্তৃক প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে ৬০০টি দুস্থ পরিবারের মাঝে ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করা হয়। ত্রাণসামগ্রী হিসেবে প্রতি পরিবারকে ১০ কেজি চাল, ১ কেজি ডাল, ১ কেজি চিনি, ১ কেজি লবণ ও ১ লিটার সয়াবিন তেল প্রদান করা হয়।

 

#

 

ফয়সল/মাসুম/রেজুয়ান/মোশারফ/সেলিম/২০২১/২১২০ ঘণ্টা 

তথ্যবিবরণী                                                                                           নম্বর : ৩৩৪৩

ঈদুল আজহা উপলক্ষে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় কর্তৃক গৃহীত কার্যক্রমসমূহ

ঢাকা, ৩ শ্রাবণ  (১৮ জুলাই) :

          ঈদুল আজহা উপলক্ষে  প্রাপ্ত কাঁচা চামড়া গুরুত্বপূর্ণ জাতীয় সম্পদ এবং চামড়া শিল্পখাতের অন্যতম প্রধান কাঁচামাল। বাংলাদেশের রপ্তানিমুখী শিল্পখাত আমদানিকৃত কাঁচামালের ওপর নির্ভরশীল হলেও যে কয়েকটি রপ্তানিমুখী খাতে নিজস্ব কাঁচামাল রয়েছে তন্মধ্যে চামড়া খাত অন্যতম। সারা বছর প্রাপ্ত মোট কাঁচা চামড়ার শতকরা প্রায় ৫০ ভাগ ঈদুল আজহা উপলক্ষে সংগৃহীত হয়ে থাকে। কাঁচা চামড়ার গুণগতমান বজায় রাখতে পারলে এর অভ্যন্তরীণ বাজার মূল্য, শিল্পে ব্যবহার উপযোগিতা এবং রপ্তানি সক্ষমতা বৃদ্ধি পায়। এ প্রেক্ষাপটে সঠিক উপায়ে চামড়া সংগ্রহ, লবণ প্রয়োগ, সংরক্ষণ, পরিবহণ এবং সুষ্ঠু বর্জ্য ব্যবস্থাপনার লক্ষ্যে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় জনসচেতনতামূলক কার্যক্রম এবং দেশব্যাপী মনিটরিং কার্যক্রম পরিচালনা করে থাকে।

          বাণিজ্য মন্ত্রণালয় কর্তৃক গৃহীত কার্যক্রমসমূহ :

          ঈদুল আজহা উপলক্ষে প্রাপ্ত কাঁচা চামড়ার সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনার লক্ষ্যে যথাযথভাবে চামড়া সংগ্রহ, পর্যাপ্ত লবণ প্রয়োগ, সংরক্ষণ, ক্রয়-বিক্রয়, পরিবহণসহ জনসচেতনতামূলক প্রচার-প্রচারণা কার্যক্রম এবং কমপ্রেহেনসিভ মনিটরিং কার্যক্রম পরিচালনার লক্ষ্যে মহানগর, জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে মনিটরিং টীম গঠন করা হয়েছে; লবণের পর্যাপ্ত মজুদ বজায় রাখাসহ সহনীয় মূল্যে প্রয়োজনীয় লবণের সরবরাহ রক্ষা করার লক্ষ্যে শিল্প মন্ত্রণালয় এবং বিসিক-কে অনুরোধ জানানো হয়েছে। মাঠ পর্যায়ে লবণের পর্যাপ্ত মজুদ রয়েছে বলে বিসিক নিশ্চিত করেছে। লবণ পরিবহণে যাতে কোন বিঘ্ন না ঘটে সে বিষয়ে জননিরাপত্তা বিভাগে পত্র প্রেরণ করা হয়েছে।

          ইতোমধ্যে লবণ প্রয়োগ এবং সঠিকভাবে চামড়া সংগ্রহের সাথে সংশ্লিষ্ট জনসচেতনতামূলক বয়ান/প্রচারের লক্ষ্যে ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়, ইসলামিক ফাউন্ডেশন-কে অনুরোধ জানিয়ে পত্র দেয়া হয়েছে; কোরবানির পর দ্রুততার সাথে বর্জ্য ব্যবস্থাপনা ও পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম গ্রহণে স্থানীয় সরকার বিভাগ-কে অনুরোধ জানানো হয়েছে; ঈদের দিন ঢাকামুখী পরিবহন চামড়ার মান দ্রুত বিনষ্ট করে। তাই কোরবানির দিন হতে পরবর্তী ৪৮ ঘন্টার মধ্যে যাতে মাঠ পর্যায় হতে কাঁচা চামড়া ঢাকা অভিমুখে পরিবহন না করা হয় সে বিষয়ে জননিরাপত্তা বিভাগের সহায়তা চাওয়া হয়েছে;

          ট্যানারী মালিকদের অনুকূলে ঈদের ১৫দিন পূর্বে স্বল্প সুদে/সার্ভিস চার্জে  এবং সহজ শর্তে পর্যাপ্ত ঋণ প্রদানের অনুরোধ জানিয়ে আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ এবং বাংলাদেশ ব্যাংকে পত্র প্রদান করা হয়েছে।  এ বিষয়ে আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ, বাংলাদেশ ব্যাংক এবং বাণিজ্যিক ব্যাংক ইতঃমধ্যে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে; ঈদুল আজহা-২০২১ উপলক্ষে কাঁচা চামড়া ক্রয়ে ব্যাংক ঋণ প্রাপ্তদের তালিকা প্রদানের অনুরোধ জানিয়ে আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগে পত্র প্রেরণ করা হয়েছে; ঈদুল আজহা-২০২১ উপলক্ষে লবণের পরিবহণ নির্বিঘ্নকরণে জননিরাপত্তা বিভাগে পত্র দেয়া হয়েছে।

          ঈদুল আজহা-২০২১ উপলক্ষে মনিটরিং কার্যক্রম : বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ব্যাপক মনিটরিং কার্যক্রমের অংশ হিসেবে নিম্নবর্ণিত টীম/কমিটি গঠন করেছে:

          বাণিজ্য সচিবকে আহ্বায়ক করে কেন্দ্রীয় যৌথ সমন্বয় কমিটি; বিভাগ ওয়ারী সমন্বয়ের লক্ষ্যে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিবগণের সভাপতিত্বে সমন্বয় ও মনিটরিং কমিটি; ঢাকাস্থ সাভার, পোস্তা, ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন এবং নাটোর জেলার জন্য মনিটরিং টিম;

চলমান পাতা/২

 

-০২--

বিভাগীয় শহরের জন্য বাণিজ্য মন্ত্রণালয়াধীন বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তার সমন্বয়ে মনিটরিং টিম; জেলা শহরের জন্য জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তাগণের জেলা প্রশাসনের সাথে সমন্বয়পূর্বক দায়িত্ব পালনের জন্য ডিজি, জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ  অধিদপ্তর এর নিকট নির্দেশনা প্রদান; কাঁচা চামড়া সংক্রান্ত বিষয়ে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে কন্ট্রোল সেল ।

          জনসচেতনতামূলক কার্যক্রম :

          বিটিভিসহ বেসরকারি টিভি চ্যানেলসমূহে টিভি কর্মাশিয়াল (টিভিসি) প্রচার, ৫টি গুরুত্বপূর্ণ জাতীয় দৈনিকে গণবিজ্ঞপ্তি প্রচার করা হচ্ছে। বাংলাদেশ বেতারে গণবিজ্ঞপ্তির বার্তা প্রচারের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে;

          পৌর ও ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের মাধ্যমে কাঁচা চামড়া সংরক্ষণে জনসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে জেলা প্রশাসকগণের মাধ্যমে প্রচার-প্রচারণা কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়েছে; দুই লাখ পঞ্চাশ হাজার লিফলেট বিতরণ করা হয়েছে; ব্যাপক জনগোষ্ঠীর নিকট সচেতনতামূলক বার্তা ও চামড়ার মূল্য পৌঁছানোর লক্ষ্যে মুঠোফোনে ক্ষুদে বার্তা প্রেরণের কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়েছে।

          কাঁচা ও ওয়েট-ব্লু চামড়া রপ্তানির অনুমতি প্রদান : রপ্তানি নীতি ২০১৮-২১ এ কাঁচা ও ওয়েট-ব্লু চামড়া রপ্তানিতে বিদ্যমান নিষেধাজ্ঞা শিথিল করে ২৯ জুলাই ২০২০ এ গণবিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছে। নিষেধাজ্ঞা শিথিল পরবর্তীতে কেস-টু-কেস ভিত্তিতে নিম্নবর্ণিত ৬টি প্রতিষ্ঠানের প্রত্যেকের অনুকূলে ২০ লক্ষ বর্গফুট করে সর্বমোট ১ দশমিক ২০ কোটি বর্গফুট ওয়েট-ব্লু চামড়া শর্ত সাপেক্ষে রপ্তানির অনুমতি প্রদান করা হয়েছে:

          কালাম ব্রাদার্স ট্যানারী লিঃ; লেদার ইন্ডাস্ট্রিজ অব বাংলাদেশ লিঃ (ইউনিট-২); মেসার্স কাদের লেদার কমপ্লেক্স; আমিন ট্যানারী লি: ও মুক্তা ট্যানারী লি:

          বাণিজ্য সচিব  ১৪ জুলাই ২০২১ তারিখে বিভাগীয় কমিশনার এবং জেলা প্রশাসকগণের সাথে জুম প্লাটফর্মে সভা করে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা প্রদান করেছেন। 

          ১৫ জুলাই ২০২১ তারিখে বাণিজ্যমন্ত্রী কাঁচা চামড়ার প্রতি বর্গফুটের মূল্য নিম্নরূপভাবে ঘোষণা করেছেনঃ

          চামড়ার প্রকৃতি            এলাকা                     লবণযুক্ত প্রতি বর্গফুটের মূল্য

          গরুর কাঁচা চামড়া         ঢাকায়                     ৪০-৪৫   টাকা

          গরুর কাঁচা চামড়া         ঢাকার বাহিরে             ৩৩-৩৭  টাকা

          খাসির কাঁচা চামড়া        সারাদেশে                   ১৫-১৭  টাকা

          বকরির কাঁচা চামড়া       সারাদেশে                  ১২-১৪   টাকা

#

বকসী/মাসুম/রেজুয়ান/মোশারফ/সেলিম/২০২১/২০৩০ ঘণ্টা 

 

 

তথ্যবিবরণী                                                                                           নম্বর :  ৩৩৪২

 

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ওয়ানডে  সিরিজ জয়ী 

বাংলাদেশ ক্রিকেট দলকে যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রীর অভিনন্দন

 

ঢাকা, ৩ শ্রাবণ  (১৮ জুলাই) :

 

          জিম্বাবুয়ের মাটিতে প্রথমবারের মতো টেস্ট সিরিজ জয়লাভের পর এবার তিন ম্যাচের  ওয়ানডে সিরিজে  এক ম্যাচ বাকি রেখেই চ্যাম্পিয়ন হওয়ার অবিস্মরণীয় গৌরব অর্জন  করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ওয়ানডে  সিরিজ জয়ী বাংলাদেশ ক্রিকেট দলকে অভিনন্দন জানিয়েছেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মোঃ জাহিদ আহসান রাসেল।

 

          আজ এক অভিনন্দন বার্তায় বাংলাদেশ  ক্রিকেট দলের সকল  খেলোয়াড়, কর্মকর্তা,  কোচসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে প্রাণঢালা অভিনন্দন জানান যুব ও  ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী।

 

          অভিনন্দন বার্তায় ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী বলেন, অসাধারণ নৈপুণ্যে জিম্বাবুয়ের মাটিতে এক ম্যাচ হাতে রেখেই  ওয়ানডে সিরিজ জিতেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। স্বাগতিকদের বিরুদ্ধে টাইগারদের এ দাপুটে জয় বিশ্ব ক্রিকেটে  বাংলাদেশের ভাবমূর্তি আরো উজ্জ্বল করলো।  করোনা মহামারির এ দুঃসময়ে নানা দুঃসংবাদের মধ্যে  বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের ধারাবাহিক এ পারফরম্যান্স নিঃসন্দেহে আমাদের জন্য অত্যন্ত আনন্দের ও গর্বের । তিনি আশা প্রকাশ করে বলেন,  আগামী দিনেও বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের এই অসাধারণ নৈপুণ্য অব্যাহত থাকবে। বাংলাদেশই আগামী দিনের ক্রিকেট  বিশ্বকে নেতৃত্ব দেবে।

 

#

 

আরিফ/মাসুম/রেজুয়ান/মোশারফ/সেলিম/২০২১/২১৩০ ঘণ্টা 

তথ্যবিবরণী                                                                                              নম্বর : ৩৩৪১

 

খুলনা বিভাগে করোনাকালীন অসহায় মানুষের মাঝে ত্রাণ বিতরণ

 

ঢাকা, ৩ শ্রাবণ  (১৮ জুলাই) :

 

          কোভিড-১৯ এর সংক্রমণ প্রতিরোধে চলমান কঠোর লকডাউনের মধ্যে আজ খুলনা বিভাগের খুলনা ও কুষ্টিয়া জেলায় অসহায়, কর্মহীন ও বিভিন্ন শ্রেণির প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর মাঝে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার হিসেবে সরকারি ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করা হয়।

 

          খুলনায় করোনায় কর্মহীন হয়ে পড়া ১০০ জন হকার, ১০০ হোটেল-রেস্তোরা শ্রমিক, ২০০ রিকশা শ্রমিক, ১০০ প্রেস শ্রমিক এবং বড়বাজারের ১০০ জন শ্রমিকের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর মানবিক সহায়তা বিতরণ করা হয়। মানবিক সহায়তার মধ্যে ছিলো জনপ্রতি পাঁচ কেজি চাল। আজ খুলনার ২৩ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর কার্যালয় চত্বরে কেসিসি’র প্যানেল  মেয়র-২ মোঃ আলী আকবর টিপু ও মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এমডিএ বাবুল রানা এই মানবিক সহায়তা বিতরণ করেন।

 

          অপরদিকে খুলনা সিটি কর্পোরেশনের উদ্যোগে তিনটি ওয়ার্ডে করোনায় কর্মহীন হয়ে পড়া প্রায় এক  হাজার ৪৫০ জন অসহায়, দুঃস্থ ও নিম্নআয়ের শ্রমজীবীর মাঝে প্রধানমন্ত্রীর মানবিক সহায়তা বিতরণ করা হয়। মানবিক সহায়তার মধ্যে ছিলো জনপ্রতি সাত কেজি চাল এবং নগদ অর্থ। এর আগে খালিশপুর প্রভাতী মাধ্যমিক বিদ্যালয় চত্বরে ১২ নম্বর ওয়ার্ডের ৪২৮ জন এবং সোনাডাঙ্গা ইউসুফ বিদ্যালয়ে ১৭ নম্বর ওয়ার্ডের ৫৭১ জন অসহায় ও নিম্নআয়ের শ্রমজীবীর মাঝে প্রধানমন্ত্রীর মানবিক সহায়তা ও নগদ অর্থ বিতরণ করা হয়।

 

          কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে আজ ৩০০টি দুস্থ ও অসহায় পরিবারের মধ্যে ৩ মেট্রিক টন চাল এবং স্থানীয়ভাবে ২১ হাজার ৪ জন উপকারভোগীর মাঝে ২১০ দশমিক ৪১ মেট্রিক টন চাল বিতরণ করা হয়। ১২০ জন উপকারভোগীর মাঝে ৬০ হাজার টাকা বিতরণ করা হয়েছে। ৩৩৩ হেল্পলাইনে ফোনকারী ৩০টি পরিবারের সদস্যের মধ্যে ত্রাণ বিতরণ করা হয়েছে। এছাড়াও স্থানীয়ভাবে ৪ জনকে ৪০ কেজি চাল প্রদান করা হয়েছে।

 

#

 

দীপংকর/মাসুম/রেজুয়ান/মোশারফ/সেলিম/২০২১/২০৪০ ঘণ্টা 

তথ্যবিবরণী                                                                                          নম্বর :  ৩৩৪০

'লকডাউন দিলেও সমালোচনা, শিথিল করলেও তাই,

আসলে তারা কি চান!' বিএনপিকে তথ্যমন্ত্রীর প্রশ্ন

ঢাকা, ৩ শ্রাবণ  (১৮ জুলাই) :

            তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক  ড. হাছান মাহ্‌মুদ বলেছেন, 'লকডাউন দিলেও বিএনপি সমালোচনা করে, লকডাউন শিথিল করলেও সমালোচনা করে, বিএনপি’র নেতৃবৃন্দ আসলে  কি চান সেটিই বোধগম্য নয়।'

            আজ ইউরোপ সফর থেকে ফিরে  বিকেলে রাজধানীর কাকরাইলে বাংলাদেশ প্রেস ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্ট থেকে ২০২০-২১ অর্থবছরের দ্বিতীয় পর্যায়ের সহায়তা চেক বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে সমসাময়িক প্রসঙ্গে তিনি একথা বলেন।

            ড. হাছান বলেন, 'ঈদের আগে এক সপ্তাহের জন্য লকডাউন শিথিল করা হয়েছে, অনেক চিন্তাভাবনা করেই এটি করা হয়েছে। যখন দু’সপ্তাহের জন্য লকডাউন ঘোষণা করা হলো, তখন দেখলাম বিএনপির পক্ষ থেকে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর লকডাউন কেন দেয়া হলো, সেজন্য প্রচণ্ড সমালোচনা করলেন। আবার যখন এক সপ্তাহের জন্য শিথিল করা হলো, তখন কেন শিথিল করা হলো, সেটির জন্য আবার সমালোচনা করলেন। আসলে উনারা চানটা কি, সেটিই হচ্ছে প্রশ্ন।'

            'আসলে তারা চান দেশে একটি বিশৃঙ্খলা তৈরি হোক, তাহলে পানি ঘোলা করে ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করা যাবে, কিন্তু সেই সুযোগ বিএনপিকে ভবিষ্যতে জনগণ আর দেবে না' বলেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক।

            করোনাকালে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী সাংবাদিকদের জন্য যে সহায়তার নজির স্থাপন করেছেন তা দেখে অন্যদেশ কিছু কিছু পদক্ষেপ নিলেও এখনো ভারত, পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কায় কোথাও এমন দৃষ্টান্ত নেই, বলেন ড. হাছান। 'আওয়ামী লীগ সরকার সব মত ও পথের মানুষেরই সরকার' উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, যে সমস্ত সাংবাদিক প্রেসক্লাবের সামনে দাঁড়িয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকারের সমালোচনায় মুখর থাকেন, তাদের জন্যও এই ট্রাস্টের সহায়তা উন্মুক্ত, কারণ রাষ্ট্র সবার জন্য।

            ট্রাস্টের ব্যবস্থাপনা পরিচালক জাফর ওয়াজেদের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ডাঃ মোঃ মুরাদ হাসান, সচিব মোঃ মকবুল হোসেন বক্তব্য রাখেন। আলোচনায় অংশ নেন বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন-বিএফইউজে সভাপতি মোল্লা জালাল, ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব আব্দুল মজিদ, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন-ডিইউজে সভাপতি কুদ্দুস আফ্রাদ ও সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদ আলম খান তপু।

            প্রতিমন্ত্রী ডাঃ মোঃ মুরাদ হাসান বলেন, গণমাধ্যমবান্ধব প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সাংবাদিকদের জন্য যে সহায়তার উদাহরণ তৈরি করেছেন, তা সত্যিই বিরল।

            সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্টকে সরকার ও সাংবাদিকদের মাঝে মমতার সেতুবন্ধ হিসেবে উল্লেখ করেন তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের সচিব এবং সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্টের ভাইস চেয়ারম্যান মোঃ মকবুল হোসেন।

            এদিন সহায়তাপ্রাপ্তদের মধ্যে ৩০ জনের হাতে চেক হস্তান্তর করেন অতিথিবৃন্দ। ২০২০-২১ অর্থবছরের বরাদ্দ থেকে দ্বিতীয় পর্যায়ে ১৪৯ জন সাংবাদিক ও সাংবাদিক পরিবারের সদস্যকে ১ কোটি ১৫ লাখ ৫০ হাজার টাকা অনুদান প্রদানের কার্যক্রম চলছে এবং এর আগে প্রথম পর্যায়ে ২০১ জনকে ২ কোটি ৯ লাখ ৫০ হাজার টাকা দেয়া হয়েছে, জানিয়েছে ট্রাস্ট কর্তৃপক্ষ।

#

আকরাম/মাসুম/রেজুয়ান/মোশারফ/সেলিম/২০২১/২০০০ ঘণ্টা

 

তথ্যবিবরণী                                                                                              নম্বর : ৩৩৩৯

 

কোভিড-১৯ সংক্রান্ত সর্বশেষ প্রতিবেদন

 

ঢাকা, ৩ শ্রাবণ  (১৮ জুলাই) :

 

          স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এবং রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর)-এর তথ্যানুযায়ী গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ৩৯ হাজার ৮০৬ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ১১ হাজার ৫৭৮ জনের শরীরে করোনা সংক্রমণ পাওয়া গেছে। এ নিয়ে বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত কোভিড-১৯ আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ১১ লাখ ৩ হাজার ৯৮৯ জন। 

 

          গত ২৪ ঘণ্টায় ২২৫ জন-সহ এ পর্যন্ত ১৭ হাজার ৮৯৪ জন এ রোগে মৃত্যুবরণ করেছেন।

 

          করোনা ভাইরাস আক্রান্তদের মধ্যে এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৯ লাখ ৩২ হাজার ৮ জন।

 

#

 

ফেরদৌস/মাসুম/রেজুয়ান/মোশারফ/সেলিম/২০২১/১৯৪০ ঘণ্টা 

 

তথ্যবিবরণী                                                                                          নম্বর : ৩৩৩৮

 

২৮ জুলাই সিলেট-৩ শূন্য আসনের নির্বাচন এবং এ সংক্রান্ত

কার্যক্রম ও অফিস বিধি-নিষেধের আওতাবহির্ভূত

 

ঢাকা, ৩ শ্রাবণ  (১৮ জুলাই) :

 

          করোনাভাইরাসজনিত রোগ (কোভিড-১৯) সংক্রমণের পরিস্থিতি বিবেচনায় মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের ১৩ জুলাই ২০২১ তারিখের এক স্মারকে ২৩ জুলাই সকাল ৬টা থেকে ৫ আগস্ট দিবাগত রাত ১২টা পর্যন্ত বিধি-নিষেধ আরোপ করা হয়েছে।

 

          নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের ১৫ জুন ২০২১ তারিখের এক স্মারকে উল্লিখিত প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে নির্বাচন কমিশন একাদশ জাতীয় সংসদের ২৩১ সিলেট-৩ শূন্য আসনের নির্বাচনের দিন ধার্য করেছে এবং ১১ জুলাই ২০২১ তারিখের এক স্মারকে ২৮ জুলাই ২০২১ তারিখ সংশ্লিষ্ট নির্বাচনি এলাকা বিধি-নিষেধের আওতাবহির্ভূত রাখার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে।

 

          এমতাবস্থায়, যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালন করে ২৮ জুলাই ২০২১ তারিখে অনুষ্ঠেয় একাদশ জাতীয় সংসদের ২৩১ সিলেট-৩ আসনের নির্বাচন, সংশ্লিষ্ট নির্বাচনি এলাকায় নির্বাচন সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন কার্যক্রম এবং এতদসঙ্গে সংযুক্ত সরকারি ও বেসরকারি বিভিন্ন অফিস ও স্থাপনা এ বিধি-নিষেধের আওতাবর্হিভূত রাখা হয়েছে।

 

          মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ আজ এ সংক্রান্ত আদেশ জারি করে।

 

#

 

রেজাউল/মাসুম/রেজুয়ান/মোশারফ/সেলিম/২০২১/১৮৩০ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                     নম্বর : ৩৩৩৭ 

 

বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি  মূল্যায়নে প্রথম পুরস্কার পেল আইসিটি বিভাগ

 

ঢাকা, ৩ শ্রাবণ  (১৮ জুলাই) :

 

          সরকারি কাজে স্বচ্ছতা, দক্ষতা, দায়বদ্ধতা বৃদ্ধি, সুশাসন প্রতিষ্ঠা ও প্রাতিষ্ঠানিক সক্ষমতা উন্নয়নে বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি (এপিএ) মূল্যায়নে সকল মন্ত্রণালয় ও বিভাগের মধ্যে সেরা হয়ে  প্রথম পুরস্কার  অর্জন করেছে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ।

 

          ২০১৯-২০ অর্থবছরের বার্ষিক কর্মসম্পাদনে ৫১টি মন্ত্রণালয় ও বিভাগের মধ্যে সর্বোচ্চ ৯৪ দশমিক ৯৭ নম্বর পেয়ে প্রথম স্থান অর্জন করেছে আইসিটি বিভাগ।

 

          রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত মূল অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক আইসিটি বিভাগের সিনিয়র সচিব এন এম জিয়াউল আলমের নিকট এ পুরস্কার হস্তান্তর করেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণভবন প্রান্ত থেকে ভার্চুয়ালি  পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে যুক্ত ছিলেন।

 

          উল্লেখ্য, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ও প্রধানমন্ত্রীর আইসিটি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব আহমেদ ওয়াজেদের দিকনির্দেশনায় বিগত ১২ বছরে তথ্যপ্রযুক্তি খাতের যথাযথ অবকাঠামো গড়ে উঠার কারণে কোভিড-১৯ মহামারিতেও শিক্ষা, স্বাস্থ্য, কৃষি, আদালত ও সরবরাহ ব্যবস্থা সচল রাখা সম্ভব হয়েছে।

 

          দেশে করোনা শনাক্ত হওয়ার পরপরই প্রধানমন্ত্রীর আইসিটি বিষয়ক উপদেষ্টার পরিকল্পনা অনুযায়ী আইসিটি বিভাগের উদ্যোগে করোনা পরিস্থিতিতে সবকিছু স্বাভাবিক রাখতে ‘বিজনেস কন্টিনিউটি প্লান’ প্রণয়ন করা হয়। এছাড়াও করোনা মহামারি মোকাবিলায় ভ্যাকসিন ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম ‘সুরক্ষা’ অ্যাপস , করোনা বিডি অ্যাপ এবং কন্টাক্ট ট্র্যাসিং অ্যাপ, করোনা পোর্টাল, করোনা হেল্পলাইন ৩৩৩, টেলি-হেলথ স

2021-07-18-17-02-cbadb55c78b3ccac7ad656cc82826bee.doc 2021-07-18-17-02-cbadb55c78b3ccac7ad656cc82826bee.doc

Share with :

Facebook Facebook