তথ্য অধিদফতর (পিআইডি) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ৯ সেপ্টেম্বর ২০২১

তথ্যবিবরণী ৯ সেপ্টেম্বর ২০২১

Handout                                                                                                                 Number : 4341

 

No propaganda could obstruct the establishment of Safari Park in Juri

                                                                                       --- Shahab Uddin

 

Baralekha (Moulvibazar), 9 September :

 

            Minister of Environment, Forest and Climate Change Md. Shahab Uddin said a Safari Park is being constructed at Lathitila in Juri upazila to conserve the forest and wildlife.  Although the people of Juri Upazila are united, a few are engaged in propaganda in this regard. The minister said no propaganda could obstruct the establishment of Bangabandhu Safari Park in Juri.

 

            Environment Minister said this while speaking as the chief guest at a view exchange meeting on the occasion of the inauguration of the second and third floors of the academic building of Dakshinbhag NCM High School in Baralekha upazila of Moulvibazar district on Thursday afternoon.  The government is spending 85 lakh tk in this regard.

 

            The Environment Minister said the country is moving towards rapid development and prosperity under the leadership of Prime Minister Sheikh Hasina. Setting up of new Industries and factories are going on in the full swing. The Awami League government is working to generate 60,000 MW of electricity in the country in 2041. Everyone has to acknowledge the recent huge development that has taken place in the country.

 

            Baralekha Upazila Nirbahi Officer Khondaker Mudassir Bin Ali presided over the meeting.  Baralekha Upazila Parishad Chairman Sohaib Ahmed, former Upazila Chairman and Upazila Awami League General Secretary Rafiqul Islam Sundar and Headmaster of the High School Asuk Ahmed spoke on the occasion as the Special Guest.

 

#

 

Dipankar/Nice/Rofiqul/Abbas/2021/2005 Hours

তথ্যবিবরণী                                                                                                       নম্বর :  ৪৩৪০

 

দেশকে একটি উন্নত দেশে পরিণত করতে দক্ষ মানবসম্পদের বিকল্প নেই

                                                 ---প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী

 

ঢাকা, ২৫ ভাদ্র (৯ সেপ্টেম্বর) :  

 

          প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মোঃ জাকির হোসেন বলেছেন, দেশের মানুষের জীবনমান উন্নয়ন ও দেশকে একটি উন্নত দেশে পরিণত করার লক্ষ্যে  বর্তমান সরকারের গৃহীত ভিশন ২০২১ ও ভিশন ২০৪১ বাস্তবায়নে  দক্ষ মানবসম্পদের বিকল্প নেই। এ লক্ষ্যে সাক্ষরতা ও দক্ষতা উন্নয়নের জন্য মৌলিক সাক্ষরতার সাথে প্রি-ভোকেশনালসহ জীবনব্যাপী শিক্ষার ওপর  গুরুত্বারোপ করে বিভিন্ন কর্মসূচি বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। 

 

          প্রতিমন্ত্রী আজ রাজধানীর তেজগাঁওয়ে উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যুরোর সম্মেলন কক্ষে আন্তর্জাতিক সাক্ষরতা দিবস ২০২১ উপলক্ষ্যে  আয়োজিত ‘মানবসম্পদ উন্নয়নে সাক্ষরতার ভূমিকা’ শীর্ষক গোলটেবিল আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন। 

 

          প্রতিমন্ত্রী বলেন, বর্তমান বিশ্ব বদলে যাওয়ার নিয়ামক শক্তি তথ্যপ্রযুক্তি। অদক্ষ শ্রমিককে দক্ষ করে তোলার জন্য প্রযুক্তিগত ও কারিগরি প্রশিক্ষণের প্রয়োজন। নিরক্ষর জনগোষ্ঠীকে সাক্ষরতা শিক্ষার পাশাপাশি  আইসিটিভিত্তিক সেবা ও প্রি-ভোকেশনাল প্রশিক্ষণের কথা বিবেচনা করে আমরা  'জীবনব্যাপী শিক্ষা' কর্মসূচি নামক স্থায়ী কার্যক্রম গ্রহণ করেছি। এই  কর্মসূচির আওতায় নিরক্ষর জনগোষ্ঠী উন্নত প্রযুক্তি দক্ষতা প্রশিক্ষণ গ্রহণ করে পেশাগত দক্ষতা অর্জনের  মাধ্যমে দেশ-বিদেশে কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করবে এবং প্রচুর রেমিট্যান্স  অর্জন করে দেশকে অর্থনৈতিকভাবে স্বয়ংসম্পূর্ণ করতে সহায়ক ভূমিকা পালন করবে।

 

          উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যুরোর মহাপরিচালক মোঃ আতাউর রহমানের সভাপতিত্বে গোলটেবিল আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব রতন চন্দ্র পন্ডিত, মোঃ আবু বকর সিদ্দিক, মোঃ রুহুল আমিন ও মোঃ মোশাররফ হোসেন।     

 

          বিভিন্ন বেসরকারি সংস্থা হতে আগত প্রতিনিধিবৃন্দ মানবসম্পদ উন্নয়নে সাক্ষরতা ও কারিগরি প্রশিক্ষণের প্রয়োজনীয়তার ওপর বিশেষজ্ঞ মতামত গোলটেবিল আলোচনা সভায় উপস্থাপন করেন। 

 

#

 

রবীন্দ্রনাথ/নাইচ/রফিকুল/আব্বাস/২০২১/১৯৫৬ ঘণ্টা 

তথ্যবিবরণী                                                                                                                নম্বর : ৪৩৩৯

 কোনো অপপ্রচার জুড়ীতে বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্ক স্থাপনে প্রতিবন্ধিতা সৃষ্টি করতে পারবে না

                                                                                                                 -- পরিবেশ ও বনমন্ত্রী

বড়লেখা (মৌলভীবাজার), ২৫ ভাদ্র (৯ সেপ্টেম্বর) :

          পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন বলেছেন, বনভূমি ও বন্যপ্রাণী রক্ষার জন্যই জুড়ী উপজেলার লাঠিটিলায় সাফারি পার্ক নির্মাণ করা হচ্ছে। জুড়ী উপজেলাবাসী ঐক্যবদ্ধ থাকলেও এবিষয়ে কেউ কেউ অপপ্রচারে লিপ্ত রয়েছে। তিনি বলেন, কোনো অপপ্রচার জুড়ীতে বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্ক স্থাপনে প্রতিবন্ধকতা  সৃষ্টি করতে পারবে না।

          মন্ত্রী আজ মৌলভীবাজার জেলার বড়লেখা উপজেলার দক্ষিণভাগ এনসিএম উচ্চ বিদ্যালয়ের একাডেমিক ভবনের দ্বিতীয় ও তৃতীয় তলার ঊর্ধ্বমুখী সম্প্রসারণ কাজের শুভ উদ্বোধন উপলক্ষ্যে আয়োজিত মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। এতে সরকারের ব্যয় হচ্ছে ৮৫ লাখ টাকা।

           মো. শাহাব উদ্দিন বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ দ্রুত উন্নতি ও সমৃদ্ধির দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। শিল্প-কারখানা গড়ে উঠছে। আওয়ামী লীগ সরকার ২০৪১ সালে দেশে ৬০ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনের লক্ষ্যে কাজ করছে। আজ দেশের যে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে, তা সবাইকেই স্বীকার করতে হবে।

          বড়লেখা উপজেলা নির্বাহী অফিসার খন্দকার মুদাচ্ছির বিন আলীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বড়লেখা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সোয়েব আহমদ, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম সুন্দর এবং বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আসুক আহমদ।

#

দীপংকর/নাইচ/রফিকুল/জয়নুল/২০২১/১৯৩০ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                       নম্বর :  ৪৩৩৮

কোভিড-১৯ সংক্রান্ত সর্বশেষ প্রতিবেদন

ঢাকা, ২৫ ভাদ্র (৯ সেপ্টেম্বর) :  

            স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এবং রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর)-এর তথ্যানুযায়ী গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ২৯ হাজার ৫৪১ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ২ হাজার ৫৮৮ জনের শরীরে করোনা সংক্রমণ পাওয়া গেছে। এ নিয়ে বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত কোভিড-১৯ আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ১৫ লাখ

২৪ হাজার ৮৯০ জন। 

          গত ২৪ ঘণ্টায় ৫৮ জন-সহ এ পর্যন্ত ২৬ হাজার ৭৯৪ জন এ রোগে মৃত্যুবরণ করেছেন।

          করোনা ভাইরাস আক্রান্তদের মধ্যে এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ১৪ লাখ ৬৮ হাজার ২১১ জন।

#

ফেরদৌস/নাইচ/রফিকুল/আব্বাস/২০২১/১৮৩৮ ঘণ্টা

 

তথ্যবিবরণী                                                                                                       নম্বর :  ৪৩৩৭

নবায়নযোগ্য জ্বালানি নীতিমালা বাস্তবায়নে বছরভিত্তিক রোডম্যাপ করা হয়েছে

                                                                                                      ---বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী

ঢাকা, ২৫ ভাদ্র (৯ সেপ্টেম্বর) :  

 

          বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেছেন, নবায়নযোগ্য জ্বালানি নীতিমালা বাস্তবায়ন করতে বছরভিত্তিক রোডম্যাপ করা হয়েছে। সোলার হোম সিস্টেম বাস্তবায়নে বাংলাদেশ বিশ্বে প্রথম। ৬০ লাখ সোলার হোম সিস্টেমের মাধ্যমে ২ কোটিরও বেশি অফগ্রিড এলাকার লোকজন বিদ্যুতায়নের আওতায় আনা হয়েছে। 

          প্রতিমন্ত্রী, আজ অনলাইনে কার্বন নিরপেক্ষতা ও সবুজ উন্নয়নের দিকে একটি পথ নির্মাণের লক্ষ্যে “The International Forum For Energy Transition  2021” শীর্ষক ওয়েবিনারের ‘মূলবক্তব্য’ আলোচনায় বক্তব্যকালে এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, সৌরবিদ্যুৎ বাড়ানোর লক্ষ্যে সরকার সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের রুপটপ সোলার ব্যবহারের উদ্যোগ নিয়েছে। ইলেকট্রিক ভেহিক্যাল চার্জিং ও পরিচালনা গাইডলাইন তেরি করা হয়েছে। জাইকা জিরো কার্বন নিঃসরণকে উৎসাহিত করতে জ্বালানি ও বিদ্যুৎ এর সমন্বিত মহাপরিকল্পনা প্রস্তুত করার কাজ করছে । এই মহাপরিকল্পনা ফসিল ফুয়েলকে নিরুৎসাহিত এবং নবায়নযোগ্য জ্বালানিকে উৎসাহিত করবে। ইতোমধ্যে ৮৪৫১ মেগাওয়াট ক্ষমতার ১০টি কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র বাতিল করা হয়েছে। বাংলাদেশ গ্রিণ ও ক্লিন এনার্জির ব্যবহার বাড়াতে বদ্ধপরিকর। আর্থসামাজিক অবস্থার উন্নয়ন ও পরিবেশ সংরক্ষণের মাঝে সমতা বিধান করেই বাংলাদেশ সকল উন্নয়ন করবে। 

            State Grid Corporation fo China-এর নির্বাহী ভাইস প্রেসিডেন্ট Pang Xiaogang-এর সঞ্চালনায় State Grid Corporation fo China (SGCC) এবং International Renewable Energy Agency (IRENA)-এর যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মাঝে মিশরের বিদ্যুৎ ও নবায়নযোগ্য জ্বালানি বিষয়ক মন্ত্রী Dr. Mohamed Shakar El Markaby, জাতিসংঘ মহাসচিবের টেকসই জ্বালানি বিষয়ক বিশেষ প্রতিনিধি Damilola Ogunbiyi, ওয়ার্ল্ড এনার্জি কাউন্সিলের মহাসচিব Dr. Angela Wilkinson ও State Grid Corporation fo China-এর নির্বাহী চেয়ারম্যান Xin Baoan সংযুক্ত থেকে বক্তব্য রাখেন। 

#

আসলাম/নাইচ/রফিকুল/আব্বাস/২০২১/১৮৩৭ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                                নম্বর : ৪৩৩৫

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শ্রেণি কার্যক্রম চালুর প্রস্তুতি সংক্রান্ত

সংশোধিত গাইডলাইন প্রকাশ করেছে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতর

ঢাকা, ২৫ ভাদ্র (৯ সেপ্টেম্বর) :

          কোভিড-১৯ পরিস্থিতি বিবেচনায় জনস্বাস্থ্য ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শ্রেণি কার্যক্রম চালু করতে প্রস্তুতি সংক্রান্ত সংশোধিত গাইডলাইন প্রকাশ করেছে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতর। আজ এই গাইডলাইন প্রকাশ করা হয়।

          কোভিড-১৯ অতিমারির কারণে গত  বছরের ১৭ মার্চ থেকে দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোয় সরাসরি শ্রেণি কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে। প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক স্তরের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আগামী ১২ সেপ্টেম্বর শ্রেণি কার্যক্রম শুরু হবে। দেশের সকল মাধ্যমিক, স্কুল, কলেজ, উচ্চ মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক স্তরের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের জন্য স্বাস্থ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করাসহ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোকে স্বাস্থ্যসম্মতভাবে প্রস্তুত করার জন্য সংশোধিত ১৯ দফা গাইডলাইন দেওয়া হয়েছে। গাইডলাইনে বর্তমানে কোভিড সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে আসতে শুরু করায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার সরকারি সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে প্রস্তুতিমূলক ব্যবস্থা আগামী ১১ সেপ্টেম্বরের মধ্যে যথাযথভাবে পালন করার জন্য অনুরোধ জানানো হয়।

          ১) শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রবেশমুখসহ অন্যান্য স্থানে কোভিড-১৯ অতিমারি সম্পর্কিত স্বাস্থ্যবিধি পালনে করণীয় বিষয়সমূহ ব্যানার বা অন্য কোনো উপায়ে প্রদর্শনের ব্যবস্থা করতে হবে। ২) শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রবেশপথে সকল শিক্ষক, কর্মচারী, শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের তাপমাত্রা পরিমাপক যন্ত্রের মাধ্যমে নিয়মিত তাপমাত্রা মাপা ও তা পর্যবেক্ষণ করার ব্যবস্থা করা। ৩) শিক্ষার্থীদের ভিড় এড়ানোর জন্য প্রতিষ্ঠানের সবগুলো প্রবেশমুখ ব্যবহার করার ব্যবস্থা। আর যদি কেবল একটি প্রবেশমুখ থাকে সেক্ষেত্রে একাধিক প্রবেশমুখের ব্যবস্থা করার চেষ্টা করা। ৪) প্রতিষ্ঠান খোলার প্রথম দিনে শিক্ষার্থীদের আনন্দঘন পরিবেশে শ্রেণি কার্যক্রমে স্বাগত জানানোর ব্যবস্থা করা। ৫) প্রতিষ্ঠান খোলার প্রথম দিন শিক্ষার্থীরা কীভাবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে প্রতিষ্ঠানে অবস্থান করবে এবং বাসা থেকে যাওয়া-আসা করবে সে বিষয়ে শিক্ষণীয় ও উদ্বুদ্ধকারী ব্রিফিং দেওয়ার ব্যবস্থা করা। এ ছাড়া মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরের ভিডিও প্রদর্শনের ব্যবস্থা করা। ৬) প্রতিষ্ঠানের একটি কক্ষ প্রাথমিক চিকিৎসার ব্যবস্থাসহ আইসোলেশন কক্ষ হিসেবে প্রস্তুত রাখা। ৭) প্রতিষ্ঠানের সব ভবনের কক্ষ, বারান্দা, সিঁড়ি, ছাদ এবং আঙিনা যথাযথভাবে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করার ব্যবস্থা করা। ৮) প্রতিষ্ঠানের সব ওয়াশরুম নিয়মিত ও সঠিকভাবে পরিষ্কার রাখা এবং পর্যাপ্ত পানির ব্যবস্থা করা। ৯) প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক, শিক্ষার্থী, কর্মচারী এবং অভিভাবক প্রবেশের সময় সরকারের দেওয়া স্বাস্থ্যবিধি যথাযথভাবে প্রতিপালনের ব্যবস্থা করা। ১০) প্রতিষ্ঠানের সব শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও কর্মচারীর সঠিকভাবে মাস্ক (সম্ভব হলে কাপড়ের মাস্ক) পরিধান করার বিষয়টি নিশ্চিত করা। ১১) প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন স্থানে সাবান বা হ্যান্ডওয়াশ দ্বারা হাত ধোয়ার এমন ব্যবস্থা করা যাতে শিক্ষার্থীরা ক্লাসে ঢোকার আগে সাবান দিয়ে হাত ধুতে পারে। ১২) শ্রেণিকক্ষে শিক্ষার্থীদের বসার ক্ষেত্রে স্বাস্থ্যবিধি যথাযথভাবে অনুসরণ করা। এক্ষেত্রে পারস্পরিক ৩ (তিন) ফুট শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখার ব্যবস্থা করা। ১৩) শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের খেলার মাঠ, ড্রেন ও বাগান যথাযথভাবে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করা এবং কোথাও পানি জমে না থাকে তা নিশ্চিত করার ব্যবস্থা করা। ১৪) প্রতিষ্ঠানসমূহে শিক্ষক, শিক্ষার্থীদের উপস্থিতির সংখ্যা নিরূপণ করা। ১৫) প্রতিষ্ঠানের সকল শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি নিশ্চিত করার ব্যবস্থা করা। ১৬) স্বাস্থ্যবিধি যথাযথভাবে প্রতিপালন করা হচ্ছে কিনা তা পর্যবেক্ষণ ও বাস্তবায়নের জন্য প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকবৃন্দের সমন্বয়ে কমিটি গঠন করা। ১৭) প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্যবিধি মেনে আনন্দঘন শিখন কার্যক্রমের মাধ্যমে শ্রেণি কার্যক্রম পরিচালিত করা। ১৮) প্রতিষ্ঠানের প্রয়োজনীয় অবকাঠামোগত মেরামত, বৈদ্যুতিক মেরামত এবং পানি সংযোগজনিত মেরামত সম্পন্ন করা। ১৯) প্রতিষ্ঠানের ম্যানেজিং কমিটি ও অভিভাবকদের সঙ্গে সভা করে এতদসংক্রান্ত বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা।

#

খায়ের/নাইচ/রফিকুল/জয়নুল/২০২১/ ১৮৩০ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                                 নম্বর : ৪৩৩৪

 

সকল জেলায় নারী উদ্যোক্তাদের পণ্য বিক্রির জন্য বিক্রয় ও প্রদর্শনী কেন্দ্র প্রতিষ্ঠা করা হবে

                                                                                                                       -- প্রতিমন্ত্রী ইন্দিরা

ঢাকা, ২৫ ভাদ্র (৯ সেপ্টেম্বর) :

          মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা বলেছেন, ‘নারী উদ্যোক্তারা জয়িতা, অঙ্গনা, চারুলতা ও সোনারতরী ব্রান্ডে তাদের উৎপাদিত পণ্য বিক্রি করছে। আরো আশিটি বিক্রয় ও প্রদর্শনী কেন্দ্র প্রতিষ্ঠা করা হচ্ছে এবং দেশের সকল জেলায় এ কেন্দ্র প্রতিষ্ঠা করা হবে। ই-জয়িতা আনন্দ মেলা ও লাল সবুজ অনলাইন প্ল্যাটফর্মেও নারী উদ্যোক্তারা পণ্য বিক্রি করছে’।

          মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা আজ বৃহস্পতিবার ঢাকায় বাংলাদেশ শিশু একাডেমির সম্মেলন কক্ষে মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের আয়োজনে নিবন্ধিত স্বেচ্ছাসেবী মহিলা সমিতিসমূহের মধ্যে অনুদানের চেক বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় ভার্চুয়ালি এসব কথা বলেন।

          প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা বলেন, শহরের আধুনিক সুবিধা গ্রামে পৌঁছে দিতে সরকার  “আমার গ্রাম, আমার শহর” প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে। মুজিববর্ষে নির্মাণ করা হচ্ছে ‘বঙ্গবন্ধু মডেল ভিলেজ’। এর ফলে গ্রামের মানুষের আয় বৃদ্ধি পাবে ও নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টি হবে। গ্রামের মানুষের জীবন-যাত্রার মানের উন্নয়ন হবে। এ সময় তিনি স্বেচ্ছাসেবী মহিলা সমিতির নেতৃবৃন্দদের বঙ্গবন্ধুর সমবায় সমিতির ভাবনার আলোকে গ্রামীণ নারীদের কর্মসংস্থান সৃষ্টি ও অর্থনৈতিক উন্নয়নে কাজ করার আহ্বান জানান।

          ফজিলাতুন নেসা বলেন, বিশ হাজার নিবন্ধিত স্বেচ্ছাসেবী মহিলা সমিতি নারীদের প্রশিক্ষণ, বাল্যবিয়ে-যৌতুক প্রতিরোধ এবং নারী ও শিশু নির্যাতন রোধে বিভিন্ন সচেতনতামূলক কার্যক্রম পরিচালনা করছে। স্বেচ্ছাসেবী মহিলা সমিতির এলাকায় একটা বাল্য বিয়েও যেন না হয়, সেই লক্ষ্যে কাজ করতে হবে। কোভিডে ক্ষতিগ্রস্ত নারীদের পাশে দাঁড়াতে হবে।

          মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের মহাপরিচালক রাম চন্দ্র দাসের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ সায়েদুল ইসলাম ও জাতীয় মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান চেমন আরা তৈয়ব। ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে সকল জেলা প্রশাসক ও অধিদপ্তরের মাঠপর্যায়ের কর্মকর্তাগণ সংযুক্ত ছিলেন।

          উল্লেখ্য, ২০২০-২১ অর্থবছরে তিনটি ক্যাটেগরিতে দেশের ৩ হাজার ৫১৭টি নিবন্ধিত স্বেচ্ছাসেবী মহিলা সমিতির মাঝে এগার কোটি তিরাশি লাখ পঁচিশ হাজার টাকা অনুদান বিতরণ করা হয়।

#

আলমগীর/নাইচ/রফিকুল/জয়নুল/২০২১/১৮২০ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                                  নম্বর : ৪৩৩৩

 

বিএনপি বাংলার ইতিহাসের কালো অধ্যায়

                             - তথ্য প্রতিমন্ত্রী                                                                  

জামালপুর,  ২৫ ভাদ্র (৯ সেপ্টেম্বর) :   

 

          তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান বলেছেন, বিএনপি বাংলার ইতিহাসের কালো অধ্যায়। দেশকে শান্তি, উন্নয়ন, গণতন্ত্র, অসাম্প্রদায়িক বৈষম্য মুক্তির ধাপে নিয়ে যেতে হলে এই শত্রুকে ধ্বংস করতে হবে। ইতিহাসের ডাস্টবিন বিএনপিকে নিয়ে আমরা গণতন্ত্রের পথে হাঁটতে পারবো না। খালেদা জিয়ার চক্রান্ত এখনো অব্যাহত আছে। কোনো খুনিকে বাংলাদেশের রাজনীতিতে হালাল হতে দেবো না। উন্নয়নের অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখতে সবাই দেশপ্রেমে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে।

 

          আজ  জামালপুরের সরিষাবাড়ির বয়ড়া ইসরাইল আহাম্মেদ উচ্চ বিদ্যালয় মিলনায়তনে পোগলদিঘা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের আয়োজিত বর্ধিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

 

          প্রতিমন্ত্রী বলেন, জাতির পিতার খুনি জিয়াউর রহমানই দেশে গুম-খুনের রাজনীতি শুরু করেন এবং ধারা অব্যাহত রেখেছেন খালেদা জিয়া। এদের আর সুযোগ দেয়া যাবে না। দেশে রাজনীতি হবে বঙ্গবন্ধুর আদর্শে।

 

          পোগলদিঘা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি একেএম ফজলুল হকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ছানোয়ার হোসেন বাদশা, সাধারণ সম্পাদক উপাধ্যক্ষ হারুন অর রশীদ, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আব্দুল আলিম, পোগলদিঘা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সমন্বয়ক বাবু নারায়ন চন্দ্র পাল রানা। 

 

          পরে তিনি সরিষাবাড়ি উপজেলাধীন ডোয়াইল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ এর বর্ধিত সভায় অংশগ্রহণ করেন।

#

 

গিয়াস/পরীক্ষিৎ/শাম্মী/কুতুব/২০২১/১৬৩৫ ঘণ্টা 

 

তথ্যবিবরণী                                                                                নম্বর : ৪৩৩২

জনগণের জীবনমানের উন্নয়নে সংসদীয় কার্যক্রম গতিশীল ও জোরদার করতে হবে

                                                                                      - স্পিকার                                                                    

ভিয়েনা, ২৫ ভাদ্র (৯ সেপ্টেম্বর) :   

         স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেছেন, সংসদ জনগণের আশা-আকাঙ্ক্ষার প্রতীক। সংসদ সদস্য ও জনপ্রতিনিধিগণ জনগণের কল্যাণে দায়িত্বশীল ভূমিকা রাখেন। সরকারের স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করে জনগণের জীবনমানের উন্নয়নে আইনের শাসন, স্বচ্ছতা ও সুশাসন সমুন্নত করে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে সংসদীয় কার্যক্রম গতিশীল ও জোরদার করতে হবে।

          ইন্টার-পার্লামেন্টারি ইউনিয়ন (আইপিইউ) এর উদ্যোগে এবং জাতিসংঘ ও অস্ট্রিয়ান পার্লামেন্টের সহযোগিতায় অস্ট্রিয়ার ভিয়েনায় অনুষ্ঠিত ৫ম ওয়ার্ল্ড কনফারেন্স অভ্ স্পিকার্স অভ্ পার্লামেন্ট-এর ‘পার্লামেন্টস এন্ড গ্লোবাল গভার্নেন্সঃ দ্যা আনফিনিশড এজেন্ডা’ শীর্ষক আলোচনায় গতকাল স্পিকার এসব কথা বলেন।

          স্পিকার বলেন, বিভিন্ন দেশের সংসদসমূহের সমন্বয়ের মাধ্যমে বহুপাক্ষিক সিদ্ধান্ত গ্রহণ প্রক্রিয়ায় জলবায়ু পরিবর্তন, অসমতা, লিঙ্গ বৈষম্য, গ্রিন হাউজ গ্যাস নিঃসরণ ও খাদ্য নিরাপত্তার মতো বৈশ্বিক চ্যালেঞ্জগুলো সম্মিলিতভাবে মোকাবেলা করতে হবে। দেশগুলোর মাঝে পারস্পরিক সহযোগিতা বৃদ্ধিতে সংসদীয় কূটনীতি ভূমিকা রাখছে এবং আইপিইউ ও জাতিসংঘ এক্ষেত্রে কাজ করছে। সংসদীয় কূটনীতি তথা আলোচনা ও সমঝোতার মাধ্যমে বিভিন্ন দেশের বিরাজমান সমস্যা ও চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করা সম্ভব।

          আলোচনা অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের সংসদীয় প্রতিনিধিদলের সংসদ সদস্য বদরুদ্দোজা মোঃ ফরহাদ হোসেন, রুমানা আলী এবং গ্লোরিয়া ঝর্ণা সরকার অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন। এছাড়া আর্মেনিয়া ন্যাশনাল এসেম্বলির চেয়ারম্যান এলেন সিমোনিয়ান, ভারত লোকসভার স্পিকার ওম বিরলা, বুরুন্ডির সিনেট স্পিকার ইমানুয়েল সিঞ্জোহাগেরা, মন্টেনিগ্রো সংসদের স্পিকার এলেস্কা বেসিস বক্তব্য রাখেন। অনুষ্ঠানে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের স্পিকারগণ উপস্থিত ছিলেন।

#

তারিক/পরীক্ষিৎ/শাম্মী/কুতুব/২০২১/১৫১৫ ঘণ্টা

Handout                                                                                        Number : 4331

Khondker M. Talha as new Ambassador to France

  Dhaka, 9 September:

            The Government has decided to appoint Khondker M. Talha, currently serving as the Director General of East Asia and Pacific Wing at the Ministry of Foreign Affairs, as the next Ambassador of Bangladesh to the Republic of France.

            Khondker Talha is a career foreign service officer of the 15th batch of Bangladesh Civil Service (BCS) Foreign Affairs Cadre. In his overseas assignments, he served at Bangladesh Permanent Missions to the UN in New York and Geneva where he was elected to the bureau of a number of UN and International Organisations.  He was also posted to Bangladesh Missions in Tehran and London in his distinguished diplomatic career. In his earlier stints at the headquarters, he served as the Chief of Protocol and also worked at South Asia and Multilateral Economic Affairs Wings in various capacities.

            Talha holds a Masters degree in Economics from Dhaka University, an MBA from IBA, Dhaka University and another Masters in Foreign Affairs and Trade from Monash University, Melbourne. He is married and blessed with a daughter and two sons.  

#

Ashiq/Parikshit/Shammi/Kutub/2021/1500 Hrs

2021-09-09-15-02-4d21a3b3baf1086c75e37a6aa9207c99.doc 2021-09-09-15-02-4d21a3b3baf1086c75e37a6aa9207c99.doc

Share with :

Facebook Facebook