তথ্য অধিদফতর (পিআইডি) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ২২nd মে ২০১৫

তথ্যবিবরণী 22/05/2015

তথ্যবিবরণী                                                                                      নম্বর : ১৪৮০
বাংলাদেশের স্বাস্থ্যখাতকে এগিয়ে নিতে
অর্থবরাদ্দ বাড়াতে হু’র প্রতি স¦াস্থ্যমন্ত্রীর আহ্বান
জেনেভা (সুইজারল্যান্ড), ২২ মে :
বাংলাদেশের স্বাস্থ্যখাতের উন্নয়নের ভূয়সী প্রশংসা করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মহাপরিচালক ড. মার্গারেট চ্যান বলেছেন, স্বাস্থ্যখাতে বাংলাদেশের সাফল্য থেকে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া অঞ্চলের অন্যান্য দেশের অনেক কিছুই গ্রহণ করার আছে।
আজ সুইজারল্যান্ডের জেনেভায় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ৬৮তম সম্মেলনে বাংলাদেশের প্রতিনিধিদের সঙ্গে এক আলোচনায় মার্গারেট চ্যান এসব কথা বলেন। আলোচনায় বাংলাদেশের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম, বাংলাদেশের অটিজম বিষয়ক জাতীয় পরামর্শক কমিটির চেয়ারম্যান ও বিশিষ্ট শিশু মনোবিজ্ঞান বিশেষজ্ঞ সায়মা ওয়াজেদ হোসেন উপস্থিত ছিলেন।
বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার পক্ষ থেকে সবধরনের সহযোগিতার আশ্বাস দিয়ে ড. মার্গারেট চ্যান বলেন, বাংলাদেশ কয়েকদশক ধরে অনেক চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হওয়া সত্ত্বেও সামগ্রিক স্বাস্থ্যসেবার উন্নয়ন এবং গড় আয়ুবৃদ্ধিতে দেশটি যে অসাধারণ অগ্রগতি সাধন করেছে তা আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত। নারী ও শিশু স্বাস্থ্যরক্ষায় বাংলাদেশের সাফল্য বিশ্বে অনুকরণীয় হয়ে থাকবে। একত্রিত হয়ে কাজ করলে স্বাস্থ্যসংশ্লিষ্ট সমস্যা মোকাবিলায় আমরা জয়ী হতে পারবো।
বৈঠকে বাংলাদেশের স্বাস্থ্যমন্ত্রী বিশ্বব্যাংকের মহাপরিচালককে আগামী নভেম্বরে এইচআইভি-এইডস আক্রান্তদের নিয়ে বাংলাদেশে অনুষ্ঠেয় ‘আইক্যাপ’ সম্মেলনে অংশগ্রহণের আহ্বান জানান। তিনি বাংলাদেশের স্বাস্থ্যখাতকে আরো এগিয়ে নিতে অর্থবরাদ্দ বাড়াতে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মহাপরিচালকের প্রতি আহ্বান জানান।
এর আগে ‘অটিজম স্পেকট্রাম ডিসঅর্ডারস-ফ্রম রেজুলেশন টু গ্লোবাল অ্যাকশন’ শীর্ষক পার্শ্বসভায় অটিজম মোকাবিলায় বাংলাদেশে গৃহীত বিভিন্ন উদ্যোগ ও পরবর্তী করণীয় তুলে ধরে সায়মা ওয়াজেদ হোসেন বলেন, গত ২০১১ সাল থেকে এ পর্যন্ত অটিজম মোকাবিলায় বাংলাদেশে ব্যাপক সফলতা এসেছে। এ বিষয়ে দেশের মানুষ এখন ধারণা অর্জন করেছে। গড়ে উঠেছে সামাজিক সচেতনতামূলক কার্যক্রম। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে আইন ও জাতীয় নীতিমালা প্রণীত হয়েছে। প্রতিবন্ধীদের তালিকা সংগ্রহের কার্যক্রম চলছে। দেশের শিক্ষক, স্বাস্থ্যখাতের চিকিৎসক, নার্স এবং সংশ্লিষ্ট সকলের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হয়েছে, যা অব্যাহত রয়েছে। অভিভাবকদের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধির বিভিন্ন উদ্যোগ বাস্তবায়নাধীন রয়েছে।
সম্মেলনে উপস্থিত বিভিন্ন দেশের প্রতিনিধিদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, এ বিষয়ে সফলতা পেতে বাড়াতে হবে ক্ষমতায়ন এবং শিক্ষিত অভিভাবকের সংখ্যা। পলিসি ও লিগ্যাল ফ্রেমওয়ার্কসমূহ চিহ্নিত করতে হবে। সব স্টেকহোল্ডারদের এগিয়ে আসতে হবে। বাড়াতে হবে ক্যাপাসিটি বিল্ডিং। দেশের বিদ্যমান সরকারি অবকাঠামো বিশেষ করে স্বাস্থ্য, শিক্ষা ও কর্মসংস্থান অবকাঠামোতে প্রতিবন্ধী ইস্যুসমূহ সম্পৃক্ত করতে হবে। আর গড়ে তুলতে হবে দীর্ঘমেয়াদি সামাজিক নিরাপত্তা। এ বিষয়ে মনিটরিং ও গবেষণা পরিচালনাও  দরকার।
 সম্মেলনে অংশগ্রহণকারী বাংলাদেশ, ভারত, ইতালি, জাপান, মালয়েশিয়া, দক্ষিণ কোরিয়া, রুমানিয়া, থাইল্যান্ড ও ভুটানের স্বাস্থ্যমন্ত্রীরা এ সভায় বক্তব্য রাখেন।
বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়ক টেকনিক্যাল অ্যাডভাইজারি গ্রুপের সদস্য সায়মা ওয়াজেদ হোসেন এ অনুষ্ঠানে বিশেষ প্রবন্ধ পাঠ করে অটিজম নিয়ে বিশ্বব্যাপী এবং বাংলাদেশে গৃহীত বিভিন্ন উদ্যোগ ও পরবর্তী করণীয় তুলে ধরেন। ভারতের স্বাস্থ্যমন্ত্রী জগত প্রকাশ নাড্ডা এতে সভাপতিত্ব করেন।
অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্যদানকালে স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেন, অটিজম মোকাবিলায় বিনিয়োগ বাড়ালে সমাজ অধিক লাভবান হবে। অটিজমের জটিলতা এবং সার্বিক প্রভাব ব্যাপক। এটা ব্যক্তির শারীরিক, মানসিক স্বাস্থ্য, সামাজিক এবং অর্থনৈতিক ক্ষেত্রেও নেতিবাচক প্রভাব ফেলে। ফলে বিশ্বের জনস্বাস্থ্য সমস্যায় অটিজম ও মানসিক স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপনাকে প্রাধান্য দিয়ে কর্মপরিকল্পনা গ্রহণে বিশ্ব নেতৃবৃন্দকে সচেষ্ট হতে হবে।
#
পরীক্ষিৎ/মিজান/নবী/সঞ্জীব/সেলিম/২০১৫/২২০০ ঘণ্টা

 

Handout                                                                                                  Number : 1479

 

Bangladesh High Commissioner meets Sri Lankan Fisheries Minister

 

Colombo (Sri Lanka), May 22:

 

Bangladesh High Commissioner to Sri Lanka Tarik Ahsan paid a courtesy call on the Minister of Fisheries and Aquatic Resources Development of Sri Lanka Mahinda Amraweera at the New Secretariat in Colombo on 20 May. The Secretary to the Ministry Nimal Hettiarachchi was also present during the Meeting. The High Commissioner was accompanied by a two-member business delegation from Bangladesh comprising Sarwar Hussain and  Azizus Samad Azad  Dawn.

 

During the meeting, the Bangladesh High Commissioner sought the support of the Minister in advancing the cooperation between Bangladesh and Sri Lanka in the fishing sector. The High Commissioner also highlighted the policy of Bangladesh government that encourages the involvement of private sector in tapping opportunities that have been created for Bangladesh in the Bay of Bengal following the amicable settlement of maritime boundary with Bangladesh’s neighbouring countries. The business delegation showed keen interest in collaborating with Sri Lankan counterparts in the areas of deep sea fishing.

 

The Minister assured cooperation in carrying forward cooperation between Bangladesh and Sri Lanka in production, management and protection of fish resources in the respective territories of the two friendly countries. Discussion focused on implementation and possible review of the existing Memorandum of Understanding on Cooperation in the Field of Fisheries between Bangladesh and Sri Lanka towards energizing cooperation particularly in areas of deep sea fishing, aquaculture, marine biotechnology, fish stock assessment, oceanography and human resources development in this sector.

 

#

 

Mizan/Nabi/Sanjib/Selim/2015/2040 Hrs

তথ্যবিবরণী                                                                                       নম্বর : ১৪৭৮

বৈষম্য ও সাম্প্রদায়িকতামুক্ত সমাজ গড়ে তোলার আহ্বান ভূমিমন্ত্রীর
                                 
ঢাকা, ৮ জ্যৈষ্ঠ (২২ মে) :

ভূমিমন্ত্রী শামসুর রহমান শরীফ বলেছেন, সাম্প্রদায়িক শক্তিকে এদেশ থেকে বিনাশ করতে আমাদের লড়াই অব্যাহত রয়েছে। বৈষম্য ও সাম্প্রদায়িকতামুক্ত সমাজ গড়ে তুলতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। সরকারের এ প্রচেষ্টায় তিনি সকলকে সম্পৃক্ত হওয়ার আহ্বান জানান।

মন্ত্রী আজ রাজধানীর বাংলা একাডেমির আবদুল করিম সাহিত্য বিশারদ মিলনায়তনে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ১১৬তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে ৫ম জাতীয় নজরুল কনভেনশন ও ‘বিশ্বজনীন নজরুল’ শীর্ষক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ আহ্বান জানান।

মন্ত্রী বলেন, বিদ্রোহী কবি কাজী নজরুল ইসলামের জীবনদর্শন, ভাবদর্শন এখনও আমরা বাস্তবায়ন করতে পারিনি। সমাজে সাম্প্রদায়িকতা ও বৈষম্য দূর করার কা-ারি লেখক ও কবি ছিলেন বাংলা সাহিত্যের অন্যতম এই পথিকৃৎ। তিনি বলেন, নজরুল সাহিত্যে প্রকাশিত হয়েছে ধর্মনিরপেক্ষতা ও জাতীয়তাবোধ। সকল অন্যায়, অত্যাচার ও কুসংস্কারের বিরুদ্ধে তাঁর লেখনী ছিল আপোসহীন। নজরুল ছিলেন বিদ্রোহের কবি, সাম্যের কবি, জাগরণের কবি- এককথায় তিনি বিশ্বমানবতার কবি। নজরুল সাহিত্য বাঙালির জীবন-সংগ্রামের প্রেরণার উৎস।

মন্ত্রী বলেন, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কাজী নজরুল ইসলামকে বাংলাদেশের নাগরিকত্ব প্রদান করে এদেশের জাতীয় কবি হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছিলেন। জাতীয় কবির জীবনাদর্শ সুখী সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ার অনুপ্রেরণা বলে তিনি উল্লেখ করেন।

৫ম জাতীয় নজরুল কনভেনশনের উদ্বোধন করেন প্রফেসর ইমিরেটাস ড. আনিসুজ্জামান। বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক অধ্যাপক শামসুজ্জামান খান, ভারতের বিশিষ্ট নজরুল গবেষক ও আন্তর্জাতিক নজরুল চর্চাকেন্দ্রের স্টিয়ারিং কমিটির চেয়ারম্যান ড. বাঁধন সেনগুপ্ত অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন।

আন্তর্জাতিক নজরুল চর্চাকেন্দ্রের জাতীয় কমিটির চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. করুণাময় গোস্বামীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে আন্তর্জাতিক নজরুল চর্চাকেন্দ্রের স্টিয়ারিং কমিটির মহাসচিব রাশেদুল হাসান শেলী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সংস্কৃত বিভাগের অধ্যাপক নিরঞ্জন অধিকারী, নজরুল সঙ্গীতশিল্পী খালিদ হোসেন ও বুলবুল মহালনবীশ উপস্থিত ছিলেন।

#

রেজুয়ান/মিজান/নবী/সঞ্জীব/সেলিম/২০১৫/২০৫০ঘণ্টা

 

তথ্যবিবরণী                                                                                                 নম্বর : ১৪৭৭

 

শিক্ষার গুণগতমান উন্নয়নে ডিপ্লোমা-ইন-এডুকেশন প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হয়েছে

                                                         -- প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী

 

ঢাকা, ৮ জ্যৈষ্ঠ (২২ মে) :

 

          প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান বলেছেন, ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে মধ্যমআয়ের দেশে উন্নীত করতে হলে জ্ঞানভিত্তিক সমাজ গড়ে তুলতে হবে। এজন্য বর্তমান সরকার সবার জন্য শিক্ষা নিশ্চিতকরণের  পাশাপাশি মানসম্পন্ন শিক্ষা প্রদানকল্পে শিক্ষকদের জন্য ১৮ মাসব্যাপী ডিপ্লোমা-ইন-এডুকেশন প্রশিক্ষণ প্রবর্তন করেছে।

 

          মন্ত্রী আজ রাজধানীর মিরপুরে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর সম্মেলনকক্ষে আন্তঃপিটিআই সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় একথা বলেন।

 

          প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মোঃ আলমগীরের  সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব মেছবাহ উল আলম, প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের পরিচালক মোঃ সামসুদ্দিন, মন্ত্রণালয় ও অধিদপ্তরের কর্মকর্তা ও কর্মচারী এবং সারাদেশ থেকে আগত পিটিআই’র প্রশিক্ষক, প্রশিক্ষণার্থী ও কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

 

          মন্ত্রী বলেন, দেশে ৫৫টি পিটিআই রয়েছে। এছাড়াও, পিটিআইবিহীন জেলায় আরো ১২টি পিটিআই স্থাপন করা হয়েছে যাতে কোনো শিক্ষক প্রশিক্ষণের বাইরে না থাকেন। এর ফলে শিক্ষার গুণগতমান আরো উন্নত হবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

 

          মন্ত্রী আন্তঃপিটিআই সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করেন।

 

          পরে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়।

 

#

 

রবীন্দ্রনাথ/মিজান/নবী/সঞ্জীব/সেলিম/২০১৫/১৯০০ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                 নম্বর : ১৪৭৬

 

নাশকতা সৃষ্টিকারীদের শাস্তির দাবিতে উত্তরবঙ্গ অভিমুখে জনতার অভিযাত্রা শুরু

 

ঢাকা, ৮ জ্যৈষ্ঠ (২২ মে) :

 

হরতাল-অবরোধের নামে পেট্রোলবোমা মেরে ড্রাইভার, হেলপার, নারী-শিশুসহ যাত্রী ও নিরীহ মানুষ খুন, যানবাহন ও বিভিন্ন অফিসে অগ্নিসংযোগ, ভাঙচুর, শিল্প-কারখানা, ব্যবসা-বাণিজ্য, ছাত্র-ছাত্রীদের শিক্ষাজীবন ধ্বংস করার জন্য সন্ত্রাস ও নাশকতা সৃষ্টিকারীদের শাস্তির দাবিতে  উত্তরবঙ্গ অভিমুখে জনতার অভিযাত্রা শুরু হয়েছে।

 

শ্রমিক কর্মচারী পেশাজীবী মুক্তিযোদ্ধা সমন্বয় পরিষদ জনতার অভিযাত্রা কর্মসূচির আয়োজন করেছে। শ্রমিক কর্মচারী পেশাজীবী মুক্তিযোদ্ধা সমন্বয় পরিষদের আহ্বায়ক এবং নৌপরিবহণমন্ত্রী  শাজাহান খান এ কর্মসূচিতে নেতৃত্ব দিচ্ছেন।

 

আজ ঢাকায় বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামের পূর্ব গেটসংলগ্ন বাংলাদেশ সড়ক পরিবহণ শ্রমিক ফেডারেশনের অফিস প্রাঙ্গণ থেকে জনতার অভিযাত্রা শুরু হয়।

 

অভিযাত্রার উদ্বোধনী বক্তব্যে শাজাহান খান বলেন, যতদিন হরতাল-অবরোধের নামে নাশকতাকারীদের শাস্তি না হবে, শ্রমিক কর্মচারী পেশাজীবী মুক্তিযোদ্ধা সমন্বয় পরিষদের আন্দোলন ততদিন চলবে। নাশকতা সৃষ্টিকারীরা বাংলাদেশকে সন্ত্রাসীরাষ্ট্র বানাতে চায়। তাদের স্বপ্ন আমরা ঐক্যবদ্ধভাবে প্রতিহত করবো। অভিযাত্রা কর্মসূচি সফল করার জন্য তিনি শ্রমিক কর্মচারী পেশাজীবী মুক্তিযোদ্ধাসহ সকলের প্রতি আহ্বান জানান।

 

মন্ত্রী বলেন, শ্রমিক ও শিল্প ধ্বংসের প্রতিবাদে আগামী ১০ জুলাই আদমজীতে শ্রমিক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে।

 

 সংসদ সদস্য শিরীন আক্তার, পরিবহণশ্রমিক নেতা ওসমান আলী, শ্রমিক নেতা জেড এম কামরুল আনাম, বিদ্যুৎশ্রমিক নেতা মোঃ আলাউদ্দিন মিয়া, ব্যাংককর্মচারী নেতা মোঃ কামালউদ্দিন, গার্মেন্টসশ্রমিক নেতা বদরুদ্দোজা নিজামসহ শ্রমিক কর্মচারী পেশাজীবী মুক্তিযোদ্ধা সমন্বয় পরিষদ ও বাংলাদেশ সড়ক পরিবহণ মালিক শ্রমিক ঐক্য পরিষদের  নেতৃবৃন্দ  অভিযাত্রায় অংশ নিচ্ছেন।

         

#

 

জাহাঙ্গীর/মিজান/সঞ্জীব/সেলিম/২০১৫/১৭০০ ঘণ্টা

Todays handout (5).doc Todays handout (5).doc

Share with :

Facebook Facebook