তথ্য অধিদফতর (পিআইডি) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২১

তথ্যবিবরণী ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২১

তথ্যবিবরণী                                                                                                     নম্বর :  ৪৩৯০

 

সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা সিরাজ বক্সের মৃত্যুতে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর শোক

 

ঢাকা, ২৯ ভাদ্র (১৩ সেপ্টেম্বর) :

 

          সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা ও সাবেক সহ সভাপতি সিরাজ বক্সের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন।

 

          মন্ত্রী এক শোকবার্তায় বলেন, বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ সিরাজ বক্স আওয়ামী লীগের দুর্দিনের একজন ত্যাগী ও একনিষ্ঠ নেতা হিসেবে সুপরিচিত ছিলেন। জীবদ্দশায় তিনি আওয়ামী লীগের বিভিন্ন পর্যায়ে দায়িত্ব পালনসহ বিভিন্ন সামাজিক কর্মকাণ্ডে সক্রিয় ছিলেন। সিলেট শহর আওয়ামী লীগের সকল আন্দোলন সংগ্রামে তিনি একজন সম্মুখ ভাগের সংগঠক ছিলেন।

 

          ড. মোমেন মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন এবং তাঁর শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

 

#

 

তৌহিদুল/সাহেলা/সেলিম/২০২১/২২:৪৫ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                               নম্বর : ৪৩৮৯

যুব সমাজকে ভবিষ্যতের উপযোগী করে গড়ে

তুলতে প্রযুক্তিগত  দক্ষতা অর্জনের বিকল্প নেই

                            -- আইসিটি প্রতিমন্ত্রী

ঢাকা, ২৯ ভাদ্র (১৩ সেপ্টেম্বর) :

          তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক তরুণ ও যুব সমাজই উন্নয়নের চালিকাশক্তি উল্লেখ করে বলেছেন, তাদেরকে ভবিষ্যতের উপযোগী করে গড়ে তুলতে তথ্যপ্রযুক্তিগত দক্ষতা অর্জনের বিকল্প নেই। তিনি বলেন, শিক্ষার্থীদের আইসিটি মেধা বিকাশে হুয়াওয়ের ‘সিডস ফর দ্য ফিউচার’ ভবিষ্যৎ উপযোগী প্রযুক্তিগত দক্ষতা বিকাশেই নয়, পাশাপাশি একটি ইকোসিস্টেম গড়ে তোলার মাধ্যমে  এই খাতে দক্ষ ব্যক্তিদের কাজের সুযোগ করে দিচ্ছে।

          আজ ভার্চুয়াল মাধ্যমে হুয়াওয়ে টেকনোলজিস বাংলাদেশ লিমিটেডের উদ্যোগে আয়োজিত ‘সিডস ফর দ্য ফিউচার ২০২১’ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় প্রতিমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

          প্রতিমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এবং তাঁর আইসিটি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব আহমেদ ওয়াজেদের নির্দেশনায় ইতিমধ্যেই প্রায় ১ হাজার ২৩২টি সরকারি সেবা ডিজিটাইজড করা হয়েছে। সরকার ২০২১ সালের মধ্যে আরো প্রায় ৮০০টি পরিষেবা ডিজিটাইজ করার জন্য কাজ করছে। জনগণ যাতে আরো সহজে এবং সাবলীলভাবে সেবা পায় সেজন্য সরকার এ ধরনের পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। তিনি বলেন, জাতীয় হেল্পলাইন ৩৩৩ চালু রয়েছে। এই হেল্পলাইন দেশবাসীকে ডিজিটাইজেশন নীতিতে অন্তর্ভুক্তি নিশ্চিত করেছে।

          স্বচ্ছতা নিশ্চিত করতে সরকার একটি জাতীয় ওয়েব পোর্টাল চালু করেছে। এই পোর্টালে ৫১ হাজার ৫১২টিরও বেশি সমন্বিত ওয়েবসাইট রয়েছে যাতে বাংলাদেশের নাগরিকরা পাবলিক অফিস, মন্ত্রণালয় এবং অন্যান্য বিভাগের তথ্য সহজে পেতে পারে।

          উল্লেখ্য, বিশ্বব্যাপী এসটিইএম (বিজ্ঞান, প্রযুক্তি, প্রকৌশলবিদ্যা ও গণিত) এবং নন-এসটিইএম বিষয়ে মেধাবী শিক্ষার্থীদের জন্য হুয়াওয়ের ফ্ল্যাগশিপ সিএসআর প্রোগ্রাম ‘সিডস ফর দ্য ফিউচার’ স্থানীয় শিক্ষার্থীদের মেধা বিকাশ, জ্ঞান প্রদান এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি খাত সম্পর্কে আরো আগ্রহ তৈরিতে কাজ করবে। ২০১৪ সালে বাংলাদেশে চালু হওয়া এই প্রোগ্রামটি সারাবিশ্বে প্রায় দশ বছর ধরে মেধা বিকাশে কাজ করে যাচ্ছে।

#

শহিদুল/সাহেলা/এনায়েত/সঞ্জীব/জয়নুল/২০২১/২১৩০ঘণ্টা 

তথ্যবিবরণী                                                                                                     নম্বর :  ৪৩৮৮

 

বিকাল ৫টা থেকে রাত ১১টা পর্যন্ত সিএনজি স্টেশনসমূহ বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত

 

ঢাকা, ২৯ ভাদ্র (১৩ সেপ্টেম্বর) :

 

            বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগ দৈনিক পিক আওয়ারে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহের লক্ষ্যে গ্যাসভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রসমূহে চাহিদা অনুযায়ী গ্যাস সরবরাহ নিশ্চিত করার জন্য বিকাল ৫টা থেকে রাত ১১টা পর্যন্ত সিএনজি স্টেশনসমূহ বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

 

          সংশ্লিষ্ট অংশীজনদের নিয়ে এ সিদ্ধান্ত কার্যকর করার বিষয়ে পেট্রোবাংলা একটি সভা করবে। সভাটি আগামীকাল (মঙ্গলবার) সকাল ১১টায় পেট্রোবাংলায় অনুষ্ঠিত হবে।

  #

আসলাম/সাহেলা/এনায়েত/সঞ্জীব/সেলিম/২০২১/২০:০০ ঘণ্টা

 

তথ্যবিবরণী                                                                                                                নম্বর : ৪৩৮৭

 

প্রাক-প্রাথমিক পর্যায় থেকে দ্বাদশ শ্রেণী পর্যন্ত

নতুন জাতীয় শিক্ষাক্রমের  রূপরেখা প্রণয়ন করা হয়েছে

                                                    -- শিক্ষামন্ত্রী

ঢাকা, ২৯ ভাদ্র (১৩ সেপ্টেম্বর) :

          প্রাক-প্রাথমিক পর্যায় থেকে দ্বাদশ শ্রেণী পর্যন্ত নতুন জাতীয় শিক্ষাক্রমের রূপরেখা প্রণয়ন করা হয়েছে।  শ্রেণিকক্ষেই পাঠদান সম্পন্ন করার ব্যবস্থা রেখে পরিমার্জিত কারিকুলাম প্রণয়ন করা হয়েছে। পরিমার্জিত নতুন কারিকুলাম অনুমোদন দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। পরিমার্জিত শিক্ষাক্রমের পাইলটিং শুরু হবে ২০২২ সালে, আর বাস্তবায়ন শুরু হবে ২০২৩ সাল থেকে। ২০২৫ সালের মধ্যে পর্যায়ক্রমে প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্তরে নতুন এই শিক্ষাক্রম বাস্তবায়ন করা হবে।

          আজ সচিবালয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান।

          এ সময় শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. মাহবুব হোসেন এবং কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. আমিনুল ইসলাম খান সহ সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন।

          দীপু মনি বলেন, নতুন এই কারিকুলামে দক্ষতা অর্জনের বিভিন্ন কৌশল সম্পর্কে বলা আছে। শিখন সময় প্রাথমিকে কতটা, মাধ্যমিকে কতটা হবে তা-ও বলা আছে। প্রাথমিকের শিক্ষাক্রম-২০১২ এবং জাতীয় শিক্ষাক্রম রূপরেখা-২০২০; সেগুলো সম্পর্কেও এই কারিকুলামে বলা আছে।

          মন্ত্রী বলেন, আগামী বছর প্রাথমিকে প্রথম শ্রেণি এবং মাধ্যমিকে ষষ্ঠ শ্রেণির পাইলটিং করা হবে।  প্রাথমিকে ১০০টি এবং মাধ্যমিকের ১০০টি প্রতিষ্ঠানে পাইলটিং হবে। মাধ্যমিকের মধ্যে মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান রয়েছে। ছয় মাস পাইলটিংয়ের পর সরকার বিশ্লেষণ করতে পারবে। ২০২৩ সালে পরিমার্জিত নতুন শিক্ষাক্রম বাস্তবায়ন শুরু করা যাবে। ২০২৩ সালে প্রাথমিকে দ্বিতীয় শ্রেণিতে এবং মাধ্যমিকের ষষ্ঠ ও সপ্তম শ্রেণিতে এটি চালু হবে। ২০২৪ সালে প্রাথমিকের তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণি এবং অষ্টম ও নবম শ্রেণি। ২০২৫ সালে পঞ্চম শ্রেণি ও মাধ্যমিকের দশম শ্রেণিতে বাস্তবায়ন করা হবে।

          দীপু মনি বলেন, পঞ্চম শ্রেণির সমাপনী (পিইসি), জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) ও জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে এবং সনদও দেওয়া হবে। প্রাথমিক ও অষ্টম শ্রেণীর সমাপনীকে পাবলিক পরীক্ষা বলা হবে না। প্রাথমিক শেষে একটা এবং ক্লাস এইট শেষে একটা সনদ পাবে। কিন্তু সেগুলো ক্লাস সমাপনী পরীক্ষা। ক্লাস সমাপনী শেষে মূল্যায়ন হবে। বিভিন্ন স্তরে মূল্যায়নের দিক থেকে শিক্ষার্থীদের যেখানে যেখানে সনদ দেওয়া হয়েছে, সেখানেও সনদ দেয়া হবে। সমাপনী প্রতি ক্লাসেই থাকবে। শুধু তৃতীয় শ্রেণি পর্যন্ত কোনও ধরনের পরীক্ষা থাকবে না। তৃতীয় শ্রেণির পর থেকে সব শ্রেণিতেই সমাপনী পরীক্ষা রয়েছে। পঞ্চম এবং অষ্টম শ্রেণিতেও সনদ দেয়া হবে। সনদ দেওয়ার জন্য পাবলিক পরীক্ষার দরকার নেই।

          মন্ত্রী আরো বলেন, নবম ও দশম শ্রেণি আলাদা হয়ে যাবে। আলাদা করে পরীক্ষা হবে। শুধু দশম শ্রেণিতে যা পড়ানো হবে, তার ওপরে ভিত্তি করে এসএসসি ও সমমানের পাবলিক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। নবম ও দশম শ্রেণির বই আলাদা হয়ে যাবে। কোনও বিভাগ থাকবে না। সব শিক্ষার্থীই ১০টি বিষয় পড়বে।

চলমান পাতা-২

 

= ২ =

         

          উচ্চমাধ্যমিক শ্রেণির বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণিতে আবশ্যিক বিষয়ে শিখনকালীন মূল্যায়ন ৩০ শতাংশ এবং সামষ্টিক মূল্যায়ন বা পরীক্ষা হবে ৭০ শতাংশ। পাবলিক পরীক্ষায় ৭০ শতাংশ পরীক্ষা দিতে হবে। প্রয়োগিক বা ঐচ্ছিক বিষয় শিখনকালীন মূল্যায়ন হবে শতভাগ। একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণিতে আলাদা বই থাকবে, আলদাভাবে পরীক্ষা হবে। একাদশ ও দ্বাদশের দুই পরীক্ষা ও মূল্যায়নে এইচএসসির চূড়ান্ত ফলাফল দেওয়া হবে।

          মন্ত্রী বলেন, প্রাথমিকের প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় শ্রেণিতে শিখনকারীর মূল্যায়ন বা ধারাবাহিক মূল্যায়ন হবে শতভাগ। চতুর্থ ও পঞ্চম শ্রেণিতে বাংলা, ইংরেজি, গণিত, বিজ্ঞান এবং সামাজিক বিজ্ঞান বিষয়ে শিখনকালীন মূল্যায়ন হবে ৬০ শতাংশ। আর সামষ্টিক মূল্যায়ন অর্থাৎ পরীক্ষা হবে ৪০ শতাংশ। ৬০ শতাংশই ধারাবাহিক মূল্যায়ন। শারীরিক ও মানসিক স্বাস্থ্য সুরক্ষা, ধর্ম শিক্ষা, শিল্প কলা (বিদ্যমান চারু ও কারুকলা) এগুলো শতভাগ ধারাবাহিক মূল্যায়ন হবে।

          মাধ্যমিক পর্যায়ের কারিকুলাম বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, মাধ্যমিকের ষষ্ঠ, সপ্তম ও অষ্টম শ্রেণিতে বাংলা, ইংরেজি, গণিত, বিজ্ঞান ও সামাজিক বিজ্ঞান বিষয়ের শিখনকালীন মূল্যায়ন ৬০ শতাংশ ও সামষ্টিক মূল্যায়ন (বছর শেষে পরীক্ষা) ৪০ শতাংশ। বাকি বিষয় জীবন ও জীবিকা, তথ্যপ্রযুক্তি, শারীরিক ও মানসিক স্বাস্থ্য সুরক্ষা, ধর্ম শিক্ষা, শিল্প ও সংস্কৃতি (বিদ্যমান বিষয়-চারু ও কারু কলা) শিখনকালীন মূল্যায়ন হবে শতভাগ। আর নবম ও দশম শ্রেণির বাংলা, ইংরেজি, গণিত, বিজ্ঞান এবং সামাজিক বিজ্ঞান বিষয়ের শিখনকালীন মূল্যায়ন ৫০ শতাংশ আর সামষ্টিক মূল্যায়ন হবে ৫০ শতাংশ। নবম ও দশম শ্রেণির বাকি বিষয়গুলোর শিখনকালীন মূল্যায়ন হবে শতভাগ।

          উচ্চ মাধ্যমিকের কারিকুলাম প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণিতে আবশ্যিক বিষয়ে শিখনকালীন মূল্যায়ন ৩০ শতাংশ এবং সামষ্টিক মূল্যায়ন বা পরীক্ষা হবে ৭০ শতাংশ। পাবলিক পরীক্ষায় ৭০ শতাংশ পরীক্ষা দিতে হবে। প্রয়োগিক বা ঐচ্ছিক বিষয় শিখনকালীন মূল্যায়ন হবে শতভাগ। এছাড়া নৈর্বাচনিক, বিশেষায়িত কাঠামো, প্রকল্পভিত্তিক, ধারণা অনুযায়ী সামষ্টিক মূল্যায়নের পাশাপাশি প্রকল্পভিত্তিক ও ব্যবহারিক ও অন্যান্য উপায়ে শিখনকালীন মূল্যায়নের সুযোগ থাকবে।  সেখানে নানা অ্যাসাইনমেন্ট হয়, প্রকল্প হয়, সেগুলোর মাধ্যমে হবে।

          মন্ত্রী আরো বলেন, একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণির পাঠ্যসূচির ওপর বছর শেষে একটি করে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। কারিগরিতে এখন তা-ই হয়। একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণির দুটো পরীক্ষার সমন্বয়ে চূড়ান্ত ফলাফল নির্ধারিত হবে।

#

খায়ের/সাহেলা/এনায়েত/সঞ্জীব/জয়নুল/২০২১/২১৩০ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                     নম্বর :  ৪৩৮৬

 

কোভিড-১৯ সংক্রান্ত সর্বশেষ প্রতিবেদন

 

ঢাকা, ২৯ ভাদ্র (১৩ সেপ্টেম্বর) :

 

            স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এবং রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর)-এর তথ্যানুযায়ী গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ২৫ হাজার ৩৮৮ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ১ হাজার ৯৫৩ জনের শরীরে করোনা সংক্রমণ পাওয়া গেছে। এ নিয়ে বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত কোভিড-১৯ আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ১৫ লাখ ৩২ হাজার ৩৬৬ জন। 

 

          গত ২৪ ঘণ্টায় ৪১ জন-সহ এ পর্যন্ত ২৬ হাজার ৯৭২ জন এ রোগে মৃত্যুবরণ করেছেন।

 

          করোনা ভাইরাস আক্রান্তদের মধ্যে এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ১৪ লাখ ৮২ হাজার ৯৩৩ জন।

 

#

 

ফেরদৌস/সাহেলা/এনায়েত/সঞ্জীব/সেলিম/২০২১/২০:০০ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                              নম্বর : ৪৩৮৫

 

আন্তঃকমনওয়েলথ বাণিজ্য এবং বিনিয়োগ বাড়িয়ে ক্ষতিগ্রস্ত

অর্থনীতির পুনরুদ্ধারের উপায় খুঁজে বের করতে অর্থমন্ত্রীর আহ্বান

 

ঢাকা, ২৯ ভাদ্র (১৩ সেপ্টেম্বর) :

          করোনাকালে কমনওয়েলথভুক্ত দেশসমূহের মধ্যে বাণিজ্য ও বিনোয়োগ বৃদ্ধি করে ক্ষতিগ্রস্ত অর্থনীতির পুনরুদ্ধারের উপায় এবং পথ খুঁজে বের করতে সদস্য দেশগুলো থেকে বিশিষ্ট বক্তিবর্গ ‘কমনওয়েলথ ট্রেড অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট সামিট ২০২১’ এর ভার্চুয়াল প্লাটফর্মে জড়ো হয়েছে। কমনওয়েলথভুক্ত মানব সম্প্রদায়ের কাছে আশার একটি আলোক প্রদর্শন করার মানসে এবারের সামিটের প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করা হয়েছে ‘Commonwealth trade: The lever for future prosperity’.  অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল আজ কমনওয়েলথ ট্রেড অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট সামিট ২০২১-এ অংশগ্রহণ করে বক্তব্য প্রদান করেন।

          বক্তব্যে অর্থমন্ত্রী বলেন, সকলেই অবগত যে কোভিড-১৯ মহামারিজনিত কারণে গত বছর বৈশ্বিক অর্থনীতি ৩ শতাংশ সংকুচিত হয়েছে, যেখানে কমনওয়েলথভুক্ত অর্থনীতি সংকুচিত হয়েছে প্রায় ১০ শতাংশ, যা বৈশ্বিক বাণিজ্য ও বিনিয়োগ হ্রাসের অন্যতম প্রধান নিয়ামক। UNCTAD - এর একটি প্রতিবেদনে ইঙ্গিত করা হয়েছে যে, ২০২০ সালে গ্লোবাল ফরেন ডাইরেক্ট ইনভেস্টমেন্ট হ্রাস পেয়েছে ৪২ শতাংশ। আর এশিয়া এবং প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের কমনওয়েলথ অর্থনীতি ৫০ শতাংশ এরও বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এই পটভূমিতে, কমনওয়েলথভুক্ত দেশগুলোর বাণিজ্য এবং বিনিয়োগ উভয় ক্ষেত্রেই একটি শক্তিশালী পুনরুদ্ধারের পথ খুঁজে বের করাই আজকের এই সভার উদ্দেশ্য।

          মন্ত্রী বলেন, বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গতিশীল নেতৃত্বে বাংলাদেশ গত এক দশকে অভূতপূর্ব অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি অর্জন করেছে। প্রধানমন্ত্রী তার দূরদর্শী নেতৃত্বে, প্রাথমিক পর্যায়ে এই মহামারির ক্ষতিকর প্রভাবের তীব্রতা অনুধাবন করে মহামারি থেকে দেশের অর্থনীতিকে পুনরুদ্ধার করতে জিডিপির ৬ দশমিক ২৩ শতাংশের সমান ২২ দশমিক ৮ বিলিয়ন মার্কিন ডলার মূল্যের ২৮টি প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করেন, ইতোমধ্যে বাংলাদেশ যার সুফল ভোগ করে চলেছে। ২০২০ সালের আইএমএফ-এর অক্টোবরের রিপোর্ট অনুযায়ী, বিশ্ব অর্থনীতিতে গড় ৪ দশমিক ৪ শতাংশ শতাংশের নেতিবাচক প্রবৃদ্ধি দেখা যায়, সেসময়ে অতি অল্প কয়েকটি ইতিবাচক অর্থনীতির মধ্যে বাংলাদেশ অন্যতম। বেশ কয়েকটি আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠানের জরিপ অনুযায়ী, মহামারি প্রতিকূলতার মধ্যেও বাংলাদেশ শীর্ষ পাঁচটি সহনশীল অর্থনীতির মধ্যে রয়েছে।

          সভায় কমনওয়েলথ ট্রেড অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট কাউন্সিলের চেয়ারম্যান লর্ড মারল্যান্ড এবং যুক্তরাজ্যের আন্তর্জাতিক বাণিজ্য বিষয়ক মন্ত্রী এবং বাণিজ্য বোর্ডের সভাপতি এলিজাবেথ ট্রাস এমপিসহ আরো বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ  বক্তব্য প্রদান করেন। সকলেই কমনওয়েলথভুক্ত দেশসমূহের মধ্যে বাণিজ্য ও বিনোয়োগ বৃদ্ধি করে ক্ষতিগ্রস্ত অর্থনীতির পুনরুদ্ধারের উপায় এবং পথ খুঁজে বের করতে একসাথে কাজ করার আশা ব্যক্ত করেন।

#

তৌহিদুল/সাহেলা/এনায়েত/সঞ্জীব/জয়নুল/২০২১/২০১০ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                     নম্বর :  ৪৩৮৪

 

জাতীয় দলের সাবেক ক্রিকেটার রবিউলকে আর্থিক অনুদানের চেক প্রদান 

 

ঢাকা, ২৯ ভাদ্র (১৩ সেপ্টেম্বর) :

 

          বাংলাদেশ  জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক খেলোয়াড় শেখ রবিউল  ইসলামের পাশে দাঁড়িয়েছেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মোঃ জাহিদ আহসান রাসেল। প্রতিমন্ত্রী আজ সচিবালয়ে ক্রিকেটার রবিউলের হাতে বঙ্গবন্ধু ক্রীড়াসেবী কল্যাণ ফাউন্ডেশন হতে  দুই লাখ টাকার আর্থিক অনুদানের চেক প্রদান করেন। জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক এ কীর্তিমান ক্রিকেটার দীর্ঘদিন যাবৎ নাক ও নাভীর পীড়াসহ  শারীরিক নানা জটিলতায় ভুগছিলেন। তাছাড়া তার বৃদ্ধ মাতাও  অসুস্থ অবস্থায় আছেন।

 

          ক্রিকেটার রবিউল ২০১০ সাল থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশে জাতীয় ক্রিকেট দলের নিয়মিত খেলোয়াড় ছিলেন। তিনি জাতীয় দলের হয়ে ৯টি টেস্ট ম্যাচ, ৩টি ১ দিনের ম্যাচ এবং একটি টি-২০ ম্যাচের প্রতিনিধিত্ব করেন। তিনি জিম্বাবুয়ের সফরের টেস্ট সিরিজের ১৫টি উইকেট শিকার করে ম্যান অভ্‌ দ্য সিরিজ নির্বাচিত হন যা দেশের বাইরে  এখনও পর্যন্ত বাংলাদেশের ক্ষেত্রে একটি অনন্য রেকর্ড।

 

          চেক প্রদানকালে প্রতিমন্ত্রী বলেন, সরকার সব সময় খেলোয়াড়দের যে কোন দুরাবস্থায় পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করে। ভবিষ্যতেও  এ প্রচেষ্টা ও সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে। এসময় ক্রিকেটার রবিউল যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রীর প্রতি আন্তরিক কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। এছাড়া প্রতিমন্ত্রী  ফাউন্ডেশন হতে আম্পায়ার নাদির শাহের চিকিৎসার জন্যও ২ লাখ টাকা প্রদান করেন।

           

#

 

আরিফ/সাহেলা/এনায়েত/সঞ্জীব/সেলিম/২০২১/১৮:৫০ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                                নম্বর : ৪৩৮৩

ভারত বাংলাদেশকে আরো ১০৯টি উন্নতমানের কার্ডিয়াক এম্বুলেন্স উপহার দিয়েছে

ঢাকা, ২৯ ভাদ্র (১৩ সেপ্টেম্বর) :

          আজ রাজধানীর তেজগাঁওয়ের কেন্দ্রীয় ঔষধাগারে ভারত বাংলাদেশকে আরো ১০৯টি উন্নতমানের কার্ডিয়াক এম্বুলেন্স উপহার দিয়েছে। ভারতের হাইকমিশনার বিক্রম কুমার দোরাইস্বামী স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেকের নিকট এই এম্বুলেন্সগুলোর চাবি হস্তান্তর করেন। স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সিনিয়র সচিব লোকমান হোসেন মিয়া, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক এবিএম খুরশিদ আলম ও কেন্দ্রীয় ঔষধাগারের পরিচালক আবু হেনা মোরশেদ জামান এসময় মন্ত্রীর সাথে উপস্থিত ছিলেন।

          ভারতের এম্বুলেন্স উপহার দেয়া প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, যেকোন দুঃসময়ে পরীক্ষিত বন্ধুরাষ্ট্র ভারত সবার আগে বাংলাদেশের পাশে দাঁড়ায়। আজ এই কোভিডকালীন দুঃসময়ে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি নতুন করে ১০৯ টি উন্নতমানের কার্ডিয়াক এম্বুলেন্স উপহার দিয়ে বাংলাদেশের প্রতি ভারতের ভালোবাসার আরেকটি নজির স্থাপন করেছে। এম্বুলেন্সগুলো নিঃসন্দেহে দেশের হাসপাতালগুলোর সক্ষমতা আরো বেশি বৃদ্ধি করবে।

          ভারতের উপহার এম্বুলেন্সের পাশাপাশি দেশের হাসপাতাল সার্ভিস ম্যানেজমেন্ট কর্তৃক ২১টি এবং উপজেলা হেলথ কেয়ারের অপারেশন প্লান থেকে আরো ৬০টি এম্বুলেন্স কেনা হয়। অনুষ্ঠানে এম্বুলেন্সগুলো মন্ত্রী ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, জাতীয় বক্ষব্যাধি হাসপাতাল, ঢাকা নর্থ সিটি কোভিড ডেডিকেটেড হাসপাতাল সহ দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলের হাসপাতালগুলোর পরিচালক ও প্রতিনিধিদের নিকট হস্তান্তর করেন।

#

মাইদুল/সাহেলা/এনায়েত/সঞ্জীব/জয়নুল/২০২১/১৯১০ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                     নম্বর :  ৪৩৮২

 

পরিবেশমন্ত্রীর সাথে ইতালির রাষ্ট্রদূতের সাক্ষাৎ

 

ঢাকা, ২৯ ভাদ্র (১৩ সেপ্টেম্বর) :

 

          পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মোঃ শাহাব উদ্দিনের সাথে আজ মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে বাংলাদেশে নিযুক্ত ইতালির রাষ্ট্রদূত এনরিকো নুনযিয়াতা সাক্ষাৎ করেন।  সাক্ষাৎকালে ইতালির রাষ্ট্রদূত মন্ত্রীকে অক্টোবর মাসে অনুষ্ঠিতব্য প্রি-কপ সম্মেলনে যোগদানের জন্য আমন্ত্রণ জানান।

 

          বৈঠকে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ মোস্তফা কামাল, অতিরিক্ত সচিব (প্রশাসন)  ইকবাল আব্দুল্লাহ হারুন, অতিরিক্ত সচিব (উন্নয়ন) আহমদ শামীম আল রাজী, অতিরিক্ত সচিব (জলবায়ু পরিবর্তন) মোঃ মিজানুল হক চৌধুরী এবং  অতিরিক্ত সচিব (পরিবেশ) মোঃ মনিরুজ্জামান প্রমুখ  উপস্থিত ছিলেন।

 

          মন্ত্রী ইতালির রাষ্ট্রদূতকে জানান, বাংলাদেশ ক্লাইমেট  ভালনারিবিলিটি ফোরাম এবং ভালনারেবল-২০ এর সভাপতি হিসেবে জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা পালন করছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সামগ্রিক সমৃদ্ধির লক্ষ্যে মুজিব ক্লাইমেট প্রসপারিটি প্ল্যান ঘোষণা করেছেন। মন্ত্রী এসময়  জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় ঝুঁকিপূর্ণ দরিদ্র দেশগুলোতে ধনী দেশগুলোর প্রতিশ্রুত বার্ষিক ১০০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার প্রদানসহ প্যারিস জলবায়ু চুক্তির অন্যান্য বিষয়ে বিশ্ব নেতৃবৃন্দ ঐকমত্যে পৌঁছাবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন। এছাড়াও মন্ত্রী জলবায়ু পরিবর্তন সংশ্লিষ্ট ক্ষেত্রগুলোতে ইতালির সহযোগিতা কামনা করেন।

 

          বাংলাদেশে নিযুক্ত ইতালির রাষ্ট্রদূত ইতালিতে অনুষ্ঠিতব্য 'ইউথ ফর ক্লাইমেট' অনুষ্ঠানে মন্ত্রীকে আমন্ত্রণ জানিয়ে বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব মোকাবিলা সংশ্লিষ্ট কার্যক্রমে ইতালি ও বাংলাদেশ একযোগে কাজ করবে। বাংলাদেশ ইতালির অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ মিত্র উল্লেখ করে রাষ্ট্রদূত বলেন, চলমান সহযোগিতা উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পাবে।

 

#

 

দীপংকর/সাহেলা/এনায়েত/সঞ্জীব/সেলিম/২০২১/১৮:৩৫ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                     নম্বর :  ৪৩৮১

 

ওটিটি প্লাটফর্ম নীতিমালার খসড়া সম্পন্ন

                 -- তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী

 

ঢাকা, ২৯ ভাদ্র (১৩ সেপ্টেম্বর) :

 

          তথ্য মন্ত্রণালয় ওটিটি প্লাটফর্ম বিষয়ে নীতিমালার খসড়া প্রস্তুত করেছে জানিয়েছেন তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ড. হাছান মাহ্‌মুদ। আজ সচিবালয়ে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়কালে মন্ত্রী একথা জানান।

 

          মন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের মন্ত্রণালয়ের অন্যতম প্রধান কাজ ‘রেগুলেটরি জব’; নীতি, নীতিমালা তৈরি করে এই গণমাধ্যমের ক্রমবিকাশকে এগিয়ে নেয়া। ওটিটি প্লাটফর্ম এটি একটি ক্রমবর্ধমান বাস্তবতা। কিন্তু ওটিটি প্লাটফর্মে সিনেমা, নাটক, ওয়েব সিরিজ বা কোনো কন্টেন্ট রিলিজ করতে হলে এখনও অনুমোদনের ব্যবস্থা নেই। আমি সাম্প্রতিক ভারত সফরে সেখানকার তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রীর সাথে তারা কিভাবে বিষয়টিকে দেখভাল করছে সে বিষয়ে আলাপ করেছি। তারা গত ফেব্রুয়ারি মাসে এ নিয়ে প্রজ্ঞাপন আকারে একটি নীতিমালা জারি করেছে, সেখান থেকে পরিচালিত সমস্ত ওটিটি প্লাটফর্মকে এই নীতিমালা অনুসরণ করতে হবে। সেই নীতিমালার ব্যত্যয় হলে ব্যবস্থা নেয়া হবে। আমরা ইতোমধ্যেই নীতিমালার প্রাথমিক খসড়া তৈরি করেছি। সেই নীতিমালা খুব সহসা প্রজ্ঞাপন আকারে জারি করতে পারবো বলে আশা করছি।’

 

          ওটিটি প্লাটফর্মের কন্টেন্ট এতো বিস্তৃত এবং ব্যাপক যে, সেন্সর বোর্ডের মাধ্যমে সেন্সর করা দুরূহ কাজ উল্লেখ করে ড. হাছান বলেন, ‘কারণ বছরে ৫০টি বা ১০০টি সিনেমা রিলিজ হয়, সেটি সেন্সর করা সহজ। কিন্তু ওটিটি’র হাজার কন্টেন্ট সেন্সর করা সহজ কাজ নয়। সেকারণে ভারতসহ অন্যান্য দেশে যেভাবে করা হচ্ছে সেভাবে আমরা একটি নীতিমালা খসড়া তৈরি করেছি যা পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর প্রজ্ঞাপন আকারে জারি করবো। এটা এজন্য যাতে করে আমাদের কৃষ্টি, সংস্কৃতি, ঐতিহ্য ক্ষতিগ্রস্ত হয় বা সমাজ ও মানুষকে ভুল পথে পরিচালিত করে, বিজাতীয় সংস্কৃতি উৎসাহিত হয় কিংবা আমাদের তরুণ সমাজকে বিভ্রান্ত করতে পারে, এমন কোনো কন্টেন্ট সেখানে না যায়।’

 

          সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম সম্পর্কে এসময় ড. হাছান মাহমুদ বলেন, ‘বর্তমানে গণমাধ্যমের সাথে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম যুক্ত হয়েছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম মানুষকে মতপ্রকাশের অবারিত সুযোগ করে দিয়েছে, একইসাথে অনেক ক্ষেত্রে সমাজে নানাধরনের অস্থিরতা তৈরি, সরকার ও ব্যক্তি বিশেষের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালানোর সুযোগ হিসেবেও এটির ব্যবহার লক্ষ্যণীয়। মূলধারার গণমাধ্যমগুলো সঠিকভাবে কাজ করেছে কিন্তু সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেশ-বিদেশ থেকে করোনাকালেও অনেক গুজব রটানো এবং মানুষকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করা হয়েছে। আমাদের মন্ত্রণালয় এই ক্ষেত্রে শৃঙ্খলা আনার জন্য অনলাইন সংবাদ পোর্টাল, আইপি টিভি’র রেজিস্ট্রেশন দেয়া শুরু করাসহ অনেকগুলো কাজ ইতিমধ্যেই করেছে।’

 

          মন্ত্রী বলেন, ‘আমরা দেখতে পাচ্ছি, বিদেশে বসে বিভিন্ন ব্যক্তি বিশেষ নির্দিষ্ট কয়েকটি অনলাইন পোর্টাল ব্যবহার করে মাঝে মধ্যেই নানা অপপ্রচার চালাচ্ছে। সরকারের পক্ষ থেকে অন্যান্য মন্ত্রণালয়ের সাথে সমন্বয়ের মাধ্যমে আমরা তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করি। এই ক্ষেত্রে দেখা যায়, যারা সার্ভিস প্রোভাইডার তাদের কাছ থেকে যে ধরনের সহযোগিতা পাওয়া প্রয়োজন সবসময় সে ধরনের সহযোগিতা পাওয়া যায়নি।

 

 

এজন্য আমরা সার্ভিস প্রোভাইডারদের সাথে যেমন আলোচনা করছি একইসাথে আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি, যে সমস্ত ব্যক্তি বিশেষ বিভিন্ন অনলাইন পোর্টালের মাধ্যমে যে সমস্ত দেশ থেকে এই অপপ্রচারগুলো চালায় সেই সমস্ত দেশের আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

 

          এসময় উদাহরণ দিয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘রিপোর্টার্স স্যান্স ফ্রন্টিয়ার্স কিছু দিন আগে প্রধানমন্ত্রীর বিষয়ে প্রচণ্ড আপত্তিকর শব্দ ব্যবহার করে একটি রিপোর্ট প্রকাশ করেছিল। আমরা তথ্য মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে সেটির প্রতিবাদ জানিয়েছিলাম এবং আমরা জানিয়েছিলাম যে, এটি যদি সংশোধন করা না হয়, তাহলে আমরা আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করবো। ‘রিপোর্টার্স স্যান্স ফ্রন্টিয়ার্সের অফিস ফ্রান্সের প্যারিসে। ফরাসি আইনজীবীর মাধ্যমে তাদেরকে লিগ্যাল নোটিশ পাঠানো হয়েছে। ফরাসি আইন অনুযায়ী এমন কি ইউরোপীয় ইউনিয়নের আইন অনুযায়ী এভাবে ব্যক্তি বিশেষকে কটাক্ষ করে কিংবা টার্গেট করে অহেতুক যে ধরণের রিপোর্ট তারা প্রকাশ করছিল, সেটি করতে পারে না। ফরাসি আইনের সেই ধারা উল্লেখ করে ইউরোপীয় ইউনিয়নের সংশ্লিষ্ট আইনের উল্লেখ করে তাদেরকে লিগ্যাল নোটিশ দেয়া হয়েছে। আমরা সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছি যে, অন্যান্য দেশ থেকেও যারা এ সমস্ত কাজগুলো করছেন তাদের বিরুদ্ধেও একই ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

 

গত নির্বাচনগুলোতে বিএনপি’র ভুলের পুনরাবৃত্তি তাদের জন্য আত্মহননমূলক

 

          সাংবাদিকরা এসময় বিএনপি’র ‘নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবি’ সম্পর্কে প্রশ্ন করলে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক ড. হাছান মাহ্‌মুদ বলেন, ‘২০১৪ এবং ২০১৮ সালের নির্বাচনে বিএনপি’র ভুলের পুনরাবৃত্তি তাদের জন্য আত্মহননমূলক হবে। কারণ, বিএনপি একথা ২০১৪ সালের নির্বাচনের বহু আগে থেকেই বলে আসছিল এবং ২০১৪ সালের নির্বাচন বানচাল করার জন্য তারা সর্বাত্মক প্রচেষ্টা চালিয়েছিল, ৫শ’ ভোট কেন্দ্র জ্বালিয়ে দিয়েছিল, ভোট কেন্দ্র হিসেবে ব্যবহৃত স্কুলগুলোতে ছাত্র-ছাত্রীদের নতুন বই পুড়িয়ে দিয়েছিল এবং নির্বাচনি কর্মকর্তাসহ বহু মানুষকে হত্যা করেছিল। এরপরও তারা নির্বাচন ঠেকাতে পারেনি, দেশে নির্বাচন হয়েছে। ২০১৮ সালের নির্বাচনের আগেও তারা এ ধরনের হুমকি ধামকি দিয়েছিল, পরে অংশগ্রহণ করেছিল। আমি মনে করি, ২০১৮ সালের নির্বাচনকে শুরু থেকেই তারা সিরিয়াসলি নিয়ে যদি অংশগ্রহণ করতো হয়তো আরো ভালো ফলাফল করতে পারতো। নির্বাচনের বাকি যখন সোয়া দুই বছর বা তার চেয়ে বেশি, তখন একই ধরনের তর্জন-গর্জন আমরা দেখতে পাচ্ছি। বিএনপিকে অনুরোধ জানাবো ২০১৪ এবং ২০১৮ সালে যে ভুল তারা করেছে, সেই ভুলের পুনরাবৃত্তি ক

2021-09-13-16-46-459a778b948cd77f2a32461bf6cb614e.doc 2021-09-13-16-46-459a778b948cd77f2a32461bf6cb614e.doc

Share with :

Facebook Facebook