তথ্য অধিদফতর (পিআইডি) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ১৩ জুলাই ২০২১

তথ্যবিবরণী ১৩ জুলাই ২০২১

তথ্যবিবরণী                                                                                                                নম্বর : ৩২৫০

সমন্বিত প্রযুক্তিগত ও আর্থিক সহযোগিতা নবায়নযোগ্য জ্বালানির ব্যাপক প্রসারে কার্যকর অবদান রাখবে

                                                                                                                              -- বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী

ঢাকা, ২৯ আষাঢ় (১৩ জুলাই) :

          বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেছেন, সমন্বিত প্রযুক্তিগত ও আর্থিক সহযোগিতা নবায়নযোগ্য জ্বালানির ব্যাপক প্রসারে কার্যকর অবদান রাখবে। নবায়নযোগ্য জ্বালানি সম্পদ মূল্যায়নে উন্নত দেশের সহযোগিতা প্রয়োজন। সরকারি ও বেসরকারি খাতের সক্ষমতা বৃদ্ধিতেও সম্মিলিতভাবে কাজ করা আবশ্যক।

          প্রতিমন্ত্রী আজ অনলাইনে ‘Third Ministerial Meeting of the COP26 Energy Transition council (CoP26 ETC)’  -এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যোগদানের পর সাইড ইভেন্ট ‘Clean Power and Green Grids’ -এ বক্তৃতাকালে এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, বাংলাদেশ পরিচ্ছন্ন জ্বালানির প্রসারে সকলের সাথে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে চায়। বিদ্যুৎ উৎপাদনে কয়লার পরিমাণ কমে আসছে। ইতোমধ্যে ৮ হাজার ৪৫১ মেগাওয়াটের ১০টি কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র বাতিল করা হয়েছে। সৌরবিদ্যুতের জন্য কম জমি লাগে এমন প্রযুক্তি প্রয়োজন। অফশোর বায়ু এবং সামুদ্রিক জ্বালানির ম্যাপিং করে মানসম্পন্ন বিদ্যুৎ পেতে অভিজ্ঞ দেশ ও Energy Transition Council’র  প্রযুক্তিগত এবং আর্থিক সহযোগিতা পেলে কাক্সিক্ষত ফলাফল পাওয়া যেতে পারে।

          প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন,  বর্জ্য বিদ্যুৎ, বায়ু বিদ্যুৎ, ওশান এনার্জি হতে বিদ্যুৎ ইত্যাদি বিষয়ে গবেষণায় Energy Transition Council  -এর সহযোগিতাকে স্বাগত জানানো হবে।  প্রাথমিক বিনিয়োগ পেলে এসব উৎস থেকেও অনেক বিদ্যুৎ জাতীয় গ্রিডে যোগ হতে পারে। অন্তত পাইলটভিত্তিতে প্রকল্প নেয়া যেতে পারে।

          COP26 Energy Transition council (CoP26 ETC)-এর অন্যতম প্রধান লক্ষ্য হ'ল বৈশ্বিক নেতৃত্বকে একত্রিত করে এনার্জি ট্রানজিশনকে ত্বরান্বিত করা এবং পরিষ্কার জ্বালানির জন্য অর্থায়নকে সহজ করা। ETC ফোকাস দেশগুলো হলো -বাংলাদেশ, মিশর, ভারত, ইন্দোনেশিয়া, কেনিয়া, লাওস, মরক্কো, নাইজেরিয়া, পাকিস্তান, ফিলিপাইন, ভিয়েতনাম ও দক্ষিণ আফ্রিকা।

          CoP26 ETC এর সহ -সভাপতি Damilola Ogunbiyi -এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ভার্চুয়াল এই অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মাঝে ইন্দোনেশিয়ার জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রী Arifin Tasrif, মিশরের বিদ্যুৎ ও নবায়নযোগ্য জ্বালানি মন্ত্রী Dr. Mohamed Shaker El-Markabi, নাইজেরিয়ার বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী Goddz Jedz Agba, লাওসের জ্বালানি ও খনি সম্পর্কিত উপমন্ত্রী Dr Sinava Souphanouvong, কেনিয়া, পাকিস্তান, ফিলিপাইন্স, দক্ষিণ আফ্রিকা, মরক্কো ও ভিয়েতনামের প্রতিনিধি সংযুক্ত থেকে বক্তব্য রাখেন।    #

আসলাম/সাহেলা/সঞ্জীব/জয়নুল/২০২১/২২৫৮ঘণ্টা 

তথ্যবিবরণী                                                                                                                                                                                                                                                নম্বর : ৩২৪৯

 

চট্টগ্রাম বিভাগের বিভিন্ন জেলায় হতদরিদ্র ও প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর মাঝে ত্রাণ বিতরণ অব্যাহত

 

ঢাকা, ২৯ আষাঢ় (১৩ জুলাই) :   

 

          কোভিড-১৯ এর সংক্রমণ প্রতিরোধে চলমান কঠোর লকডাউনের ত্রয়োদশ দিনে আজ চট্টগ্রাম বিভাগের বিভিন্ন জেলায় কর্মহীন, হতদরিদ্র ও প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর মাঝে সরকারি বিভিন্ন ত্রাণসামগ্রী বিতরণ ও অর্থ সহায়তা প্রদান অব্যাহত রয়েছে।

 

          বান্দরবান জেলা প্রশাসন কর্তৃক আজ জেলার ১৮০টি অসহায় ও দরিদ্র পরিবারের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে বিভিন্ন ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করা হয়। ত্রাণ গ্রহিতাদের মধ্যে ছিল বিদ্যুৎ ও বাজার শ্রমিক, পঙ্গু এবং ভিক্ষুক পরিবারের সদস্যরা। ত্রাণসামগ্রীর মধ্যে ছিলো ১০ কেজি চাল, ১ কেজি ডাল, ১ লিটার তেল, ২ কেজি আলু, ১ কেজি লবণ ও ১ কেজি চিড়া।

 

          এদিকে রাঙ্গামাটি সদর উপজেলা মগবান ইউনিয়নে আজ ৩৮১ জন অসহায় ও হতদরিদ্র ব্যক্তির মাঝে  জনপ্রতি ৫০০ টাকা হারে মোট ১ jvL ৯০ হাজার ৫০০ টাকা নগদ অর্থ বিতরণ করা হয়। এসময় রাঙ্গামাটি সদর উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নাসরিন সুলতানা উপস্থিত ছিলেন। নানিয়ারচর উপজেলা প্রশাসনের সহায়তায় আজ করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত ৫০ জন খামারীর মাঝে গো-খাদ্য বিতরণ করেছে উপজেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন অফিস।
গো-খাদ্য হিসেবে খামারীদের মাঝে ২ কেজি ভুসি, ২ কেজি খৈল, ১ কেজি গুড় ও ১ কেজি লবণ বিতরণ করা হয়।

 

          লক্ষ্মীপুর জেলায় আজ জেলা প্রশাসন কর্তৃক প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে ৫০০ পরিবারের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হয়। খাদ্যসামগ্রী হিসেবে প্রতি পরিবারকে ১০ কেজি চাল, ১ কেজি ডাল, ১ কেজি চিনি, ১ কেজি লবণ ও ১ লিটার সয়াবিন তেল প্রদান করা হয়।   

 

          নোয়াখালী জেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় আজ ১০ কেজি হারে ১০ হাজার দুস্থ ও অসহায় মানুষের মাঝে ১০০ মেট্রিক টন চাল বিতরণ করেছে জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন অফিস।

 

                                                   #

 

ফয়সল/সাহেলা/সঞ্জীব/আব্বাস/২০২১/ঘণ্টা   

তথ্যবিবরণী                                                                                                          নম্বর : ৩২৪৮

কতিপয় নিয়ম মেনে ঈদ-উল-আযহার নামাজের জামায়াত আয়োজন করতে হবে

                                                                                              -- ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়

ঢাকা, ২৯ আষাঢ় (১৩ জুলাই) :

          ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয় কর্তৃক  স¦াস্থ্যবিধি অনুসরণপূর্বক কতিপয় শর্তসাপেক্ষে ১৪৪২ হিজরি/২০২১ সালের ঈদ-উল-আযহার নামাজের জামায়াত আদায়ের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের অনুরোধ জানানো হয়েছে।

          দেশে করোনা ভাইরাসজনিত (কোভিড-১৯) সংক্রমণ পরিস্থিতি বিবেচনায় মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ কর্তৃক কতিপয় বিধি-নিষেধ আরোপ করে ইতোপূর্বে নির্দেশনা জারি করা হয়েছে।

          বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) এর স্থানীয় পরিস্থিতি ও মুসল্লিদের জীবন-ঝুঁকি বিবেচনা করে স্থানীয় প্রশাসন কর্তৃক জনপ্রতিনিধি ও গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের সাথে আলোচনা ও সমন্বয় করে যথোপযুক্ত বিবেচিত হলে স্বাস্থ্য সেবা বিভাগ কর্তৃক জারিকৃত স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণপূর্বক ঈদুল আযহা ২০২১ (১৪৪২ হিজরি) এর জামায়াত মসজিদ, ঈদগাহ বা খোলা জায়গায় আয়োজনের বিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করতে হবে।   

          মসজিদে ঈদের নামাজ আয়োজনের ক্ষেত্রে কার্পেট বিছানো যাবে না। নামাজের পূর্বে সম্পূর্ণ মসজিদ জীবাণুমুক্ত করতে হবে। মুসল্লিগণ প্রত্যেকে নিজ নিজ দায়িত্বে জায়নামাজ নিয়ে আসবেন। প্রত্যেককে নিজ নিজ বাসা থেকে ওযু করে মসজিদ ও ঈদগাহে আসতে হবে এবং ওযু করার সময় কমপক্ষে ২০ সেকেন্ড সাবান-পানি দিয়ে হাত ধুতে হবে। করোনা ভাইরাস সংক্রমণরোধ নিশ্চিতকল্পে মসজিদ ও ঈদগাহে ওযুর স্থানে সাবান, পানি ও হ্যান্ডস্যানিটাইজার রাখতে হবে। মসজিদ ও ঈদগাহ মাঠের প্রবেশদ্বারে হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও হাত ধোয়ার ব্যবস্থাসহ সাবান ও পানি রাখতে হবে। ঈদের নামাজের জামায়াতে আগত মুসল্লিকে অবশ্যই মাস্ক পরে আসতে হবে। মসজিদে সংরক্ষিত জায়নামাজ ও টুপি ব্যবহার করা যাবে না। ঈদের নামাজ আদায়ের সময় কাতারে দাঁড়ানোর ক্ষেত্রে সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি অবশ্যই অনুসরণ করে দাড়াতে হবে এবং এক কাতার অন্তর অন্তর কাতার করতে হবে।

          শিশু, বয়োবৃদ্ধ, অসুস্থ ব্যক্তি এবং অসুস্থদের সেবায় নিয়োজিত ব্যক্তিবর্গের ঈদের নামাজের জামায়াতে অংশগ্রহণ নিরুৎসাহিত করা হয়েছে। সর্বসাধারণের সুরক্ষা নিশ্চিতকল্পে স্বাস্থ্য সেবা বিভাগ, স্থানীয় প্রশাসন এবং আইন শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণকারী বাহিনীর নির্দেশনা অবশ্যই অনুসরণ করতে হবে। করোনা ভাইরাস সংক্রমণরোধ নিশ্চিতকল্পে ঈদের জামায়াত শেষে কোলাকুলি এবং পরস্পর হাত মেলানো পরিহার করতে হবে। করোনা মহামারির এ বৈশ্বিক মহাবিপদ হতে রক্ষা পেতে বেশি বেশি তওবা, আস্তাগফিরুল্লাহ ও কুরআন তিলাওয়াত করতে হবে এবং আমাদের কৃত অন্যায়-অপরাধের জন্য ঈদের নামাজ শেষে মহান রাব্বুল আলামিনের দরবারে ক্ষমা প্রার্থনা করতে হবে। খতিব, ইমাম, মসজিদ ও ঈদগাহ পরিচালনা কমিটি ও স্থানীয় প্রশাসন জারিকৃত নির্দেশনাগুলোর বাস্তবায়ন নিশ্চিত করবে।

          বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়েছে, উল্লিখিত নির্দেশনা লঙ্ঘিত হলে স্থানীয় প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণকারী বাহিনী সংশ্লিষ্ট দায়িত্বশীলদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

          এছাড়া বিজ্ঞপ্তিতে প্রাণঘাতি করোনা ভাইরাস সংক্রমণরোধে স্থানীয় প্রশাসন, আইন-শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণকারী বাহিনী, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের কর্মকর্তা-কর্মচারী এবং সংশ্লিষ্ট মসজিদের পরিচালনা কমিটিকে উল্লিখিত নির্দেশনা বাস্তবায়ন করার জন্য অনুরোধ জানানো হয়েছে।

#

আনোয়ার/সাহেলা/সঞ্জীব/জয়নুল/২০২১/২২২০ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                             নম্বর : ৩২৪৭

 

টোকিও অলিম্পিকে বাংলাদেশ ভালো ফলাফল অর্জন করবে বলে আশাবাদ যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রীর

 

ঢাকা, ২৯ আষাঢ় (১৩ জুলাই) :

 

          আগামী ২৩ জুলাই থেকে ৮ আগস্ট অনুষ্ঠিতব্য টোকিও অলিম্পিকে বাংলাদেশের অ্যাথলেটরা ভালো ফলাফল অর্জন করবে বলে দৃঢ় আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মোঃ জাহিদ আহসান রাসেল । তিনি আজ ঢাকায় জাপান দূতাবাস আয়োজিত টোকিও অলিম্পিকে অংশগ্রহণকারী খেলোয়াড় ও কর্মকর্তাদের সঙ্গে  এক ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় মতবিনিময়কালে  এ মন্তব্য করেন। 

 

          প্রতিমন্ত্রী বলেন, ক্রীড়াবান্ধব প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সার্বিক পৃষ্ঠপোষকতা ও আন্তরিক দিকনির্দেশনায় দেশের ক্রীড়াঙ্গন নতুন নতুন ইতিহাস রচনা করে চলেছে।  এবার সময় এসেছে বিশ্ব অলিম্পিকে স্বর্ণজয়ের ইতিহাস রচনা করার। দেশের আর্চার রোমান সানা ইতিহাসে প্রথমবারের মতো অলিম্পিক গেমসে সরাসরি অংশগ্রহণের গৌরব অর্জন করেছে। আশা করা যায়,  বাংলাদেশ আসন্ন টোকিও অলিম্পিকে তাদের সামর্থ্যের সবটুকু উজাড় করে দেবে এবং বিশ্বমঞ্চে লাল সবুজের পতাকা উড়াতে সমর্থ হবে। 

 

          অনুষ্ঠানে জাপানি রাষ্ট্রদূত ইতো নাওকি টোকিও অলিম্পিকে অংশগ্রহণকারী বাংলাদেশ দলকে জাপান সরকারের পক্ষ হতে সব ধরনের সহযোগিতার আশ্বাস প্রদান করেন। 

 

          টোকিও অলিম্পিকে বাংলাদেশ থেকে অংশ নেবেন ৬ জন। তারা হলেন দুই আর্চার রোমান সানা ও দিয়া সিদ্দিকী, দুই সাঁতারু আরিফুল ইসলাম ও জুনাইনা আহমেদ, অ্যাথলেট জহির রায়হান ও শ্যুটার আব্দুল্লাহ হেল বাকি।

 

          ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মোঃ আখতার হোসেন ও বাংলাদেশ অলিম্পিক এসোসিয়েশনের মহাসচিব সৈয়দ শাহেদ রেজা,  বিভিন্ন ক্রীড়া ফেডারেশনের কর্মকর্তাবৃন্দ,  কোচ ও অলিম্পিকে মনোনীত অ্যাথলেটবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। 

#

আরিফ/সাহেলা/সঞ্জীব/আব্বাস/২০২১/২০৫৭ ঘণ্টা  

তথ্যবিবরণী                                                                                                             নম্বর : ৩২৪৬

 

ঢাকা বিভাগে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে

 

 

ঢাকা, ২৯ আষাঢ় (১৩ জুলাই) :

 

          করোনা ভাইরাস মহামারির প্রেক্ষিতে মানবিক সহায়তা হিসেবে সরকারের পক্ষ হতে দেশব্যাপী ত্রাণসামগ্রী বিতরণ কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে। গতকাল ঢাকা বিভাগের বিভিন্ন জেলায় এ কার্যক্রম পরিচালিত হয়েছে।

 

          ঢাকা জেলায় ত্রাণ হিসেবে ২ লাখ টাকা নগদ আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হয় এবং ১০০ মেট্রিক টন চাল বিতরণ করা হয়। এছাড়া ভিজিএফ কার্ডের মাধ্যমে ১৪১ দশমিক ৫০০ মেট্রিক টন চাল বিতরণ করা হয়। 

          নরসিংদী জেলায় ত্রাণ হিসেবে ২৪ দশমিক ২০০ মেট্রিক টন চাল এবং ভিজিএফ কার্ডের মাধ্যমে ১৯০ দশমিক ২০০ মেট্রিক টন চাল বিতরণ করা হয়। 

          ফরিদপুর জেলায় প্রাণ হিসেবে ১১ দশমিক ০০০ মেট্রিক টন চাল বিতরণ করা হয়। 

          সংশ্লিষ্ট  জেলার  জেলা তথ্য অফিসসমূহ ঢাকা বিভাগীয়  তথ্য অফিসের মাধ্যমে  এসব তথ্য জানিয়েছে।

#

আনোয়ার/সাহেলা/সঞ্জীব/আব্বাস/২০২১/ ঘণ্টা  

তথ্যবিবরণী                                                                                                             নম্বর : ৩২৪৫

ঈদকে সামনে রেখে ১ হাজার ১৮০ জন শিক্ষক কর্মচারীর

কল্যাণ সুবিধার ৫২ কোটি ৬০ লাখ টাকা  ছাড়

ঢাকা, ২৯ আষাঢ় (১৩ জুলাই) :

          আসন্ন কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শিক্ষক কর্মচারী কল্যাণ ট্রাস্ট কর্তৃপক্ষ ১ হাজার ১ শত ৮০ জন শিক্ষক কর্মচারীর কল্যাণ সুবিধা বাবদ ৫২ কোটি ৬০ লাখ টাকা ছাড় করেছে। আজ উক্ত টাকা সংশ্লিষ্ট ব্যাংকে ছাড় করা হয়।

          বৈশ্বিক মহামারি কোভিড-১৯ করোনার মহাদুর্যোগে কঠিন লকডাউনের মধ্যেও রাষ্ট্রিীয় জনগুরুত্বপূর্ণ বিবেচনায় আসন্ন কোরবানির ঈদের পূর্বেই উল্লেখযোগ্য সংখ্যক অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক কর্মচারীদের হাতে কল্যাণ সুবিধার টাকা পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যে কল্যাণ ট্রাস্টের কর্মকর্তা কর্মচারীদের সকল ছুটি বাতিল করা হয়।

          আজ কল্যাণ ট্রাস্টের সচিব এবং  ট্রাস্টের ভাইস চেয়ারম্যান ও মাউশির মহাপরিচালকের যৌথ  স্বাক্ষরে  ১ হাজার ১ শত ৮০ জন শিক্ষক কর্মচারীর কল্যাণ সুবিধার ৫২  কোটি, ৬০ লাখ, ৫৭ হাজার, ১৩১ টাকা সংশ্লিষ্ট ব্যাংকে ছাড় করা হয়েছে। ইএফটির মাধ্যমে আগামী বৃহস্পতিবারের মধ্যেই উল্লিখিত শিক্ষক কর্মচারীদের স্ব স্ব ব্যাংক একাউন্টে তাদের  টাকা পৌঁছে যাবে বলে শিক্ষক কর্মচারী কল্যাণ  ট্রাস্ট কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে।

          এ ছাড়া, গত ১৬ জুন ৫৭১ জন অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক ও কর্মচারী কল্যাণ সুবিধা বাবদ ২৪ কোটি ৯৭ লাখ ৮৭ হাজার ৯৫০ টাকা ছাড় করা হয়।

          উল্লেখ্য করোনাকালীন ২০২০ সালের মার্চ মাস থেকে ১৩ জুলাই ২০২১ পর্যন্ত উল্লেখযোগ্য পরিমাণ শিক্ষক কর্মচারীকে কল্যাণ সুবিধার টাকা পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। এই সময়ের মধ্যে ১২ হাজার ৭ শত ৪৮ জন শিক্ষক কর্মচারীকে ৫৬৪ কোটি ৯ লাখ ৭০ হাজার ৭৪৩ টাকা কল্যাণ সুবিধা প্রদান করা হয়েছে।

#

বাশার/সাহেলা/সঞ্জীব/জয়নুল/২০২১/২০৫৫ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                                নম্বর : ৩২৪৪

কৃষি হবে সমৃদ্ধ ও দুর্বার

                -- কৃষিমন্ত্রী

ঢাকা, ২৯ আষাঢ় (১৩ জুলাই) :

          কৃষিমন্ত্রী ড. মোঃ আব্দুর রাজ্জাক বলেছেন, কৃষি বাংলাদেশের অর্থনীতির প্রাণ। কৃষির উন্নয়ন হলেই দেশের সার্বিক উন্নয়ন হবে। সেজন্য, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সরকার কৃষিকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে ক্রমাগতভাবে কৃষিবান্ধব নীতি গ্রহণ ও তা বাস্তবায়ন করে যাচ্ছে। সার, সেচ, বীজসহ কৃষি উপকরণ সহজলভ্য করে কৃষকের দোরগোড়ায় অব্যাহতভাবে পৌঁছে দিচ্ছে। শ্রমিক সংকট নিরসন ও উৎপাদন খরচ কমাতে কৃষকদেরকে দিচ্ছে ৫০-৭০ ভাগ ভর্তুকিতে কৃষিযন্ত্র। এর ফলে আগামী দিনের কৃষি হবে যান্ত্রিক, আধুনিক ও বাণিজ্যিক। কৃষি হবে সমৃদ্ধ, দুর্বার ও লাভজনক, যার মাধ্যমে কৃষক ও গ্রামীণ মানুষের জীবনমান আরো উন্নত হবে।

          মন্ত্রী তাঁর সরকারি বাসভবন থেকে ভার্চুয়ালি টাঙ্গাইলের মধুপুর উপজেলায় কৃষকদের মাঝে কৃষিযন্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ কথা বলেন।

          সরকারের সময়োপযোগী উদ্যোগের ফলে করোনাকালে দেশে খাদ্য নিয়ে কোন সংকট হয়নি উল্লেখ করে ড. রাজ্জাক বলেন, প্রাকৃতিক দুর্যোগ না হলে সামনের দিনগুলোতেও কৃষি উৎপাদন কমার কোন সুযোগ নেই। করোনার চলমান ঢেউয়ে সংক্রমণ দ্রুত বাড়ছে। তারপরও আশা করা যায়, ভবিষ্যতে দেশে খাদ্য সংকট হবে না।

          অনুষ্ঠানে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের এনএটিপি-২ প্রকল্পের আওতায় ১২০জন সিআইজি কৃষকদেরকে পাওয়ার টিলার, পাওয়ার থ্রেসার, স্প্রে মেশিনসহ বিভিন্ন কৃষিযন্ত্র প্রদান করা হয়। এনএটিপি-২ প্রকল্পের বাস্তবায়ন ইউনিটের পরিচালক আজহারুল ইসলাম সিদ্দিকী, টাঙ্গাইলের উপপরিচালক আহসানুল বাসার, মধুপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শামীমা ইয়াসমিন, পৌর মেয়র সিদ্দিক হোসেন খান, উপজেলা পরিষদের সদস্যবৃন্দ ও উপজেলা পর্যায়ের কর্মকর্তাবৃন্দ এসময় উপস্থিত ছিলেন।

          মন্ত্রী আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের মানুষের জীবনের সুরক্ষায় ও জীবিকা নিশ্চিতে নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন। পৃথিবীর অনেক দেশ এখনও করোনার ভ্যাকসিন সংগ্রহ করতে পারেনি; সেখানে প্রধানমন্ত্রী শুরুতেই দেশের মানুষের জন্য ভ্যাকসিনের ব্যবস্থা করেছেন। মাঝখানে কিছুটা সংকট হলেও দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহণের ফলে টিকাসংকট কেটে গেছে। এখন আবার সারাদেশে ভ্যাকসিন দেয়া শুরু হয়েছে। একই সাথে, দেশেও ভ্যাকসিন তৈরির চেষ্টা চলছে। আশা করা যায়, এটিতেও দেশ সফল হবে।

#

কামরুল/সাহেলা/সঞ্জীব/জয়নুল/২০২১/২০৫০ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                                                                                                                                                          নম্বর : ৩২৪৩

 

কোভিড-১৯ সংক্রান্ত সর্বশেষ প্রতিবেদন

 

ঢাকা, ২৯ আষাঢ় (১৩ জুলাই) :

 

          স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এবং রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর)-এর তথ্যানুযায়ী গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ৪১ হাজার ৭৫৫ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ১২ হাজার ১৯৮ জনের শরীরে করোনা সংক্রমণ পাওয়া গেছে। এ নিয়ে বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত কোভিড-১৯ আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ১০ লাখ ৪৭ হাজার ১৫৫ জন। 

 

          গত ২৪ ঘণ্টায় ২০৩ জন-সহ এ পর্যন্ত ১৬ হাজার ৮৪২ জন এ রোগে মৃত্যুবরণ করেছেন।

 

          করোনা ভাইরাস আক্রান্তদের মধ্যে এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৮ লাখ ৮৯ হাজার ১৬৭ জন।

#

ফেরদৌস/সাহেলা/সঞ্জীব/আব্বাস/২০২১/১৯৫৮ ঘণ্টা

 

তথ্যবিবরণী                                                                                                                নম্বর : ৩২৪২

১৯ জুলাই এর মধ্যে শ্রমিকদের বেতন-বোনাস পরিশোধে মালিকদের আহ্বান শ্রম প্রতিমন্ত্রীর

ঢাকা, ২৯ আষাঢ় (১৩ জুলাই) :

          আগামী ১৯ জুলাই এর মধ্যে শ্রমিকদের বেতন-বোনাসসহ সকল পাওনা পরিশোধে মালিকদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান। তিনি বলেছেন, ঈদের সরকারি ছুটির সাথে মিলিয়ে গার্মেন্টসসহ সকল শিল্প খাতের শ্রমিকদের বদলি ছুটি পাওনা থাকলে কারখানা পর্যায়ে মালিক-শ্রমিক সমন¦য় করে সিদ্ধান্ত নেবেন।

          আজ রাজধানীর বিজয়নগরে শ্রম ভবনের সম্মেলনকক্ষে আরএমজি বিষয়ক ত্রিপক্ষীয় পরামর্শ পরিষদ-টিসিসি'র সভায় সভাপতির বক্তৃতায় প্রতিমন্ত্রী এ কথা বলেন।

          প্রতিমন্ত্রী বলেন, গণটিকার আওতায় ৩৫ বছর বা তদূর্ধ্ব বয়সের শ্রমিকদের টিকা গ্রহণে উদ্বুদ্ধ করতে শ্রম মন্ত্রণালয়ের মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। খুব শীঘ্রই ৩৫ বছরের কম বয়স্ক শ্রমিকদের অগ্রাধিকারভিত্তিতে করোনা টিকার ব্যবস্থা করা হবে। সভায় উপস্থিত মালিক প্রতিনিধিগণ জানিয়েছেন প্রায় শতভাগ কারখানার শ্রমিকদের গত জুন মাসের বেতন পরিশোধ হয়েছে।

          মন্নুজান সুফিয়ান বলেন, সরকার ঈদে মানুষের যাতায়াত, কোরবানি কেনাবেচা নির্বিঘ্ন করতে আগামী ১৫ থেকে ২২ জুলাই পযর্ন্ত কঠোর বিধিনিষেধ শিথিল করেছে। তাই বলে গাদাগাদি করে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চলাচল না করতে শ্রমিকদের পরামর্শ দিয়েছেন। তিনি বলেন সকলে কষ্ট করে হলেও মাস্ক পরুন, স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন। এতে সবাই যেমন নিরাপদ থাকবে, দেশও নিরাপদে থাকবে।

          সভায় মন্ত্রণালয়ের সচিব কে এম আব্দুস সালাম, কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তরের মহাপরিদর্শক মো. নাসির উদ্দীন আহমেদ, শ্রম অধিদপ্তরের মহাপরিচালক গৌতম কুমার, বাংলাদেশ এমপ্লয়ার্স ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক ফারুক আহমেদ, বিজিএমইএ এর সহসভাপতি মো. নাছির উদ্দিন, বিকেএমইএ এর সিনিয়র সহসভাপতি মোহাম্মদ হাতেম, জাতীয় শ্রমিক লীগের সভাপতি নুর কুতুব আলম মান্নান, ইন্ডাস্ট্রিঅল বাংলাদেশ কাউন্সিলের সাধারণ সম্পাদক কামরুল হাসান, শ্রমিক নেতা সিরাজুল ইসলাম রনি, নাজমা আক্তারসহ বিভিন্ন মন্ত্রণালয়, বিভাগ ও সংস্থার কর্মকর্তা, মালিক-শ্রমিক প্রতিনিধি অংশগ্রহণ করেন।

#

আকতারুল/সাহেলা/সঞ্জীব/জয়নুল/২০২১/২০৩০ঘণ্টা

 

তথ্যবিবরণী                                                                                                               নম্বর : ৩২৪১

খুলনা বিভাগে করোনাকালীন অসহায় জনগোষ্ঠীর মাঝে ত্রাণ বিতরণ

ঢাকা, ২৯ আষাঢ় (১৩ জুলাই) :

          কোভিড-১৯ এর সংক্রমণ প্রতিরোধে চলমান কঠোর লকডাউনের মধ্যে আজ খুলনা বিভাগের কুষ্টিয়া ও মাগুরা জেলায় অসহায়, কর্মহীন ও বিভিন্ন শ্রেণির প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর মাঝে প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে সরকারি ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করা হয়।

          কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে আজ ভিজিএফ (খাদ্যশস্য) বিতরণ কার্যক্রমের আওতায় ২ হাজার টি উপকারভোগী পরিবারের মাঝে ২০ মেট্রিক টন চাল বিতরণ করা হয়। এছাড়া ১ হাজার ২০০ টি দুস্থ ও অসহায় পরিবারের মধ্যে ২ মেট্রিক টন চাল এবং ৪০ জন উপকারভোগীর মাঝে নগদ ৪০ হাজার টাকা বিতরণ করা হয়। ৩৩৩ হেল্পলাইনে ফোন করলে আরো ৬০ টি পরিবারের মাঝে প্রতিটিকে ১০ কেজি চাল, ১ কেজি ডাল, ২ কেজি আলু, ১ কেজি পেঁয়াজ, ১ লিটার তেল, ১ কেজি চিনি,  ১ কেজি লবণ ও ১ টি সাবান দেয়া হয়েছে।

          অপরদিকে, মাগুরা জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন দপ্তরের উদ্যোগে আজ ভিজিএফ (খাদ্যশস্য) বিতরণ কার্যক্রমের আওতায় আরো ৩ হাজার টি উপকারভোগী পরিবারের প্রত্যেকটির মাঝে ১০ কেজি করে চালের প্যাকেট বিতরণ করা হয়।  এছাড়া জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে স্থানীয়ভাবে ১০০ প্যাকেট শুকনো খাবার বিতরণ করা হয়।

#

দীপংকর/সাহেলা/সঞ্জীব/জয়নুল/২০২১/১৯৪০ঘণ্টাতথ্যবিবরণী                                                                                                             নম্বর : ৩২৪০

 

কোভিড-১৯ নিয়ন্ত্রণে সকলকে আরো সচেতন হতে হবে

                                      ---জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী

ঢাকা, ২৯ আষাঢ় (১৩ জুলাই) :

 

          জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন কোভিড-১৯ এর বিস্তার রোধ এবং নিয়ন্ত্রণে সকলকে আরো সচেতন হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।

 

          আজ মেহেরপুর জেলার বিভিন্ন উপকারভোগী ও সংস্কৃতিসেবীদের মধ্যে চেক, অনুদান, হুইল চেয়ার‌ এবং হিয়ারিং এইড বিতরণ অনুষ্ঠানে ভার্চুয়াল কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তৃতাকালে প্রতিমন্ত্রী এ কথা বলেন।

 

          প্রতিমন্ত্রী বলেন, দেশে কোভিড-১৯ এর সংক্রমণ আগের চেয়ে বৃদ্ধি পেয়েছে। এই সংক্রমণ যেন আর বৃদ্ধি না পায় সে জন্য জনগণকে আরো সতর্ক থাকতে হবে। আসন্ন ঈদে এই সংক্রমণ রোধে সকলকে সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে। প্রতিমন্ত্রী এসময় জনসমাগম যথাসম্ভব পরিহার করার আহ্বান জানান। তিনি আরো বলেন, করোনাভাইরাস মোকাবিলায় সকলেরই দায়বদ্ধতা রয়েছে। এজন্য সরকারের পাশাপাশি বিভিন্ন সামাজিক ও রাজনৈতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দকে জনসচেতনতা বৃদ্ধিতে একযোগে কাজ করতে হবে।

 

          ফরহাদ হোসেন আরো বলেন, সরকার করোনাকালীন দুস্থ ও অসহায়দের মাঝে খাদ্য ও ত্রাণ সরবরাহ অব্যাহত রেখেছে যাতে কাউকে দুর্ভোগ পোহাতে না হয়। এসবের পাশাপাশি উন্নয়ন কার্যক্রম ও চলমান রয়েছে। সবাই যেন দ্রুত আবার স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে পারে সেজন্য সকলকে আন্তরিকতার সাথে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। তিনি আরো বলেন, মাস্ক না পড়া অপরাধের শামিল। কারণ মাস্ক না পড়লে নিজে যেমন কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা থাকে, তেমনি অন্যকেও রোগে সংক্রমিত করার ঝুঁকি থাকে।

 

          মেহেরপুরের জেলা প্রশাসক ড. মোঃ মুনসুর আলম খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে পিপি এ্যাডভোকেট পল্লব ভট্টাচার্য, জাতীয় মহিলা সংস্থা, মেহেরপুরের চেয়ারম্যান শামীম আরা হীরা, মেহেরপুর সদরের উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাসুদুল আলম, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মেহেরপুর জেলা শাখার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট ইব্রাহিম শাহিন, বঙ্গবন্ধু শিক্ষা ও গবেষণা পরিষদ মেহেরপুরের সভাপতি প্রফেসর হাসানুজ্জামান মালেক, জেলা শিল্পকলা একাডেমির সাধারণ সম্পাদক সাইদুর রহমান অনুষ্ঠানে বক্তব্য প্রদান করেন।

 

#

 

শিবলী/সাহেলা/সঞ্জীব/আব্বাস/২০২১/১৯৩৪ ঘণ্টা 

তথ্যবিবরণী                                                                                                                                                                                                                                            নম্বর : ৩২৩৯

আগামীকাল মধ্যরাত থেকে ২৩ জুলাই  সকাল ছয়টা পর্যন্ত নৌযান চলবে

২৩ জুলাই  সকাল ছয়টা থেকে ৫ আগস্ট  দিবাগত রাত ১২টা পর্যন্ত যাত্রীবাহী নৌযান চলাচল বন্ধ থাকবে

 

ঢাকা, ২৯ আষাঢ় (১৩ জুলাই) :

 

          ধারণক্ষমতার অর্ধেক যাত্রী নিয়ে এবং যাত্রীসহ সংশ্লিষ্টদের মাস্ক পরিধান ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে আগামীকাল মধ্যরাত থেকে ২৩ জুলাই ২০২১ সকাল ছয়টা পর্যন্ত নৌযান পরিচালনার অনুরোধ করেছে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ)।

 

          পবিত্র ঈদ-উল আযহা উদযাপন, জনসাধারণের যাতায়াত, ঈদ পূর্ববর্তী  ব্যবসা-বাণিজ্য পরিচালনা, দেশের আর্থ-সামাজিক অবস্থা এবং অর্থনৈতিক কার্যক্রম স্বাভাবিক রাখার স্বার্থে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের এক প্রজ্ঞাপনের প্রেক্ষিতে বিআইডব্লিউটিএ আজ নৌযান পরিচালনা সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তিতে এ অনুরোধ জানিয়েছে।

 

          বিজ্ঞপ্তিতে আরো জানানো হয়, করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) জনিত রোগ সংক্রমণের বর্তমান পরিস্থিতি বিবেচনায় ২৩ জুলাই ২০২১ সকাল ছয়টা থেকে ৫ আগস্ট ২০২১ দিবাগত রাত ১২টা পর্যন্ত অভ্যন্তরীণ নৌপথে সকল ধরণের যাত্রীবাহী নৌযান (লঞ্চ, স্পিডবোট, ট্রলার ও অন্যান্য) চলাচল বন্ধ থাকবে।

 

          অভ্যন্তরীণ নৌপথে চলাচলকারী যাত্রীবাহী নৌযানের মালিক, মাস্টার, ড্রাইভার, স্টাফ, যাত্রীসাধারণ ও সংশ্লিষ্ট সকলকে উক্ত নির্দেশনা মেনে চলতে বিজ্ঞপ্তিতে অনুরোধ করা হয়েছে। বিজ্ঞপ্তিতে আদেশ অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়ার কথা বলা হয়েছে।

 

#

 

জাহাঙ্গীর/সাহেলা/সঞ্জীব/আব্বাস/২০২১/১

2021-07-13-17-20-d52a36effba106c507eefd320291179a.docx 2021-07-13-17-20-d52a36effba106c507eefd320291179a.docx

Share with :

Facebook Facebook