তথ্য অধিদফতর (পিআইডি) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ৩rd জুলাই ২০২২

তথ্যবিবরণী ৩ জুলাই ২০২২

তথ্যবিবরণী                                                                                                  নম্বর : ২৭০৩

আইসিএসবি (ICSB) দেশের ব্যবসা ও অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখছে

                                                                                    -- সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী

ঢাকা, ১৯ আষাঢ় (৩ জুলাই) :

          সংস্কৃতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ বলেছেন, ইনস্টিটিউট অভ্ চার্টার্ড সেক্রেটারিজ অভ্ বাংলাদেশ (ICSB) সঠিক পরিকল্পনা প্রণয়ন ও বাস্তবায়নের মাধ্যমে দেশের ব্যবসা ও অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখছে। একইসঙ্গে দেশের উন্নয়নে প্রতিযোগিতামূলক বিনিয়োগের পরিবেশ তৈরি করছে। কর্পোরেট সেক্টরে সুশাসন নিশ্চিতকরণেও সংগঠনটির ভূমিকা কোনো অংশে কম নয়। এটিকে আরো জোরদারকরণে আইসিএসবি, অন্যান্য পেশাদার প্রতিষ্ঠান ও সরকারি সংস্থাগুলোর ঘনিষ্ঠ সহযোগিতা একান্ত আবশ্যক।

          প্রতিমন্ত্রী আজ রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ইনস্টিটিউট অভ্ চার্টার্ড সেক্রেটারিজ অভ্ বাংলাদেশ (ICSB) এর রজতজয়ন্তী উদযাপন ২০২২ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

          প্রধান অতিথি বলেন, কর্পোরেট সেক্টরে দক্ষ ও পেশাদার জনবল সৃষ্টি এবং শৃঙ্খলা নিশ্চিতকরণে আইসিএসবি প্রতিষ্ঠিত হয়। এটি বাংলাদেশ সরকারের বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন একটি সংবিধিবদ্ধ প্রতিষ্ঠান যা বাংলাদেশে চার্টার্ড/কোম্পানি সেক্রেটারিদের পেশার বিকাশ ও প্রসারে কাজ করে যাচ্ছে। আইসিএসবি প্রফেশনালদের অত্যন্ত মেধাবী অভিহিত করে কে এম খালিদ বলেন, ইনস্টিটিউটের ৪ হাজার শিক্ষার্থীদের মধ্য থেকে এ পর্যন্ত পাস করা পেশাজীবীর সংখ্যা মাত্র ৬০০ জন। প্রতিমন্ত্রী এসময় জাতির পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মাণে আইসিএসবি সরকারের একটি সহায়ক শক্তি হিসাবে কাজ করে যাবে মর্মে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

          ICSB এর প্রেসিডেন্ট মোজাফফর আহমেদ এফসিএমএ, এফসিএস এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ এন্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) এর চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবায়াত-উল-ইসলাম। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন ওঈঝই এর রজতজয়ন্তী উদ্যাপন কমিটির চেয়ারম্যান ইতরাত হোসেন এফসিএমএ, এফসিএস, সানাউল্লাহ এফসিএস ও সুলতানুল আবেদীন মোল্লা এফসিএস।

          অনুষ্ঠানে ইনস্টিটিউটের প্রতিষ্ঠাতা সদস্যদের মধ্য থেকে অভিজ্ঞতা বিনিময় করেন এ কে এম মুক্তাদির। আইসিএসবি’র প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের মধ্য থেকে অভিজ্ঞতা শেয়ার করেন ইস্টার্ন ব্যাংক লিমিটেডের কোম্পানি সেক্রেটারি আব্দুল্লাহ আল মামুন, ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার মফিজুল ইসলাম ভূঁইয়া, উদ্যোক্তা নাজমুন নাহার কিউসিএস ও প্রফেসর আবদুল হাই প্রমুখ।

#

ফয়সল/রফিক/জয়নুল/২০২২/২২৫০ ঘণ্টা

 

তথ্যবিবরণী                                                                                                             নম্বর : ২৭০২

পবিত্র ঈদুল আযহা উপলক্ষে এক লাখ তিনশত মেট্রিকটন ভিজিএফ চাল বরাদ্দ দিয়েছে সরকার

ঢাকা, ১৯ আষাঢ় (৩ জুলাই) :

          পবিত্র ঈদুল আযহা উপলক্ষ্যে সারাদেশের ৬৪টি জেলার ৪৯২টি উপজেলার জন্য ৮৭ লাখ ৭৯ হাজার ২০৩টি ভিজিএফ কার্ডের বিপরীতে এবং ৩২৯টি পৌরসভার জন্য ১২ লাখ ৫৩ হাজার ৮৫১টি ভিজিএফ কার্ডের বিপরীতে সর্বমোট ১ লাখ ৩শ’ ৩০ দশমিক ৫৪  মেট্রিকটন ভিজিএফ চাল বরাদ্দ দিয়েছে সরকার। দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় আজ এ বরাদ্দ প্রদান করে।

          একই সাথে দুঃস্থ, অতিদরিদ্র ব্যক্তি বা পরিবারকে এ সহায়তা প্রদান করতে বলা হয়েছে। তবে সাম্প্রতিক প্রাকৃতিক দুর্যোগে ক্ষতিগ্রস্ত দুঃস্থ ও অতিদরিদ্র পরিবারকে অগ্রাধিকার দিতে নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে।

#

সেলিম/রফিক/জয়নুল/২০২২/২২৪০ঘণ্টা

 

তথ্যবিবরণী                                                                                                  নম্বর : ২৭০১

টেলিযোগাযোগ বিভাগের উদ্যোগে বন্যাদুর্গত এলাকায় আরো ত্রাণসামগ্রী প্রেরণ

ঢাকা, ১৯ আষাঢ় (৩ জুলাই) :

          ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের উদ্যোগে বন্যাদুর্গত এলাকায় বিতরণের জন্য ত্রাণ বোঝাই আরো একাধিক গাড়ি বিটিসিএল থেকে আগামী ৫ জুলাই নেত্রকোণা জেলার মোহনগঞ্জ ও মদন উপজেলার উদ্দেশ্যে পাঠানোর উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। আজ ঢাকায় বিটিসিএল ভবনে হুয়াওয়ে বাংলাদেশ লিমিটেড এবং প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান জিনিউ বন্যার্তদের জন্য ১ হাজার ৩৫০ প্যাকেট ত্রাণসামগ্রী বন্যাদুর্গতদের মধ্যে বিতরণের জন্য ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বারের নিকট হস্তান্তর করে। ডাক  ও টেলিযোগাযোগ সচিব খলিলুর রহমান এবং বিটিসিএল’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. মোঃ রফিকুল মতিন এ সময়  উপস্থিত ছিলেন। মোহনগঞ্জ ও মদন উপজেলার হাওর অঞ্চলের জন্য এখন পর্যন্ত

১ হাজার ৬৫০ প্যাকেট ত্রাণ প্রস্তুত হয়েছে। আরো অন্তত এক হাজার প্যাকেট ত্রাণ প্রস্তুত হচ্ছে।

          এর আগে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের উদ্যোগে নেত্রকোণার খালিয়াজুরীতে ৫ হাজার ২১ প্যাকেট  ও সুনামগঞ্জের শাল্লা উপজেলায় এক হাজার প্যাকেট ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। উল্লেখ্য, ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বারের নির্দেশে হাওরের বন্যাদুর্গত এলাকায় ত্রাণ বিতরণ শুরু হয়েছে। মন্ত্রী আরো ত্রাণের ব্যবস্থা করছেন। ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ ও এর অধীন সংস্থাসমূহের পক্ষ থেকেও ত্রাণ পাঠানোর উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে।  আরো উল্লেখ্য, টেলিযোগাযোগ বিভাগ হাওড় এলাকায় ফিক্সড ফোন, মোবাইল নেটওয়ার্ক ও জরুরি সেবা সচল করা ছাড়াও  স্যাটেলাইট হাব স্থাপন করেছে।

#

 শেফায়েত/পাশা/রফিক/সঞ্জীব/মাহমুদ/জয়নুল/২০২২/২১৩০ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                     নম্বর : ২৭০০

সমন্বিত জ্বালানি ও বিদ্যুৎ মহাপরিকল্পনার অন্তর্বর্তী প্রতিবেদনের ওপর দ্বিতীয় অংশীজন সভা অনুষ্ঠিত

 ঢাকা, ১৯ আষাঢ় (৩ জুলাই) :   

সমন্বিত জ্বালানি ও বিদ্যুৎ মহাপরিকল্পনার অন্তর্বর্তী প্রতিবেদনের ওপর দ্বিতীয় অংশীজন সভা আজ ঢাকায় ইন্টারকন্টিনেন্টাল হোটেলে অনুষ্ঠিত হয়। মহাপরিকল্পনাটি জাইকার কারিগরি সহায়তায় প্রণয়ন করা হচ্ছে।

টেকসই উন্নয়নকে লক্ষ্য রেখে পূর্বের মহাপরিকল্পনা পর্যালোচনা, ২০৫০ পর্যন্ত জ্বালানি ও বিদ্যুৎ চাহিদা, প্রাথমিক জ্বালানি ও বিদ্যুৎ সরবরাহ, জ্বালানি সংগ্রহ ও ব্যবস্থাপনা, ২০৫০ পর্যন্ত জ্বালানির চাহিদা ও সরবরাহের ওপর ভিত্তি করে Nationally Determined Contribution (NDC) হালনাগাদ, সর্বোপরি অংশীজনদের সাথে আলোচনা করে সমন্বিত জ্বালানি ও বিদ্যুৎ মহাপরিকল্পনা চূড়ান্ত করা হবে। Economy, Energy and Environment এর সাথে নিরাপত্তার বিষয়টি সংযুক্ত করে সুষম উন্নয়ন করতেই এই মহাপরিকল্পনা। ২০৫০ সালের মধ্যে কার্বন ইমিশন নেট জিরো করার নির্দশনাও এখানে থাকবে।

জ্বালানির চাহিদা নিরূপণে জিডিপি প্রবৃদ্ধি, জনসংখ্যা বৃদ্ধি, জ্বালানির মূল্য বিশ্লেষণ ও প্রযুক্তির উন্নয়ন নিয়ে পর্যালোচনা করা হয়েছে। প্রযুক্তির উন্নয়নের জন্য ২০৩০ সালের মধ্যে কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রে সহজ্বালানি হিসেবে এমোনিয়া, ২০৩৫ সালের মধ্যে গ্যাসভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রে সহজ্বালানি হিসেবে হাইড্রোজেন ব্যবহৃত হবে বা বিকল্প জ্বালানি হিসেবে ব্যবহৃত হতে পারে।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রীর বিদ্যুৎ জ্বালানির খনিজ সম্পদ বিষয়ক উপদেষ্টা ড. তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী বীরবিক্রম, বিদ্যুৎ ও জ্বালানির সাশ্রয়ী ব্যবহারের ওপর গুরুত্ব দিয়ে বলেছেন, বিদ্যুৎ ও জ্বালানি সরবরাহ চেইন পুনঃপরীক্ষা করা উচিত। কৃষিতে সার ও জ্বালানির ব্যবহারে কৃচ্ছ্রতা, পরিবহন খাতে, শিল্প বা আবাসিকে জ্বালানি তেলের সাশ্রয়ী ব্যবহার আমাদের জন্য কল্যাণকর। বৈশ্বিক প্রেক্ষাপটে জ্বালানির মূল্য ক্রমবর্ধমান । এই জন্য ইউরোপ এখন কয়লা থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদনের দিকে যাচ্ছে। আমাদের কার্বন ইমিশন খুবই কম। আমাদের ফুয়েল মিক্সে সাশ্রয়ী মূল্যের জ্বালানির অংশ বাড়ানো যেতে পারে। তিনি আরো বলেন, ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র উদ্ভাবনের দিকে মনোনিবেশ করতে হবে। এই উদ্ভাবনাই সাফল্যের চাবিকাঠি। আমাদের থ্রি হুইলার একসময় হয়তো জ্বালানি সংরক্ষণ ও নিরাপত্তার ল্যান্ডমার্ক হিসেবে আবির্ভূত হতে পারে।

জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগের সিনিয়র সচিব মোঃ মাহবুব হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মাঝে বিদ্যুৎ সচিব মোঃ হাবিবুর রহমান, বাংলাদেশে নিযুক্ত জাপানের রাষ্ট্রদূত ইতো নাকি(Ito Naoki), জাইকার বাংলাদেশ অফিসের প্রধান প্রতিনিধি Hayakawa Yuho ও জাইকা স্টাডি টিমের প্রধান Ichiro Kutani বক্তব্য রাখেন।

#

আসলাম/পাশা/রফিক/সঞ্জীব/মাহমুদ/শামীম/২০২২/২০৪০ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                 নম্বর :  ২৬৯৯

দেশব্যাপী ঈদ উপলক্ষ্যে মহাসড়কে যান চলাচলে বিধিনিষেধ

 

ঢাকা, ১৯ আষাঢ় (৩ জুলাই) :

           

অনুমোদিত এলাকার বাইরে মোটরসাইকেল রাইড-শেয়ারিং করা যাবে না এবং পবিত্র ঈদুল আজহার আগের তিন দিন, ঈদের দিন এবং ঈদের পরের তিন দিন সারা দেশের মহাসড়কে যৌক্তিক কারণ ছাড়া মোটরসাইকেল চালানো যাবে না। পাশাপাশি এক জেলায় রেজিস্ট্রেশনকৃত মোটরসাইকেল অন্য জেলায় চালানো যাবে না। তবে যৌক্তিক ও অনিবার্য প্রয়োজনে পুলিশের অনুমতি নিয়ে মোটরসাইকেল চালানো যাবে।

নিত্যপণ্য, কাঁচামাল, ওষুধ, জ্বালানি তেল, গার্মেন্টস সামগ্রী, রপ্তানি পণ্য, পচনশীল দ্রব্য ও পশুবাহী ট্রাক ছাড়া ভারী পণ্যবাহী ট্রাক, কাভার্ড ভ্যান এবং লরি ঈদের আগের তিন দিন, ঈদের দিন এবং ঈদের পরের তিন দিন সারা দেশের মহাসড়কে চলাচল নিষিদ্ধ।

এ নির্দেশনা অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী এবং বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের সভাপতিত্বে (ভার্চুয়ালি) মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে ঈদ যাত্রা নিরাপদ ও নির্বিঘ্ন করার লক্ষ্যে অনুষ্ঠিত সভায় আজ এ সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

সভায় ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে মন্ত্রী বলেন, মহাসড়কের উপর পশুর হাট বসানো যাবে না। এ সময় তিনি ফিটনেসবিহীন গাড়িতে কোরবানির পশু পরিবহন না করার জন্য পরিবহন মালিক-শ্রমিকদের অনুরোধ জানান। সেইসাথে সিএনজি ফিলিং স্টেশন সার্বক্ষণিক খোলা রাখার বিষয়ে উদ্যোগ নিতেও সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়কে অনুরোধ জানান মন্ত্রী। পোশাক শ্রমিকদের পর্যায়ক্রমে ছুটি দেয়ার জন্য তিনি বিজিএমইএ এবং বিকেএমইএ এর নেতৃবৃন্দদের প্রতিও আহ্বান জানান।

মন্ত্রী আরো বলেন, পদ্মা সেতু চালু হওয়ায় অনেক পশুবাহী যানবাহন এ পথে ঢাকায় আসবে। এ বিষয়টি বিবেচনায় রাখতে হবে। এছাড়া জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সড়কে যানবাহনের চাপ বাড়বে। এ চাপ মোকাবিলায় পদ্মা সেতু ও এক্সপ্রেসওয়ের টোল প্লাজাসহ বঙ্গবন্ধু সেতু, মেঘনা এবং গোমতী সেতুর টোল প্লাজায় বুথ সংখ্যা বাড়ানোর জন্য তিনি সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেন। গণপরিবহনে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের অভিযোগ পেলে সঙ্গে সঙ্গে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্যও সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেন তিনি।

সভায় সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব এ বি এম আমিন উল্লাহ নুরী, মন্ত্রণালয়ের অধীন বিভিন্ন সংস্থার প্রধানগণ, সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও সংস্থার প্রতিনিধিগণ, পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, মালিক-শ্রমিক নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন এবং বিভাগীয় কমিশনার, হাইওয়ে পুলিশসহ বিভিন্ন জেলার জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারগণ ভার্চুয়ালি যুক্ত ছিলেন।

                                                         #

ওয়ালিদ/পাশা/রফিকুল/সঞ্জীব/মাহমুদুল/আব্বাস/২০২২/২০৩৮ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                  নম্বর : ২৬৯৮

শেখ হাসিনার হাতেই আগামীর সমৃদ্ধ বাংলাদেশের চাবিকাঠি

                                                         --  সমাজকল্যাণমন্ত্রী

ঢাকা, ১৯ আষাঢ় (৩ জুলাই) :

          সমাজকল্যাণমন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদ বলেছেন, শেখ হাসিনার যোগ্য নেতৃত্ব বাঙালি জাতির জন্য আশীর্বাদ। বাংলাদেশ বিশ্বের বুকে আজ যে অবস্থান সৃষ্টি করেছে তার মূল কারিগর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শেখ হাসিনার হাতেই আগামীর সমৃদ্ধ বাংলাদেশের চাবিকাঠি।

          মন্ত্রী আজ লালমনিরহাট জেলার কালীগঞ্জ উপজেলায় অসচ্ছল বীর মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য বীর নিবাস (২য় পর্যায়) নির্মাণকাজের ভিত্তিপ্রস্তর উদ্বোধন  উপলক্ষ্যে আয়োজিত অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

          মন্ত্রী  বলেন, শেখ হাসিনা দেশ পরিচালনার দায়িত্বভার গ্রহণের আগে পদ্মা সেতু, মেট্রোরেলের মতো বৃহৎ প্রকল্প এ দেশে বাস্তবায়িত হবে এ স্বপ্ন কেউ দেখেনি। চলমান করোনা মহামারি মোকাবিলা করে দেশের অর্থনীতি ও জীবনযাত্রার মান তিনি যেভাবে স্বাভাবিক রেখেছেন তা তাঁর দূরদর্শী দিকনির্দেশনা ও বিচক্ষণতার একটি দৃষ্টান্ত।

          উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ আবদুল মান্নানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান মাহবুবুজ্জামান আহমেদ, উপজেলা আওয়ামী লীগের (ভারপ্রাপ্ত) সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান মিজু, কালীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এটি এম গোলাম রসুল প্রমুখ।

#

জাকির/পাশা/রফিক/সঞ্জীব/মাহমুদ/জয়নুল/২০২২/২০২৫ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                  নম্বর : ২৬৯৭

অনলাইনে গবাদিপশু ক্রয়ে যাতে কেউ প্রতারিত না হয় সেটি নিশ্চিত করতে হবে

                                                                               -- মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী

ঢাকা, ১৯ আষাঢ় (৩ জুলাই) :

            মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম বলেছেন, অনলাইনে গবাদিপশু ক্রয়ের ক্ষেত্রে যাতে কেউ প্রতারণার শিকার না হয় সেটি লক্ষ্য রাখতে হবে। ডিজিটাল হাটের সাথে সম্পৃক্ত এটুআই, একশপ, ই-ক্যাবসহ অন্যান্য ফোরাম সম্মিলিতভাবে সেটি নিশ্চিত করতে হবে। যাতে মানুষের আস্থা বাড়ে। যদি কেউ প্রতারিত হয়, তারা আগামী বছর এ প্রক্রিয়ার সাথে সংযুক্ত হতে আগ্রহী থাকবে না।

            আজ কোরবানির পশু বিক্রির অনলাইন প্ল্যাটফর্ম ‘ডিজিটাল হাট ২০২২’ (ফরমরঃধষযধঃঃ.মড়া.নফ) এর অনলাইন উদ্বোধন অনুষ্ঠানে রাজধানীর বেইলি রোডের সরকারি বাসভবন থেকে সংযুক্ত হয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এসব কথা বলেন। তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের এটুআই ও একশপ এবং ই-ক্যাব যৌথভাবে এ অনুষ্ঠান আয়োজন করে। 

            এ সময় মন্ত্রী বলেন, ঈদুল আজহায় জরিপ অনুযায়ী ৯৭ লাখ ৭৫ হাজার কোরবানির পশুর চাহিদা রয়েছে। এ চাহিদা মেটানোর জন্য ১ কোটি ২১ লাখ ২৪ হাজার ৩৮৯ টি গবাদিপশু প্রস্তুত রাখা হয়েছে, যাতে কোনভাবে পশুর সংকট না হয়। একসময় ভারত-মিয়ানমার থেকে পশু না এলে কোরবানির পশু নিয়ে দুশ্চিন্তায় থাকতে হতো। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ যে এগিয়ে চলেছে তার অন্যতম অধ্যায় প্রাণিসম্পদ বিভাগের বৈপ্লবিক পরিবর্তন। এখন চাহিদার চেয়ে উদ্বৃত্ত পশু বাংলাদেশে উৎপাদন হচ্ছে।

            মন্ত্রী আরো বলেন, কোরবানির পশু ব্যবস্থাপনা নিয়ে একসময় নানা বিড়ম্বনা ও বিভিন্ন রকম প্রতিকূল অবস্থা ছিল। সেটা তথ্যপ্রযুক্তি আধুনিকায়নের মাধ্যমে অনেক সহজ করে দিয়েছে। অনলাইনে পশু ক্রয়ের পর যদি কারো অভিযোগ থাকে, সেক্ষেত্রেও তার প্রতিকারের ব্যবস্থা রয়েছে। আর্থিক লেনদেনের জন্য স্মার্ট কার্ডসহ অন্যান্য অ্যাপের মাধ্যমে ব্যবস্থা গ্রহণের সুযোগ রাখা হয়েছে। এটি বিশ্বের বুকে বাংলাদেশের সমৃদ্ধ ডিজিটাল দেশে রূপান্তর হওয়ার দৃশ্যমান অবস্থা তুলে ধরেছে।

            তিনি আরো যোগ করেন, অনলাইনে আপলোডকৃত গবাদিপশুর মালিকানা, ঠিকানা, মালিকের মোবাইল নম্বর, পশুর বয়স, ওজন এবং ছবি সংবলিত তথ্য প্রদান নিশ্চিত করা জরুরি। আপলোডের ক্ষেত্রে গবাদিপশুর স্বাস্থ্য সনদ নিতে হবে। এক্ষেত্রে আমাদের ভেটারিনারি সার্জনরা সেবা প্রদান করবে। তাতে রোগাক্রান্ত ও কোরবানির অনুপযুক্ত পশু নির্ণয় করা যাবে। প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তর খামারিদের অনলাইন প্ল্যাটফর্মের সাথে সংযুক্ত করতে প্রয়োজনীয় সহযোগিতা প্রদান করবে। এক্ষেত্রে ডেইরি ফার্মারস অ্যাসোসিয়েশন ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশনের সাথে সমন্বয়ের মাধ্যমে উদ্যোগ গ্রহণ করতে হবে।

            প্রধান অতিথি আরো জানান, অনলাইনে পশু ক্রয়-বিক্রয়ের ক্ষেত্রে হাসিল আদায় করা যাবে না। এ ক্ষেত্রকে ইজারা বহির্ভূত রাখা হবে এবং এ সংক্রান্ত হয়রানি রাতে কেউ না হয় সেটা নিশ্চিত করতে হবে। এমনকি বাজারের বাইরে বাড়িতে বা রাস্তায় কেউ পশু বিক্রি করলে কোনভাবেই তাদের কাছ থেকে হাসিল বা চাঁদা আদায় করা যাবে না। কোরবানির পশু পরিবহনকারী যানবাহন সড়কে, সেতুতে এবং ফেরিতে অগ্রাধিকার দেওয়া হবে। অনলাইনে ক্রয়কৃত পশু আনা-নেয়ার ক্ষেত্রে কেউ সমস্যার মুখোমুখি হলে তা সমাধানে প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের নিয়ন্ত্রণ কক্ষ কাজ করবে। ক্রেতা-বিক্রেতা কেউ যেন সমস্যার মুখোমুখি না হয় সেটা আমাদের লক্ষ্য।

            এ সময় সবাইকে ছবি স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণের পরামর্শ প্রদান করেন মন্ত্রী।

            তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য প্রদান করেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সিনিয়র সচিব এন এম জিয়াউল আলম ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব তপন কান্তি ঘোষ। অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য প্রদান করেন বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মোঃ হাফিজুর রহমান ও এ এইচ এম শফিকুজ্জামান ও মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের যুগ্মসচিব ড. দেওয়ান মোহাম্মদ হুমায়ুন কবির।

#

ইফতেখার/পাশা/রফিক/সঞ্জীব/মাহমুদ/জয়নুল/২০২২/২০২০ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                 নম্বর : ২৬৯৬

 

৭ জুলাইয়ের মধ্যে শ্রমিকদের বেতন বোনাস পরিশোধ করতে হবে

                                                                           ---শ্রম প্রতিমন্ত্রী

ঢাকা, ১৯ আষাঢ় (৩ জুলাই) :            

আসন্ন পবিত্র ঈদুল আজহার ছুটির আগে ৭ জুলাইয়ের মধ্যে গার্মেন্টসসহ সকল সেক্টরের শ্রমিকদের বেতন-বোনাস পরিশোধের জন্য মালিকদের নির্দেশ দিয়েছেন শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান। 

গত ২৮ জুন রাজধানীর বিজয়নগরে শ্রম ভবনের সম্মেলনকক্ষে শ্রম প্রতিমন্ত্রীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মন্ত্রণালয়ের আরএমজি বিষয়ক ত্রিপক্ষীয় পরামর্শ পরিষদ-টিসিসি এবং ২৯ জুন জাতীয় ত্রিপক্ষীয় পরামর্শ পরিষদ-টিসিসি সভার সিদ্ধান্ত মোতাবেক আজ এক বিবৃতিতে শ্রম প্রতিমন্ত্রী এ নির্দেশ দেন।

 

বিবৃতিতে প্রতিমন্ত্রী বলেন, দুটি সভায় সিদ্ধান্ত হয়েছে গার্মেন্টসসহ রাষ্ট্রায়ত্ত, বেসরকারি, প্রাতিষ্ঠানিক-অপ্রাতিষ্ঠানিক সকল খাতের শ্রমিকদের ঈদুল আজহার বোনাস, জুন মাসের বেতন এবং যদি কোন শ্রমিকের কোন মাসের বেতন-ভাতা বকেয়া থাকে তাও ঈদের ছুটির আগে ৭ জুলাইয়ের মধ্যেই মালিকগণ প্রদান করবেন।

সভায় সিদ্ধান্ত হয়, ঈদের ছুটি সরকারি ছুটির সাথে মিলিয়ে মালিক-শ্রমিক আলোচনার মাধ্যমে মালিকগণ শ্রমিকদের ছুটি প্রদান করবেন। তবে জরুরি রপ্তানির প্রয়োজনে শ্রমিকদের সাথে আলোচনা সাপেক্ষে ছুটি সুবিধামতো প্রদান করতে পারবেন। সবাই যাতে ভালোভাবে ঈদ উদ্‌যাপন করতে পারে সেজন্য তিনি মালিক -শ্রমিক সকলের সহযোগিতা কামনা করেন এবং সবাইকে অগ্রিম ঈদুল আজহার শুভেচ্ছা জানান।  

দু’টি টিসিসি সভাতেই নিজেদের টাকায় আমাদের গর্ব ও অহংকারের প্রতীক এবং দেশের সর্ববৃহৎ স্থাপনা পদ্মা সেতু উদ্বোধন করায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানানো হয়।

#

আকতারুল/পাশা/রফিকুল/সঞ্জীব/মাহমুদ/আব্বাস/২০২২/১৯৫৬ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                        নম্বর : ২৬৯৫ 

 

ইউরোপসহ সারা বিশ্বে আম দ্রুত বাজারজাত করতে পারব

                                                                       -- কৃষিমন্ত্রী

 আলমেয়ার (নেদারল্যান্ডস), ১৯ আষাঢ় (৩ জুলাই) :        

নেদারল্যান্ডসের আলমেয়ারে চলমান আন্তর্জাতিক হর্টিকালচার এক্সিবিশনে আজ বর্ণাঢ্য কর্মসূচির মাধ্যমে বাংলাদেশ দিবস পালিত হয়েছে। সকালে বাংলাদেশের জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও জাতীয় সংগীত পরিবেশনের মাধ্যমে কর্মসূচি শুরু হয়। এরপর এক্সিবিশনের মূল স্টেজে ‘সেলিব্রেটিং বাংলাদেশ: ট্রান্সফরমিং এগ্রিকালচার’ শীর্ষক দিনব্যাপী কর্মসূচির উদ্বোধন করা হয়। এতে কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক,  রাষ্ট্রদূত রিয়াজ হামিদুল্লাহ, এক্সপোর কমিশনার জেনারেল অ্যানেম্যারি জরিটসমা বক্তব্য রাখেন। একইসাথে, বাংলাদেশি শিল্পীদের পরিবেশনায় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

পরে বাংলাদেশ প্যাভিলিয়নে আম উৎসবের উদ্বোধন করেন কৃষিমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ড. মোঃ আব্দুর রাজ্জাক। 

কৃষিমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের আম অত্যন্ত সুস্বাদু ও সম্ভাবনাময়। এ আমের রপ্তানির সম্ভাবনাকে আমরা পুরোপুরি কাজে লাগাতে চাই। বাংলাদেশের আমকে ইউরোপসহ বিশ্ববাজারে নিয়ে যেতে চাই। এ লক্ষ্যে এই আম উৎসবের আয়োজন করা হয়েছে। এর মাধ্যমে আমাদের আম আরো জনপ্রিয় হবে ও আমের রপ্তানির সুযোগ তৈরি হবে। এছাড়া, আমরা বাংলাদেশের রপ্তানিকে বহুমুখী করতে চাই, এক্ষেত্রে আম রপ্তানির মাধ্যমে প্রচুর বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করতে পারব।

এসময় কৃষি মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ওয়াহিদা আক্তার, অতিরিক্ত সচিব মোঃ রুহুল আমিন তালুকদার, বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা কাউন্সিলের নির্বাহী চেয়ারম্যান শেখ মোঃ বখতিয়ার, বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত এম রিয়াজ হামিদুল্লাহ, মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব রেহানা ইয়াসমিন, বাংলাদেশের কৃষিপণ্য রপ্তানিকারকদের প্রতিনিধি ও দূতাবাসের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। 

#

কামরুল/পাশা/সঞ্জীব/মাহমুদ/শামীম/২০২২/১৮৩০ঘণ্টা

 

তথ্যবিবরণী                                                                                                         নম্বর : ২৬৯৪

 

শুদ্ধাচার কৌশল কর্মপরিকল্পনা বাস্তবায়নে প্রথম স্থান অর্জন করেছে খাদ্য মন্ত্রণালয়

 

ঢাকা, ১৯ আষাঢ় (৩ জুলাই) :        

          ২০২০-২১ অর্থবছরের শুদ্ধাচার কৌশল কর্মপরিকল্পনা বাস্তবায়নে সকল মন্ত্রণালয় ও বিভাগের মধ্যে খাদ্য মন্ত্রণালয় প্রথম স্থান অর্জন করেছে। প্রতিষ্ঠানিক ক্যাটেগরিতে খাদ্য মন্ত্রণালয় মর্যাদাপূর্ণ সম্মাননা অর্জন করে। খাদ্য মন্ত্রণালয়ের পক্ষে খাদ্য সচিব মোঃ ইসমাইল হোসেন ক্রেস্ট ও সনদ গ্রহণ করেন।

          আজ ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রধান অতিথি হিসেবে গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি অংশগ্রহণ করেন। তাঁর পক্ষে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক সম্মাননা ক্রেস্ট ও সনদ প্রদান করেন। এ সময় জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন এবং মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন।

          প্রতিবছর মন্ত্রণালয় ও বিভাগের এপিএ স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে ‘শুদ্ধাচার পুরস্কার’ প্রদান করা হয়ে থাকে। ২০২১-২২ অর্থবছরে সিনিয়র সচিব ও সচিবগণের মধ্য হতে খাদ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব (পিআরএল) ড. মোছাম্মৎ নাজমানারা খানুম  এবং ভৌত অবকাঠামো বিভাগ, পরিকল্পনা কমিশনের সদস্য (সচিব) মোঃ মামুন-আল-রশীদ যৌথভাবে ‘শুদ্ধাচার পুরস্কার, ২০২১-২২’ পেয়েছেন। এছাড়া ২০২০-২১ অর্থবছরের জাতীয় শুদ্ধাচার কৌশল কর্মপরিকল্পনা বাস্তবায়নে প্রথম স্থান অর্জনকারী খাদ্য মন্ত্রণালয়, দ্বিতীয় স্থান অর্জনকারী সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগ এবং তৃতীয় স্থান অর্জনকারী বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়কে সম্মাননা প্রদান করা হয়।

          এপিএ স্বাক্ষর এবং এপিএ ও শুদ্ধাচার পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে মন্ত্রিসভার সদস্যগণ, সিনিয়র সচিব ও সচিববৃন্দ এবং মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ ও প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

#

 কামাল/পাশা/সঞ্জীব/মাহমুদ/শামীম/২০২২/১৭৪৫ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                 নম্বর : ২৬৯৩

 

হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে যাত্রীদের

দুর্ভোগ লাঘবে কার্যকর ব্যবস্থা নিতে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর আহ্বান

 

ঢাকা, ১৯ আষাঢ় (৩ জুলাই) :          

 

হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে যাত্রীদের দুর্ভোগ লাঘবে প্রয়োজনীয় কার্যকর ব্যবস্থা নিতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন। পররাষ্ট্রমন্ত্রী সরকারি সফর শেষে পর্তুগাল থেকে আজ ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছে বিমানবন্দরের লাগেজ বেল্ট এরিয়াতে অপেক্ষমাণ যাত্রীদের সাথে কথা বলেন এবং তাদের অভিযোগ শোনেন। তিনি এসময় ডিসপ্লে স্ক্রিনে প্রদর্শিত নির্দিষ্ট লাগেজ বেল্টের পাশে লাগেজের জন্য প্রায় দুঘণ্টা অপেক্ষমাণ যাত্রীদের দুর্ভোগের সত্যতা দেখতে পান। তিনি তাৎক্ষণিকভাবে বিমানবন্দর ব্যবস্থাপকের সাথে যোগাযোগ করলে ব্যবস্থাপক লাগেজ বেল্ট এরিয়াতে আসেন এবং লাগেজ আসতে দেরি হওয়ার বিষয়টি দ্রুত সমাধানের বিষয়ে আশ্বস্ত করেন। পররাষ্ট্রমন্ত্রী এসময় লাগেজের জন্য দীর্ঘক্ষণ অপেক্ষায় থাকা যাত্রীদের দুর্ভোগ লাঘবে কার্যকর পদক্ষেপ নেয়াসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে আন্তরিকতার সাথে দায়িত্ব পালনের কথা বলেন। এসময় বিমানবন্দরে দায়িত্বরত কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

 

সম্প্রতি ইউরোপের কয়েকটি দেশে সরকারি সফরকালে প্রবাসী বাংলাদেশিদের বিভিন্ন অভিযোগের কথা উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, প্রবাসী বাংলাদেশিরা বিদেশে অনেক কষ্ট করেন এবং তাদের পাঠানো কষ্টার্জিত রেমিট্যান্স দেশের অর্থনৈতিক ভিত্তি সুদৃঢ় করছে। কিন্তু দুঃখজনক হলেও সত্য যে, প্রবাসী বাংলাদেশিসহ অন্যান্য বিমানযাত্রীরা বিমানবন্দরে লাগেজ সংগ্রহের জন্য ঘণ্টার পর ঘণ্টা আটকে থাকেন— যাত্রীদের জন্য এটা অত্যন্ত পীড়াদায়ক। দীর্ঘ বিমানযাত্রার ক্লান্তি নিয়ে সম্মানিত যাত্রীদের এধরনের দুর্ভোগের জন্য মূলত বিমানবন্দরে আমাদের অব্যবস্থাপনাই দায়ী বলে তিনি উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, কন্স্যুলার সেবাসহ অন্যান্য সেবার মান উন্নয়নে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের গৃহীত পদক্ষেপের ফলে প্রবাসীরা এগুলোর সুফল পেতে শুরু করেছেন। কিন্তু একইসাথে বিমানবন্দরে প্রবাসীদের দুর্ভোগ লাঘবেও কার্যকর পদক্ষেপ নিতে হবে। তিনি উপস্থিত যাত্রীদের আশ্বস্ত করে বলেন, যাত্রীদের দুর্ভোগ লাঘবে বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে এবং আশা করি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ অচিরেই দুর্ভোগ লাঘবে পদক্ষেপ নেবে।

 

2022-07-03-16-59-165227214ea80c7dca92b15130d071d4.doc 2022-07-03-16-59-165227214ea80c7dca92b15130d071d4.doc

Share with :

Facebook Facebook