তথ্য অধিদফতর (পিআইডি) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১

তথ্যবিবরণী ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১

তথ্যবিবরণী                                                                                                        নম্বর : ৪৪৮২

পুঁজিবাজার শীঘ্রই বাংলাদেশে দীর্ঘমেয়াদী অর্থায়নের প্রধান উৎস হিসেবে আবির্ভূত হবে

                                                                               -- ভূমিমন্ত্রী

ঢাকা, ৫ আশ্বিন (২০ সেপ্টেম্বর) :

          ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী বলেছেন পুঁজিবাজার শীঘ্রই বাংলাদেশে দীর্ঘমেয়াদী অর্থায়নের প্রধান উৎস হিসেবে আবির্ভূত হবে।

          মন্ত্রী আজ বাংলাদেশের পুঁজিবাজার উন্নয়নে প্রবাসী বাংলাদেশি ও বিদেশি বিনিয়োগকারীদের কাছে বাংলাদেশের পুঁজিবাজারে বিনিয়োগ সম্ভাবনা উপস্থাপনার লক্ষ্যে বাংলাদেশ সিকিউরিটি অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)- এর আয়োজনে সুইজারল্যান্ডের জুরিখের এক হোটেলে ‘দ্য রাইজ অভ্ বেঙ্গল টাইগার: পটেনশিয়ালস অভ্ বাংলাদেশ ক্যাপিটাল মার্কেটস’ শীর্ষক রোডশো-এ বাংলাদেশের পুঁজিবাজারের ওপর প্রথম বিনিয়োগ শীর্ষ সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন।

          মন্ত্রী বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমরা বাংলাদেশকে উন্নয়নের একটি নির্দিষ্ট স্তরে নিয়ে আসতে পেরেছি। এ সময় উপস্থিত ইউরোপীয় বিনিয়োগকারী ও ব্যবসায়ীদের আহ্বান করে তিনি বলেন, বাংলাদেশে ভ্রমণ করলে, বাংলাদেশে বিনিয়োগ করলেই আপনারা বুঝতে পারবেন সেখানে কেমন পরিবর্তন হয়েছে।’

          সুইস রাষ্ট্রদূত তাঁর দেশের বিনিয়োগকারীদের উদ্দেশ্যে বলেন, বাংলাদেশের ক্রমবর্ধমান বিস্তৃত অর্থনীতি, ১৬.৮ কোটি মানুষ, বিশাল তরুণ জনগোষ্ঠী, প্রতিভাবান উদ্যোক্তাদের দিকে ভালো করে দেখুন; ভেবে দেখুন কীভাবে এই অসাধারণ সফলতার গল্পে বিনিয়োগের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট হতে পারেন।

          বিশ্বব্যাপী বাংলাদেশের মূলধন বাজার, বাণিজ্যে বিনিয়োগের সুযোগ প্রদর্শন, বিশ্বব্যাপী এবং অনাবাসী বাংলাদেশি বিনিয়োগকারীদের বাংলাদেশে বিনিয়োগের জন্য আকৃষ্ট করার জন্য বিএসইসি এই রোড-শো সিরিজ আয়োজন করেছে। এই বছরের শুরুতে দুবাই এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ৪টি প্রধান শহরে সফলভাবে রোড-শো সমাপ্তির পর, বিএসইসি এখন সুইজারল্যান্ডের জুরিখ এবং জেনেভায় রোড-শো পরিচালনা করছে।

          অর্থ বিভাগের সিনিয়র সচিব আব্দুর রউফ তালুকদার, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সিনিয়র সচিব এন এম জিয়াউল আলম পিএএ, বেপজার নির্বাহী চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল মোঃ নজরুল ইসলাম, জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সদস্য মোঃ আলমগীর হোসেন, বাংলাদেশে নিযুক্ত সুইজারল্যান্ডের রাষ্ট্রদূত নাথালি শিউআখ্ ও পুজিঁবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)-এর চেয়ারম্যান শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলাম এবং বেসরকারি খাতের নেতৃবৃন্দ অনুষ্ঠানে অংশ নেন।

#

 

আবদুল্লাহ/পাশা/এনায়েত/রফিকুল/রেজাউর/২০২১/২৩৫৫ ঘণ্টা

 

তথ্যবিবরণী                                                                                                      নম্বর : ৪৪৮১

 

প্রকল্প বাস্তবায়নে গুণগতমানে কোনো ছাড় নয়

                            ---সমাজকল্যাণ মন্ত্রী

 

ঢাকা, ৫ আশ্বিন (২০ সেপ্টেম্বর) :

 

          সমাজকল্যাণ মন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদ বলেছেন, সরকারি বিধি মোতাবেক সঠিক পদ্ধতিতে উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়ন করতে হবে। প্রকল্প বাস্তবায়নে গুণগতমানে কোনো ছাড় দেয়া হবে না।

          মন্ত্রী আজ বিকালে সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের ২০২০-২০২১ অর্থবছরের বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচিভুক্ত উন্নয়ন প্রকল্পসমূহের জুন/২০২১ পর্যন্ত বাস্তবায়ন অগ্রগতি পর্যালোচনা সভায় ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে সভাপতির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

          সভায় অন্যান্যের মধ্যে ভার্চুয়ালি যুক্ত ছিলেন সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী মোঃ আশরাফ আলী খান খসরু ও সমাজকল্যাণ সচিব মাহফুজা আখতার।

          মন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রত্যাশা পূরণে আমাদের এগিয়ে আসতে হবে। তাঁর প্রত্যাশা অনুযায়ী আমাদের কাজ করতে হবে। প্রকল্প বাস্তবায়নের ধীরগতি গ্রহণযোগ্য হবে না। কাজের গতি ত্বরান্বিত করতে হবে।

          প্রকল্প বাস্তবায়নে নানাবিধ চ্যালেঞ্জ থাকায় মন্ত্রী বলেন, বিদ্যমান চ্যালেঞ্জ সাথে নিয়ে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে প্রকল্প বাস্তবায়ন করতে হবে। মন্ত্রী প্রবীণ নাগরিকদের জন্য দেশের ৮টি বিভাগের আটটি শিশু নিবাসে ২৫ শয্যাবিশিষ্ট শান্তি নিবাস প্রকল্পটি যথাসময়ে বাস্তবায়ন করার জন্য সংশ্লিষ্টদের নির্দেশনা প্রদান করেন। 

          সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনানুযায়ী নির্ধারিত সময়ের মধ্যে প্রকল্পের কাজ বাস্তবায়ন করতে হবে। একজনকে একাধিক প্রকল্পের পরিচালক যেন করা না হয় সে দিকে লক্ষ্য রাখতে হবে।

#

জাকির/পাশা/মোশারফ/আব্বাস/২০২১/২০:৩৯  ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                      নম্বর : ৪৪৮০

 

যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রীর সাথে স্পেনের রাষ্ট্রদূতের সৌজন্য সাক্ষাৎ

 

ঢাকা, ৫ আশ্বিন (২০ সেপ্টেম্বর) :

 

          আজ যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মোঃ জাহিদ আহসান রাসেলের সাথে সচিবালয়ে তাঁর নিজ দপ্তরে স্পেনের রাষ্ট্রদূত ফ্রান্সিকো ডি অসীস বেনিটোজ সালাজ সৌজন্য সাক্ষাৎ করেছেন। সাক্ষাৎকালে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মোঃ আখতার হোসেন ও বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের সভাপতি কাজী মোঃ সালাহ উদ্দীন উপস্থিত ছিলেন। 

 

          এ সময়ে স্পেনের রাষ্ট্রদূত সাম্প্রতিক সময়ে বিভিন্ন ডিসিপ্লিনে বাংলাদেশের ক্রীড়ার উন্নয়নের ভূয়সী প্রশংসা করেন।  তিনি বাংলাদেশের ফুটবলের উন্নয়নে স্পেন সহযোগিতা করতে চায় মর্মে যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রীকে অবহিত করেন। তিনি বাংলাদেশের স্টেডিয়াম নির্মাণে স্পেন সরকারের সহযোগিতার অভিপ্রায় ব্যক্ত করেন এবং বিভিন্ন উপজেলায় নির্মাণাধীন শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়ামে টার্ফ স্হাপনে আগ্রহ প্রকাশ করেন। স্পেনের রাষ্ট্রদূত বলেন, বিশ্ব ফুটবলে স্পেন একটি শক্তিশালী দল। তাই বাংলাদেশের ফুটবলকে বিশ্ব ফুটবলে একটি শক্তিশালী অবস্থানে নিয়ে যেতে বন্ধুপ্রতীম বাংলাদেশের  অবকাঠামোগত উন্নয়নসহ প্রশিক্ষণখাতে স্পেন সহযোগিতা করতে চায়।  তাছাড়া দু-দেশের খেলায়াড়, কোচ কর্মকর্তাদের মধ্যে অভিজ্ঞতা বিনিময়ের জন্য দ্বিপাক্ষিক সমঝোতা স্মারক সাক্ষর করা যেতে পারে। 

 

          ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী স্পেনের রাষ্ট্রদূতের প্রস্তাবনাকে স্বাগত জানিয়ে বলেন,  বাংলাদেশ সরকার ফুটবলসহ দেশে সকল খেলার উন্নয়নে নিরলসভাবে কাজ করছে। বিশ্ব ক্রিকেটে বাংলাদেশ এখন এক অপারিজত শক্তি।  সাম্প্রতিক সময়ে আমরা ধারাবাহিকভাবে অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড ও জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজ জয় করেছি। ফুটবল, আর্চারী, শুটিং ও অন্যান্য খেলাতেও সাফল্য আসছে। ফুটবলসহ দেশের ক্রীড়ার উন্নয়নে বন্ধু রাষ্ট্র স্পেনের সহযোগিতার প্রস্তাবকে সাধুবাদ জানাই এবং বিশ্ব ক্রীড়াঙ্গনে এক নতুন অধ্যায়নের সূচনা করতে চাই। 

 

          ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী স্পেন সরকারকে বাংলাদেশের বিকেএসপির মেধাবী ছাত্রদের ও অন্যান্য তরুণ উদীয়মান  খেলোয়াড়দের স্পেনে স্কলারশিপ প্রদানের আহ্বান জানান। দেশের মেধাবী ছাত্র ও খেলোয়াড়দের স্পেনে গিয়ে  উন্নত প্রশিক্ষণ গ্রহণের সুযোগ প্রদানের পাশাপাশি ফুটবলসহ অন্যান্য খেলায়  স্পেনের কোচ বাংলাদেশের খেলোয়াড়দের উন্নত প্রশিক্ষণ প্রদানের সুযোগ করে দিতে স্পেন সরকারকে অনুরোধ জানান। 

 

          সভায় যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের সচিব ও বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদকসহ ঢাকাসহ স্পেন দূতাবাসের কালচারাল এটাচে উপস্থিত ছিলেন। 

#

 

আরিফ/পাশা/মোশারফ/আব্বাস/২০২১/২০:২০ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                              নম্বর : ৪৪৭৯

 

দেশের মৎস্যসম্পদ বৃদ্ধির জন্য ব্যাপক পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে

                                    -- মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী

কলাপাড়া (পটুয়াখালী), ৫ আশ্বিন (২০ সেপ্টেম্বর) :

            দেশের মৎস্যসম্পদ বৃদ্ধির জন্য ব্যাপক পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম।

            আজ পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলার মহিপুরে বাংলাদেশ মৎস্য উন্নয়ন কর্পোরেশনের নবনির্মিত মৎস্য অবতরণ কেন্দ্র উদ্বোধন শেষে মন্ত্রী এ কথা জানান।

            মন্ত্রী বলেন,“দেশের মৎস্যসম্পদ বৃদ্ধির জন্য শেখ হাসিনার সরকার ব্যাপক পরিকল্পনা নিয়েছে। ইলিশ নিয়ে গবেষণার জন্য গবেষণা কেন্দ্র করা হয়েছে। দেশের যে প্রান্তে ইলিশ কমে যাচ্ছে সে প্রান্তে উৎপাদন যাতে বাড়ানো যায়, ইলিশ যাতে নির্বিঘ্নে প্রজনন করতে পারে, এ বিষয়গুলো বিবেচনায় রাখা হয়েছে।

            যে সব নদীতে ইলিশ ছিল, কিন্তু এখন নেই সেখানে ইলিশের উৎপাদন বাড়ানোর জন্য ব্যাপক পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে।" এ সময় মন্ত্রী আরো বলেন,“মাছের উৎপাদন বৃদ্ধির জন্য অভয়াশ্রম করা হচ্ছে। অনাকাঙ্ক্ষিত মৎস্য আহরণ বন্ধ করার জন্য যেসব এলাকায় নজর দেয়া দরকার, সে সব এলাকায় নজর দেয়া হচ্ছে। নদীর গভীরতা যাতে নষ্ট না হয়, নদীর গতি-প্রকৃতি যাতে বিঘ্নিত না হয়, সে বিষয়ে আমরা খেয়াল রাখছি। নদীর নাব্যতার কারণে মৎস্যসম্পদ ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার বিষয়টি সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের নজরে আনা হবে।"

            এ সময় সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের উত্তরে মন্ত্রী বলেন, “মৎস্যজীবী নিবন্ধন একটি চলমান প্রক্রিয়া, মৎস্যজীবীদের তালিকা হালনাগাদ করা চলমান রয়েছে। আগামী ৬ মাসের মধ্যে মৎস্যজীবীদের নিবন্ধন হালনাগাদ হয়ে যাবে। প্রকৃত মৎস্যজীবীরা এ তালিকার আওতায় আসবেন। মাছ ধরা বন্ধের সময় প্রকৃত মৎস্যজীবীদের ভিজিএফ সহায়তার পাশাপাশি বিকল্প কর্মসংস্থানের উপকরণ বিতরণ করা হচ্ছে।”

            মৎস্য আহরণ বন্ধ থাকাকালে প্রকৃত মৎস্যজীবীরা সরকারি সুযোগ-সুবিধা পাবেন বলেও এ সময় আশ্বস্ত করেন তিনি। মৎস্য আহরণ বন্ধ রাখার সময় পরিবর্তনের বিষয়টিও বিবেচনা করা হবে বলেও জানান তিনি। যারা সমুদ্রে মাছ আহরণে যাবেন তাদের আধুনিক প্রযুক্তির সুযোগ-সুবিধা দেয়ার বিষয়টিও সরকারের বিবেচনায় রয়েছে বলে জানান মন্ত্রী।

সাংবাদিকদের অপর এক প্রশ্নের উত্তরে মন্ত্রী জানান, " বাংলাদেশে মৎস্য আহরণ বন্ধ থাকাকালে বাংলাদেশের নিকটবর্তী ভারতের নদী বা সমুদ্র এলাকায় একই সময়ে মৎস্য আহরণ বন্ধের বিষয়টি ভারতীয় হাইকমিশনারের সাথে বৈঠকে নীতিগত সিদ্ধান্ত হয়েছে।"

            আগামী সংসদ নির্বাচন প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের উত্তরে এ সময় মন্ত্রী বলেন, "দেশের গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রব্যবস্থায় সব রাজনৈতিক দলের নির্বাচন করার অধিকার রয়েছে। আইন অনুযায়ী নির্বাচন অনুষ্ঠান করে নির্বাচন কমিশন এবং নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে বাংলাদেশের সংবিধানের আলোকে। এক্ষেত্রে নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবি করা নিতান্তই মুর্খতা। কাজেই বিএনপি বা তাদের জোট যেটা দাবি করছে, এটা সংবিধান পরিপন্থী। সংবিধান পরিপন্থী কোনো নির্বাচন বা কোনো প্রক্রিয়া শেখ হাসিনা সরকার হতে দেবে না।"

            বাংলাদেশ মৎস্য উন্নয়ন কর্পোরেশনের চেয়ারম্যান কাজী হাসান আহমেদ, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মোঃ তৌফিকুল আরিফ ও যুগ্ম সচিব মোঃ আব্দুল মতিন, বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক ড. ইয়াহিয়া মাহমুদ, কলাপাড়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এস এম রাকিবুল আহসান-সহ স্থানীয় প্রশাসনের কর্মকর্তা ও রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

            এর আগে পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলায় বাংলাদেশ মৎস্য উন্নয়ন কর্পোরেশনের আলীপুর মৎস্য অবতরণ কেন্দ্র এবং বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের খেপুপাড়া নদী উপকেন্দ্রের অফিস কাম গবেষণা কেন্দ্রের উদ্বোধন করেন মন্ত্রী।

#

 

ইফতেখার/পাশা/মোশারফ/রেজাউর/২০২১/১৯৫০ ঘণ্টা

 

তথ্যবিবরণী                                                                                                       নম্বর : ৪৪৭৮

 

কোভিড-১৯ সংক্রান্ত সর্বশেষ প্রতিবেদন

 

ঢাকা, ৫ আশ্বিন (২০ সেপ্টেম্বর) :

 

            স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এবং রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর)-এর তথ্যানুযায়ী গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ২৭ হাজার ৪৩১ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ১ হাজার ৫৫৫ জনের শরীরে করোনা সংক্রমণ পাওয়া গেছে। এ নিয়ে বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত কোভিড-১৯ আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ১৫ লাখ
৪৪ হাজার ২৩৮ জন। 

 

          গত ২৪ ঘণ্টায় ২৬ জন-সহ এ পর্যন্ত ২৭ হাজার ২৫১ জন এ রোগে মৃত্যুবরণ করেছেন।

 

          করোনা ভাইরাস আক্রান্তদের মধ্যে এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ১৫ লাখ ৩ হাজার ১০৬ জন।

 

#

 

নাসিমা/পাশা/রেজুয়ান/মোশারফ/রেজাউল/২০২১/১৮২০ ঘণ্টা


তথ্যবিবরণী                                                                                                        নম্বর : ৪৪৭৭

 

কোভিড-১৯ মহামারি পরিস্থিতিতে ক্ষতিগ্রস্ত শিক্ষার্থীদের

বিদ্যালয়ে পাঠদানের পাশাপাশি অনলাইন শিক্ষা-কার্যক্রমও চলমান থাকবে

                                              -- প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী

লালমনিরহাট, ৫ আশ্বিন (২০ সেপ্টেম্বর) :

 

          প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মোঃ জাকির হোসেন বলেছেন, কোভিড-১৯ মহামারির ভয়াবহতার কারণে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে কোমলমতি শিক্ষার্থীরা। লেখাপড়ার এই ক্ষতি পুষিয়ে নিতে বিদ্যালয়ে পাঠদানের পাশাপাশি অনলাইন শিক্ষা-কার্যক্রমও অব্যাহত থাকবে। এছাড়া শিক্ষার্থীদের বাড়ি বাড়ি ওয়ার্কশিট পৌঁছে দেওয়ার কার্যক্রম চলমান থাকবে।

 

          প্রতিমন্ত্রী আজ লালমনিরহাটে কোভিড-১৯ পরবর্তী প্রাথমিক বিদ্যালয় খোলার পর লালমনিরহাট জেলার প্রাথমিক শিক্ষা সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সাথে জরুরি নির্দেশনামূলক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন। 

 

          প্রতিমন্ত্রী বলেন, করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে দেড় বছর প্রাথমিক বিদ্যালয় বন্ধ থাকার পর খুলে দেওয়ায় শিক্ষা কার্যক্রম প্রায় স্বাভাবিকভাবে শুরু হয়েছে। তাই দেশবাসীর সাথে সাথে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা সবাই খুশি। এখন কোমলমতি শিক্ষার্থীদের করোনাভাইরাস থেকে সুরক্ষা ও   শিক্ষার ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখতে শিক্ষক-কর্মকর্তাদের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে হবে। 

 

          প্রতিমন্ত্রী  বলেন, ‘স্বাস্থ্যবিধি মানার ক্ষেত্রে শিক্ষা কর্মকর্তা ও শিক্ষকসহ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সকলেই সচেতন হবে এবং বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের শতভাগ সুরক্ষায় রাখতে হবে। তিনি বলেন, আমাদের দেশের করোনাভাইরাস সংক্রমণের হার নিম্মগামী, যা ৫ শতাংশের কাছাকাছি চলে এসেছে। কিছু দিনের মধ্যে হয়তো ৫ শতাংশের নিচে নেমে আসবে। তখন আমারা স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসবো এবং শিক্ষা কার্যক্রম পুরোদমে শুরু করতে পারবো।’

 

          প্রতিমন্ত্রী আরো  বলেন, শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্যবিধি মানার ক্ষেত্রে নিয়মিত মাস্ক (কাপড়ের) পরিধান করতে হবে, শ্রেণি কক্ষে প্রবেশের পূর্বে প্রত্যেককে তাপমাত্রা পরীক্ষা ও সাবান দিয়ে হাত পরিস্কার করে নিতে হবে। তাছাড়া প্রতি বেঞ্চে ৩ ফুট দূরত্ব বজায় রেখে শিক্ষার্থীদের বসতে হবে।

 

          মতবিনিময় সভায় লালমনিরহাট জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এডভোকেট মতিয়ার রহমান, লালমনিরহাট পুলিশ সুপার আবিদা সুলতানা, বিভাগীয় উপপরিচালক মোঃ মুজাহিদুল ও লালমনিরহাট জেলা প্রশাসক                       মোঃ জাফর মতবিনিময় সভায় বক্তৃতা করেন। 

 

#

 

রবীন্দ্র/পাশা/রেজুয়ান/রফিকুল/রেজাউল/২০২১/১৭৪২ ঘণ্টা

 

 

তথ্যবিবরণী                                                                                                        নম্বর : ৪৪৭৬

 

দেশের নির্বাচন কমিশন শক্তিশালী ও স্বাধীন

                                                       -- তথ্যমন্ত্রী

ঢাকা, ৫ আশ্বিন (২০ সেপ্টেম্বর) :

          দেশের নির্বাচন কমিশনকে শক্তিশালী ও স্বাধীন বর্ণনা করে তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহ্‌মুদ বলেছেন,  ‘বাংলাদেশে নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য কারো সহযোগিতা দরকার আছে বলে আমি মনে করি না। কারণ ইতিপূর্বে নির্বাচন কমিশন অত্যন্ত সুষ্ঠু ও স্বচ্ছভাবে অনেক নির্বাচন করেছে।’ 

          আজ তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে বাংলাদেশ সেক্রেটারিয়েট রিপোর্টার্স ফোরামের প্রথম প্রকাশনা সাময়িকী ‘বিএসআরএফ বার্তা’ উদ্বোধনকালে ‘আগামী জাতীয় নির্বাচনে জাতিসংঘের সহায়তা প্রয়োজন আছে কি না’, সাংবাদিকদের এ প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী একথা বলেন। ড. হাছান এ সময় বিএসআরএফ বার্তা প্রকাশে সংগঠনটিকে অভিনন্দন জানান এবং সাময়িকীটি নিয়মিত প্রকাশ হবে বলে আশা প্রকাশ করেন।

          এ সময় সাংবাদিকদের ব্যাংক হিসাব তলব প্রসঙ্গে প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, ‘সরকার যে কারো ব্যাংক হিসাব তলব করতে পারে। এমপি, ব্যবসায়ী, সরকারি কর্মকর্তাদেরও ব্যাংক হিসাব তলব হয়। তবে কেউ স্বচ্ছ থাকলে এখানে উদ্বিগ্ন হওয়ার কারণ নেই। কারণ এই ব্যাংক হিসাব থেকে যখন তাদের স্বচ্ছতা বেরিয়ে আসবে, তখন মানুষের সামনে তাদের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল হবে। তবে এটি কেন সংগঠনের নাম দিয়ে চাওয়া হলো এবং কেন এটি গণমাধ্যমে প্রকাশিত হলো, সেটিই প্রশ্ন -সে প্রশ্ন অনেকেই রেখেছে।’

          নিরপেক্ষ সরকারের অধিনে নির্বাচনের দাবিতে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের জন্য বিএনপি’র ডাকের বিষয়ে প্রশ্ন করলে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেন, ‘বিএনপি নেতৃবৃন্দ গত সাড়ে ১২ বছর ধরে এই দাবি করে আসছেন এবং জনগণকে আহ্বান জানিয়ে আসছেন কিন্তু জনগণ তো তাদের আহ্বানে সাড়া দেয়নি এবং সাড়া দেয়ার কোনো কারণও নেই। বাংলাদেশে সংবিধান অনুযায়ী আগামী নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে এবং সংবিধান অনুযায়ী বর্তমান সরকারই নির্বাচনকালীন সরকার হিসেবে দায়িত্ব পালন করবে। বিএনপিকে বলবো, এ ধরনের  ফাঁকাবুলি আউড়িয়ে লাভ হবে না।’ 

          বিএনপি মহাসচিবের মন্তব্য ‘সরকার ভয়ে খালেদা জিয়াকে স্থায়ীভাবে মুক্তি দিচ্ছে না’ এর জবাবে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাছান মাহ্‌মুদ বলেন, ‘বিএনপির বরং সরকারকে বহু আগে ধন্যবাদ দেয়া প্রয়োজন ছিল। বিএনপিনেত্রী বেগম জিয়া জামিনে মুক্তি পাননি কিংবা আদালত কর্তৃক খালাসও পাননি। প্রধানমন্ত্রী আইনপ্রদত্ত ক্ষমতাবলে তার সাজা স্থগিত করেছেন। সেই কারণে তিনি কারাগারের বাইরে আছেন। এই জন্য বিএনপির শুকরিয়া আদায় করা প্রয়োজন, সরকারকে ধন্যবাদ দেয়া উচিত। সরকার যেকোনো সময় চাইলে ৬ মাসের সাজা স্থগিতাদেশ বাতিল করতে পারে। সে আদেশ যদি আগামীকাল বাতিল হয় তাহলে তখনই বেগম খালেদা জিয়াকে কারাগারে ফেরত যেতে হবে। এটিও বিএনপির মনে রাখা প্রয়োজন রয়েছে বলে আমি মনে করি।’

          সাংবাদিকরা এ সময় বিটিআরসি থেকে আইপি টিভি’র ডোমেইন বন্ধ করা নিয়ে প্রশ্ন করলে ড. হাছান বলেন, ‘আইপি টিভি রেজিস্ট্রেশন দেয়ার দায়িত্ব হচ্ছে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের। কিন্তু তারা ডোমেইন বরাদ্দ পায় বিটিআরসি থেকে। ডোমেইন বরাদ্দ দেয়ার আগে এখন থেকে অত্যন্ত সতর্ক হতে হবে। আগামী ২২ সেপ্টেম্বর আমরা টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয় এবং বিটিআরসির সাথে ত্রিপক্ষীয় একটি বৈঠক করবো।’ 

#

আকরাম/পাশা/রফিকুল/রেজাউল/২০২১/১৭৩৮ ঘণ্টা

 

তথ্যবিবরণী                                                                                       নম্বর : ৪৪৭৫

সঠিক নেতৃত্বের কারণে বাংলাদেশে করোনা মহামারিতে রূপ নেয়নি

                                                                       - নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী

বোচাগঞ্জ (দিনাজপুর), ৫ আশ্বিন (২০ সেপ্টেম্বর) :

          নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঠিক নেতৃত্ব ও সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনার কারণে বাংলাদেশে করোনা, মহামারিতে রূপ নিতে পারেনি। এই করোনার মধ্যেও আমরা বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী পালন করেছি। বাংলাদেশ নিরাপদ ছিল বলেই প্রতিবেশী সরকার ও রাষ্ট্রপ্রধানগণ বাংলাদেশে এসেছেন। করোনার দেড় বছরে দেশের উন্নয়ন বন্ধ থাকেনি। উন্নয়ন প্রকল্পের বিদেশি কারিগরি কর্মকর্তারা বাংলাদেশে আসছেন। পদ্মাসেতু, মেট্রোরেল, কর্ণফুলী টানেল এবং মাতারবাড়ী গভীর সমুদ্রবন্দরের কাজ চলছে।

          প্রতিমন্ত্রী আজ দিনাজপুরের বোচাগঞ্জে সনকাই উচ্চ বিদ্যালয়ের একাডেমিক ভবন উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় একথা বলেন। প্রতিমন্ত্রী উপজেলার বাতাসন দ্বিমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের সম্প্রসারিত একাডেমিক ভবন উদ্বোধন, বকুলতলা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের একাডেমিক ভবন, মোল্লাপাড়া দাখিল মাদ্রাসার একাডেমিক ভবন ও হাটরামপুর সার্বজনীন দুর্গামন্দিরের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন।

          প্রতিমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ আজ নারী অগ্রগতিতে সারাবিশ্বে অনুকরণীয়। পঁচাত্তরের ১৫ আগস্টের পর নারীদের অন্ধকারে ঠেলে দেয়া হয়েছিলো। ১৯৯৬ সালে ২১ বছর পর আওয়ামী লীগ সরকারের সময় নারী জাগরণের মাইলফলক সূচিত হয়। ইউনিয়ন পরিষদে আগে নারীদের অংশগ্রহণ ছিলোনা। শেখ হাসিনা বৃহত্তর ওয়ার্ডে নারী প্রতিনিধি নির্বাচনের ব্যবস্থা করেন। নারী শিক্ষা, নারীদের উন্নয়ন ও অগ্রগতির একক কৃতিত্ব প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার।

          অপর এক অনুষ্ঠানে প্রতিমন্ত্রী বলেন, পঁচাত্তর পরবর্তী সময়ে আমাদের ধর্মনিরপেক্ষতাকে আঘাত করা হয়েছে। সংবিধান থেকে ধর্মনিরপেক্ষতা ফেলে দেয়া হয়েছে। কিন্তু শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সকল ধর্মের মানুষ ঐক্যবদ্ধ বলেই আজকে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। শেখ হাসিনা শুধু বাংলাদেশে নন; সারা পৃথিবীর শতকোটি মানুষের কাছে অনুকরণীয়।        

#

জাহাঙ্গীর/অনসূয়া/পরীক্ষিৎ/জুলফিকার/শাম্মী/আসমা/২০২১/১৬৩০ ঘণ্টা 

তথ্যবিবরণী                                                                                                                নম্বর :  ৪৪৭৪ 

রাশিয়ার রাষ্ট্রদূতের সাথে বাণিজ্যমন্ত্রীর বৈঠক

রাশিয়ার বাজারে সরাসরি পণ্য রপ্তানিতে সহযোগিতা চাইলেন বাণিজ্যমন্ত্রী

ঢাকা, ৫ আশ্বিন (২০ সেপ্টেম্বর) :

          বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেছেন, রাশিয়ার বাজারে বাংলাদেশের তৈরি পোশাকসহ বিভিন্ন পণ্যের বিপুল চাহিদা রয়েছে। ব্যাংকিং চ্যানেলে লেনদেন এবং কিছু শুল্ক জটিলতার কারণে রাশিয়ার সাথে বাণিজ্য বৃদ্ধি করা সম্ভব হচ্ছে না। বিভিন্ন জটিলতার কারণে অন্যদেশের মাধ্যমে রাশিয়ার বাজারে বাংলাদেশের তৈরি পোশাক রপ্তানি হচ্ছে।  সমস্যাগুলো সমাধানের প্রচেষ্টা চলছে। সমস্যাগুলোর সমাধান হলে রাশিয়ার বাজারে বিপুল পরিমাণ বাংলাদেশের তৈরি পণ্য রপ্তানি করা সম্ভব হবে। তৈরি পোশাকসহ অন্যান্য পণ্য সরাসরি রপ্তানিতে রাশিয়ান সরকারের আন্তরিক সহযোগিতা প্রয়োজন বলে উল্লেখ করেন তিনি।

          বাণিজ্যমন্ত্রী আজ সচিবালয়ে তাঁর অফিসকক্ষে বাংলাদেশে নবনিযুক্ত রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত আলেক্সান্ডার ভিকেনতেভিচ মাস্তিতস্কি এর সাথে মতবিনিময়ের সময় এসব কথা বলেন। এ সময় বাণিজ্যসচিব তপন কান্তি ঘোষ, অতিরিক্ত সচিব (রপ্তানি) মো. হাফিজুর রহমান, অতিরিক্ত সচিব (এফটিএ) নূর মো. মাহবুবুল হকসহ বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র কমকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

          বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ দ্রুত গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে। বর্তমানে বাংলাদেশ বড় বড় উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে। বাংলাদেশ এখন উন্নত মানের পণ্য প্রতিযোগিতামূলক মূল্যে সরবরাহ করতে সক্ষম। বিশ্বব্যাপী বাংলাদেশের তৈরি পণ্যের চাহিদা বাড়ছে। রাশিয়ার সহযোগিতায় বাংলাদেশ রাশিয়াসহ ইউরেশিয়ান ইকোনমিক ইউনিয়ন ও সিআইএসভুক্ত অন্যান্য দেশে রপ্তানি বৃদ্ধি করতে আগ্রহী।

          রাষ্ট্রদূত আলেক্সান্ডার ভিকেনতেভিচ মাস্তিতস্কি বলেছেন, বাংলাদেশকে  রাশিয়া বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে থাকে। রাশিয়া বাংলাদেশের সাথে বাণিজ্য ও বিনিয়োগ বৃদ্ধি করতে আগ্রহী। বাংলাদেশের পণ্যের অনেক চাহিদা রয়েছে রাশিয়ায়। চলমান বাণিজ্য বাধা দূর হলে উভয় দেশের বাণিজ্য ও বিনিয়োগ বাড়বে। রাশিয়া সরকার চলমান সমস্যাগুলো দূর করতে আন্তরিক। রাশিয়া বাংলাদেশের উন্নয়নে সহযোগী হতে চায়।

          উল্লেখ্য, গত ২০২০-২০২১ অর্থ বছরে বাংলাদেশ ৬৬৫ দশমিক ৩১ মিলিয়ন মার্কিন ডলার মূল্যের পণ্য রাশিয়ায় রপ্তানি করেছে, একই সময়ে আমদানি করেছে ৪৬৬ দশমিক ৭০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার মূল্যের পণ্য।

                                                                          #

লতিফ বকসী/অনসূয়া/পরীক্ষিৎ/জুলফিকার/শাম্মী/কুতুব/২০২১/১৬২০ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                       নম্বর : ৪৪৭৩

‘দি কান্ট্রি দ্যাট লিভড - ফিফটি ইয়ার্স অভ্ ফ্রিডম অ্যান্ড দ্য কনসার্ট ফর বাংলাদেশ নামক’ গ্রন্থ প্রকাশ

ঢাকা, ৫ আশ্বিন (২০ সেপ্টেম্বর) :

          ‘বাংলাদেশের স্বাধীনতা এবং কনসার্ট ফর বাংলাদেশ’ এর ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষ্যে প্রকাশিত হলো ‘দি কান্ট্রি দ্যাট লিভড - ফিফটি ইয়ার্স অভ্ ফ্রিডম অ্যান্ড দ্য কনসার্ট ফর বাংলাদেশ’ নামক গ্রন্থ। ‘অ্যাপেক্স ডেটা ম্যানেজমেন্ট অ্যান্ড আইটি’ এর সহযোগিতায় ‘কফি টেবিল বুক’-টি তৈরি করে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ।

          আজ আগারগাঁওস্থ আইসিটি টাওয়ারে বইয়ের একটি কপি অ্যাপেক্স ডিএমআইটি’র চেয়ারম্যান মাইক কাজী এবং সিইও জারা জাবিন মাহবুব তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলকের কাছে হস্তান্তর করেন। এ সময় এলআইসিটি প্রকল্পের পলিসি অ্যাডভাইজার সামি আহমেদ উপস্থিত ছিলেন।

          মুক্তিযুদ্ধের সময় বাংলাদেশের শরণার্থীদের আর্থিক সহায়তায় ১৯৭১ সালের ১ আগস্ট দি বিটলস ব্যান্ডের মুখপাত্র জর্জ হ্যারিসনকে নিয়ে পণ্ডিত রবি শংকর এই কনসার্ট আয়োজন করেছিলেন। নিউইয়র্কের ম্যাডিসন স্কয়ার গার্ডেনে আয়োজিত এই কনসার্টে রিঙ্গো স্টার, বব ডিলান, এরিক ক্ল্যাপটন, বিলি প্রেস্টন, লিওন রাসেলসহ ভারতীয় শাস্ত্রীয় সংগীতের ওস্তাদ আলী আকবর খান, ওস্তাদ আল্লা রাখার মতো বিশ্বখ্যাত সংগীত তারকাদের পরিবেশনা ছিল। এখানেই হ্যারিসন পরিবেশন করেছিলেন তাঁর অমর গান ‘বাংলাদেশ’। এ কনসার্টের মাধ্যমে সেতারে পন্ডিত রবি শংকর বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ ও সংগ্রামকে বিশ্ববাসীর সামনে তুলে ধরেছিলেন।

     &

2021-09-20-17-56-2b86771abb838f02fd9454ba9e5c1017.doc 2021-09-20-17-56-2b86771abb838f02fd9454ba9e5c1017.doc

Share with :

Facebook Facebook