তথ্য অধিদফতর (পিআইডি) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ২০ নভেম্বর ২০১৯

তথ্যবিবরণী ২০/১১/২০১৯

তথ্যবিবরণী                                                                                        নম্বর : ৪৪০৭
 
বাংলাদেশের অনেক বাণিজ্যিক সম্ভাবনা এখনো সঠিকভাবে ব্যবহার করা হয়নি
                                                                     --- ভূমিমন্ত্রী
 
ঢাকা, ৫ অগ্রহায়ণ (২০ নভেম্বর) :
ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী বলেছেন, বাংলাদেশ একটি অভাবনীয় সুযোগের দেশ। এ দেশের অনেক বাণিজ্যিক সম্ভাবনা এখনো সঠিকভাবে ব্যবহার করা হয়নি।
আজ ঢাকা ক্লাবের স্যামসন এইচ চৌধুরী সেন্টারে ‘আমেরিকা-বাংলাদেশ বিজনেস কনভেনশন ২০১৯’ এ প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য প্রদানকালে সাইফুজ্জামান চৌধুরী এসব কথা বলেন।
মন্ত্রী আরো বলেন, ‘সহ¯্রাব্দ উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রার অনেকগুলো লক্ষ্য অর্জনের সাথে সাথে অতি দরিদ্র অবস্থা থেকে অর্থনৈতিক উন্নয়নের দিকে নিয়ে যাবার জন্য বাংলাদেশ কয়েক দশক ধরে কাজ করছে। মন্ত্রী প্রবাসী বাংলাদেশি ও আমেরিকান উদ্যোক্তা এবং ব্যবসায়ীদের বাংলাদেশে আরো বেশি বিনিয়োগে আহ্বান জানান।
যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক কংগ্রেস-ম্যান লরেন্স লা-রোক্কো কনভেনশনে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন। এছাড়া সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ‘ইউএস-টু-বিডি’ (আমেরিকা বাংলাদেশ ডেভেলপমেন্ট গ্রুপ) এর পরিচালকবৃন্দ রবার্ট ল্যাগাট, মিয়া মুজিবুর রহমান ও ড. আলি আফজাল। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ড. জুলিফা হায়দার মোহাম্মাদ নূর এ আলম।
#
নাহিয়ান/ইসরাত/রফিকুল/জয়নুল/২০১৯/২১৩০ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                                        নম্বর : ৪৪০৬

বিশ্ববাজারে স্থান করে নেবে বাংলাদেশের চলচ্চিত্র

                                             -- তথ্যমন্ত্রী

ঢাকা, ৫ অগ্রহায়ণ (২০ নভেম্বর) :    

            দেশের চলচ্চিত্র অঙ্গন নিয়ে রাষ্ট্রের পরিকল্পনা প্রসঙ্গে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহ্‌মুদ বলেছেন, ‘আমাদের লক্ষ্য শুধু চলচ্চিত্রের স্বর্ণ যুগে পৌঁছানোই নয়, আমাদের লক্ষ্য হচ্ছে, বিশ্ববাজারে বাংলাদেশের ছায়াছবির একটি স্থান দখল করা। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর গড়ে দেয়া ভিত্তির ওপর দাঁড়িয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ঐকান্তিক আগ্রহে ও সবার সম্মিলিত প্রচেষ্টায় আমরা সেই লক্ষ্যে পৌঁছাতে পারবো বলে আমার দৃঢ়বিশ্বাস।’

            আজ ঢাকায় সচিবালয়ে তথ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নবনির্বাচিত পরিষদের সাথে মতবিনিময় সভায় মন্ত্রী একথা বলেন। সমিতির সভাপতি মিশা সওদাগর, সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খানসহ ২১ সদস্যের নির্বাহী পরিষদ, বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন কর্পোরেশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবদুল করিম, তথ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (চলচ্চিত্র ও প্রশাসন) জাহানারা বেগম প্রমুখ সভায় যোগ দেন। 

            ‘আমাদের দেশের অনেক ছবি আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে পুরস্কার পেয়েছে, সমাদৃত হয়েছে এবং হচ্ছে, অর্থাৎ চলচ্চিত্রের যে বন্ধাত্ব্য, সেটি কেটে গেছে; তবুও চলচ্চিত্রের স্বর্ণের যুগে পৌঁছাতে আমাদের আরো অনেকে কাজ করতে হবে’ বলেন মন্ত্রী।  

            ‘তবে, আসল কথা গত বছরের তুলনায় এই বছর চলচ্চিত্রের গতিশীলতা এসেছে এবং অনেক নতুন নতুন প্রযোজক, পরিচালকও এই ক্ষেত্রে যোগ দিচ্ছে, এবং পুরনো পরিচালক, যারা উৎসাহ হারিয়ে ফেলেছেন, তারাও আবার নতুনভাবে ছবি নির্মাণ করার কথা চিন্তা করে কাজ শুরু করেছে’ বলেন ড. হাছান। 

            তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘চলচ্চিত্র শিল্পকে সুরক্ষা দেবার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অনেকগুলো ইতিবাচক পদক্ষেপ নিয়েছেন। তারমধ্যে চলচ্চিত্রের কর্মচাঞ্চল্যমুখর  এফডিসি’র দৈন্যদশা কাটিয়ে তোলার জন্যে আমরা ইতোমধ্যে অনেকগুলো প্রকল্প নিয়েছি। নতুন ভবন হবে, সেখানে অনেক কিছু থাকবে, সেখানে প্রায় ৩২২ কোটি টাকার প্রকল্প নেয়া হয়েছে। প্রকল্প পরামর্শক নিয়োগে টেন্ডার আহ্বান করা এবং প্রকল্প পরিচালক নিয়োগ দেয়া হয়েছে, যেগুলো অনেকদিন ধরে হয়নি।  আগামী তিন থেকে চার বছরের মধ্যে আমরা আশা করছি সেখানে নতুন ভবন নির্মাণ হবে, সমস্ত আধুনিক ও বিশ্বমানের সুবিধাদি সেখানে থাকবে।’ 

            ‘গাজীপুরের কালিয়াকৈরে একশ একর জমির ওপর নির্মাণাধীন বঙ্গবন্ধু ফিল্মসিটির প্রাথমিক কাজ সম্পন্ন হয়ে সেখানে এখন স্যুটিং হয়’ জানিয়ে মন্ত্রী আরও জানান, ‘আমরা বঙ্গবন্ধু ফিল্মসিটিকে একটি বিশ্বমানের ফিল্মসিটিতে রূপান্তর করার জন্য একটি বড়, প্রায় হাজার কোটি টাকার প্রকল্প হাতে নিয়েছি। আমি চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতিকে বলবো, সেখানে গিয়ে একবার ঘুরে এলে আমাদের গণমাধ্যম বন্ধুরা সেখানে যাবেন, তাহলে সেটি আবার প্রচার পাবে, অনেকেই সেখানে যায়, আমিও যেতে পারি সাথে।’ 

            ‘বাংলাদেশে চলচ্চিত্র অনুদানে আমরা কিছু পরিবর্তন এনেছি, যাতে করে আরো কিছু ছবি নির্মিত হয়’ উল্লেখ করে হাছান মাহমুদ বলেন, ‘প্রথমত অনুদানের অংক ছিল পাঁচ কোটি টাকা, এবছর আমরা সেটিকে দশ কোটি টাকায় উন্নীত করে দ্বিগুণ করেছি। শর্টফিল্মের জন্য ছিল ষাট লক্ষ টাকা সর্বোচ্চ, সেটিকে আমরা পঁচাত্তর লক্ষ টাকায় উন্নীত করেছি। আগে দেখা যেত অনুদানের ছবি বেশিরভাগ ক্ষেত্রে সিনেমা হলে মুক্তি পেত না। আমরা এখন কিছু বাধ্যবাধকতা আনছি যে, অনুদান নিয়ে ছবি বানালে সেটি হলে মুক্তি দিতে হবে। তাহলেই অনুদান নিয়ে ছবি বানিয়ে সেটি অন্য কারো কাছে বিক্রি করে ফেলা বন্ধ হবে। তবে অবশ্যই কিছু অনুদান আর্ট লেভেলে দিতে হবে। আর্ট ফিল্ম সবসময় ব্যবসা করতে পারে না, কিন্তু আর্ট ফিল্ম হওয়ারও প্রয়োজন আছে।’

            বিশ্বব্যাপী সিনেপ্লেক্সের প্রসার ও একক সিনেমা হল বন্ধ হবার ধারার কথা উল্লেখ করে ড. হাছান বলেন, ‘ভারতেও গত কয়েক বছরে একক পর্দার অনেকগুলো সিনেমা হল বন্ধ হয়ে গেছে। আবার সিনেপ্লেক্সগুলো চলছে এবং নতুন করে গড়ে উঠছে। আমাদের দেশে এর মাঝে সামাজিক চলচ্চিত্র না হয়ে অন্য ধরণের চলচ্চিত্র হচ্ছিল। যে কারণে সাধারণ দর্শক বিশেষ করে মধ্যবিত্ত শ্রেণি চলচ্চিত্র থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছিল। সেই অন্ধত্ব কেটে গেছে। আমাদের দেশে গত কয়েক বছর ধরে ভালো চলচ্চিত্র হচ্ছে এবং পরিবার পরিজন নিয়ে দেখার মতো সুন্দর ভালো ছবি হচ্ছে।’ 

            বন্ধ সিনেমা হল পুণরায় চালুর বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংক ও অর্থ মন্ত্রণালয়ের সাথে বেশ কয়েক দফা আলোচনা ও আন্তঃমন্ত্রণালয় বৈঠকের কথা জানিয়ে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘হলগুলোকে আধুনিকায়নের জন্য স্বল্প সুদে ঋণ দেয়ার প্রাথমিক কাজ হয়েছে, আমরা আশা করছি, আগামী কয়েক মাস পর একটি সমাধানে পৌঁছাতে পারবো, যাতে করে স্বল্প সুদে দীর্ঘমেয়াদী ঋণ দিয়ে বন্ধ হওয়া হল আবার চালু করা যায়, কিংবা হলগুলোর আধুনিকায়ন হয়।’ এছাড়া, ঢাকা ও চট্টগ্রাম শহরে আগামী বছরের মধ্যে অনেকগুলো সিনেপ্লেক্স হবে ।’

            চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি’র নির্বাহী সদস্যদের মধ্যে রোজিনা, রুবেল, সুব্রত, অঞ্জনা, আলীরাজ, অরুণা বিশ্বাস, ডিপজল, আরমান, জয় চৌধুরী, ইমন, জাকির, জেসমিন প্রমুখ সভায় অংশ নেন।

#

আকরাম/ফারহানা/রফিকুল/রেজাউল/২০১৯/২০২০ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                        নম্বর : ৪৪০৫
 
পিইসি পরীক্ষা শিক্ষার্থীদের সাহস ও মনোবল বাড়ায়
                   --- প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী
 
ঢাকা, ৫ অগ্রহায়ণ (২০ নভেম্বর) :
প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মোঃ জাকির হোসেন বলেছেন, প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা (পিইসিই) দেশের সর্ববৃহৎ পরীক্ষা। প্রায় ৩০ লাখেরও বেশি পরিক্ষার্থী এবছর সমাপনী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করছে। তিনি বলেন, এর ফলে শিক্ষার্থীদের সাহস ও মনোবল বৃদ্ধি পাবে এবং প্রতিযোগী মনোভাব সৃষ্টি হবে। 
প্রতিমন্ত্রী আজ রাজধানীর অদূরে কেরাণীগঞ্জ উপজেলায় প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষার বিভিন্ন কেন্দ্র পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন।
সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, পরীক্ষা কেন্দ্রের সার্বিক ব্যবস্থাপনা ও আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি খুবই ভালো। মন্ত্রণালয় ও অধিদপ্তরের কর্মকর্তা-সহ মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তারা সারাদেশের পরীক্ষা কেন্দ্র পরিদর্শন করছেন এবং পরীক্ষা নিয়ন্ত্রণ কক্ষ খোলা হয়েছে। সার্বক্ষণিকভাবে পরীক্ষার সার্বিক খোঁজখবর নেওয়া হচ্ছে। গুজবের বিরুদ্ধে কঠোর নজরদারি রাখার জন্য আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে অনুরোধ করা হয়েছে। 
#
রবীন্দ্রনাথ/নাইচ/রফিকুল/জয়নুল/২০১৯/২০২০ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                   নম্বর :  ৪৪০৪

 

ক্যান্সার প্রতিকারে সরকারের পদক্ষেপের পাশাপাশি প্রয়োজন জাতীয় সচেতনতা

                                                                             -- তথ্য প্রতিমন্ত্রী
 

ঢাকা, ৫ অগ্রহায়ণ (২০ নভেম্বর) :

 

তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. মুরাদ হাসান বলেছেন, ক্যান্সার প্রতিকারে সরকারের প্রশংসনীয় পদক্ষেপের পাশাপাশি প্রয়োজন জাতীয় সচেতনতা। তিনি বলেন, এক সময়ে বাংলাদেশের প্রায়ই সব ওষধই বিদেশ থেকে আমদানি করতে হতো। এখন বাংলাদেশ  ১১৭ টি দেশে ওষুধ রপ্তানি করে থাকে। নিজস্ব চাহিদার ৯৭ শতাংশ ওষুধ দেশে তৈরি হয়। সামগ্রিকভাবে সরকারের পদক্ষেপ, নিরলস সহযোগিতা আর জাতীয় সচেতনতায় একটি সুস্থ ও মেধাসম্পন্ন প্রজন্ম তৈরি হবে।

 

আজ ঢাকায় বিকন ফার্মাসিউটিক্যাল লিমিটেডের তত্ত্বাবধানে নটরডেম কলেজ আয়োজিত কলেজ মিলনায়তনে ’Lung cancer awareness programme’ শীর্ষক সেমিনারে প্রতিমন্ত্রী প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

 

সেমিনারে ক্যান্সার প্রতিকারে জনগণকে  সচেতনতার বিষয়ে তথ্য মন্ত্রণালয় কাজ প্রসঙ্গে  প্রতিমন্ত্রী বলেন, তথ্য মন্ত্রণালয়ের অধীনে প্রতিটি জেলায় তথ্য অফিস আছে এবং জেলা তথ্য অফিস  জনগণকে সচেতন করার জন্য নিয়মিত প্রোগ্রাম করে যাচ্ছে। জনগণের সচেতনতার বিষয়ে  প্রতিটি মহল্লায়, পাড়ায় উঠান বৈঠক করছে জেলা তথ্য অফিস। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার হিসাবমতে, ২০৩০ সালে বিশ্বে ক্যান্সার রোগীর সংখ্যা হবে প্রায় দ্বিগুণ। এর অধিকাংশই হবে তৃতীয় বিশ্বের মানুষের। তাই এখনই সময় প্রস্তুতি নেওয়ার।

 

ক্যান্সার প্রতিকারে সরকারের বিভিন্ন সেবার উল্লেখ করে প্রতিমন্ত্রী বলেন, সরকারি পর্যায়ে ৯টি রেডিওথেরাপি কেন্দ্র চালু আছে। ক্যান্সার চিকিৎসার সার্জারি, কেমোথেরাপি ও রেডিওথেরাপি - এই তিনটি ধাপ রয়েছে। দেশের সব হাসপাতালে রেডিওথেরাপি না থাকলেও সার্জারি ও কেমোথেরাপি দেওয়ার সুযোগ আছে। জাতীয় ক্যান্সার গবেষণা ইনস্টিটিউট শুরুতে ৫০ শয্যাবিশিষ্ট ছিল। এখন সরকার এটি বাড়িয়ে ৩০০ শয্যা করেছে। এখানে গরিব রোগীদের বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হয়।

 

নটরডেম কলেজের প্রিন্সিপাল ড. হেমন্ত পিয়াস রোজারিও এর সভাপতিত্বে সেমিনারে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন মেজর জেনারেল অধ্যাপক ড. আজিজুল ইসলাম।

 

#

 

হরবিলাস/ফারহানা/রফিকুল/সেলিম/২০১৯/১৯৪০ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                      নম্বর : ৪৪০৩

 

জলবায়ু সচেতনতা সৃষ্টির অন্যতম মাধ্যম আলোকচিত্র

                                        -- পরিবেশমন্ত্রী

 

ঢাকা, ৫ অগ্রহায়ণ (২০ নভেম্বর) :    

          পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মোঃ শাহাব উদ্দিন বলেছেন, জলবায়ু পরিবর্তনজনিত সমস্যাগুলি কার্যকর উপায়ে তুলে ধরার অন্যতম উপায় আলোকচিত্র । একটি সুন্দর আলোকচিত্র অনেক বার্তাবহ হতে পারে। আন্তর্জাতিক ফোরামে জলবায়ু পরিবর্তন সম্পর্কিত বিষয়গুলি আলোচনার সময়েও এধরনের প্রতিনিধিত্বকারী আলোকচিত্র তুলে ধরা যায়।

 

          মন্ত্রী আজ ঢাকায় ব্রিটিশ কাউন্সিলে জার্মান এম্বাসি ও ব্রিটিশ হাইকমিশন আয়োজিত জলবায়ু সচেতনতামূলক আলোকচিত্র প্রদর্শনী শীর্ষক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

 

          মন্ত্রী এ সময় পরিবেশ সম্পর্কিত আন্তর্জাতিক ফোরামে বাংলাদেশে জলবায়ু পরিবর্তনজনিত সমস্যার বাস্তব ঘটনা তুলে ধরার জন্য উন্নয়ন সহযোগিদের অনুরোধ জানান। তিনি বলেন, বাংলাদেশ ঘূর্ণিঝড় এবং বন্যার মতো প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবিলা করার সফলতা দেখিয়েছে, তবে জলবায়ু পরিবর্তনজনিত দীর্ঘমেয়াদি  দুর্যোগের পরিমাণ বৃদ্ধি পাওয়ায় সচেতনতা কার্যক্রম বাড়ানো সময়ের দাবি।

 

          অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশে নিযুক্ত জার্মানের রাষ্ট্রদূত Peter Fahrenholtz, ইরানের ডেপুটি হাইকমিশনার Khanbar Hossein Bor, বাংলাদেশ পরিবেশ আইনজীবী সমিতি (বেলা) এর নির্বাহী পরিচালক সৈয়দা রিজওয়ানা হাসান ও  ব্রিটিশ কাউন্সিলের উপপরিচালক Andrew Newton প্রমুখ।

 

          অনুষ্ঠানে প্রতিযোগিতার বিচারক, সরকারি কর্মকর্তা, কূটনৈতিক মিশন, দ্বিপক্ষীয় এবং বহুপাক্ষিক সংস্থা ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

 

#

 

দীপংকর/ফারহানা/রাফিকুল/রেজাউল/২০১৯/২০০০ ঘণ্টা

 

তথ্যবিবরণী                                                                                        নম্বর : ৪৪০২
 
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মন্দবাগে রেল দুর্ঘটনার তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশ
 
ঢাকা, ৫ অগ্রহায়ণ (২০ নভেম্বর) :
রেলপথ মন্ত্রী মোঃ নূরুল ইসলাম সুজন আজ মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে গত ১২ নভেম্বর রাতে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার কসবা উপজেলার মন্দবাগ রেল স্টেশন এলাকায় সংঘটিত দুর্ঘটনার কারণ এবং দায়ী ব্যক্তিদের বিষয়ে প্রেস ব্রিফিংয়ের মাধ্যমে সাংবাদিকদের অবহিত করেন।
মন্ত্রী বলেন, সিলেট থেকে চট্টগ্রামগামী উদয়ন এক্সপ্রেস (৭২৪ নম্বর) ক্রসিং এর জন্য লুপ লাইনে প্রবেশের সময় চট্টগ্রাম থেকে ঢাকাগামী তুর্ণা-নিশীথা এক্সপ্রেস (৭৪১ নম্বর) উদয়ন এক্সপ্রেসকে সজোরে ধাক্কা দেয়; ফলে মর্মান্তিক এ ট্রেন দুর্ঘটনা সংঘটিত হয়। মন্ত্রী জানান, দুর্ঘটনার সংবাদ পাওয়ার সাথে সাথে স্থানীয় প্রশাসন, পুলিশ বিভাগ, ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স, রেল পুলিশ, রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনী, রেলওয়ে কর্মকর্তা/কর্মচারী, বিজিবি-সহ সকল সরকারি সংস্থা স্থানীয় জনপ্রতিনিধি এবং জনসাধারণের সহযোগিতায় উদ্ধার কার্যক্রম শুরু করা হয়। দ্রুত সময়ের মধ্যে ঘটনাস্থলে আহতদের সর্বোচ্চ সুচিকিৎসার নির্দেশনা দেওয়া হয় এবং নিহত ১৫ জনের লাশ স্বজনদের কাছে হস্তান্তরের ব্যবস্থা করা হয়। 
রেলমন্ত্রী বলেন, ঘটনার পর পরই ঘটনাটি তদন্তের জন্য রেলপথ মন্ত্রণালয় হতে একটি, বাংলাদেশ রেলওয়ে হতে দুইটি এবং স্থানীয় জেলা প্রশাসন কর্তৃক একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। ইতোমধ্যে তিনটি কমিটি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে প্রতিবেদন দাখিল করেছে। 
তিনটি কমিটিই তদন্ত করে ঘটনার বিস্তারিত বিবরণ দিয়েছেন। কমিটিগুলো ঘটনাস্থল পরিদর্শন, সাক্ষ্য প্রমাণ পর্যালোচনা এবং পারিপার্শ্বিক অবস্থা বিবেচনা করে যে সিদ্ধান্তে উপনীত হয়েছেন তা প্রায় একই রকম। কমিটিগুলোর রিপোর্ট মোতাবেক দেখা যায় যে, আন্তঃনগর ৭৪১ নম্বর তুর্ণা-নিশীথা এক্সপ্রেস ট্রেনের লোকোমাস্টার, সহকারী লোকোমাস্টার এবং গার্ড সিগন্যালসমূহ যথাযথভাবে পর্যবেক্ষণ না করে ট্রেন পরিচালনার কারণে এ দুর্ঘটনা সংঘটিত হয়। এমতাবস্থায়, সিগন্যাল অমান্য করায় সংঘটিত এ দুর্ঘটনার জন্য কমিটিগুলো কর্তৃক তুর্ণা-নিশীথা এক্সপ্রেস ট্রেনের লোকোমাস্টার তাছের উদ্দিন, সহকারী লোকোমাস্টার অপু দে এবং গার্ড মোঃ আব্দুর রহমান-কে দায়ী করা হয়। কমিটিগুলো ভবিষ্যতে এ ধরণের দুর্ঘটনা এড়ানোর জন্য বিভিন্ন সুপারিশ পেশ করে।
এ সময় রেলপথ মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ মোফাজ্জেল হোসেন, বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাপরিচালক মোঃ শামছুজ্জামান, অতিরিক্ত মহাপরিচালক, অপারেশন-সহ ঊধ্বর্তন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন। 
#
শরিফুল/ফারহানা/রফিকুল/জয়নুল/২০১৯/২০০০ঘণ্টা
তথ্যবিবরণী                                                                                        নম্বর : ৪৪০১
 
পেঁয়াজের বিকল্প হিসেবে চিভ চাষ বৃদ্ধির নির্দেশ কৃষিমন্ত্রীর
 
ঢাকা, ৫ অগ্রহায়ণ (২০ নভেম্বর) :
কৃষিমন্ত্রী ড. মোঃ আব্দুর রাজ্জাক বলেছেন, ইউনিয়নভিত্তিক ফসলের উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করে সংশ্লিষ্টদের জানাতে হবে। একই ফসল নিয়ে কয়েকজন কাজ করেন। এজন্য সবাইকে একটি টিম হিসেবে কাজ করতে হবে। ফসলের ক্ষেতে পানি সরবরাহ নিশ্চিত করতে যে সব খাল খনন করা হয়েছে সে সব এলাকার ফসলের উৎপাদন বৃদ্ধি-সহ অন্যান্য সুফলগুলো বের করতে হবে।  
    আজ মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে মাসিক (নভেম্বর) এডিপি সভায় মন্ত্রী এসব কথা বলেন।  
মন্ত্রী বলেন, ডাল ও তৈল উৎপাদন বৃদ্ধিতে যারা কাজ করছেন তারা আগে থেকেই কি পরিমাণ বীজ উৎপাদন করবেন এবং তা থেকে কি পরিমাণ তৈল ও ডাল পাওয়া যাবে নির্ধারণ করতে হবে। কতজন কৃষককে কি পরিমাণ বীজ দেয়া হবে তাও জানাতে হবে।  পেঁয়াজের বিকল্প হিসেবে চিভ চাষ বৃদ্ধির জন্য দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দেন মন্ত্রী ।
কৃষি সচিব মোঃ নাসিরুজ্জামানের সঞ্চালনায় সভায় মন্ত্রণালয়ের বিভিন্ন প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক এবং মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা এ সময় উপস্থিত ছিলেন। 
#
গিয়াস/ফারহানা/রফিকুল/জয়নুল/২০১৯/১৯৪৫ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                       নম্বর :  ৪৪০০

 

উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে সকল ধারার ওলামায়ে কেরামকে আরো বেশি সম্পৃক্ত করা হবে

                                  -- ধর্ম প্রতিমন্ত্রী

 

ঢাকা, ৫ অগ্রহায়ণ (২০ নভেম্বর) :

 

ধর্ম প্রতিমন্ত্রী আলহাজ্ব এডভোকেট শেখ মোঃ আব্দুল্লাহ্‌ বলেছেন, দেশের কওমি, আলীয়া, পীর-মাশায়েখ-সহ সকল ধারার ওলামায়ে কেরামের মধ্যে সেতুবন্ধ রচনা করে ঐক্যবদ্ধ প্ল্যাটফরম তৈরি করা হবে। এর মাধ্যমে সরকারের উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ডে দেশের আলেম সমাজকে আরো বেশি সম্পৃক্ত করা হবে।

 

প্রতিমন্ত্রী গতকাল ঢাকাস্থ গাউসুল আজম জামে মসজিদ কমপ্লেক্স মিলনায়তনে বাংলাদেশ জমিয়তুল মোদারেছিনের নেতৃবৃন্দের সাথে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। 

 

প্রতিমন্ত্রী বলেন, সাম্প্রতিক বছরগুলোতে দেশে সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ ও উগ্রবাদ বিরোধী জনসচেতনতামূলক কার্যক্রমে ইমাম, খতিব-সহ সমগ্র আলেম সমাজ অত্যন্ত আন্তরিকভাবে তাঁদের দায়িত্ব পালন করেছেন। তাঁদের খুতবা, বয়ান এবং ওয়াজ মাহফিলের আলোচনার মাধ্যমে এদেশের মানুষকে সচেতন করেছেন। এর ফলে জঙ্গিবাদ, উগ্রবাদ ও সন্ত্রাস নিয়ন্ত্রণে বাংলাদেশ ঈর্ষণীয় সাফল্য অর্জন করেছে । যা ইতোমধ্যে বিশ্বব্যাপী সুনাম অর্জন করেছে।

 

ধর্ম প্রতিমন্ত্রী বলেন, জনগণকে রাজনৈতিক ও প্রশাসনিক উদ্বুদ্ধকরণের পাশাপাশি ধর্মীয়ভাবে সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, মাদক, বাল্যবিবাহ-সহ নানাবিধ সামাজিক সমস্যার বিষয়ে আরো জোরালোভাবে সচেতন করতে হবে। এক্ষেত্রে দেশের সর্বস্তরের ওলামায়ে কেরাম, পীর-মাশায়েখদের ঐক্যবদ্ধ হওয়ার কোনো বিকল্প নেই। প্রতিমন্ত্রী এ বিষয়ে সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান। 

 

জমিয়তুল মোদারেছিনের সভাপতি ও দৈনিক ইনকিলাবের সম্পাদক এ এম এম বাহাউদ্দীনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় আরো বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ জমিয়তুল মোদারেছিনের মহাসচিব মাওলানা শাব্বির আহমদ মোমতাজি।

 

#

 

আনোয়ার/ফারহানা/রফিকুল/সেলিম/২০১৯/১৮৪০ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                      নম্বর : ৪৩৯৯  

 

নির্মাণ সেক্টরে বিশেষ পরিদর্শন শুরু করেছে কলকারখানা পরিদর্শন অধিদপ্তর

 

ঢাকা, ৫ অগ্রহায়ণ (২০ নভেম্বর) :    

নির্মাণ সেক্টরে ব্যাপক জনসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে প্রতিমাসের নির্ধারিত যে কোনো দুইদিন শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের অধীন কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তরের শ্রম পরিদর্শকগণ নিয়মিত কলকারখানা পরিদর্শনের পাশাপাশি নির্মাণ সাইট পরিদর্শন করবেন। 

আজ থেকে আগামী ফেব্রুয়ারি মাস পর্যন্ত নির্মাণ সাইটের নিরাপত্তার বিষয়টি প্রাধান্য দিয়ে প্রতিমাসের ২০ ও ২১ তারিখ উপ-মহাপরিদর্শকের কার্যালয়, ঢাকার ১৯ জন শ্রম পরিদর্শক ৪০টি করে নির্মাণ সাইট পরিদর্শন করবেন।

উল্লেখ্য, এ বিষয়ে গত ১৯ নভেম্বর কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান অধিদপ্তরের মহাপরিদর্শক শিবনাথ রায় স্বাক্ষরিত এক অফিস আদেশে এ বিশেষ পরিদর্শনের নির্দেশ দেওয়া হয়। 

#

 

আকতারুল/নাইচ/রফিকুল/রেজাউল/২০১৯/১৯০০ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                      নম্বর : ৪৩৯৮

অপচয় কমিয়ে যথাসময়ে প্রকল্প বাস্তবায়ন করতে হবে

                                    -- পরিকল্পনামন্ত্রী

ময়মনসিংহ, ৫ অগ্রহায়ণ (২০ নভেম্বর) :    

          পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান বলেছেন, জনগণের মধ্যে উন্নয়নের সুফল পৌঁছে দিতে অপচয় কমিয়ে যথাসময়ে প্রকল্প বাস্তবায়ন করতে হবে। তিনি বলেন, প্রকল্প বাস্তবায়নের গতি বাড়াতে এবং মান বজায় রেখে যথাসময়ে প্রকল্প কাজ সমাপ্ত করতে হবে।

          মন্ত্রী আজ ময়মনসিংহ সার্কিট হাউজে উক্ত বিভাগের বাস্তবায়নাধীন উন্নয়ন প্রকল্পের বাস্তবায়ন অগ্রগতি পর্যালোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। যাদের প্রকল্পের অগ্রগতি ভালো তাদের সাধুবাদ জানিয়ে  তিনি শূন্য ও ধীরগতিসম্পন্ন প্রকল্প দ্রুত বাস্তবায়নের তাগিদ দেন।

          বিভাগীয় কমিশনার খোন্দকার মোস্তাফিজুর রহমানের সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী শরীফ আহমেদ ও সিটি মেয়র একরামুল হক টিটু। অন্যান্যের মধ্যে বাস্তবায়ন পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন বিভাগের (আইএমইডি) সচিব আবুল মনসুর মোহাম্মদ ফয়েজ উল্লাহ-সহ বিভাগীয় প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

          এরপর মন্ত্রী জামালপুর জেলা সফর করেন এবং সেখানে জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তাদের সাথে মতবিনিময় করেন। এ সময় জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ এনামুল হক-সহ জেলার ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

#

শাহেদ/ফারহানা/রফিকুল/রেজাউল/২০১৯/১৮৪৪ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                               নম্বর : ৪৩৯৭
 
লবণ ও পেঁয়াজ নিয়ে ষড়যন্ত্রকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে
                                       --- মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী
 
ঢাকা, ৫ অগ্রহায়ণ (২০ নভেম্বর) :
মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা বলেছেন, জয়িতা নারীরা নিজেদের উদ্যোগ, ইচ্ছা ও সাহসের মাধ্যমে সকল প্রতিকূলতা অতিক্রম করে সমাজে প্রতিষ্ঠিত হচ্ছে। সরকার নারীর অর্থনৈতিক ও সামাজিক যে অগ্রযাত্রার জন্য জয়িতা কর্মসূচি শুরু করেছিল আজ তা দেশের ইউনিয়ন পর্যায়ের ছড়িয়ে পড়েছে। 
প্রতিমন্ত্রী আজ রংপুরের আরডিএস অডিটোরিয়ামে মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর ও রংপুর বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয় আয়োজিত জয়িতাদের সংবর্ধনা প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, জয়িতা নারীরা আত্মপ্রতয়ী। অচিরেই নারীর ক্ষমতায়ন ও উন্নয়নে বাংলাদেশ বিশ্বের পঞ্চম স্থান থেকে প্রথমে উন্নীত হবে।
প্রতিমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ খাদ্য উৎপাদনে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন করেছে। সরকার যখন মানুষের খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করেছে তখনই ষড়যন্ত্রকারীরা লবণ ও পেঁয়াজের  মতো নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিস কৃত্রিম সংকটের সৃষ্টি করছে। তিনি বলেন, লবণ ও পেঁয়াজ নিয়ে যারা ষড়যন্ত্র করছে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। 
রংপুর বিভাগীয় কমিশনার কে এম তারিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য করেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব কামরুন নাহার ও মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বদরুন নেসা। রংপুর বিভাগের সকল জেলা প্রশাসক-সহ বিভিন্ন দপ্তর সংস্থার কর্মকর্তারা এ সময় উপস্থিত ছিলেন।
#
আলমগীর/ফারহানা/রফিকুল/জয়নুল/২০১৯/১৯০০ঘণ্টা
তথ্যবিবরণী                                                                                                                 নম্বর : ৪৩৯৬
 
সরকার সকল ক্ষেত্রে উন্নয়ন নিশ্চিত করছে
                            --- গণপূর্ত মন্ত্রী
 
ঢাকা, ৫ অগ্রহায়ণ (২০ নভেম্বর) :
গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম বলেছেন, চীন বাংলাদেশের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ উন্নয়ন অংশীদার। ইতোমধ্যে চীনের বিভিন্ন কোম্পানি ও চীন সরকার বাংলাদেশের অনেক অবকাঠামো উন্নয়ন করেছে। চট্টগ্রামে টানেল নির্মাণ করছে। সিআরবিসি বাংলাদেশের অন্যান্য প্রকল্পে বিনিয়োগ করছে।
আজ রাজধানীর একটি হোটেলে রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (রাজউক) ও চায়না রোড এন্ড ব্রিজ কর্পোরেশনের (সিআরবিসি)-এর মধ্যে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।
তুরাগ নদের বন্যা প্রবাহ অঞ্চল সংরক্ষণ এবং কমপ্যাক্ট টাউনশিপ উন্নয়ন প্রকল্প ও ঢাকার কেরাণীগঞ্জে প্রস্তাবিত ওয়াটারফ্রন্ট স্মার্ট সিটি প্রকল্পের বিষয়ে রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (রাজউক) ও চায়না রোড এন্ড ব্রিজ কর্পোরেশনের মধ্যে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর হয়। রাজউকের পক্ষে সংস্থাটির চেয়ারম্যান ড. সুলতান আহমেদ এবং চায়না রোড এন্ড ব্রিজ কর্পোরেশনের পক্ষে প্রতিষ্ঠানটির প্রধান প্রকৌশলী সুন ইয়োগুও চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন।
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ শহীদ উল্লা খন্দকার। এছাড়া আরো উপস্থিত ছিলেন রাজউকের সদস্য (পরিকল্পনা) মোঃ আজহারুল ইসলাম খান, রাজউকের চেয়ারম্যান ড. সুলতান আহমেদ, চায়না রোড এন্ড ব্রিজ কর্পোরেশনের প্রধান প্রকৌশলী সুন ইয়োগুও-সহ গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয় ও রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ।
#
ইফতেখার/ফারহানা/রফিকুল/জয়নুল/২০১৯/১৮৫০ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                      নম্বর : ৪৩৯৫

পেঁয়াজ আমদানির ক্ষেত্রে প্রযোজ্য চার্জ

মওকুফ করেছে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স

ঢাকা, ৫ অগ্রহায়ণ (২০ নভেম্বর) :    

          আকাশপথে পেঁয়াজ আমদানির ক্ষেত্রে প্রযোজ্য চার্জ জনস্বার্থে মওকুফ করেছে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স লিমিটেড।

          আজ বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয় পেঁয়াজের দাম স্থিতিশীল রাখার স্বার্থে এ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে।

          এ প্রসঙ্গে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ মহিবুল হক বলেছেন, পেঁয়াজের দাম স্থিতিশীল রাখার জন্য জনগণের স্বার্থে যতদিন এভাবে আকাশপথে পেঁয়াজ আমদানি করা হবে ততদিন পেঁয়াজ আমদানির ক্ষেত্রে এই চার্জ মওকুফের ব্যবস্থা কার্যকর থাকবে। আকাশপথে পেঁয়াজ আমদানির সাথে সম্পৃক্ত সকল ব্যবসায়ীকে এ ব্যাপারে সার্বিক সহযোগিতা প্রদান করা হবে।

       &nb

eb000f723c8331449292555fd43c068e.docx eb000f723c8331449292555fd43c068e.docx

Share with :

Facebook Facebook