তথ্য অধিদফতর (পিআইডি) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ১৮ মে ২০২২

তথ্যবিবরণী ১৮ মে ২০২২

তথ্যবিবরণী                                                                                               নম্বর : ২০০৬

ত্রাণের অভাব হবে না, সরকার বন্যার্তদের পাশে আছে

                                        -- ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী

 

সিলেট, ৪ জ্যৈষ্ঠ (১৮ মে) :

 

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. মোঃ এনামুর রহমান বলেছেন, বন্যাকবলিত সিলেটবাসীর পাশে আছে শেখ হাসিনার সরকার। সরকারের নিকট পর্যাপ্ত পরিমাণ ত্রাণসামগ্রী মজুত আছে, কোন সমস্যা হবে না। যত ত্রাণ সামগ্রী প্রয়োজন হবে চাহিদা অনুযায়ী সরবরাহ করা হবে, কেউ না খেয়ে থাকবে না, ইনশাল্লাহ।

 

প্রতিমন্ত্রী আজ সিলেট সদর, দক্ষিণ সূর্মা, গোয়াইনঘাট এবং জৈন্তাপুর উপজেলার বিভিন্ন স্পটে ত্রাণ বিতরণকালে এসব কথা বলেন।

 

প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, করোনাকালে সরকার সাত কোটি মানুষকে ত্রাণসামগ্রী সরবরাহ করেছে। বন্যাসহ যেকোন দুর্যোগে সরকার জনগণের পাশে আছে। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী প্রতিমন্ত্রী আজ সিলেটের চারটি উপজেলায় বন্যার্তদেরকে সরেজমিন পরিদর্শন করেন। ইনশাল্লাহ, চাহিদা অনুযায়ী আরো ত্রাণসামগ্রী সরবরাহ করা হবে, কেউ না খেয়ে কষ্ট করবে না, ইনশাল্লাহ। বন্যাসহ যেকোন দুর্যোগ সাহসের সাথে মোকাবিলা করার জন্য প্রতিমন্ত্রী সকলের প্রতি আহ্বান জানান।

 

এ সময় স্থানীয় সংসদ সদস্যগণ ও মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ কামরুল হাসান উপস্থিত ছিলেন।

 

#

 

সেলিম/নাইচ/সঞ্জীব/সেলিমুজ্জামান/২০২২/২২৪০ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                         নম্বর :  ২০০৫

 

টেলিভিশনে স্ক্রল আকারে প্রচারের জন্য

সকল ইলেকট্রনিক মিডিয়া

 

ঢাকা, ৪ জ্যৈষ্ঠ (১৮ মে) :

 

সরকারি-বেসরকারি টিভি চ্যানেলসহ সকল ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় নিম্নোক্ত বার্তাটি স্ক্রল আকারে প্রচারের জন্য অনুরোধ করা হলো :     

 

মূলবার্তা :

বন্যা পরিস্থিতির কারণে আগামী ২০ মে সিলেট জেলায় অনুষ্ঠিতব্য সহকারী শিক্ষক ২০২০ এর লিখিত পরীক্ষা স্থগিত করা হলো। উক্ত পরীক্ষাটি আগামী ৩ জুন, ২০২২ অনুষ্ঠিত হবে।

 

#

 

মাহবুবুর/নাইচ/সঞ্জীব/সেলিম/২০২২/২১১০ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                    নম্বর :  ২০০৪

রবীন্দ্রনাথের ‘সভ্যতার সংকট’ প্রবন্ধের প্রত্যাশিত মহামানবই জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু

                                                                            - সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী

ঢাকা, ৪ জ্যৈষ্ঠ (১৮ মে) :

সংস্কৃতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ বলেছেন, রবীন্দ্রনাথ তাঁর ‘সভ্যতার সংকট’ প্রবন্ধে জাতির সংকট মোচনে এক মহামানবের আগমন প্রত্যাশা করেছিলেন। সেই প্রত্যাশিত মহামানবই আমাদের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু। বাঙালি তথা উপমহাদেশের ক্রান্তিলগ্নে সেই মহামানবের ভূমিকায় অবতীর্ণ হন সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। গভীর অধ্যাত্মবিশ্বাসী এ দুই মহাপুরুষের চিন্তাভাবনা ও কর্মকাণ্ডে বাংলা ভাষা ও বাঙালির প্রতি ছিল অপরিসীম প্রেম।

প্রতিমন্ত্রী আজ রাজধানীর বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘরে কবি সুফিয়া কামাল মিলনায়তনে বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ১৬১তম জন্মজয়ন্তী উপলক্ষ্যে বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘর আয়োজিত সেমিনার ও আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

প্রধান অতিথি বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর দু’জনেই বাংলা ও বাঙালিকে বিশ্বের দরবারে সুমহান মর্যাদায় হাজির করেছেন- একজন রাজনীতি দিয়ে, অন্যজন সাহিত্য দিয়ে। ‘বাঙালি’ বলে যে জাতির কথা রবীন্দ্রনাথ লিখেছিলেন, বঙ্গবন্ধু সেই জাতিকেই আবিষ্কার করেন ‘সোনার বাংলায়’। সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী বলেন, যে বাংলাকে ভালোবেসে রবীন্দ্রনাথ লিখলেন, ‘আমার সোনার বাংলা, আমি তোমায় ভালোবাসি’ আর বঙ্গবন্ধু সেটিকে ভালোবেসে ১৯৭২ সালের ১৩ জানুয়ারি মন্ত্রিসভার বৈঠকে জাতীয় সংগীতে রূপ দিলেন।

বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘরের এর বোর্ড অভ্‌ ট্রাস্টিজের সভাপতি অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ আবুল মনসুর। সেমিনারে ‘রবীন্দ্রনাথের শিক্ষা দর্শন’ শীর্ষক মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন রবীন্দ্র সৃজনকলা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. সৈয়দ মোহাম্মদ শাহেদ। আলোচনা করেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় প্রফেসর ও সাবেক তথ্য কমিশনার ড. খুরশীদা বেগম। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘরের মহাপরিচালক খোন্দকার মোস্তাফিজুর রহমান।

অনুষ্ঠানে রবীন্দ্র সংগীত পরিবেশন করেন বিশিষ্ট রবীন্দ্র সংগীত শিল্পী অনিমা রায়। 

#

ফয়সল/পাশা/সঞ্জীব/শামীম/২০২২/২০২৫ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                             নম্বর : ২০০৩

 

সরকার সকলের জন্য নিরাপদ পানি, স্যানিটেশন এবং স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করতে কাজ করছে

-- ইন্দোনেশিয়ার জাকার্তায় পানি, স্যানিটেশন বিষয়ক সম্মেলনে পরিবেশমন্ত্রী

 

ঢাকা, ৪ জ্যৈষ্ঠ (১৮ মে) :

 

পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মোঃ শাহাব উদ্দিন বলেছেন, বাংলাদেশ সরকার তার সকল নাগরিকের জন্য নিরাপদ পানি, স্যানিটেশন ও স্বাস্থ্যকর পরিবেশ নিশ্চিত করতে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে।  সকলের জন্য পানি ও স্যানিটেশন ব্যবস্থার প্রতি যথাযথ মনোযোগ দিয়ে আমরা আমাদের জাতীয় অভিযোজন পরিকল্পনা চূড়ান্ত করছি। কোভিড ১৯ এর মোকাবিলার অংশ হিসেবে আমাদের স্থানীয় সরকার বিভাগ পানি, স্যানিটেশন এবং স্বাস্থ্যকর পরিবেশ নিশ্চিত করে একটি কৌশল তৈরি করেছে।  ২০২০-২৩ সাল সময়ের জন্য প্রস্তুতকৃত এই কৌশলটি আমাদের কোভিড-১৯ সময়কালে এবং পরবর্তী সময়ে আমাদের জনগণকে সাহায্য করছে।

 

ইন্দোনেশিয়ার প্রেসিডেন্ট জোকো উইদোদোর আয়োজনে বুধবার ইন্দোনেশিয়ার রাজধানী জাকার্তায় ‘সবার জন্য সর্বদা সর্বত্র পানি, স্যানিটেশন স্বাস্থ্যকর পরিবেশ’ শীর্ষক সম্মেলনের সেক্টর মিনিস্টার মিটিংয়ে পরিবেশমন্ত্রী এসব কথা বলেন।  অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ প্রতিনিধিদলের অন্যতম সদস্য হিসেবে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ইকবাল আব্দুল্লাহ হারুন উপস্থিত ছিলেন।

 

মন্ত্রী বলেন, কোভিড-১৯ সংক্রমণ ও মৃত্যুর সংখ্যা কম রাখার ক্ষেত্রে আমাদের সাফল্য কোভিড-১৯ প্রাদুর্ভাবের আগে ত্রিমুখী সংকট মোকাবিলায় আমাদের সফলতা অঙ্গাগিভাবে জড়িত।  সরকার আমাদের জনসংখ্যার ৯৮ শতাংশকে উন্মুক্ত মলত্যাগ মুক্ত স্যানিটেশন এবং মৌলিক পানি সরবরাহ করতে সক্ষম হয়েছে।  সকলের জন্য স্যানিটেশন এবং পানি নিশ্চিত করার জন্য আমাদের নয়টি প্রতিশ্রুতির মধ্যে চারটি সরকার এবং পাঁচটি নাগরিক সমাজ বাস্তবায়ন করছে। আমরা পানি, স্যানিটেশন এবং হাইজিনের জন্য আমাদের বিনিয়োগ দশ বছরে তিনগুণ বাড়ানোর পরিকল্পনা করছি।

 

শাহাব উদ্দিন বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ ৫৫টি দেশের জলবায়ু ঝুঁকিপূর্ণ  ফোরামের (সিভিএফ) চেয়ারম্যান হিসেবে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে আসছে।  বাংলাদেশ জাতীয়ভাবে নির্ধারিত অবদান এবং দীর্ঘমেয়াদী ডেল্টা প্ল্যান-২১০০, মুজিব জলবায়ু সমৃদ্ধি পরিকল্পনা প্রণয়ন করেছে যাতে দুর্বলতাকে সমৃদ্ধিতে পরিণত করা যায়।  আমাদের স্ব-অর্থায়নকৃত বাংলাদেশ জলবায়ু পরিবর্তন ট্রাস্ট তহবিল জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব মোকাবিলায়, আমাদের লাখ লাখ দুর্বল জনগোষ্ঠীর জীবন ও জীবিকা বাঁচাতে ৮০০ টি প্রকল্প গ্রহণ করতে সক্ষম করেছে।  আমরা আমাদের জলবায়ু পরিবর্তনজনিত চ্যালেঞ্জকে সুযোগে পরিণত করেছি এবং আমাদের জলবায়ু মোকাবিলাকারী মানুষদের একটি উন্নত জীবন প্রদান করেছি।

 

 #

দীপংকর/পাশা/নাইচ/এনায়েত/সঞ্জীব/রফিকুল/সেলিম/২০২২/২০২৫ ঘণ্টা   

 

তথ্যবিবরণী                                                                                                                  নম্বর : ২০০২

বন্যায় সিলেটবাসীর দুর্দশা লাঘবে ত্রাণসহ সবধরনের সহযোগিতা দেয়া হবে

                                                                                          -- পররাষ্ট্রমন্ত্রী

সিলেট, ৪ জ্যৈষ্ঠ (১৮ মে) :

          আকস্মিক বন্যায় সিলেটবাসীর দুর্দশা লাঘবের জন্য সরকারের পক্ষ হতে ত্রাণসহ সবধরনের সহযোগিতা করা হবে বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন। তিনি আজ সিলেটে বন্যাদুর্গতদের মাঝে ত্রাণ বিতরণের সময় এ কথা জানান।

          মন্ত্রী বলেন, প্রাকৃতিক দুর্যোগসহ জনগণের যেকোনো দুঃসময়ে বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সবসময় জনগণের পাশে রয়েছেন। বন্যাকবলিত জনসাধারণকে প্রয়োজনীয় সবধরনের সহায়তা দিতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনার কথা উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, সিলেটের এই আকস্মিক বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের জন্য যা যা করণীয় তা করা হবে এবং যত ত্রাণ প্রয়োজন হয় তা দেয়া হবে। সিলেটে বন্যা প্রতিরোধে সুরমা ও কুশিয়ারা নদীর নাব্যতা ফিরিয়ে আনতে ড্রেজিং করা হবে বলেও মন্ত্রী উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, সিলেট সদরে বন্যাকবলিত মানুষের জন্য ইতিমধ্যে ৩৩টি আশ্রয় কেন্দ্র খোলা হয়েছে, প্রয়োজনে আরো আশ্রয় কেন্দ্র খোলা হবে।

          সিলেটের বন্যা পরিস্থিতি দেখতে মন্ত্রী আজ সিলেটে পৌঁছে সরাসরি সিলেট সদরের বিভিন্ন আশ্রয় কেন্দ্র পরিদর্শনে যান এবং বন্যাকবলিত মানুষের সাথে কথা বলেন। তিনি প্রথমে চালিবন্দর রামকৃষ্ণ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় এবং পরে মিরাবাজার কিশোরী মোহন বালক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আশ্রয়গ্রহণকারী বন্যাদুর্গতদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করেন। এ সময় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডাঃ মোঃ এনামুর রহমান, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ সচিব মোঃ কামরুল হাসান, সিলেটের জেলা প্রশাসক মোঃ মজিবর রহমান এবং স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

          এর পর মন্ত্রী সিলেট সদরের কান্দিগাঁও ইউনিয়নের বন্যাকবলিত বাদাঘাট এবং হাটখোলা ইউনিয়নের শিবের বাজার এলাকা পরিদর্শনে যান। তিনি সেখানকার বন্যাদুর্গত মানুষের দুঃখ-দুর্দশার কথা শোনেন এবং তাদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করেন। এসময় জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শফিকুর রহমান চৌধুরী, সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক জাকির হোসেন ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

          এর আগে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এবং দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে জেলা প্রশাসকের সভাপতিত্বে আয়োজিত সিলেট জেলার বন্যা পরিস্থিতি পর্যালোচনা ও করণীয় বিষয়ে মতবিনিময় সভায় যোগ দেন। সভায় সিলেট জেলার সার্বিক বন্যা পরিস্থিতি পর্যালোচনা, ত্রাণ ব্যবস্থাপনা এবং বন্যা নিয়ন্ত্রণে করণীয় বিষয় নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়। সভায় সিলেটের বিভাগীয় কমিশনারসহ বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

#

 মোহসিন/পাশা/নাইচ/এনায়েত/সঞ্জীব/জয়নুল/২০২২/২০১০ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                                       নম্বর : ২০০১

আইসিটি প্রতিমন্ত্রীর সাথে বিশ্বব্যাংকের ভাইস প্রেসিডেন্টের দ্বিপাক্ষিক বৈঠক

ঢাকা, ৪ জ্যৈষ্ঠ (১৮ মে) :

বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের পরবর্তী ধাপে উত্তরণের লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় আইসিটি অবকাঠামো বিনির্মাণে বিশ্বব্যাংক ও আইসিটি বিভাগ যৌথভাবে কাজ করবে।

বিশ্বব্যাংকের ভাইস প্রেসিডেন্ট জুনায়েদ কামাল আহমদ আজ তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলকের সাথে আগারগাঁওস্থ আইসিটি বিভাগে তাঁর দপ্তরে দ্বিপাক্ষিক বৈঠককালে এ কথা জানান।

এছাড়া বৈঠকে আরো জানানো হয় ন্যানোটেক, ফিনটেক, স্টার্টআপ ইকোসিস্টেম, বাংলাদেশ ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে গবেষণা উন্নয়নের জন্য এক্সচেইঞ্জ প্রোগ্রাম চালু ও ইনোভেশন হাব প্রতিষ্ঠা করা, বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক, স্টার্টআপ বাংলাদেশ লিমিটেডের জন্য বৈদেশিক উৎস হতে বিনিয়োগ আহরণ এবং বাংলাদেশকে মধ্যম আয়ের দেশ থেকে উচ্চ মধ্যম আয়ের দেশে উত্তরণের জন্য বিনিয়োগ আহরণের সার্বিক সহায়তা করবে বিশ্বব্যাংক এবং ২০৪১ সালের মধ্যে স্মার্ট ও উদ্ভাবনী বাংলাদেশ বির্নিমাণে বিশ্বব্যাংক ও আইসিটি বিভাগ একসাথে কাজ করার বিষয়ে ঐকমত্য পোষণ করেন।

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ডিজিটাল উদ্যোক্তা এবং উদ্ভাবন ইকো-সিস্টেম উন্নয়ন প্রকল্পের ইনোভেশন স্পেশালিস্ট আব্দুল বারি তুষারসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাবৃন্দ।

#

শহিদুল/পাশা/রফিকুল/আব্বাস/২০২২/১৮৫৮ ঘণ্টা   

 

তথ্যবিবরণী                                                                                                                             নম্বর : ২০০০

বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রীর সাথে সুইডিশ প্রতিনিধিদলের সাক্ষাৎ

ঢাকা, ৪ জ্যৈষ্ঠ (১৮ মে) :

          বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ এর সাথে আজ সচিবালয়ে তাঁর অফিস কক্ষে বাংলাদেশে নিযুক্ত সুইডেনের হাইকমিশনার আলেকজান্ডা বার্জ ভন লিন্ডে (Alexandra Berg Von Linde)- এর নেতৃত্বে ৭ সদস্যের প্রতিনিধিদল সাক্ষাৎ করেছেন । এ সময় তাঁরা পারস্পরিক স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন। 

          সাক্ষাৎকালে রাষ্ট্রদূত নবায়ণযোগ্য জ্বালানি ও সুইডেনের অবস্থান নিয়ে আলোচনা করেন। সুইডিশ কোম্পানি H&M এর Yosef El Natour জলবায়ু পরিবর্তন, জ্বালানি, নাবায়ণযোগ্য জ্বালানি, সবুজ রূপান্তর ও রিসাইক্লিনিং এবং কার্বন ইমিউশন ও এর প্রতিকার নিয়েও আলোচনা করেন। 

          প্রতিমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ ক্লিন এনার্জির প্রসারে কাজ করছে। কার্বন ইমিউশন বাংলাদেশ খুবই কম করে অথচ ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলোর মধ্যে অন্যতম। কার্বন ট্রেডের আওতায় এখানে বিনিয়োগ হতে পারে যাতে কম মূল্যে নবায়ণযোগ্য জ্বালানি হতে বিদ্যুৎ পাওয়া যায়। ফুয়েল মিক্সে ক্লিন এনার্জি গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে। এইচএন্ডএম এবং সুইডেন স্রেডার (SREDA) এর সাথে সমন্বয় করে অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে এগুলো বাংলাদেশে নবায়ণযোগ্য জ্বালানি বা সবুজ রূপান্তর আরো দ্রুত হবে।  এ সময় পরিবেশবান্ধব জ্বালানি এবং সংশ্লিষ্ট খাতে কারিগরি ও প্রযুক্তি সহায়তা নিয়েও আলোচনা করা হয়।

          এ সময় প্রতিনিধিদলে অন্যান্যের মাঝে সুইডিশ অ্যাম্বাসির প্রথম সচিব Anna Svantession, কন্ট্রি ম্যানেজার Ziaur Rahman, এইচএন্ডএম-এর পাবলিক অ্যাফেয়ার ম্যানেজার Masarrat Quade, এইচএন্ডএম-এর এনভর্নমেন্ট প্রোগ্রাম ম্যানেজার Tanzida Islam ও এইচএন্ডএম-এর পাবলিক অ্যাফেয়ার ম্যানেজার Nusrat Chowdhury উপস্থিত ছিলেন।

#

আসলাম/পাশা/রফিকুল/জয়নুল/২০২২/১৯১০ঘণ্টা

 

তথ্যবিবরণী                                                                                              নম্বর : ১৯৯৯

বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রীর সাথে সিঙ্গাপুরের অনাবাসিক হাইকমিশনারের সাক্ষাৎ

ঢাকা, ৪ জ্যৈষ্ঠ (১৮ মে) :

বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদের সাথে আজ সচিবালয়ে তাঁর অফিস কক্ষে বাংলাদেশে নিযুক্ত সিঙ্গাপুরের অনাবাসিক হাইকমিশনার Derek Loh সাক্ষাৎ করেছেন। এ সময় তাঁরা পারস্পরিক স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন। 

সাক্ষাৎকালে প্রতিমন্ত্রী বলেন, অর্থনৈতিক উন্নয়নে বিস্ময়কর সাফল্যের পাশপাশি পরিকল্পিত নগরায়ণ, জ্বালানি, শিক্ষা এবং প্রযুক্তিখাতে সিঙ্গাপুরের সাথে সমন্বয় করে দুই দেশ একসাথে কাজ করতে পারে। এতে উভয় দেশই উপকৃত হবে।

সিঙ্গাপুরের হাইকমিশনার এ সময় বলেন, বাংলাদেশের বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাত অভূতপূর্ব সাফল্য দেখিয়েছে। বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাত বন্ড ইস্যু বা পুঁজিবাজারে যেতে পারে। সিঙ্গাপুরের মার্কেট সকলের জন্য উন্মুক্ত।

বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী এ সময় বলেন, বাংলাদেশের বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাত বিনিয়োগবান্ধব। আধুনিক প্রযুক্তিসমৃদ্ধ করে সামগ্রিক সিস্টেম হালনাগদ করতেও অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে কাজ করা যেতে পারে। সিঙ্গাপুরের সাথে যৌথভাবে আর কী কী কাজ করা যেতে পারে তা অনুসন্ধান করতে উভয় পক্ষ নিয়ে একটি কমিটি করা যেতে পারে।

এ সময় অন্যান্যের মাঝে বাংলাদেশে সিঙ্গাপুরের হেড অভ্ মিশন Sheela Pillai, সিঙ্গাপুরের বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের ডেপুটি ডিরেক্টর Uma Muniandy, সিঙ্গাপুর পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দক্ষিণ এশিয়া বিষয়ক কান্ট্রি অফিসার Nathanael Lee, এন্টারপ্রাইজ সিঙ্গাপুরের পরিচালক Jayakrishnan Gopalakrishanan ও এন্টারপ্রাইজ সিঙ্গাপুরের গ্লোবাল ডিরেক্টর Audrey Tan উপস্থিত ছিলেন। 

#

আসলাম/পাশা/রফিকুল/আব্বাস/২০২২/১৮২২ ঘণ্টা  

 

তথ্যবিবরণী                                                                                                                        নম্বর : ১৯৯৮

সিঙ্গাপুরের অনাবাসিক হাইকমিশনার-বাণিজ্যমন্ত্রী বৈঠক

বাংলাদেশে বিনিয়োগের আহ্বান বাণিজ্যমন্ত্রীর

ঢাকা, ৪ জ্যৈষ্ঠ (১৮ মে) :

          বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেছেন, সিঙ্গাপুর বাংলাদেশের আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্য ক্ষেত্রে খুবই গুরুত্বপূর্ণ। সিঙ্গাপুরে তৈরিপোশাকসহ বেশ কিছু পণ্য রপ্তানি হয়। উভয় দেশের বাণিজ্য বাড়ানোর অনেক সুযাগ রয়েছে। এ সুযোগকে কাজে লাগাতে হবে। উভয় দেশে ব্যবসায়ীরা পারস্পরিক দেশ সফর করে পণ্য নির্বাচন ও বাণিজ্য করতে পারে। তৈরিপোশাকের পাশাপাশি বাংলাদেশ পাট ও পাটজাত পণ্য,  চামড়া ও চামড়াজাত পণ্য, কৃষিজাত পণ্য, ঔষধ এবং লাইট ইঞ্জিনিয়ারিং পণ্য রপ্তানি বৃদ্ধির বিশেষ উদ্যোগ গ্রহণ করেছে সরকার। মন্ত্রী বলেন, দেশের গুরুত্বপূর্ণ স্থানে একশতটি স্পেশাল ইকোনমিক জোন গড়ে তোলা হচ্ছে। পৃথিবীর অনেক দেশ ইতোমধ্যে এখানে বিনিয়োগের জন্য এগিয়ে এসেছে। সিঙ্গাপুরের ব্যবসায়ীগণ বাংলাদেশে কৃষিপণ্য প্রক্রিয়াজাত করণ, এনার্জি এবং অবকাঠামো খাতে বিনিয়োগ করতে পারে, এখানে পণ্য উৎপাদন করে সহজেই অন্য দেশে রপ্তানি করা সম্ভব। বাংলাদেশ সরকার এখন বিনিয়োগকারীদের বিশেষ সুযোগ-সুবিধা প্রদান করছে।

          মন্ত্রী আজ বাংলাদেশ সচিবালয়ে তাঁর অফিস কক্ষে বাংলাদেশে নিযুক্ত সিঙ্গাপুরের অনাবাসিক হাইকমিশনার Derek Loh এর সাথে মতবিনিময়ের সময় এ সব কথা বলেন।

          সিঙ্গাপুরের অনাবাসিক হাইকমিশনার ডিরেক লোহ বলেন, সিঙ্গাপুর বাংলাদেশকে ব্যবসা-বাণিজ্য ক্ষেত্রে বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে থাকে। পানি পথে পণ্য পরিবহণে সিঙ্গাপুর বাংলাদেশকে আরো সহযোগিতা দিতে পারে। পণ্যের অবাধ পরিবহণ নিশ্চিত করার লক্ষ্যে লজিস্টিকস, বন্দর ব্যবস্থাপনা ও শুল্ক কর্তৃপক্ষের কার্যক্রম সহজ করতে সহায়তা দেয়া সম্ভব। সিঙ্গেল উইন্ডো বাস্তবায়নে সিঙ্গাপুরের পিএসএ ইন্টারন্যাশনাল প্রাইভেট লিমিটেড সহযোগিতা প্রদান করতে পারে। এছাড়া সেমি-কন্টাকটর উৎপাদনে সিঙ্গাপুরের ব্যবসায়ীগণ দিতে প্রস্তুত। এতে পণ্য পরিবহণে ব্যয় কমানোর যাবে। বিভিন্ন শিল্পের উন্নত কাঁচামাল সিঙ্গাপুর বাংলাদেশে সরবরাহ করে। ডিজিটাল অবকাঠামো ক্ষেত্রে বাংলাদেশে বিনিয়োগের সুযোগ রয়েছে। হালাল পণ্য রপ্তানিতে সিঙ্গাপুরের সার্টিফিকেশনসহ প্রাতিষ্ঠানিক কাঠামো বিদ্যমান রয়েছে, বাংলাদেশকে অভিজ্ঞতার আলোকে সহযোগিতা করা সম্ভব। এজন্য সিঙ্গাপুরের ব্যবসায়ীদের সাথে বাংলাদেশের ব্যবসায়ীদের যোগাযোগ খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

          উল্লেখ্য, ব্যবসা-বাণিজ্য বৃদ্ধি করতে উভয় দেশের মধ্যে একটি ওয়ার্কিং গ্রুপ প্রতিষ্ঠা এবং ব্যবসায়ী

প্রতিনিধিদলের সফর বিনিময় করতে একমত পোষণ করা হয়। এ সময় উভয় দেশের সিনিয়র কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

#

বকসী/পাশা/রফিকুল/জয়নুল/২০২২/১৮৩০ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                   নম্বর : ১৯৯৭

ভারত থেকে গম আমদানিতে কোনো সমস্যা নেই

টাস্কফোর্স কমিটির সভায় বাণিজ্যমন্ত্রী

ঢাকা, ৪ জ্যৈষ্ঠ (১৮ মে) :

বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেছেন, ভারত থেকে গম আমদানিতে বাংলাদেশের কোনো সমস্যা নেই। গভঃ টু গভঃ আমদানিতে কোনো বিধি নিষেধ আরোপ করা হয়নি, এছাড়া বেসরকারি পর্যায়ে বাংলাদেশের আমদানিকারকগণ অনুমতি নিয়ে যে কোনো পরিমাণ গম আমদানি করতে পারবেন। সরকার ইতোমধ্যে ভারতের সাথে যোগাযোগ করেছে, বাংলাদেশের প্রয়োজনে ভারত থেকে গম আমদানিতে কোনো সমস্যা হবে না। এ মুহূর্তে বাংলাদেশে প্রয়োজনীয় গম মজুত আছে। গম সংকটের কোনো সম্ভাবনা নেই। মন্ত্রী বলেন, দেশে প্রয়োজনীয় ভোজ্য তেল মজুত রয়েছে, পর্যাপ্ত ভোজ্য তেল পাইপ লাইনে রয়েছে, সরবরাহ স্বাভাবিক রয়েছে। ভোজ্য তেলের সংকট হবার কোনো সম্ভাবনা নেই। আমদানিকারকদের প্রকৃত ক্রয়মূল্য ও আনুসঙ্গীক ব্যয় বিবেচনায় নিয়ে ভোজ্য তেলের ন্যায্য মূল্য নির্ধারণ করা হচ্ছে এবং নির্ধারিত মূল্যে ক্রয়-বিক্রয় চলছে, নির্ধারিত মূল্যের বেশি দামে বিক্রয়ের কোনো অভিযোগ পাওয়া গেলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। বিকল্প হিসেবে সরিষার উৎপাদন বৃদ্ধি এবং রাইজ ব্যান্ডের ভোজ্য তেলের উৎপাদন বৃদ্ধি করে দেশের চাহিদা পূরণের জন্য সরকার কাজ করছে। স্থানীয় ভাবে ৭ লাখ মেট্রিক টন রাইস ব্যান্ড ভোজ্য তেল উৎপাদন করা সম্ভব, যা মোট দেশের চাহিদার ২৫ ভাগ পূরণ করতে পারবে।

বাণিজ্যমন্ত্রী আজ বাংলাদেশ সচিবালয়ে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে দ্রব্যমূল্য ও বাজার পরিস্থিতি পর্যালোচনা সংক্রান্ত টাস্কফোর্স কমিটির ২য় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। উল্লেখ্য, বাণিজ্যমন্ত্রী দ্রব্যমূল্য ও বাজার পরিস্থিতি পর্যালোচনা সংক্রান্ত টাস্কফোর্স কমিটির উপদেষ্টা।

মন্ত্রী বলেন, টিসিবি দেশের এক কোটি পরিবারকে বিশেষ কার্ডের মাধ্যমে ভরতুকি মূল্যে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য বিক্রয় অব্যাহত রাখবে। আগামী জুন মাসের প্রথমার্ধেই এ পণ্য বিক্রয় শুরু হবে। নির্ধারিত ডিলারের মাধ্যমে দোকান থেকে এসব পণ্য বিক্রয় হবে। প্রয়োজনে নির্ধারিত স্থানে ট্রাক থেকেও বিক্রয় করা হবে। এ পণ্য বিক্রয় সুশৃঙ্খল করা হয়েছে, সকল কার্ডহোল্ডার এ পণ্য পাবেন। দেশে পর্যাপ্ত পেঁয়াজ মজুত ও সরবরাহ রয়েছে। পেঁয়াজ সংকট হবার কোনো সম্ভাবনা নেই। দেশীয় পেঁয়াজ উৎপাদনকারীদের ন্যায্যমূল্য নিশ্চিত করতে সাময়িক ভাবে পেঁয়াজ আমদানি নিয়ন্ত্রণ করা হচ্ছে।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব তপন কান্তি ঘোষ এর সভাপতিত্বে সভায় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ট্রেড এন্ড টেরিফ কমিশনের চেয়ারম্যান (সচিব) মোঃ আফজাল হোসেন, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব এ কে এম আলী আহাদ খান, টিসিবি’র চেয়ারম্যান ব্রি.জে. মোঃ আরিফুল হাসান, জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের মহাপরিচালক এ এইচ এম সফিকুজ্জামান ও সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও বিভাগের কর্মকর্তা, এফবিসিসিআই এর সিনিয়র সহ-সভাপতি মো. আমীন হেলালী, সিটি গ্রুপের উপদেষ্টা অমিতাভ চক্রবর্তীসহ সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীগণ সভায় উপস্থিত ছিলেন।

#

 বকসী/পাশা/রফিকুল/শামীম/২০২২/১৮০৫ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                  নম্বর : ১৯৯৬

চারজন অতিরিক্ত সচিবকে সচিব পদে পদোন্নতি প্রদান

ঢাকা, ৪ জ্যৈষ্ঠ (১৮ মে) :

বিভিন্ন দপ্তরে কর্মরত ৪ জন অতিরিক্ত সচিবকে সচিব পদে পদোন্নতি প্রদান করা হয়েছে।

খুলনার বিভাগীয় কমিশনার মোঃ ইসমাইল হোসেনকে খাদ্য মন্ত্রণালয়ের, অর্থ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব ড. ফারহিনা আহমেদকে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের, কৃষি মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মোঃ হাসানুজ্জামান কল্লোলকে মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের এবং জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মোঃ জাহাঙ্গীর আলমকে সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব পদে পদায়ন করা হয়েছে।

আজ জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করে।

#

শিবলী/পাশা/রফিকুল/শামীম/২০২২/১৭৪০ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                                        নম্বর : ১৯৯৫

প্রধানমন্ত্রী প্রদত্ত ১০ কোটি টাকার

বিশেষ বরাদ্দের চেক হস্তান্তর করেছেন ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী

ঢাকা, ৪ জ্যৈষ্ঠ (১৮ মে) :

          আজ জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের সম্মেলন কক্ষে প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক বাংলাদেশ মহিলা ক্রীড়া সংস্থাকে প্রদত্ত ১০ কোটি টাকার বিশেষ বরাদ্দের চেক হস্তান্তর করেছেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মোঃ জাহিদ আহসান রাসেল। বাংলাদেশ মহিলা ক্রীড়া সংস্থার পক্ষে চেকটি গ্রহণ করেন মহিলা ক্রীড়া সংস্থার সভানেত্রী ও জাতীয় সংসদের হুইপ মাহবুব আরা গিনি। এ সময়ে যুব ও ক্রীড়া সচিব মেজবাহ উদ্দিন উপস্থিত ছিলেন।

            চেক হস্তান্তর কালে যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী বলেন, দেশের নারী ক্রীড়াঙ্গনের জন্য আজ একটি অবিস্মরণীয় দিন। আমাদের নারী ও ক্রীড়াবান্ধব প্রধানমন্ত্রী দেশের নারী ক্রীড়াবিদদের উন্নয়নে ক্রীড়াঙ্গনের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো ১০ কোটি টাকার বিশেষ বরাদ্দ প্রদান করেছেন।

           চেক হস্তান্তর শেষে বাংলাদেশ ক্রীড়াক্ষেত্রে নারী দলের অংশগ্রহণ বৃদ্ধি ও নারী ক্রীড়াবিদদের সার্বিক উন্নয়ন বিষয়ক এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। মতবিনিময় সভায় যুব ও ক্রীড়া সচিব মেজবাহ উদ্দিন এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্যে রাখেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মোঃ জাহিদ আহসান রাসেল। দেশের বিভিন্ন ক্রীড়া ফেডারেশনের নেতৃবৃন্দসহ যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় এবং জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

#

আরিফ/পাশা/রফিকুল/জয়নুল/২০২২/১৭৪০ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                            নম্বর : ১৯৯৪

কান উৎসবে বঙ্গবন্ধু বায়োপিকের ট্রেইলার উদ্বোধনে ফ্রান্সের পথে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী

ঢাকা, ৪ জ্যৈষ্ঠ (১৮ মে) :

বিশ্বের শীর্ষ চলচ্চিত্র উৎসব কান ফেস্টিভ্যালের ৭৫তম আসরে ‘মুজিব: একটি জাতির রূপকার’ (Mujib : The Making of a Nation) চলচ্চিত্রের ট্রেইলার উদ্বোধনে যোগ দিতে মঙ্গলবার রাতে ফ্রান্সের উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছেন তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান
মাহ্‌মুদ। 

১৭ মে থেকে শুরু হওয়া কান চলচ্চিত্র উৎসবে ‘মার্শে দ্যু ফিল্ম’ নামে বিশ্ব চলচ্চিত্রের ব্যস্ততম বাণিজ্যিক শাখায় ১৯শে মে বৃহস্পতিবার ভারতীয় প্যাভিলিয়নে এ অনুষ্ঠান হবে।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জীবন ও কর্মের ওপর বাংলাদেশ-ভারত যৌথ উদ্যোগে নির্মিত এই বায়োপিকের ট্রেইলার উদ্বোধনে অংশ নেবেন তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ড. হাছান মাহ্‌মুদ, ভারতের তথ্য ও সম্প্রচার এবং যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রী শ্রী অনুরাগ সিং ঠাকুর, বায়োপিকের পরিচালক শ্যাম বেনেগাল, চিত্রনাট্যকার অতুল তিওয়ারি ও শামা জায়েদি, মুখ্য অভিনয় শিল্পীরা এবং কর্মকর্তাবৃন্দ। 

বায়োপিকের নির্বাহী প্রযোজক ও বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন কর্পোরেশন (বিএফ

2022-05-18-16-52-3459fcf7b3d41637557ea6bd475e4c48.doc 2022-05-18-16-52-3459fcf7b3d41637557ea6bd475e4c48.doc

Share with :

Facebook Facebook