তথ্য অধিদফতর (পিআইডি) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ২৮ নভেম্বর ২০১৯

তথ্যবিবরণী 28.11.2019

তথ্যবিবরণী                                                                                              নম্বর : ৪৫১৭
 
উন্নত দেশগুলোর তুলনায় বাংলাদেশে কার্বন নিঃসরণ নগণ্য 
                                               --- তথ্যমন্ত্রী
 
ঢাকা, ১৩ অগ্রহায়ণ (২৮ নভেম্বর) :
পরিবেশবিদ ড. হাছান মাহ্‌মুদ বলেছেন, উন্নত দেশগুলোর তুলনায় আমাদের দেশের কার্বন নিঃসরণ নগণ্য। তবে বাংলাদেশ বৈশ্বিক জলবায়ু পরিবর্তনের শিকার। নিজস্ব তহবিল গঠন করে বাংলাদেশ এ পরিবর্তনের অভিঘাত মোকাবিলা করছে। 
আজ রাজধানীর তোপখানা রোডে সিরডাপ মিলনায়তনে কনফারেন্স অন এনভায়র্নমেন্টাল সল্যুশনস ফর সাসটেইনেবল ডেভেলপমেন্ট টুওয়ার্ডস ডেভেলপড বাংলাদেশ (সিইএসএসডি ২০১৯) সম্মেলনের সমাপনী অধিবেশনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।
বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক উপ-কমিটি দু’দিনব্যাপী এ সম্মেলনের আয়োজন করে।
আওয়ামী লীগের সাবেক পরিবেশ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগই প্রথম রাজনৈতিক দল, যারা পরিবেশ সম্পাদকের পদ সৃষ্টি করে। শুধু তাই নয়, আওয়ামী লীগ যখন ক্ষমতায় ছিলো না, তখনও পরিবেশ সংরক্ষণ নিয়ে বহু সেমিনার, সিম্পোজিয়াম করেছে এবং ক্লাইমেট চেঞ্জ অ্যাকশন প্ল্যান তৈরিতে ভূমিকা রেখেছে।
পরিবেশ গবেষক ড. মোঃ আফতাব আলী শেখ এর সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন ও আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ড. শাম্মী আহমেদ, স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক রোকেয়া সুলতানা, চীনা পরিবেশবিদ ড. লুয়ান প্রমুখ।
এরপর রাজধানীর পান্থপথে বসুন্ধরা সিটির স্টার সিনেপ্লেক্সে চট্টগ্রামের ভাষায় নির্মিত ভয়কে জয় করার সিনেমা ‘ন ডরাই’ এর প্রিমিয়ার শোতে অংশ নেন তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক ড. হাছান মাহ্‌মুদ।
#
আকরাম/ইসরাত/মোশারফ/জয়নুল/২০১৯/২১২০ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                                      নম্বর : ৪৫১৫

 

ব্লু-ইকোনমির সম্ভাবনাকে কাজে লাগতে প্রয়োজন গবেষণা

                                                   ---পরিকল্পনা মন্ত্রী 

ঢাকা, ১৩ অগ্রহায়ণ (২৮ নভেম্বর) : 

 

            পরিকল্পনা মন্ত্রী  এম এ মান্নান বলেছেন, ব্লু-ইকোনমির অপার সম্ভাবনাকে দেশের উন্নয়নে কাজে লাগাতে এর গবেষণা ও শিক্ষার ওপর গুরুত্বারোপ করতে হবে । এক্ষেত্রে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেরিটাইম ইউনিভার্সিটি বিশেষ ভূমিকা পালন করতে পারে ।

 

            মন্ত্রী  আজ ঢাকায় স্থানীয় এক হোটেলে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেরিটাইম ইউনিভার্সিটি আয়োজিত ‘ অ্যান আউটলুক ফর সাসটেইনেবল মেরিটাইম ডেভলপমেন্ট অ্যান্ড গভর্নেন্স : চ্যালেঞ্জেস অ্যান্ড ওয়ে অ্যাহেড' বিষয়ক দিনব্যাপী এক আন্তর্জাতিক সেমিনারের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি বক্তব্যে এসব কথা বলেন ।

 

            সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন গ্রিনউইচ ইউনিভার্সিটির প্রফেসর ও গ্লোবাল মেরিটাইম সিকিউরিটি এন্ড ডিফেন্সের উপদেষ্টা প্রফেসর Chris Bellamy। সেমিনারের বক্তাগণ বিশ্বব্যাপী সমুদ্র সম্পদের টেকসই ব্যবস্থাপনার অংশ হিসেবে বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক এবং টেকসই উন্নয়নের সাথে সমুদ্র সম্পদের নানাবিধ সম্ভাবনার কথা চিহ্নিত করেন।

 

            সেমিনার অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন নৌ বাহিনী প্রধান অ্যাডমিরাল আওরঙ্গজেব চৌধুরী ও  বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর রিয়ার এডমিরাল এম খালেদ ইকবাল। এ সময় মেরিটাইম বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী-সহ দেশি-বিদেশি মেরিটাইম বিষয়ক শিক্ষক-গবেষক উপস্থিত ছিলেন ।

 

#

তথ্যবিবরণী                                                                                                                    নম্বর : ৪৫১৬

 

সফররত সংযুক্ত আরব আমিরাতের ন্যাশনাল ডিফেন্স

কলেজের প্রতিনিধিলের পরিকল্পনা মন্ত্রণালয় পরিদর্শন

 

ঢাকা, ১৩ অগ্রহায়ণ (২৮ নভেম্বর) : 

 

            সফররত সংযুক্ত আরব আমিরাতের ন্যাশনাল ডিফেন্স কলেজ (এনডিসি) এর প্রতিনিধিদল আজ তাদের প্রশিক্ষণের অংশ হিসেবে পরিকল্পনা মন্ত্রণালয় পরিদর্শন করেন। পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান প্রতিনিধিদলকে মন্ত্রণালয়ে স্বাগত জানান ।

            এ উপলক্ষে এনইসি সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত এক ব্রিফিং সেশনে পরিকল্পনা সচিব মো নুরুল আমিন মন্ত্রণালয়ের কার্যক্রম সম্পর্কে তাদের অবহিত করেন এবং বাংলাদেশের বিভিন্ন খাতের অগ্রগতির চিত্র তুলে ধরেন। প্রতিনিধিদল বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক ক্ষেত্রে অভূতপূর্ব অগ্রগতির প্রশংসা করেন ।

            ১৪ সদস্যের প্রতিনিধি দলের নেতৃত্বে ছিলেন খালিদ আব্দুল রহিম আলকাত্তান ।

            এ সময় বাংলাদেশের এনডিসির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা-সহ পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

 

#

শাহেদ/ফারহানা/রফিকুল/আব্বাস/২০১৯/১৯৫৭ ঘণ্টা   

তথ্যবিবরণী                                                                                              নম্বর : ৪৫১৪
 
নতুন প্রযুক্তিতে দক্ষতা বৃদ্ধির মাধ্যমে উৎপাদনকে এগিয়ে নিতে হবে
                                                        --- শ্রম প্রতিমন্ত্রী
 
ঢাকা, ১৩ অগ্রহায়ণ (২৮ নভেম্বর) :
শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান বলেছেন, আগামীতে স্বয়ংক্রিয় যন্ত্রপাতি, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা এবং রোবটের মতো নতুন নতুন প্রযুক্তি উদ্ভাবনের ফলে পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে মালিক-শ্রমিক সবাই মিলে সৌহার্দ্যপূর্ণ সম্পর্ক এবং দক্ষতা বৃদ্ধির মাধ্যমে উৎপাদন ও ব্যবসাকে এগিয়ে নিতে হবে।
আজ রাজধানীতে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থা (আইএলও) এর শতবর্ষ উদযাপনের অংশ হিসেবে ‘ফিউচার অভ্ ওয়ার্ক’ বিষয়ক জাতীয় সংলাপে সভাপতির বক্তৃতায় প্রতিমন্ত্রী এসব কথা বলেন। সংলাপে প্রধান অতিথি ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিষয়ক উপদেষ্টা প্রফেসর ড. গওহর রিজভী।
শ্রম প্রতিমন্ত্রী বলেন, নতুন নতুন প্রযুক্তি উদ্ভাবনের ফলে অনেক শ্রমিক চাকরি হারাবে। অন্যদিকে নতুন ধরনের কাজের সুযোগ সৃষ্টি হবে। এ ঝুঁকি সফলভাবে অতিক্রমে মালিক-শ্রমিককে নতুনভাবে চিন্তা করে কাজ করতে হবে। অর্থনৈতিক ও সামাজিক নীতি এবং ব্যবসায়িক কর্মকা-কে ঘিরে শ্রমজীবী মানুষ এবং তাদের কাজকে বিবেচনায় নিয়ে সামাজিক অঙ্গীকার আরো শক্তিশালী করতে হবে। তাদের ন্যায় অধিকার এবং সুরক্ষা নিশ্চিত করতে হবে। 
প্রতিমন্ত্রী বলেন, সরকার শ্রম আইনকে যুগোপযোগী করে সংশোধন করেছে। এতে শ্রমিকদের সুযোগ সুবিধা বৃদ্ধি, ট্রেড ইউনিয়ন রেজিস্ট্রেশন পদ্ধতি সহজীকরণ, শ্রমিকের ব্যক্তিগত নিরাপত্তা এবং কলকারখানার নিরাপত্তা সংক্রান্ত বিষয়গুলোতে পরিবর্তন আনা হয়েছে, সংশোধিত শ্রম আইনে শিল্প-সম্পর্ক উন্নয়ন সম্ভব হবে। সরকার শ্রমিকের ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠা এবং মামলার দ্রুত নিষ্পত্তির লক্ষ্যে শ্রম আদালতের সংখ্যা বাড়ানোর উদ্যোগ নিয়েছে বলে তিনি উল্লেখ করেন।
সংলাপের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তৃতা করেন শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সচিব কে এম আলী আজম এবং সমাপনী পর্বে বক্তৃতা করেন পররাষ্ট্র সচিব মোঃ শহীদুল হক। 
#
আকতারুল/ফারহানা/মোশারফ/জয়নুল/২০১৯/১৯৪০ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                               নম্বর : ৪৫১৩

 

দেশের প্রতিটি বিমানবন্দরে আন্তর্জাতিক মানের সেবা নিশ্চিত করবে সরকার

                                                          --বিমান ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী

 

চট্টগ্রাম, 13 অগ্রহায়ণ (২৮ নভেম্বর) :    

বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মোঃ মাহবুব আলী বলেছেন, বিমানবন্দর যে কোনো দেশের প্রবেশদ্বার। বিমানবন্দর আন্তর্জাতিক বা অভ্যন্তরীণ যে কোনো যাত্রীর কাছে দেশের উন্নয়নকে প্রথমেই প্রতিফলিত করে। বাংলাদেশের প্রতিটি বিমানবন্দরে আন্তর্জাতিক মানের সেবা প্রদানের বিষয়টি নিশ্চিত করার লক্ষ্যে কাজ করছে সরকার।

প্রতিমন্ত্রী আজ চট্টগ্রামে শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে মধুমতি ব্যাংক লিমিটেড কর্তৃক যাত্রী লাউঞ্জ উদ্বোধন কালে এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন মধুমতি ব্যাংক লিমিটেডের চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস এমপি। 

মাহবুব আলী বলেন, দেশের বিমান বন্দরগুলোর উন্নয়নে বর্তমানে বেশ কিছু মেগা প্রজেক্ট সরকারের চলমান রয়েছে। ৫ হাজার ৬৮ কোটি টাকা ব্যয়ে শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরের রানওয়ে শক্তিশালীকরণ ও এয়ার ফিল্ড গ্রাউন্ড লাইটিং সিস্টেম স্থাপনের কাজ পুরোদমে এগিয়ে চলছে।  অচিরেই হজরত শাহ জালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরের ৩য় টার্মিনালের কাজ শুরু হবে, যা নির্মাণে মোট ব্যয় হবে ২১ হাজার ৩ শত ৯৯ কোটি টাকা। তিনি এ সময় অবকাঠামোগত উন্নয়নে সরকারের পাশাপাশি আমাদের বেসরকারি অংশীজনদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।

#

 তানভীর/ফারহানা/মোশারফ/সেলিম/২০১৯/১৮০০ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                        নম্বর : ৪৫১২
 
ইউনেস্কো মুজিববর্ষ উদ্যাপন করবে
 
প্যারিস, ফ্রান্স, ১৩ অগ্রহায়ণ (২৮ নভেম্বর) :
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী ইউনেস্কো ও বাংলাদেশ যৌথভাবে উদ্যাপন করবে। 
আজ ইউনেস্কোর সদরদপ্তর প্যারিসে অনুষ্ঠিত ইউনেস্কোর ৪০তম সাধারণ অধিবেশনে ইউনেস্কোর সাধারণ পরিষদের সভাপতি Altay Cengizer এর সভাপতিত্বে এবং ইউনেস্কো মহাপরিচালক Audrey Azoulay ও বিভিন্ন কমিটি ও কমিশনের চেয়ারপারসনদের উপস্থিতিতে অনুষ্ঠিত প্লেনারি সেশনে এ সংক্রান্ত একটি প্রস্তাব সর্বসম্মতিতে পাস হয়।
বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদ্যাপনের সাথে ইউনেস্কো যুক্ত হওয়ায় আগামী ১৭ মার্চ ২০২০ থেকে ১৭ মার্চ ২০২১ পর্যন্ত মুজিববর্ষ উদ্যাপনকালে দেশজুড়ে নানা কর্মসূচি পালনের সাথে সাথে আন্তর্জাতিক পরিম-লে বঙ্গবন্ধুর বর্ণাঢ্য কর্মময় জীবন আরো ব্যাপক পরিসরে তুলে ধরার সুযোগ সৃষ্টি হল।
বাংলাদেশের এ বিশাল অর্জনের ঐতিহাসিক মুহূর্তে ইউনেস্কো সাধারণ সভার ৪০তম অধিবেশনে বাংলাদেশ প্রতিনিধিদলের প্রধান শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সিনিয়র সচিব মোঃ সোহরাব হোসাইন, ফ্রান্সে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত এবং ইউনেস্কোতে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি কাজী ইমতিয়াজ হোসেন-সহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। 
#
খায়ের/ফারহানা/রফিকুল/জয়নুল/২০১৯/১৮৫০ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                         নম্বর : ৪৫১১

সিইউএফএল এর সংস্কারে জাপানের সহায়তা চাইলেন শিল্পমন্ত্রী

ঢাকা, ১৩ অগ্রহায়ণ (২৮ নভেম্বর) :

 

          শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন বলেছেন, সংস্কারের মাধ্যমে চট্টগ্রাম ইউরিয়া ফার্টিলাইজার ফ্যাক্টরি লিমিটেডে (সিইউএফএল) নিরবচ্ছিন্ন উৎপাদন চালু রাখতে জাপানের সহায়তা প্রয়োজন। তিনি বলেন, জাপানি টয়ো ইঞ্জিনিয়ারিং কর্পোরেশন নির্মিত এ কারখানা দীর্ঘ দিন ধরে ইউরিয়া সার উৎপাদন করে আসছে। রিয়েক্টরে কারিগরি সমস্যা থাকায় কারখানাটিতে উৎপাদন ব্যাহত হচ্ছে। তিনি কারখানাটির আধুনিকায়ন ও সংস্কারে জাপানের সহযোগিতা কামনা করেন।

 

          বাংলাদেশে নিযুক্ত জাপানের রাষ্ট্রদূত Naoki Ito আজ শিল্পমন্ত্রীর সাথে তাঁর কার্যালয়ে সাক্ষাৎ করতে এলে তিনি এ সহায়তা চান। এ সময় শিল্প মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব বেগম পরাগ-সহ শিল্প মন্ত্রণালয় ও জাপান দূতাবাসের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

 

          সাক্ষাৎকালে দ্বিপাক্ষিক স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিষয়ে আলোচনা হয়। বাংলাদেশের চিনি শিল্পখাতে পণ্য বৈচিত্র্যকরণ, সার কারখানার আধুনিকায়ন, দক্ষ জনবল তৈরিতে প্রশিক্ষণ, অটোমোবাইল, হালকা প্রকৌশল, কৃষি প্রক্রিয়াজাতকরণ, মেডিকেল ও সায়েন্টিফিক ইক্যুইপমেন্ট শিল্পখাতে জাপানি বিনিয়োগ-সহ সংশ্লিষ্ট অন্যান্য বিষয় আলোচনায় স্থান পায়।

 

          শিল্পমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশে টয়োটা ব্র্যান্ডের গাড়ির ব্যাপক জনপ্রিয়তা রয়েছে। বিশাল বাজার সুবিধা ও জনপ্রিয়তা বিবেচনা করে জাপানি টয়োটা কোম্পানি বাংলাদেশে গাড়ি উৎপাদনে বিনিয়োগ করতে পারে। এ কারখানা স্থাপনের মাধ্যমে টয়োটা বাংলাদেশের চাহিদা মিটিয়ে জাপানের বাজারেও গাড়ি রপ্তানির সুযোগ পাবে। তিনি রাষ্ট্রায়ত্ত চিনি কলগুলোতে বাইব্যাক পলিসির আওতায় ডিস্ট্রিলারি স্থাপনসহ পণ্য বৈচিত্র্যকরণে জাপানের উদ্যোক্তাদের বিনিয়োগের পরামর্শ দেন। একইসাথে তিনি বাংলাদেশের উদীয়মান হেলথ্ ইন্ডাস্ট্রির সুবিধা নিতে মেডিকেল ও সায়েন্টিফিক ইক্যুইপমেন্ট উৎপাদনখাতে বিনিয়োগের আহ্বান জানান।

 

          জাপানের রাষ্ট্রদূত বলেন, বর্তমানে মাতারবাড়ি কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ উৎপাদন প্রকল্প, মিরসরাই অর্থনৈতিক অঞ্চল, মেট্রোরেল-সহ অনেক গুরুত্বপূর্ণ প্রকল্পে জাপানি বিনিয়োগ রয়েছে। তিনি বাংলাদেশে টয়োটা ব্র্যান্ডের গাড়ি উৎপাদনের লক্ষ্যে একটি বাস্তবসম্মত অটোমোবাইল পলিসি প্রণয়নের ওপর গুরুত্ব দেন। এ পলিসি প্রণয়নে জাপান বাংলাদেশকে কারিগরি সহায়তা দিতে আগ্রহী বলে তিনি উল্লেখ করেন।

 

#

জলিল/ফারহানা/রফিকুল/আব্বাস/২০১৯/১৮৩৩ ঘণ্টাতথ্যবিবরণী                                                                                                   নম্বর : ৪৫১০

 

কৃষিতে উৎপাদন খরচ কমাতে ষান্ত্রিকীকরণ করতে হবে

                                                ---কৃষিমন্ত্রী

 

গাজীপুর, ১৩ অগ্রহায়ণ (২৮ নভেম্বর) : 

            কৃষিমন্ত্রী ড. মোঃ আব্দুর রাজ্জাক বলেছেন, কৃষিকে লাভজনক করতে হলে শুধু ধান চাষ করলেই হবে না। লাভজনক কৃষি পণ্য উৎপাদন করে প্রক্রিয়াজাত ও রপ্তানির মাধ্যমে কৃষকদের লাভবান করতে হবে। গ্রামে বসবাসরত কৃষকরা লাভবান হলে তারা নিজ পরিবারের জন্য পুষ্টিমানসম্পন্ন খাদ্য সংগ্রহ করতে পারবে।


            মন্ত্রী আজ গাজীপুরে বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউট (ব্রি) এর অডিটরিয়ামে বার্ষিক গবেষণা পর্যালোচনা কর্মশালা-২০১৮-২০১৯  এসব কথা বলেন।


            মন্ত্রী বলেন, কৃষিতে  উৎপাদন খরচ কমাতে ষান্ত্রিকীকরণ করতেই হবে। শিল্প প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে যুবকদের কর্মমুখী করতে হবে। কৃষিজাত পণ্যের মূল্য নিয়ে সবাইকে ভাবতে হবে। দেশে খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ বারি'র কৃষি বিজ্ঞানীদের পরিশ্রমের ফসল। আমাদের বিদ্যমান প্রযুক্তিগুলে যথাযথভাবে ব্যবহার করতে হবে। এছাড়া কোনো ফসলে কৃষক লাভবান হবে তা কৃষকের কাছে পৌঁছাতে হবে।  বারি'র অর্জন থেকে কৃষক কী ভাবে লাভবান হবে তার জন্য কাজ করতে হবে।


            ধান গবেষণা ইনস্টিটিউটের মহপরিচালক ড. মোঃ শাহজাহান কবীরের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কৃষি মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (গবেষণা) কমলা রঞ্জন দাস।

#

গিয়াস/ফারহানা/রফিকুল/আব্বাস/২০১৯/১৮১২ ঘণ্টা   

 

তথ্যবিবরণী                                                                                              নম্বর : ৪৫০৯
 
গোলটেবিল বৈঠকে বাণিজ্যমন্ত্রী
প্রতিযোগিতামূলক বিশ্ব বাণিজ্যে দক্ষতার সাথে চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করতে হবে
 
ঢাকা, ১৩ অগ্রহায়ণ (২৮ নভেম্বর) :
বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেছেন, এলডিসি থেকে বেড়িয়ে যাবার পর বিশ^বাণিজ্যের চ্যালেঞ্জ সম্মিলিতভাবে  মোকাবিলা করতে হবে। বাংলাদেশের তৈরি পোশাকখাত অনেক চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করে বর্তমান অবস্থায় এসেছে। এখনো বিভিন্ন চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করা হচ্ছে। এখাতে দক্ষ জনবল বাড়াতে হবে। এ জন্য দেশের সংশ্লিষ্ট শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোকে আরো দক্ষতার সাথে কাজ করতে হবে। 
মন্ত্রী আজ ঢাকায় স্টান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংকের সহায়তায়  বণিকবার্তা আয়োজিত হোটেল দ্য ওয়েস্টিনে  ‘বৈশি^ক বাণিজ্যিক পরিবর্তিত পরিস্থিতি ঃ আমাদের পোশাক খাত কতটুকু প্রস্তুত’ শীর্ষক গোল টেবিল বৈঠকে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।
মন্ত্রী বলেন, ২০২৪ সালের পর বিশ^ বাণিজ্যে যে চ্যালেঞ্জ আসবে তা সরকার এবং ব্যবসায়ীদের সম্মিলিত ভাবে মোকাবিলা করতে হবে। বিদেশ থেকে দক্ষ জনশক্তি না এনে, দক্ষ জনশক্তি তৈরি করতে হবে। রপ্তানি বাজার বৃদ্ধির জন্য সরকার আন্তরিকতার সাথে প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। এজন্য সকলকে প্রস্তুত থাকতে হবে।
বণিকবার্তার সম্পাদক দেওয়ান হানিফ মাহ্মুদের সভাপতিত্বে বিষয়ের ওপর গোলটেবিল বৈঠকে আলোচনায় অংশ নেন বিজিএমইএর প্রেসিডেন্ট ড. রুবানা হক, এফবিসিসিআই’র ভাইস প্রেসিডেন্ট মোঃ সিদ্দিকুর রহমান এবং বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর আহমেদ জামিল।
#
বকসী/ফারহানা/রফিকুল/জয়নুল/২০১৯/১৮১৫ঘণ্টা
তথ্যবিবরণী                                                                                             নম্বর : ৪৫০৮
 
আগামী বছর হতে নামজারির আবেদন ডিজিটাইলাইজড হবে 
                                                   --- ভূমিমন্ত্রী
 
ঢাকা, ১৩ অগ্রহায়ণ (২৮ নভেম্বর) :
ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী বলেছেন, বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদ্যাপনের বছরই ভূমি অফিসে নামজারির আবেদন প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ ডিজিটালাইজড হয়ে যাবে। এরপর নামজারির জন্যে কোন ম্যানুয়াল আবেদন গ্রহণ করা হবেনা। পর্যায়ক্রমে অন্যান্য ভূমি সেবা ডিজিটালাইজেশনের আওতায় নিয়ে এসে সম্পূর্ণ অটোমেটেড পেপারলেস ভূমি ব্যবস্থাপনা গড়ে তোলা হবে।
আজ রাজধানীর নীলক্ষেতে ভূমি প্রশাসন প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে আয়োজিত বেসিক ভূমি ব্যবস্থাপনা কোর্সে অংশগ্রহণকারী সহকারী কমিশনার (ভূমি)দের সাথে এক মতবিনিময় সভায় মন্ত্রী এসব কথা বলেন। 
মন্ত্রী প্রশিক্ষণার্থী কর্মকর্তাদের দিকনির্দেশনা দিতে গিয়ে বলেন, অধস্তনদের বুদ্ধিদীপ্ত নেতৃত্ব দ্বারা পরিচালনা করতে হবে। তিনি বলেন, সরকারি কর্মকর্তা কর্মচারীরা যেন ভালো থাকেন সেজন্য গণকর্মচারীদের বেতন বৃদ্ধি করছে সরকার। প্রশিক্ষণ শেষে কর্মস্থলে যেয়ে নবনির্মিত উপজেলা ও ইউনিয়ন ভূমি অফিসগুলো বুঝে নিতে এসিল্যান্ডদের নির্দেশ প্রদান করেন মন্ত্রী।
#
নাহিয়ান/ফারহানা/রফিকুল/জয়নুল/২০১৯/১৭৫৫ঘণ্টা
 
তথ্যবিবরণী                                                                                           নম্বর : ৪৫০৭
 
হলি আর্টিজান রায়কে স্বাগত না জানানো বিএনপি’র জঙ্গিপ্রশ্রয়েরই পরিচায়ক
                                                                --- তথ্যমন্ত্রী
 
ঢাকা, ১৩ অগ্রহায়ণ (২৮ নভেম্বর) :
তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহ্‌মুদ বলেছেন, ‘দুঃখজনক হলেও সত্য, হলি আর্টিজান হত্যাকা-ের বিচারের রায়কে বিএনপি’র স্বাগত না জানানো এটাই প্রমাণ করে যে তারা জঙ্গিদের আশ্রয়-প্রশ্রয় দেবার রাজনীতি থেকে বেরিয়ে আসেনি।’
আজ বাংলাদেশ সচিবালয়ে নিজ দপ্তরে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়কালে এ সংক্রান্ত প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, ‘মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর-সহ বিএনপি’র শীর্ষ নেতারা প্রায় সবাই যখনই কোনো জঙ্গিরা এনকাউন্টারে মৃত্যুবরণ করেছে, তখনই প্রশ্ন তুলছে- এই মৃত্যুবরণ কেন? অর্থাৎ জঙ্গিদেরকে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে তারা প্রশ্রয় দিয়েছে, সহায়তা করেছে। এমনকি তাদের ২০ দলীয় জোট, যেটি এখন ক্ষয়প্রাপ্ত হয়ে কয়-দলীয় জোট আছে সেটা মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর জানেন, সেই জোটের মধ্যও বহু নেতা আছেন, যারা মনে করেন তাদের মূল লক্ষ্য হচ্ছে বাংলাদেশকে একটি তালেবানি রাষ্ট্রে রূপান্তরিত করা।’
ড. হাছান বলেন, ‘সেই ঘটনাপ্রবাহের ধারাবাহিকতায় আমরা গতকাল আবার দেখলাম যে, হলি আর্টিজান হত্যাকা-ের একটি ঐতিহাসিক রায় হয়েছে এবং সেই ঐতিহাসিক রায় শুধু বাংলাদেশে জঙ্গিদমন এবং নির্মূলে যে সহায়ক হবে তা নয়, আমি মনে করি বিশ্বপ্রেক্ষাপটেও এটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ রায়। সমগ্র দেশের মানুষ এই রায়কে স্বাগত জানালেও বিএনপি এই রায়কে স্বাগত জানাতে ব্যর্থ হয়েছে। এতেই প্রমাণিত হয়, তারা শুধু সন্ত্রাসী রাজনীতিই করে না, তারা যে জঙ্গিদের আশ্রয়-প্রশ্রয় দেয়, সেই রাজনীতি থেকেও বেরিয়ে আসেনি। এটি অত্যন্ত দুঃখজনক।’
আমাদের দেশে আমরা যেভাবে জঙ্গি দমন করতে পেরেছি, পৃথিবীর অনেক উন্নত রাষ্ট্রও এভাবে জঙ্গি দমন করতে পারেনি উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, ‘আপনারা দেখেছেন যে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থেকে শুরু করে ইউরোপ, নর্থ আমেরিকা, পূর্ব এশিয়া এবং অন্যান্য জায়গাতেও জঙ্গি তৎপরতা দমন করার ক্ষেত্রে তারা যেমন সফলকাম হয়েছে, তার চেয়ে অনেক বেশি সফলতা আমাদের দেশে আমরা দেখাতে সক্ষম হয়েছি।’
এ সময় সাংবাদিকরা আদালতে অভিযুক্তদের মাথার টুপি প্রসঙ্গে প্রশ্ন করলে মন্ত্রী বলেন, সে বিষয়ে এখনই কিছু বলা সমীচীন হবে না। কারণ বন্দিদেরকে টুপি দেয়া হয়। সেই টুপিতে নিজেরা কিছু এঁকেছে কিনা সে বিষয়টাও থাকে। এটা যেহেতু তদন্তাধীন, সেহেতু এ বিষয়ে এরচেয়ে বেশি কিছু বলা এ মুহুর্তে সম্ভব নয়।
 
গত ২৬ নভেম্বর হাইকোর্ট প্রাঙ্গণে বিএনপি’র গাড়ি ভাঙচুর প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের মন্ত্রী বলেন, ‘গত পরশুদিন হাইকোর্টের সামনে বিএনপি গাড়ি ভাঙচুর করেছে এবং গাড়ি ভাঙচুরের মামলাও হয়েছে। আমরা মনে করেছিলাম বিএনপি ভাঙচুর, সন্ত্রাস, পেট্রোল বোমার রাজনীতি থেকে বেরিয়ে এসেছে কিংবা আসবে। গত পরশু দিনের ঘটনা প্রমাণ করে, তারা তাদের যে মূলনীতি- সন্ত্রাসী রাজনীতি, ভাঙচুরের রাজনীতি, ধ্বংসাত্মক রাজনীতি, পেট্রোল বোমার রাজনীতি থেকে তারা বেরিয়ে আসেনি। এই ঘটনা এটাই প্রমাণিত হয়, সুযোগ পেলেই তারা ছোবল দেবে। 
‘খালেদা জিয়ার মুক্তির বিষয়ে প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, ‘খালেদা জিয়াকে মুক্ত করার বিষয় তো আদালতের ব্যাপার। সুতরাং আদালত যদি জামিন বা খালাস দেন, তিনি মুক্তি পেতে পারেন। রাস্তায় গাড়ি ভাঙচুর করলে মুক্তি মিলবে না। মানুষের ওপর আক্রমণ করলে তো মুক্তি সম্ভব নয়। রাস্তায় গাড়ি ভাঙচুর করে, জনগণকে প্রতিপক্ষ মনে করে, জনগণের ওপর আক্রমণ পরিচালনা করে তো জনগণের রাজনীতির দল হওয়া যায় না, এটা রাজনৈতিক দলের কর্মকা-ের ভাষা হতে পারে না।’
‘কেউ কেউ বলে বিএনপি নিশ্চিহ্ন হয়ে গেছে’-এমন মন্তব্যের প্রেক্ষিতে আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক হাছান মাহ্মুদ বলেন, ‘আমি মনেকরি বিএনপি নিশ্চিহ্ন হয়ে গেছে- এটি বলা সমীচীন নয়। বিএনপি রাজনৈতিক দল হিসেবে অনেক দুর্বল হয়ে গেছে এবং একইসাথে বিএনপি যে রাজনৈতিক পথ অনুসরণ করছে, জনগণকে জিম্মি করা, জনগণকে আক্রমণ করা গাড়ি ভাঙচুর করা, বোমা নিক্ষেপ করা, এগুলোর কারণে বিএনপি জনবিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে, কিন্তু নিশ্চিহ্ন হয়ে গেছে, তা আমি মনে করি না।’
#
আকরাম/ফারহানা/রফিকুল/জয়নুল/২০১৯/১৭৫০ঘণ্টা 

Handout                                                                                                             Number : 4506

Prime Minister’s message on the International Day

of Solidarity with the Palestinian People
 

Dhaka, 28 November :  

            Prime Minister Sheikh Hasina has given the following message on the occasion of the International Day of Solidarity with the Palestinian People: 

            "On the solemn occasion of the International Day of Solidarity with the Palestinian People, Bangladesh joins the international community in reaffirming its unwavering pledge to support the inalienable rights of the people of Palestine and recognition to establishing the State of Palestine on the basis of two-state solution with pre- 1967 borders and Al Quds Al Sharif as its capital.

            From the very beginning of its nationhood, Bangladesh has continued to show unconditional solidarity to the just and rightful struggle of the Palestinian brothers and sisters for self-determination. Our firm stand in favour of the Palestinians, is inspired by our own struggle for Iiberation from the oppressors. This has been aptly reflected in the statement of the Father of the Nation Bangabandhu Sheikh Mujibur Rahman in his 1973 NAM Summit speech, where he stated, "the world is divided between those who are the oppressors and those who are the oppressed.... I would like to make it very clear that what we stand for is the solidarity of the progressive forces of' the world- that is for those who are oppressed". Our stance on this longstanding legal and humanitarian issue is also consistent with our constitutional pledge "to support oppressed peoples throughout the world waging a just struggle against imperialism, colonialism or racialism".

            On this day, we join the international condemnation against the atrocities, oppression and systematic and repeated violation of human rights and international humanitarian principles in Palestine by the occupying Israeli forces, including the recent demolition of dozens of houses in Wadi Hummus area of the town of Sur Baher in AI Quds. Any attempt or action to alter the historical and legal status of Jerusalem violating relevant UN Security Council resolutions is unacceptble. We urge the world community to ask Israeli occupying force to refrain from such acts.

            We maintain our principled position in favour of a comprehensive arrd durable solution of 'the Palestinian question in accordance with the relevant UN resolutions, the Arab Peace Initiative and the Quartet Road Map, which envisaged an independent Palestinian State and urged the international community to put pressure on Israel to implement it without any precondition.

            I urge international community to be pragmatic in their approach and walk together, hand-in-hand to restore the legitimate rights and aspirations of the Palestinian people to Iive in safety, dignity and justice in an independent homeland.

Joi Bangla, Joi Bangabandhu

May Bangladesh Live Forever."

#

Hasan/Anasuya/Rezzakul/Shamim/2019 hours

 

তথ্যবিবরণী                                                                                                  নম্বর :  ৪৫০৫

বাংলাদেশ ও তুরস্ক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের দ্বি-পাক্ষিক বৈঠক অনুষ্ঠিত

আঙ্কারা, তুরস্ক (২৮ নভেম্বর) : 

          বাংলাদেশ ও তুরস্কের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের দ্বি-পাক্ষিক বৈঠক গতকাল তুরস্কের রাজধানী আঙ্কারায় সে দেশের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে বাংলাদেশের ১০ সদস্য বিশিষ্ট প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান এবং তুরস্কের পক্ষে নেতৃত্ব দেন তুরস্কের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী Suleyman soylu।

          উভয় মন্ত্রী অনিয়মিত অভিবাসন, নিরাপত্তা, সন্ত্রাসদমন, আইন-শৃঙ্খলাবাহিনীর দক্ষতা বৃদ্ধি এবং রোহিঙ্গা সমস্যা নিয়ে বৈঠকে আলোচনা করেন।

          তুরস্কের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে স্বাগত জানিয়ে অতীতে তুরস্কের সংকটকালে বাংলাদেশের সমর্থনের কথা কৃতজ্ঞচিত্তে স্মরণ করেন। তিনি দুই দেশের মধ্যে ধর্মীয় এবং সাংস্কৃতিক সামঞ্জস্যতার কথা উল্লেখ করে দুই দেশের মধ্যে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পাবে মর্মে আশা প্রকাশ করেন। তুরস্কে অবস্থিত সিরিয় শরনার্থীদের বিষয়ে বিস্তারিত তুলে ধরে তিনি বিভিন্ন দেশ থেকে আগত বিপুল সংখ্যক অভিবাসীর বিষয়ে তুরস্কের আর্থিক ও অন্যান্য সমস্যার কথা উল্লেখ করেন। এছাড়া তিনি তুরস্কে বাংলাদেশি অনিয়মিত অভিবাসীর কথা উল্লেখ করে তাদের বাংলাদেশে ফেরত নেয়ার বিষয়ে অনুরোধ করেন।

          তুরস্কের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এ অঞ্চলে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের বিরুদ্ধে উভয় দেশের সহযোগিতার ওপর গুরুত্বারোপ করেন এবং বাংলাদেশের আইন-শৃঙ্খলাবাহিনীর দক্ষতা বৃদ্ধিতে প্রশিক্ষণ সহযোগিতা প্রদান সহ বাংলাদেশে আশ্রিত রোহিঙ্গাদের প্রতি মানবিক সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে বলে উল্লেখ করেন।

          আসাদুজ্জামান খান তাঁর বক্তব্যের শুরুতে তুরস্কের সরকার ও জনগণের প্রতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার শুভেচ্ছা পৌঁছে দেন। তিনি বাংলাদেশ এবং তুরস্কের মধ্যে ঐতিহাসিক সম্পর্কের কথা উল্লেখ করেন এবং সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ ও মাদকের বিরুদ্ধে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর জিরো ট

9ae15c9f01b5b00f9fe44bb034c1bf2e.docx 9ae15c9f01b5b00f9fe44bb034c1bf2e.docx

Share with :

Facebook Facebook