তথ্য অধিদফতর (পিআইডি) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ৬ মে ২০২২

তথ্যবিবরণী ০৬ মে ২০২২

তথ্যবিবরণী                                                                                                নম্বর: ১৮৩১

­

বঙ্গবন্ধুর দেওয়া সংবিধানের চার মূলনীতি সমাজ ও রাষ্ট্রীয় জীবনের মূল ভিত্তি

                                                     -- ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী

ঢাকা, ২৩ বৈশাখ (৬ মে) :   

ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেছেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সংঘটিত অপরাধ প্রতিকারে  জনসাধারণের অভিযোগ গ্রহণের সুযোগ সৃষ্টির উদ্যোগ নেওয়া হবে। বিটিআরসির মাধ্যমে এ ধরনের ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য আমরা কাজ করছি। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর দেওয়া সংবিধানের  চার মূলনীতি সমাজ ও রাষ্ট্রীয় জীবনের মূল ভিত্তি। মুক্তিযুদ্ধের পরাজিত শক্তি ও তাদের এদেশীয় দোসরদের একাত্তর পরবর্তীতেও সাম্প্রদায়িকতা,  সন্ত্রাস ও নৈরাজ্যের ষড়যন্ত্র থেমে থাকেনি। মন্ত্রী অশুভ শক্তির বিরুদ্ধে স্বাধীনতার স্বপক্ষের শক্তিকে  সমন্বিত উদ্যোগে রাজেনৈতিক, সামাজিক ও  সাংস্কৃতিক  আন্দোলন গড়ে তোলার আহ্বান জানান।

মন্ত্রী আজ ঢাকায় একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির আহ্বায়ক শহীদ জননী জাহানারা ইমামের ৯৩তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষ্যে ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি আয়োজিত সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মৌলবাদীদের সাম্প্রদায়িক জিহাদ প্রতিরোধ শীর্ষক এক আন্তর্জাতিক ওয়েবিনারে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ আহ্বান জানান।

নির্মূল কমিটির সভাপতি লেখক-সাংবাদিক শাহরিয়ার কবিরের সভাপতিত্বে ওয়েবিনারে ধারণাপত্র পাঠ করেন নির্মূল কমিটির বহুভাষিক সাময়িকী  জাগরণ-এর যুগ্ম সম্পাদক অনলাইন অ্যাক্টিভিস্ট লেখক মারুফ রসুল। সম্মানিত আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নির্মূল কমিটির কেন্দ্রীয় নেতা ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজ, টুয়েন্টি ফার্স্ট সেঞ্চুরি ফোরাম ফর হিউম্যানিটি তুরস্ক সাধারণ সম্পাদক লেখক ও চলচ্চিত্রনির্মাতা শাকিল রেজা ইফতি,  সর্ব ইউরোপীয় নির্মূল কমিটির সভাপতি সমাজকর্মী তরুণ কান্তি চৌধুরী, সুইডেনে অবস্থানকারী নির্মূল কমিটির কেন্দ্রীয় নেতা ও জাগরণ-এর যুগ্ম সম্পাদক লেখক সাংবাদিক সাব্বির খান, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক ব্লগার ও অনলাইন অ্যাক্টিভিস্ট লেখক সুইজারল্যান্ড প্রবাসী অমি রহমান পিয়াল, জাগরণ হিন্দি বিভাগের সম্পাদক ভারতের সমাজকর্মী তাপস দাস, ভারত থেকে অনলাইন একটিভিস্ট আইনজীবী সালমান আখতার, নির্মূল কমিটি আইটি সেল সভাপতি শহীদ সন্তান আসিফ মুনীর তন্ময়, ব্লগার এন্ড অনলাইন অ্যাক্টিভিস্ট নেটওয়ার্ক-এর সভাপতি ড. কানিজ আকলিমা সুলতানা, কলামিস্ট ও অনলাইন অ্যাক্টিভিস্ট সমাজকর্মী লীনা পারভীন ও নির্মূল কমিটির আইন সহায়ক কমিটির সদস্য এডভোকেট নাসির মিঞা।

ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী  সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেই নয় আর্থিক ক্ষেত্রেও ডিজিটাল অপরাধ সংঘটিত হচ্ছে উল্লেখ করে বলেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম বিশেষ করে ফেসবুক ও ইউটিউব তাদের কমিউনিটি স্ট্যান্ডার্ড মেনে চলে কিন্তু আমেরিকার কমিউনিটি স্ট্যান্ডার্ড আমাদের সাথে মিলে না। সাম্প্রদায়িক অপশক্তি যাতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার করে আর কোন নাসিরনগর কিংবা রামুর ঘটনার পুণরাবৃত্তি ঘটাতে না পারে সে ব্যাপারে আমরা কাজ করছি। অপপ্রচার কিংবা গুজবের বিষয়টি তাৎক্ষণিকভাবে কেউ জানালে আমি আশা করছি ফেসবুকের সর্বোচ্চ কর্তৃপক্ষকে জানাতে পারব- প্রতিকার পাবো। ২০১৮ সালে ফেসবুকের সাথে বার্সিলোনায় দ্বিপাক্ষীক বৈঠকের ধারাবাহিকতায় নিয়মিত  যোগাযোগ তারা আমাদের সাথে রক্ষা করে যাচ্ছে। আগে তাদেরকে অনুরোধ করলে কোন কন্টেন্ট সরানোর ব্যাপারে খুব কমই সহযোগিতা করেছে কিন্তু এখন আমরা  যথেষ্ট সহযোগিতা পাচ্ছি বলে মন্ত্রী উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, দেশে প্রায় পাঁচ কোটি ফেসবুক ব্যবহারকারীর মধ্যে আনুমানিক চার লাখ একাউন্ট ব্যবসার সাথে জড়িত। বীর মুক্তিযোদ্ধা মোস্তাফা জব্বার বলেন, একাত্তরে আমরা একটা সংগ্রাম শেষ করেছি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠার যে লড়াইটা চলছে তা স্বাধীনতার স্বপক্ষের শক্তিকে ঐক্যবদ্ধ থেকে চালিয়ে  যেতে হবে। একাত্তরে হারিনি এখনও হারবো না।

ওয়েবিনারের সভাপতির প্রারম্ভিক বক্তব্যে নির্মূল কমিটির সভাপতি লেখক সাংবাদিক শাহরিয়ার কবির ৯৩তম জন্মবার্ষিকী উদযাপনকালে শহীদ জননী জাহানারা ইমামের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবদেন করে বলেন, ‘তিন দশকেরও অধিককাল পূর্বে আমরা শহীদ জননী জাহানারা ইমামের নেতৃত্বে যে অভূতপূর্ব নাগরিক আন্দোলনের সূচনা করেছিলাম তার দু’টি প্রধান উদ্দেশ্য ছিল; ৭১-এর গণহত্যাকারী ও যুদ্ধাপরাধীদের বিচার এবং স্বাধীনতাবিরোধী গণহত্যাকারীদের ধর্মের নামে রাজনীতি নিষিদ্ধ করে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় ধর্মনিরপেক্ষ কল্যাণ রাষ্ট্র ও সমাজ গড়ে তোলা।

#

শেফায়েত/এনায়েত/সঞ্জীব/সেলিম/২০২২/২০৪০ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                নম্বর: ১৮৩০

 

দেশবিরোধীদের সাথে নিয়ে মিথ্যাচারই বিএনপির রাজনীতি

                                           -- তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী

কক্সবাজার, ২৩ বৈশাখ (৬ মে) :   

তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহ্‌মুদ বলেছেন, দেশবিরোধী অপশক্তিকে সাথে নিয়ে মিথ্যাচার আর গুজব রটানোই বিএনপির রাজনীতি। দেশের অভূতপূর্ব উন্নয়ন তারা চোখে দেখে না।

আজ কক্সবাজার হিল ডাউন সার্কিট হাউজে জেলা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের সাথে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় মন্ত্রী এ কথা বলেন।

সম্প্রচার মন্ত্রী বলেন, ‘করোনাকালে বিএনপি-জামায়াতকে দেখা যায়নি। অন্য কোনো দলকেও দেখা যায়নি। আর আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা বিপন্ন মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে, করোনাকালীন নানা ধরনের সহায়তা দিয়েছে, স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ করেছে। এবং এটি করতে গিয়ে আওয়ামী লীগের কয়েক হাজার নেতা-কর্মীর মৃত্যু হয়েছে। আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির ৫ জন নেতা ও জাতীয় সংসদের অনেক সদস্যের মৃত্যু হয়েছে। অন্য কোনো দলের ক্ষেত্রে এ রকম হয়নি।’

এবার মানুষ অত্যন্ত আনন্দ উল্লাসের সাথে নির্বিঘ্নে গ্রামে গিয়ে ঈদ উদযাপন করেছে, এটি অভাবনীয়, অথচ মির্জা ফখরুল ইসলাম বলেছেন উল্টো কথা, কারণ তাদের কাজ হচ্ছে মিথ্যাচার করা এবং এর মধ্যেই তাদের রাজনীতি সীমাবদ্ধ, বলেন ড. হাছান।

দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে মন্ত্রী হাছান বলেন, যেভাবে দেশের অভাবনীয় উন্নয়ন হয়েছে, তা জননেত্রী শেখ হাসিনা’র যাদুকরী নেতৃত্বের কারণে সম্ভব হয়েছে। সরকারের এই সাফল্যগুলো জনগণের কাছে তুলে ধরতে হবে। বিএনপি জামায়াত যে অপপ্রচার করছে তার বিরুদ্ধে জনগণের কাছে সত্য প্রচার করতে হবে। তাহলে আগামী নির্বাচনে আবারও আওয়ামী লীগের ধস নামানো বিজয় হবে।

দলের প্রতি যাদের ত্যাগ আছে, নিষ্ঠা রয়েছে, দলের দুঃসময়ে যারা দলের প্রতি অবিচল আস্থা রেখেছে তাদেরকে দলীয় নেতৃত্বের আসনে বসাতে হবে উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, 'দলীয় নেতা নির্বাচনের ক্ষেত্রে কার অর্থ-বিত্ত আছে তা কখনও বিবেচ্য বিষয় নয়। আমাদের দলের সভাপতি  তা কখনও বিবেচনায় আনেনি। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুও আনেননি।'

মন্ত্রী বলেন ‘সবাই এখন আওয়ামী লীগ করতে চায়, সবাই এখন নৌকায় উঠতে চায়। কেন্দ্র থেকে তৃণমূল পর্যায়ে নির্দেশনা পাঠানো হয়েছে সবাইকে আওয়ামী লীগের নৌকায় তোলার প্রয়োজন নেই। সমাজে যারা ধিকৃত, মাদক-চোরাকারবার, জায়গা দখলের সাথে জড়িত, চাঁদাবাজি বা অন্যান্য অপকর্মের সাথে জড়িত, তাদেরকে আওয়ামী লীগে প্রয়োজন নেই।’

কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ফরিদুল ইসলাম চৌধুরীর সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় জেলা আওয়ামী লীগ নেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল আবছার, সহ সভাপতি রেজাউল করিম, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহাবুবুল হক মুকুল, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি নজিবুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক উজ্জল কর ও জেলা যুবলীগের সভাপতি বাহাদুর আহমেদ সোহেলসহ দলীয় নেতাকর্মীরা যোগ দেন।

#

আকরাম/রাহাত/এনায়েত/সঞ্জীব/সেলিম/২০২২/২০৩০ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                 নম্বর : ১৮২৯   

 

ক্যানবেরায় গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা বাংলাদেশি পতাকার রঙে সজ্জিত

                                                                                     

ক্যানবেরা (অস্ট্রেলিয়া), ২৩ বৈশাখ (৬ মে) :

 

অস্ট্রেলিয়ার রাজধানী ক্যানবেরায় বাংলাদেশি জাতীয় পতাকার রঙে আলোকসজ্জায় সজ্জিত হলো সেদেশের পুরাতন পার্লামেন্ট ভবন, ঐতিহাসিক জন গর্টন বিল্ডিং এবং ন্যাশনাল ক্যারিলিয়ন। আজ সন্ধ্যা থেকে আগামীকাল ভোর পর্যন্ত এ আলোকসজ্জা প্রদর্শন করা হবে।

 

বাংলাদেশ ও অস্ট্রেলিয়ার কূটনৈতিক সম্পর্কের ৫০ বছরপূর্তি উপলক্ষ্যে অস্ট্রেলিয়া সরকারের বন্ধুত্বের নিদর্শন হিসেবে এ প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়। প্রবাসী বাংলাদেশি ও হাইকমিশনের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা এ আলোকসজ্জা উপভোগ করেন।

 

বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষ্যে গত ২৭ মার্চও ন্যাশনাল ক্যারিলিয়নে এরূপ আলোকসজ্জা প্রদর্শন করা হয়।

 

#

 

 তৌহিদুল/রাহাত/সঞ্জীব/শামীম/২০২২/২০৩০ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                নম্বর: ১৮২৮

 

দেশের উন্নয়নে বাধা সৃষ্টি করা অপরাজনীতির বিপক্ষে অবস্থান নিতে হবে

                                                    -- মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী

 

পিরোজপুর, ২৩ বৈশাখ (৬ মে) :   

 

দেশের উন্নয়নে বাধা সৃষ্টি করা অপরাজনীতির বিপক্ষে দলমতনির্বিশেষে অবস্থান নেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন  মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম।

 

আজ পিরোজপুর সদর উপজেলা পরিষদের শহীদ ওমর ফারুক মিলনায়তনে দুস্থ জনগোষ্ঠীর মাঝে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহারের শুকনো খাবার বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এ আহ্বান জানান।

 

এ সময় মন্ত্রী বলেন, যারা অপরাজনীতি ও ধ্বংসের রাজনীতি করে তাদের বিপক্ষে অবস্থান নিতে হবে। স্বাধীনতাবিরোধীদের বিপক্ষে অবস্থান নিতে হবে। প্রত্যেকের মধ্যে নিজস্ব বিশ্বাস ও চেতনা থাকলেও স্বাধীনতাবিরোধীদের ভ্রান্ত, অন্ধকারাচ্ছন্ন জায়গা থেকে বেরিয়ে আসার জন্য সকলকে প্রগতিশীল রাজনীতিতে আসতে হবে। তিনি আরো বলেন, যদি কেউ ধ্বংসাত্মক কার্যক্রম করতে চায়, পেট্রোল বোমা নিক্ষেপ করতে চায়, মানুষকে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের দিকে নিয়ে যেতে চায় তাহলে রাষ্ট্রের সাংবিধানিক দায়িত্ব আছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষা করার। এ জাতীয় অপরাজনীতি যারা করবে সরকার জনগণকে সঙ্গে নিয়ে তাদের যেকোনো মূল্যে প্রতিহত করবে।

 

মন্ত্রী বলেন, আমরা অন্ধকার থেকে আলোর পথে যাচ্ছি। দেশ অপ্রতিরোধ্য গতিতে উন্নয়নের রোল মডেলে পরিণত হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা হচ্ছেন উন্নয়নের জাদুকর। তাঁর নেতৃত্বে বাংলাদেশ আরো এগিয়ে যাবে।

 

পিরোজপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বশির আহমদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে পিরোজপুরের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ জাহেদুর রহমান, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ সাঈদুর রহমান, পিরোজপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম এ হাকিম হাওলাদার, স্থানীয় অন্যান্য সরকারি দপ্তরের কর্মকর্তাবৃন্দ ও স্থানীয় রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

 

পরে মন্ত্রী পিরোজপুরের নাজিরপুর উপজেলা কৃষি অফিস হলরুমে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন উপকূলীয় চরাঞ্চলে সমন্বিত প্রাণিসম্পদ উন্নয়ন প্রকল্পের অবহিতকরণ সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে অংশগ্রহণ করেন।

 

#

 

ইফতেখার/রাহাত/সঞ্জীব/সেলিম/২০২২/১৮০০ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                      নম্বর : ১৮২৭  

কোভিড-১৯ সংক্রান্ত সর্বশেষ প্রতিবেদন

                                                                                     

ঢাকা, ২৩ বৈশাখ (৬ মে) :

 

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এবং রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউট (আইইডিসিআর)-এর তথ্যানুযায়ী গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা থেকে শুক্রবার সকাল ৮টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ১৯ জনের শরীরে করোনা সংক্রমণ পাওয়া গেছে। নমুনা পরীক্ষার বিপরীতে রোগী শনাক্তের হার শূন্য দশমিক ৫৫ শতাংশ। এ সময় ৩ হাজার ৪৫৫ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে।

 

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় কেউ মারা যায়নি। এ পর্যন্ত ২৯ হাজার ১২৭ জন করোনায় মৃত্যুবরণ করেছেন। করোনাভাইরাস আক্রান্তদের মধ্যে এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ১৮ লাখ ৯৭ হাজার ৪৬ জন।

#

 

সুস্মিতা/রাহাত/সঞ্জীব/শামীম/২০২২/১৭০৫ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                    নম্বর : ১৮২৬

 

ডিজিটাল যুগ হবে ক্যাশলেস সোসাইটির যুগ

                             -মোস্তাফা জব্বার

ঢাকা, ২৩ বৈশাখ (৬ মে) :

ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেছেন, ডিজিটাল যুগে প্রচলিত ব্যবসা-বাণিজ্য সঙ্গত কারণেই ডিজিটাল বাণিজ্যে রূপান্তরিত হবে। এটি হবে ক্যাশলেস সোসাইটির যুগ। এরই ধারাবাহিকতায় কাগুজে সভ্যতা বিলুপ্ত হওয়ার পথে।

মন্ত্রী গতকাল ডিজিটাল প্লাটফর্মে ই-ক্যাব আয়োজিত ঈদ আড্ডায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।

ডিজিটাল যুগের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় ডিজিটাল দক্ষতা অর্জনের বিকল্প নেই উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, ডিজিটাল কমার্সকে বাণিজ্যখাত হিসেবে গড়ে তুলতে সমন্বিত উদ্যোগ গ্রহণের বিকল্প নেই। তিনি বলেন, যেকোনো খাত গড়ে তুলতে বাণিজ্যিক সংগঠনগুলো অসাধারণ ভূমিকা পালন করে। দেশে কম্পিউটার প্রযুক্তি বিকাশে বৈপ্লবিক পরিবর্তনে বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতি (বিসিএস)-এর উদ্যোগ তুলে ধরে তিনি বলেন, মাত্র ৩৬ সদস্যের বিসিএস’র মাধ্যমে ৯৮-৯৯ সালে কম্পিউটারের ভ্যাট-ট্যাক্স প্রত্যাহারের মাধ্যমে কম্পিউটার জনগণের কাছে সহজলভ্য করার প্রচেষ্টা বিসিএস’র সমন্বিত উদ্যোগের ফসল।

মন্ত্রী বলেন, ই-ক্যাব দেশে ডিজিটাল কমার্স রূপান্তরের অগ্রণী সৈনিক হিসেবে কাজ করছে। গ্রাহকরা যাতে কোনোভাবেই প্রতারিত না হয়, সেদিকে ই-ক্যাবকে আরো সচেষ্ট হতে হবে। ডিজিটাল অপরাধ ডিজিটাল প্রযুক্তি দিয়েই মোকাবিলা করতে হবে। যে যত বেশি ডিজিটাল দক্ষ হবে, সে তত বেশি ব্যবসায় সফল হবে বলে মন্ত্রী উল্লেখ করেন। প্রশিক্ষণের মাধ্যমে সদস্যদের দক্ষতা বৃদ্ধির উদ্যোগ গ্রহণে ই-ক্যাবকে কর্মসূচি গ্রহণের আহ্বান জানান তিনি। তিনি বলেন, ডিজিটাল কমার্সের বিকাশে ডাকঘরের বিশাল নেটওয়ার্ক কাজে লাগাতে ইতোমধ্যে উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। এর মাধ্যমে ডাক বিভাগ হবে ডিজিটাল কমার্স প্রসারের ডিজিটাল মহাসড়ক।

অনুষ্ঠানে ই-ক্যাবের সভাপতি শমী কায়সারের সভাপতিত্বে সাধারণ সম্পাদক আবদুল ওয়াহাব তমালের সঞ্চালনায়  ই-ক্যাবের কর্মকর্তাগণ আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন।

#

 

শেফায়েত/বিবেকানন্দ/রাহাত/সঞ্জীব/শামীম/২০২২/১৭৩০ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                             নম্বর : ১৮২৫

 

যুক্তরাষ্ট্রে নোকিয়া বেল ল্যাবস পরিদর্শন করলেন আইসিটি প্রতিমন্ত্রী

 

ঢাকা, ২৩ বৈশাখ (৬ মে) :

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহ্‌মেদ পলক গতকাল যুক্তরাষ্ট্রের নিউজার্সির মেরিহিলে  মোবাইল ফোন কোম্পানি নোকিয়ার গবেষণা শাখা নোকিয়া বেল ল্যাবস পরিদর্শন করেন। পরে তিনি কোম্পানির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সাথে মতবিনিময় করেন।

নোকিয়া কর্তৃপক্ষ ল্যাবের গবেষণা কার্যক্রম সম্পর্কে পাওয়ার পয়েন্ট প্রেজেন্টেশনের মাধ্যমে প্রতিমন্ত্রীকে অবহিত করেন। প্রতিমন্ত্রী বাংলাদেশের সাথে পারস্পরিক সহযোগিতার ক্ষেত্র এবং কৌশলগত বিক্রয় ও সমাধানের বিষয়ে আলোচনা করেন।

জুনাইদ আহ্‌মেদ পলক ডিজিটাল বাংলাদেশের স্বপ্নদ্রষ্টা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এবং আইসিটি উপদেষ্টা সজীব আহমেদ ওয়াজেদের তত্ত্বাবধানে চতুর্থ শিল্পবিপ্লব মোকাবিলায় গৃহীত কার্যক্রম ও বাংলাদেশের আইসিটি খাতের  সার্বিক অগ্রগতির  বিষয়ে তাদেরকে অবহিত করেন।

নোকিয়ার সাউথইস্ট এশিয়া ইউনিটের হেড অভ্‌ মার্কেটিং ডেনিয়েল জিগার, নর্থ আমেরিকা  স্ট্র্যাটেজিক সেলস্ এন্ড সলিউশন বিভাগের ভাইস প্রেসিডেন্ট মিকি এলিসন, সিটিও এন্ড হেড অভ্‌ স্ট্র্যাটেজি নেটওয়ার্ক ইনফ্রাস্ট্রাকচার আরিফ চৌধুরীসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা এবং বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডা. বিকর্ণ কুমার ঘোষ, এটুআই-এর পলিসি অ্যাডভাইজার আনীর চৌধুরী পরিদর্শনকালে উপস্থিত ছিলেন।

#

শহিদুল/বিবেকানন্দ/রাহাত/ সঞ্জীব/শামীম/২০২২/১৭৩০ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                      নম্বর : ১৮২৪

টেলিভিশনে স্ক্রল আকারে প্রচারের জন্য

সকল ইলেকট্রনিক মিডিয়া

ঢাকা, ২৩ বৈশাখ (৬ মে) :     

সরকারি-বেসরকারি টিভি চ্যানেলসহ সকল ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় নিম্নোক্ত বার্তাটি স্ক্রল আকারে প্রচারের জন্য অনুরোধ করা হলো :  

মূলবার্তা :

আগামীকাল শনিবার বাদ আসর গুলশান আজাদ মসজিদে সাবেক অর্থমন্ত্রী মরহুম আবুল মাল আবদুল মুহিতের কুলখানি উপলক্ষ্যে মিলাদ ও দোয়া মাহফিলে অংশগ্রহণের জন্য মরহুমের আত্মীয়স্বজন ও শুভানুধ্যায়ীদের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছেন তাঁর ছোট ভাই পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন।”

মোহসিন/বিবেকানন্দ/জুলফিকার/রেজ্জাকুল/সাজ্জাদ/মাসুম/২০২২/১৪৩৫ ঘণ্টা
 

তথ্যবিবরণী                                                                                                                  নম্বর : ১৮২৩

আইইবি এর ৭৪তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ও ‘ইঞ্জিনিয়ার্স ডে’ উপলক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রীর বাণী

ঢাকা, ২৩ বৈশাখ (৬ মে) :

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামীকাল ৭মে ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন, বাংলাদেশ (আইইবি)-এর ৭৪তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ও ‘ইঞ্জিনিয়ার্স ডে’ উপলক্ষ্যে নিম্নোক্ত বাণী প্রদান করেছেন: 

“ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন, বাংলাদেশ (আইইবি)-এর ৭৪তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ও ‘ইঞ্জিনিয়ার্স ডে’ উপলক্ষ্যে আমি দেশের সকল প্রকৌশলীকে আন্তরিক অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানাই।

দেশের সামগ্রিক উন্নয়ন তৎপরতায় প্রকৌশলীদের ভূমিকা খুবই গুরুত্বপুর্ণ। প্রযুক্তি ও প্রকৌশলগত উন্নয়নই একটি জাতির উন্নয়নের মূল বিষয়। সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে মুক্তিযুদ্ধ পরবর্তী যুদ্ধ-বিধ্বস্ত বাংলাদেশের পুনর্গঠনেও প্রকৌশলীগণ অনন্য ভূমিকা পালন করেছিলেন। প্রযুক্তি ও প্রকৌশলগত উন্নয়নের মাধ্যমে প্রকৌশলীরা দেশকে সামনের দিকে এগিয়ে নিচ্ছেন।

আওয়ামী লীগ সরকার ২০০৯ সাল থেকে ধারাবাহিকভাবে রাষ্ট্র পরিচালনার দায়িত্ব পেয়ে দেশে পদ্মাসেতু, মেট্রোরেল, এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে, কর্ণফুলি টানেল, এল এনজি টার্মিনাল, রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্প, ১০০টি বিশেষ অঞ্চলসহ সড়ক, রেল, নৌ ও যোগাযোগ অবকাঠামোগত উন্নয়নে ব্যাপক কর্মসূচি বাস্তবায়ন করেছে। এ সব উন্নয়ন কর্মকাণ্ড বাস্তবায়নে প্রকৌশলীগণই মূখ্য ভূমিকা পালন করেছেন। আমাদের সরকার সবসময়ই প্রকৌশলীদের পাশে রয়েছে। ১৯৯৬-২০০১ মেয়াদে আমরা আইইবি ভবন নির্মাণের জন্য রমনায় ১০ বিঘা জমি রেজিষ্ট্রেশন করে দিয়েছি। এছাড়া ভবনের কাজ শুরু করার জন্য পাঁচ কোটি টাকা, দাউদকান্দিতে ইঞ্জিনিয়ারিং স্টাফ কলেজ নির্মাণের জন্য ৭২ বিঘা জমি, স্টাফ কলেজের দ্বিতীয় পর্যায়ের নির্মাণ কাজ শুরু করার জন্য ৪৬ কোটি টাকা, খুলনা কেন্দ্রের জন্য কেডিএ এর জায়গা বরাদ্দ, পূর্বাচলে  আইইবি’র জন্য ২ বিঘা জমি, রাঙ্গাদিয়া, ময়মনসিংহ, ফরিদপুর, দিনাজপুর কেন্দ্র এবং ফেনী ও কক্সবাজার উপকেন্দ্রের জন্য জমি প্রদান করেছি। আইইবি ভবনের জন্য সর্বমোট ৪৬ কোটি টাকা বরাদ্দ দিয়েছি।

মুজিববর্ষ ও মহান স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীলগ্নে বাংলাদেশ স্বল্পোন্নত দেশ হতে উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণের চূড়ান্ত সুপারিশ লাভ করেছে। এ অনন্য অর্জনে প্রকৌশলীদের অবদান রয়েছে। জলবায়ু পরিবর্তন ও তার বিরুপ প্রভাব মোকাবিলায় উপযোগী অবকাঠামো নির্মাণে এবং খাদ্য জ্বালানি নিরাপত্তা অর্জনে প্রকৌশলীদের আরো কার্যকর ভূমিকা পালন করতে হবে। ২০৪১ সালের মধ্যে জাতির পিতার স্বপ্নের উন্নত ও সমৃদ্ধ সোনার  বাংলাদেশ গড়ে তুলতে প্রকৌশলীরা মূখ্য ভূমিকা রাখবেন বলে আমি প্রত্যাশা করি।

আমি ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন, বাংলাদেশ (আইইবি)-এর ৭৪তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষ্যে গৃহীত সকল কর্মসূচির সার্বিক সাফল্য  কামনা করি।

জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু

        বাংলাদেশ চিরজীবী হোক।”

ইমরুল/বিবেকানন্দ/জুলফিকার/রেজ্জাকুল/সাজ্জাদ/মাসুম/২০২২/ ১১০০ ঘণ্টা

 

তথ্যবিবরণী                                                                                                             নম্বর : ১৮২২

আইইবি এর ৭৪তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ও ইঞ্জিনিয়ার্স ডে উপলক্ষ্যে রাষ্ট্রপতির বাণী

ঢাকা, ২৩ বৈশাখ (৬ মে) :

রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ আগামীকাল ৭মে ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন, বাংলাদেশ (আইইবি)-এর ৭৪তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ও ‘ইঞ্জিনিয়ার্স ডে’ উপলক্ষ্যে নিন্মোক্ত বাণী প্রদান করেছেন:

“ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন, বাংলাদেশ (আইইবি)-এর ৭৪তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ও ‘ইঞ্জিনিয়ার্স ডে’ উপলক্ষ্যে আমি দেশের সকল প্রকৌশলীকে জানাই আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন।

দেশের প্রযুক্তি ও অবকাঠামোগত উন্নয়নে প্রকৌশলীদের ভূমিকা অপরিসীম। প্রকৌশল শিক্ষার বিকাশ, মান নিয়ন্ত্রণ, প্রকৌশলীদের পেশাগত দক্ষতা উন্নয়ন, উচ্চতর প্রকৌশল শিক্ষা ও গবেষণার মাধ্যমে দেশের আর্থসামাজিক উন্নয়নে আইইবি প্রশংসনীয় ভূমিকা রাখছে। জাতীয় উন্নয়ন পরিকল্পনা বাস্তবায়নের প্রতিটি পদক্ষেপে প্রকৌশলীদের মেধা-মনন, শ্রম-ঘাম জড়িয়ে রয়েছে। বিশ্বায়নের এ যুগে প্রযুক্তি ও প্রকৌশল জ্ঞানের বিকাশ ব্যতীত সামগ্রিক উন্নয়ন অসম্ভব। সময়ের সাথে সাথে প্রকৌশল শিক্ষায় প্রতিনিয়ত পরিবর্তন আসছে। যুক্ত হচ্ছে নিত্যনতুন উদ্ভাবন ও জ্ঞান। বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে চলতে দেশের প্রকৌশলীদের প্রকৌশল ও প্রযুক্তিবিদ্যায় সর্বশেষ জ্ঞান ও প্রযুক্তি সম্পর্কে অবহিত থাকা আবশ্যক বলে আমি মনে করি। আমি আশা করি, দেশের টেকসই উন্নয়নে প্রযুক্তিজ্ঞানসম্পন্ন দক্ষ মানবসম্পদ গড়ে তুলতে আইইবি’র নিরন্তর প্রয়াস অব্যহত থাকবে।

বাংলাদেশকে একটি উন্নত ও সমৃদ্ধ দেশে পরিণত করতে সরকার ‘রূপকল্প ২০২১’ ঘোষণা করেছে। প্রণীত হয়েছে ডেল্টা প্ল্যান ২১০০। বাস্তবায়িত হচ্ছে পদ্মাসেতু, মেট্রোরেল, রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র, পায়রা গভীর সমুদ্রবন্দর ও কর্ণফুলি টানেলের মতো মেগা প্রকল্প। সরকারের এসব মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়নে দক্ষ মানবসম্পদ হিসেবে প্রকৌশলীদের ব্যাপক অবদান রাখার সুযোগ রয়েছে। প্রকৌশলীগণ নিজেদের অর্জিত জ্ঞান ও দক্ষতার প্রয়োগ ঘটিয়ে দেশের টেকসই উন্নয়নে অবদান রাখবেন- এটাই দেশবাসীর প্রত্যাশা।

আমি আইইবি’র ৭৪ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ও ইঞ্জিনিয়ার্স ডে’র সকল কর্মসূচির সাফল্য কামনা করি।

জয় বাংলা।

খোদাহাফেজ, বাংলাদেশ চিরজীবী হোক।”

#

হাসান/বিবেকানন্দ/জুলফিকার/রেজ্জাকুল/সাজ্জাদ/মাসুম/২০২২/ ১১০০ ঘণ্টা

 

 

তথ্যবিবরণী                                                                                                                         নম্বর : ১৮২১

বীর মুক্তিযোদ্ধা শহিদ আহ্‌সান উল্লাহ মাস্টারের শাহাদতবার্ষিকীতে প্রধানমন্ত্রীর বাণী

ঢাকা, ২৩ বৈশাখ (৬ মে) :

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামীকাল ৭মে বীর মুক্তিযোদ্ধা শহিদ আহ্‌সান উল্লাহ মাস্টারের শাহাদতবার্ষিকী উপলক্ষ্যে নিম্নোক্ত বাণী প্রদান করেছেন :  

“স্বাধীনতা পদকপ্রাপ্ত জনপ্রিয় শ্রমিক নেতা, বীর মুক্তিযোদ্ধা আহ্‌সান উল্লাহ মাস্টার-এর ১৮তম মৃত্যুবার্ষিকীতে তাঁর স্মৃতির প্রতি আমি গভীর শ্রদ্ধা জানাই।

প্রয়াত এই শ্রমিক নেতার জীবন ও কর্ম নিয়ে ‘জননন্দিত শ্রমিক নেতা’ শীর্ষক একটি স্মরণিকা প্রকাশ করার উদ্যোগকে আমি স্বাগত জানাই।

শহিদ আহ্‌সান উল্লাহ মাস্টার গাজীপুর-২ (গাজীপুর সদর-টঙ্গী) আসন হতে ১৯৯৬ ও ২০০১ সালে দু’বার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। তিনি ১৯৯০ সালে গাজীপুর সদর উপজেলা চেয়ারম্যান এবং ১৯৮৩ ও ১৯৮৭ সালে দু’দফা পূবাইল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছিলেন। এই জননেতা ছিলেন আওয়ামী লীগের জাতীয় কমিটির সদস্য। তিনি জাতীয় শ্রমিক লীগের কার্যকরী  সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক, বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব লেবার স্টাডিজ (বিলস)-এর চেয়ারম্যান এবং আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থার সদস্য হিসেবে দায়িত্বপালন করেছেন। আজীবন মানবসেবায় নিয়োজিত এই ভাওয়াল বীর তাঁর বর্ণাঢ্য কর্মজীবনে শিক্ষক হিসেবেই পরিচয় দিতে ভালোবাসতেন, তিনি আমৃত্যু তাঁর নিজের প্রতিষ্ঠিত নোয়াগাঁও এমএ মজিদ মিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ছিলেন। তিনি শিক্ষক সমিতিসহ বিভিন্ন সমাজসেবামূলক জাতীয় ও আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠান/সংগঠনের সাথে জড়িত ছিলেন। ১৯৯২ সালে উপজেলা পরিষদ বিলোপের পর উপজেলা চেয়ারম্যান সমিতির আহ্বায়ক হিসেবে উপজেলা পরিষদের পক্ষে মামলা করেন ও দেশব্যাপী আন্দোলন গড়ে তোলেন। এক পর্যায়ে তিনি গ্রেফতার হন এবং কারাবরণ করেন।

শ্রমজীবী খেটে খাওয়া মানুষের সংগ্রামী জননেতা আহ্‌সান উল্লাহ মাস্টারের স্বপ্ন ছিল মাদক-সন্ত্রাস মুক্ত টঙ্গী-গাজীপুর গড়ার। কালে কালে তিনি হয়ে উঠেন জঙ্গী-সন্ত্রাসের মদদদাতা বিএনপি-জামাত জোট সরকারের পথের কাঁটা। হাওয়া ভবনের প্রচ্ছন্ন ইঙ্গিতে আওয়ামী লীগের জনপ্রিয় নেতাদের নিশ্চিহ্ন করার নীল-নকশা বাস্তবায়নের অংশ হিসেবে বিএনপি-জামাত মদদপুষ্ট একদল সন্ত্রাসী ২০০৪ সালের ৭ই মে নোয়াগাঁও এমএ মজিদ মিয়া উচ্চ বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে আহ্‌সান উল্লাহ মাস্টারকে প্রকাশ্য দিবালোকে গুলি করে হত্যা করে। একজন প্রিয় শিক্ষককে সন্ত্রাসীদের গুলি থেকে বাঁচাতে বুক পেতে দিয়েছিল ছাত্র ওমর ফারুক রতন, সেও মৃত্যুবরণ করেছে। শুধু তাই নয়, আহ্‌সান উল্লাহ মাস্টার খুন হওয়ার পর শোকার্ত, বিক্ষুব্ধ, প্রতিবাদী জনতার ওপর গুলি চালিয়ে আরো দু’জন নিরীহ মানুষকে হত্যা করে জোট সরকারের পুলিশ, গ্রেফতার করে আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগের হাজারো নেতা-কর্মীকে। সেই সরকারের বাহিনী এই হত্যাকাণ্ডের প্রধান সাক্ষীকেও বাড়ী থেকে ডেকে নিয়ে হত্যা করে। এই নির্মম হত্যাকাণ্ডের বিচার কার্যক্রম এখনও চলছে। সবাই প্রত্যাশা করে, বিচারকার্য চূড়ান্ত নিষ্পত্তি হয়ে বিচারের রায় দ্রুত কার্যকর হবে।

আমি এই দিনে শহিদ আহ্‌সান উল্লাহ মাস্টারের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করছি।

শহিদ আহ্

2022-05-06-15-21-d583c9b2f0bbbd4b9027a626bcb9f694.doc 2022-05-06-15-21-d583c9b2f0bbbd4b9027a626bcb9f694.doc

Share with :

Facebook Facebook