তথ্য অধিদফতর (পিআইডি) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ১০ মে ২০২২

তথ্যবিবরণী ১০ মে ২০২২

তথ্যবিবরণী                                                                                             নম্বর :  ১৮৮৪

 

বিসিক চামড়া শিল্পনগরীর প্লট বরাদ্দ বিষয়ক পূর্ণাঙ্গ

নীতিমালার খসড়া প্রণয়নের নির্দেশ শিল্প সচিবের

 

ঢাকা, ২৭ বৈশাখ (১০ মে) :

 

শিল্প সচিব জাকিয়া সুলতানা আজ ঢাকার সাভারে বিসিক চামড়া শিল্পনগরী পরিদর্শন করেছেন। এ সময় সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা ও অংশীজনদের সাথে মতবিনিময়কালে তিনি বিসিক চামড়া শিল্পনগরীর জন্য প্লট বরাদ্দ বিষয়ক একটি পূর্ণাঙ্গ গাইডলাইন/নীতিমালার খসড়া প্রণয়নের জন্য সংশ্লিষ্টদের নির্দেশনা প্রদান করেন।

 

মতবিনিময়কালে শিল্প সচিব ভূগর্ভস্থ পানির পরিবর্তে ভূপৃষ্ঠের উপরিস্থ পানি ব্যবহার ও শিল্পনগরীতে ব্যবহৃত পানিকে পুনর্বার কাজে লাগানোর টেকসই পদ্ধতি বের করার তাগিদ দেন। তিনি প্রতি মাসে অন্তত একবার ট্রিটমেন্ট প্ল্যান্টের পানির নমুনা সংগ্রহপূর্বক সংশ্লিষ্টদের নিকট প্রতিবেদন প্রেরণের জন্য পরিবেশ অধিদপ্তরের প্রতিনিধিকে পরামর্শ প্রদান করেন এবং স্যাম্পল কালেকশন পয়েন্ট তৈরির জন্য সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেন। এছাড়া ওভারহোলিং, অপারেশন ও মেইনটেনেন্সসহ সার্বিক কার্যক্রমের সময়ভিত্তিক কর্মপরিকল্পনা দ্রুত দাখিলের জন্যও সচিব সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেন। পরিদর্শনকালে শিল্প মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব কাজী সাখাওয়াত হোসেন, বিসিকের চেয়ারম্যান মুহঃ মাহবুবর রহমান, সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাসহ বাংলাদেশ ট্যানারি এসোসিয়েশনের প্রতিনিধিবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

 

          পরে শিল্প সচিব ট্যানারি এলাকায় গাছের চারা রোপণ করেন।

 

#

 

মাহমুদুল/রাহাত/এনায়েত/রফিকুল/মাহমুদ/সেলিম/২০২২/২১৩০ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                             নম্বর :  ১৮৮৩

 

রাষ্ট্রপতির সাথে ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলরের সাক্ষাৎ

 

ঢাকা, ২৭ বৈশাখ (১০ মে) :

 

রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদের সঙ্গে আজ বঙ্গভবনে ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ভিনসেন্ট চ্যাং সাক্ষাৎ করেন।

 

রাষ্ট্রপতির প্রেস সচিব মোঃ জয়নাল আবেদীন ব্রিফিংয়ে জানান সাক্ষাৎকালে ভাইস-চ্যান্সেলর ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক ও উন্নয়নসহ সার্বিক কর্মকাণ্ড সম্পর্কে রাষ্ট্রপতিকে অবহিত করেন। এ সময় তিনি ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের পরবর্তী সমাবর্তনে সভাপতিত্ব করার জন্য রাষ্ট্রপতিকে আমন্ত্রণ জানান।

 

মানবসম্পদ উন্নয়নে গুণগত শিক্ষার বিকল্প নেই উল্লেখ করে এ সময় রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে গুণগত মানসম্পন্ন শিক্ষা নিশ্চিত করার নির্দেশ দেন। এছাড়া গবেষণা ও উদ্ভাবন কার্যক্রম জোরদার করার পাশাপাশি বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে কারিকুলাম প্রণয়নের পরামর্শও দেন রাষ্ট্রপতি।

 

রাষ্ট্রপতির কার্যালয়ের সচিব সম্পদ বড়ুয়া, সামরিক সচিব মেজর জেনারেল এস এম সালাহ উদ্দিন ইসলাম এবং সচিব মোঃ ওয়াহিদুল ইসলাম খান (সংযুক্ত) এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

 

#

 

ইমরানুল/রাহাত/এনায়েত/রফিকুল/মাহমুদ/সেলিম/২০২২/২০৫০ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                  নম্বর : ১৮৮২

 

ইন্টারনেট সহজলভ্যতার জন্য বাংলাদেশ রোল মডেল

টেলিযোগাযোগ মন্ত্রীর সাথে সাক্ষাৎকালে এফোরএআই প্রতিনিধিদল

 

ঢাকা, ২৭ বৈশাখ (১০ মে) :

          বাংলাদেশ পৃথিবীর কাছে ইন্টারনেটের সহজলভ্যতার জন্য রোল মডেল, বলেছেন বাংলাদেশে সফররত এলায়েন্স ফর এফোর্ডেবল ইন্টারনেট-(এফোরএআই) প্রতিনিধিদল। ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বারের সাথে আজ তাঁর দপ্তরে সাক্ষাৎকালে প্রতিনিধিদল এ প্রশংসা করেন।

          ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী এ সময় ইন্টারনেটকে ডিজিটাল বাংলাদেশের মহাসড়ক আখ্যায়িত করে বলেন,  আমাদের জীবনে ইন্টারনেট শ্বাস-প্রশ্বাসের মতো। তিনি দেশের  প্রতিটি অঞ্চলে নেটওয়ার্ক সুবিধা পৌঁছে দিতে সরকারের গৃহীত কর্মসূচি তুলে ধরেন। মন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দূরদৃষ্টিসম্পন্ন উদ্যোগ ডিজিটাল বাংলাদেশ কর্মসূচির ধারাবাহিকতায় দেশের প্রায় প্রতিটি ইউনিয়নে উচ্চগতির ব্রডব্যান্ড নেটওয়ার্ক পৌছে দেওয়ার পাশাপাশি দেশের শতকরা ৯৮ ভাগ এলাকায় ৪ জি নেটওয়ার্ক পৌঁছে দেয়া হয়েছে। এরই মাঝে ৫জি স্পেকট্রাম নিলাম করা হয়েছে এবং ৫জি চালু করা হয়েছে। তিনি দেশের দুর্গম ও প্রত্যন্ত অঞ্চলে কানেক্টিভিটি প্রসারের দৃষ্টান্ত উল্লেখ করে বলেন, এখন মধুপুরের পাহাড় বা হাওড়ে বসে ইন্টারনেটের সহায়তায় তরুণ-তরুণীরা বিদেশে আউটসোর্সিং এর কাজ করতে পারে। তিনি বলেন, দেশে নেটওয়ার্কের বর্ধিত চাহিদা মিটিয়ে সৌদি আরব, ভারত ও ভুটানে ব্রডব্যান্ড রপ্তানি করা হচ্ছে। বাংলাদেশ তৃতীয় সাবমেরিন কেবল সংযোগের কাজ শুরু করেছে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, সংযোগ সম্পন্ন হলে অতিরিক্ত আরো প্রায় তের হাজার দুই শত  জিবিপিএস ব্যান্ডউইথ সংযুক্ত হবে।

          সংস্থার বাংলাদেশ সমন্বয়ক শহীদ উদ্দিন আকবর প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দেন। প্রতিনিধিদলের অপর সদস্যরা হলেন সংস্থার গ্লোবাল পলিসি বিষয়ক কর্মকর্তা এলিনোর এবং এশিয়া-প্রশান্তমহাসাগরীয় অঞ্চলের সমন্বয়কারী আনজু মাংগল। এ সময় প্রতিনিধিদল ইন্টারনেটের ক্ষেত্রে বাংলাদেশের অগ্রগতিকে অন্য দেশগুলোর কাছে উদাহরণ হিসেবে তুলে ধরার আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

#

 

শেফায়েত/রাহাত/এনায়েত/রফিকুল/মাহমুদ/সেলিম/২০২২/২১৩০ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                                      নম্বর : ১৮৮১

বিভিন্ন ঘাতসহনশীল ধানের জাত উদ্ভাবনে সহযোগিতা করবে ইরি

দেশে খাদ্য সংকট হওয়ার কোনো সুযোগ নেই

                                                                               -- কৃষিমন্ত্রী

ঢাকা, ২৭ বৈশাখ (১০ মে) :

          লবণ, খরাসহ বিভিন্ন ঘাতসহনশীল (স্ট্রেস টলারেন্ট) ধানের জাত উদ্ভাবন ও গবেষণায়  বাংলাদেশকে আরো বেশি করে সহযোগিতা করবে আন্তর্জাতিক ধান গবেষণা ইনস্টিটিউট (ইরি)। এছাড়া, ভারতের বারানসিতে অবস্থিত ইরি দক্ষিণ এশিয়া আঞ্চলিক অফিসে স্থাপিত বিশ্বমানের গবেষণাগারে বাংলাদেশের বিজ্ঞানীরা দ্রুত ধানের জাত উদ্ভাবনসহ বিভিন্ন বিষয়ে প্রশিক্ষণ নিতে পারবে।

          আজ সচিবালয়ে কৃষিমন্ত্রী ড. মোঃ আব্দুর রাজ্জাক এর সাথে বৈঠকে ইরির এশিয়া প্রতিনিধি নাফিস মিয়া এ কথা জানান। বৈঠকে কৃষি মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ সায়েদুল ইসলাম, অতিরিক্ত সচিব কমলারঞ্জন দাশ, বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক শাহজাহান কবীর, ইরির বাংলাদেশ প্রতিনিধি হোমনাথ ভাণ্ডারি প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

          কৃষিমন্ত্রী বলেন, খাদ্য নিরাপত্তা টেকসই করতে লবণ, খরাসহ বিভিন্ন ঘাতসহনশীল ধানের জাত উদ্ভাবনে সরকার গুরুত্ব দিচ্ছে। ইতোমধ্যে দেশের বিজ্ঞানীরা উন্নতমানের অনেকগুলো জাত উদ্ভাবন করেছে। তারপরও আরো জাত দরকার। এ বিষয়ে সরকার ইরির সহযোগিতা চায়।

          ইরির  প্রতিনিধিদল এসময় বাংলাদেশে গোল্ডেন রাইস রিলিজের বিষয়ে জানতে চান ও রিলিজের অনুরোধ জানান। দেশে গোল্ডেন রাইস রিলিজের বিষয়টি বর্তমানে পরিবেশ,বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ে বিবেচনাধীন আছে বলে জানান মন্ত্রী। তিনি বলেন, দেশে গোল্ডেন রাইস রিলিজের বিষয়ে পরিবেশবাদী ও সুশীল সমাজের আপত্তি রয়েছে।

          ২০২৩ সালে অনুষ্ঠিতব্য আন্তর্জাতিক ধান সম্মেলনে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীকে প্রধান অতিথি হিসাবে আমন্ত্রণ করা হবে বলে জানান ইরির এশিয়া প্রতিনিধি নাফিস মিয়া।

          পরে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়কালে কৃষিমন্ত্রী বলেন, বড় কোনো প্রাকৃতিক দুর্যোগ না হলে দেশে খাদ্য সংকট হওয়ার কোনো সুযোগ নেই। এই মুহূর্তে মাঠে ধানের অবস্থা ভাল। এবছর লক্ষ্যমাত্রার চেয়েও ৯০ হাজার হেক্টর বেশি জমিতে বোরো আবাদ হয়েছে। হাওড়ে ৪ লাখ ৫২ হাজার হেক্টর জমির মধ্যে আগাম বন্যায় প্রায় সাত হাজার হেক্টর জমির ধান ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। তবে সময়মতো বাঁধ রক্ষা, অনুকূল আবহাওয়া ও যন্ত্রের মাধ্যমে দ্রুততার সাথে ধান কাটার ফলে ইতোমধ্যে হাওড়ের ধান ঘরে তোলা গেছে।

          সরিষার আবাদ বৃদ্ধির মাধ্যমে ভোজ্য  তেলের আমদানি নির্ভরতা কমাতে কাজ চলছে বলে জানান মন্ত্রী।  তিনি বলেন, আগামী ৩-৪ বছরের মধ্যে  ভোজ্য তেলের চাহিদার ৪০ ভাগ স্থানীয়ভাবে উৎপাদন করা সম্ভব হবে।

#

কামরুল/নাইচ/এনায়েত/রফিকুল/মাহমুদ/জয়নুল/২০২২/১৯৫৫ঘণ্টা

 

তথ্যবিবরণী                                                                                                                         নম্বর: ১৮৮০

 

রেদওয়ানের গুলিবর্ষণ বিএনপির শীর্ষ নেতৃত্বের নির্দেশে কি না খতিয়ে দেখা প্রয়োজন

                                                                        -- তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী

 

রংপুর, ২৭ বৈশাখ (১০ মে) :   

 

তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহ্‌মুদ বলেছেন, ‘এলডিপি মহাসচিব রেদওয়ান আহমেদ কুমিল্লায় তরমুজ ছোঁড়ার প্রত্যুত্তরে গুলি ছুঁড়ে আওয়ামী লীগ কর্মীদের আহত করেছেন, সেটি বিএনপির মহাসচিব বা অন্য কোনো শীর্ষ নেতার নির্দেশে করেছেন কি না, তা খতিয়ে দেখা দরকার।’

 

আজ রংপুর সার্কিট হাউজে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী এ কথা বলেন। ড. হাছান বলেন, ‘কুমিল্লায় এলডিপির মহাসচিব যে ঘটনাটি ঘটিয়েছেন, সেটি অত্যন্ত দুঃখজনক ও ন্যাক্কারজনক। সেখানে আমাদের দলের কর্মীরা জমায়েত হয়েছিলো এবং তিনিই সেখানে গেছেন। একটি তরমুজ ছোঁড়ার প্রত্যুত্তরে তিনি গুলি ছুঁড়েছেন এবং আমাদের দলের দু’জন গুলিবিদ্ধসহ বেশ কয়েকজন আহত হন।’

 

তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী বলেন, ‘ফিলিস্তিনের শিশুরা যখন ইসরায়েলের বাহিনীর প্রতি ঢিল ছোঁড়ে, প্রত্যুত্তরে তারা গুলি ছোঁড়ে। আর কুমিল্লায় ঢিলও ছোঁড়েনি, একটি তরমুজ ছুঁড়েছে, তার প্রত্যুত্তরে রেদওয়ান আহমেদ সাহেব গুলি ছুঁড়েছেন। আর রেদওয়ান আহমেদের এই গুলি ছোঁড়ার পক্ষে সাফাই গেয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল সাহেব এবং তিনি আরো নানাধরনের কথা বলেছেন। এখন রেদওয়ান আহমেদ বিএনপির মহাসচিব কিংবা অন্য কোনো শীর্ষ নেতার নির্দেশে গুলি ছুঁড়েছেন কি না, তা খতিয়ে দেখা দরকার। ঘটনাটি তদন্তাধীন, সঠিক তদন্তের মাধ্যমে সত্য বেরিয়ে আসবে এবং যারাই দোষী সাব্যস্ত হবে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

 

সম্প্রতি ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ-টিআইবি’র নানা বক্তব্য প্রসঙ্গে ড. হাছান মাহ্‌মুদ বলেন, ‘ইদানিং দেখা যাচ্ছে যে, টিআইবি কথায় কথায় বিবৃতি দেয়। সম্প্রতি দেখা গেলো যে, মধ্যরাতে রেলওয়ের টিটিই নিয়ে একটি ঘটনা ঘটলো, সকাল বেলায় টিআইবি খোঁজ-খবর না নিয়েই বিবৃতি দিয়ে দিলো। এখন টিআইবি আর রিজভী আহমেদের মধ্যে কোনো পার্থক্য খুঁজে পাচ্ছি না, কোনো ঘটনা ঘটার আগেই যেমন তিনি বিবৃতি লিখে রাখেন, টিআইবিও কোনো কিছু হওয়ার আগেই বিবৃতি দেয়।’

 

পরে তথ্যমন্ত্রী রংপুর মহানগর কোতোয়ালি থানার ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে যোগ দেন। রংপুর টাউন হলে আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মোঃ কায়সার রাশেদ খানের সভাপতিত্বে সম্মেলন উদ্বোধন করেন রংপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি সাফিউর রহমান সফি। প্রধান অতিথি হিসেবে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য মোঃ শাজাহান খান এমপি, বিশেষ অতিথি হিসেবে এইচ এন আশিকুর রহমান এমপি, সাংগঠনিক সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন শফিক, কেন্দ্রীয় সদস্য এড. হোসনে আরা লুৎফা ডালিয়া ও এড. সফুরা বেগম রুনি এবং প্রধান বক্তা হিসেবে রংপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক তুষার কান্তি মন্ডল সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন।

 

ডিইউজে সভাপতির পিতার ইন্তেকালে তথ্যমন্ত্রীর শোক

 

ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন (ডিইউজে) সভাপতি সোহেল হায়দার চৌধুরী ও দেশ রূপান্তর পত্রিকার সিনিয়র রিপোর্টার পাভেল হায়দার চৌধুরীর বাবা এহতেশাম হায়দার চৌধুরীর (৮৪) মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী এবং বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহ্‌মুদ।

 

আজ সকালে ফেনীর ছাগলনাইয়া উপজেলার দৌলতপুরে নিজ বাড়িতে এহতেশাম হায়দার চৌধুরীর শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগের সংবাদে শোকাহত তথ্যমন্ত্রী প্রয়াতের আত্মার শান্তি কামনা করেন এবং তার শোকাহত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

#

আকরাম/পাশা/নাইচ/এনায়েত/রফিকুল/মাহমুদ/সেলিম/২০২২/১৯০০ ঘণ্টা

 

তথ্যবিবরণী                                                                                                                         নম্বর: ১৮৭৯

 

‍‍‍‍‍‍ভাসানচরে জাতিসংঘের এজেন্সিগুলো কার্যক্রম শুরু করেনি

                                                -- ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী

 

ঢাকা, ২৭ বৈশাখ (১০ মে) :   

 

ভাসানচরে এখনো জাতিসংঘের এজেন্সিগুলো কার্যক্রম শুরু করেনি বলে জানিয়েছেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. মোঃ এনামুর রহমান। তিনি বলেন, এ ব্যাপারে আমি যুক্তরাষ্ট্রের আন্তর্জাতিক উন্নয়ন সংস্থার (ইউএসএআইডি) সহযোগিতা চাওয়া হয়েছে। যাতে দ্রুত সেখানে জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থা (ইউএনএইচসিআর), ওয়ার্ল্ড ফুড প্রোগ্রাম কার্যক্রম শুরু করে।

 

আজ সচিবালয়ে ইউএসএআইডি’র ডেপুটি অ্যাডমিনিস্ট্রেটর (পলিসি অ্যান্ড প্রোগ্রামিং) ইসোবেল কোলম্যান এবং ইন্ডিপেনডেন্ট ইনভেস্টিগেটিভ মেকানিজম অন মিয়ানমারের (আইআইএমএম) প্রধান নিকোলাস কোয়ামজিয়ানের নেতৃত্বে দু’টি প্রতিনিধিদলের সঙ্গে বৈঠকের পর সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান প্রতিমন্ত্রী।

 

প্রতিমন্ত্রী বলেন, কক্সবাজারে রোহিঙ্গাদের ব্যবস্থাপনায় ডেপুটি অ্যাডমিনিস্ট্রেটর ইসোবেল কোলম্যান সন্তোষ প্রকাশ করেছেন। তিনি ভাসানচরের বিষয়ে কয়েকটি অবজার্ভেশন দিয়েছেন সেটা হলো, জরুরি রোগী হলে ভাসানচর থেকে চট্টগ্রাম অথবা নোয়াখালী পাঠাতে হয়। এজন্য তিনি সেখানে একটি উন্নতমানের হাসপাতাল প্রতিষ্ঠা করতে আমাদের সাজেশন দিয়েছেন।

 

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের বিষয়ে তারা কি বলছে জানতে চাইলে প্রতিমন্ত্রী বলেন, 'তারা বলছে, পৃথিবীর প্রায় ৫০ লাখ শরণার্থী আছে, এর সাথে ইউক্রেনের প্রায় ৭০ লাখ শরণার্থী যোগ হয়েছে, তারা এদের নিয়ে কাজ করছে। অন্যান্য শরণার্থী শিবিরে যেভাবে কাজ করছে এখানেও সেভাবে কাজ করবে। দ্রুত তাদের মিয়ানমারে ফেরত পাঠাতে তারা চাপ তৈরি করবে।'

 

তিনি বলেন, ‘নিকোলাসও বলেছে, এটার সমাধান হলো প্রত্যাবর্তন। আমরা যতগুলো অর্গানাইজেশনে কাজ করছি, আমাদের মূল লক্ষ্য স্বদেশে তাদের নাগরিক অধিকার ও নিরাপত্তা দিয়ে ফেরত পাঠানো। এরজন্য তারাও কাজ করছেন। এ ব্যাপারে আন্তর্জাতিক জনমত তৈরি করতেও তারা কাজ করবেন। মিয়ানমারের সাথেও তারা বসতে চেয়েছিলেন। কিন্তু তারা জানালেন, মিয়ানমার সরকার তাদের সহযোগিতা করেনি বলে এটা সম্ভব হয়নি।’ 

 

মিয়ানমারের সাথে দ্বিপক্ষিক উদ্যোগের কি অবস্থা- এ বিষয়ে এনামুর রহমান বলেন, 'এটা নিয়ে গত মাসেই একটি মিটিং হয়েছে। সেখানে নাগরিকদের একটি তালিকা দেয়া হয়েছে, মিয়ানমার সেটা গ্রহণ করেছে। এটা প্রক্রিয়াধীন। প্রতিমন্ত্রী বলেন, ভাসানচরে যে হাসপাতাল রয়েছে সেখানে অপারেশনের ব্যবস্থা করতে তারা বলছে। এছাড়া অপারেশনের রোগী হলে তাদের ট্রান্সফার করতে হয়। এখন সেখানে একটি হাসপাতাল আছে, সেখানে বিশেষজ্ঞ আছেন, সব রকমের ওষুধ আছে, এটাকে আমরা প্রাইমারি হেলথ কেয়ার বলতে পারি।

 

ইউএসএইড সরাসরি সাহায্য দেয় না উল্লেখ করে এনামুর রহমান বলেন, তারা ইউএনএইচসিআর ও বিশ্ব খাদ্য সংস্থাকে আরো ফান্ড দেবে যাতে তারা এখানে কাজ করতে পারে। দ্রুত এ সাহায্যটা দেওয়া হবে যাতে তারা ভাষানচরে কাজ শুরু করতে পারে। 

 

ঘূর্ণিঝড়ের সর্বশেষ অবস্থান জানতে চাইলে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘ঘূর্ণিঝড় আজ অন্ধ্রপ্রদেশে আঘাত হেনে দুর্বল হয়ে গেছে। বাংলাদেশে আঘাত হানার কোনো সম্ভাবনা আর নেই।’

 

#

 

সেলিম/পাশা/নাইচ/এনায়েত/রফিকুল/মাহমুদ/সেলিমুজ্জামান/২০২২/১৮৪৫ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                নম্বর : ১৮৭৮

নিবন্ধিত হজযাত্রীদের এজেন্সি স্থানান্তর সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তি জারি

ঢাকা, ২৭ বৈশাখ (১০ মে) :

          ২০২২ সালে হজে গমনের লক্ষ্যে লিড এজেন্সি নির্ধারণপূর্বক ২০২০ সালের নিবন্ধিত হজযাত্রীদের এজেন্সি স্থানান্তর সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়।

          ২০২২ সালে হজকার্যক্রম পরিচালনার জন্য বৈধ হজ এজেন্সির তালিকায় প্রকাশিত যে সব হজ এজেন্সির প্রাক-নিবন্ধিত ব্যক্তির সংখ্যা ৯৭ বা তদুর্ধ্ব সে সব এজেন্সিকে ২০২২ সালে হজের নিবন্ধন স্থানান্তর কার্যক্রম সম্পন্নের জন্য ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয় নির্দেশনা প্রদান করে বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে।

          নিবন্ধন স্থানান্তর কার্যক্রমের জন্য উপযুক্ত/তালিকায় প্রকাশিত বৈধ যে সব হজ এজেন্সির নিবন্ধিত ব্যক্তির সংখ্যা ৯৭ জনের কম সে সব হজ এজেন্সি পরস্পর সমঝোতা করে সমন্বয় করবে। এক্ষেত্রে  হজ ও ওমরাহ ব্যবস্থাপনা আইন, ২০২১ এবং এর অধীনে প্রণীত হজ ও ওমরাহ ব্যবস্থাপনা বিধিমালা, ২০২২ (খসড়া) এর ২৫ বিধি অনুযায়ী লিড এজেন্সি (তপশিল-৬ এর ফরম ১১ মোতাবেক) নির্ণয় করতে হবে। সমন্বয়কারী এজেন্সিসমূহের নিবন্ধিত ব্যক্তিগণকে লিড এজেন্সিতে স্থানান্তর করে নির্ধারিত কোটা পূরণপূর্বক নির্ধারিত কোটার সংশ্লিষ্ট কার্যক্রম সম্পন্ন করতে হবে।

          ১৫ মে, ২০২২ খ্রিষ্টাব্দের মধ্যে লিড এজেন্সি নির্ধারণপূর্বক ২০২০ সালের নিবন্ধিত হজযাত্রীদের এক এজেন্সি হতে অন্য এজেন্সিতে স্থানান্তর সম্পন্ন করতে হবে। সমন্বয় কার্য শেষে  সৌদি আরবের ই-হজ সিস্টেমে ইউজার তৈরির জন্য সৌদি আরবে হজ এজেন্সির তালিকা এবং হজ এজেন্সিভিত্তিক হজযাত্রীর সংখ্যা (গাইড ও মোনাজ্জেমসহ) প্রেরণ করা হবে। সে প্রেক্ষিতে কোন সময় বৃদ্ধি করা হবে না।

          সৌদি আরবে এজেন্সিভিত্তিক হজযাত্রীর তথ্য প্রেরণের পর সকল ধরনের প্রতিস্থাপন এর কার্যক্রম শুরু হবে। 

          যে সকল হজ এজেন্সি বিভিন্ন অভিযোগে শাস্তিপ্রাপ্ত, লাইসেন্স স্থগিত বা লাইসেন্স সচল না থাকায় যাদের ই-হজ সিস্টেমে এজেন্সির ইউজার আইডি এবং পাসওয়ার্ড বন্ধ রয়েছে, সে  সকল হজ এজেন্সির অধীন বিদ্যমান নিবন্ধিত হজযাত্রীগণকে ২০২২ সালে হজ কার্যক্রমে অংশ গ্রহণের লক্ষ্যে তাঁদের ইউজার আইডি এবং পাসওয়ার্ড সচল করা রয়েছে। তাঁরা সৌদি আরবে হজযাত্রী প্রেরণে উপযুক্ত এমন হজ এজেন্সির নিকট ১৫ মে, ২০২২ খ্রি.তারিখের মধ্যে শুধু হজযাত্রী স্থানান্তর কার্যক্রম সম্পন্ন করতে পারবে। এরপর তাদেও ইউজার আইডি এবং পাসওয়ার্ড পূর্বের ন্যায় বন্ধ থাকবে। তাদের ইউজার আইডি এবং পাসওয়ার্ড দ্বারা কোন নিবন্ধন, হজযাত্রী স্থানান্তরপূর্বক গ্রহণ ইত্যাদি কার্যাদি সম্পন্ন করতে পারবে না।

#

আনোয়ার/পাশা/নাইচ/এনায়েত/রফিকুল/মাহমুদ/জয়নুল/২০২২/১৯৫০ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                     নম্বর : ১৮৭৭

 

টেলিভিশনে স্ক্রল আকারে প্রচারের জন্য

সকল ইলেকট্রনিক মিডিয়া

ঢাকা, ২৭ বৈশাখ (১০ মে): 

 

সরকারি-বেসরকারি টিভি চ্যানেলসহ সকল ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় নিম্নোক্ত বার্তাটি স্ক্রল আকারে প্রচারের জন্য অনুরোধ করা হলো :  

 

মূলবার্তা :

আসন্ন ঘূর্ণিঝড় "অশনি" এর সার্বিক অবস্থা পর্যবেক্ষণ ও তথ্য সংগ্রহের নিমিত্তে পানি সম্পদ মন্ত্রণালয় কন্ট্রোলরুম স্থাপন করেছে।

কন্ট্রোলরুমে যোগাযোগের জন্য: পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়, ভবন নং- ৬, কক্ষ নং- ৪১৪, মোবাইল নং- ০১৩১৮-২৩৪৫৬০।

#

 

গিয়াস/পাশা/রফিকুল/মাহমুদ/রেজাউল/২০২২/১৭৪৫ ঘণ্টা 

 

তথ্যবিবরণী                                                                                                   নম্বর : ১৮৭৬

বাংলাদেশ দুর্যোগে ঝুঁকিপূর্ণ নারীদের সুরক্ষায় কার্যকর ব্যবস্থা নিচ্ছে

              -- পরিবেশমন্ত্রী

ঢাকা, ২৭ বৈশাখ (১০ মে) :

পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মোঃ শাহাব উদ্দিন বলেছেন, সীমিত সম্পদ সত্ত্বেও বাংলাদেশ প্রাকৃতিক দুর্যোগে ঝুঁকিপূর্ণ নারীদের সুরক্ষায় অনেক কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। সরকার লিঙ্গ সমতা নিশ্চিতে সর্বাত্মক চেষ্টা করে যাচ্ছে। তিনি বলেন, বাংলাদেশের সংবিধানে জীবনের সর্বক্ষেত্রে নারীদের সমান সুযোগ দেওয়া হয়েছে। লিঙ্গ সমতা নিশ্চিত করতে বাংলাদেশ বিভিন্ন নীতি, আইন ও নির্দেশিকা প্রণয়ন করেছে।  সরকার জাতীয় বাজেট ব্যবস্থায় জেন্ডার বাজেট প্রবর্তন করেছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গতিশীল নেতৃত্বে এখন দেশের অনেক শীর্ষ পদে নারীরা অধিষ্ঠিত।

আইভরি কোস্টের ফার্স্ট লেডি ডমিনিক উত্তারার আয়োজনে আবিদজানে গত রাতে অনুষ্ঠিত জাতিসংঘের কনভেনশন টু কমব্যাট ডেজার্টফিকেশন (ইউএনসিসিডি)-এর ১৫তম সম্মেলনের জেন্ডার ককাসের উচ্চ পর্যায়ের অনুষ্ঠানে পরিবেশমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনজনিত ঝুঁকি নারীদের ওপর বিরূপ প্রভাব ফেলে এবং এর ফলে তাদের জীবন ও জীবিকা হারাতে হয়। জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে বাংলাদেশের টেকসই খাদ্য নিরাপত্তাকে বাধাগ্রস্ত করছে এবং এর নারীদের স্বাস্থ্যের পাশাপাশি পরিবেশ বিপর্যয়ের সৃষ্টি করছে। তা সত্ত্বেও মহিলারা ভূমি ক্ষয় কমাতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। নারীরা বিভিন্ন উপায়ে ভূমি পুনরুদ্ধার, সুরক্ষা এবং উন্নতিতে অবদান রাখছে।

মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের অষ্টম পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনায় বেশ কিছু কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়েছে যা দেশের ভূমি ক্ষয়ের গুরুতর সমস্যা প্রশমনে সাহায্য করবে এবং টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের বৈশ্বিক এজেন্ডাকে সমর্থন করবে। তিনি বলেন, আমরা ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তিদের বিশেষ করে মহিলাদের অবস্থার উন্নতির জন্য ইউএনসিসিডি সচিবালয় ও গ্লোবাল মেকানিজমের মাধ্যমে আন্তর্জাতিক সহযোগিতা ও সমর্থন কামনা করছি।

এখানে উল্লেখ্য, জেন্ডার ককাসে, আইভরি কোস্টের ফার্স্ট লেডি ডমিনিক উত্তারা এবং জাতিসংঘের ডেপুটি সেক্রেটারি-জেনারেল আমিনা মোহাম্মদ পুরুষ ও মহিলাদের ওপর মরুকরণ, ভূমির অবক্ষয় এবং খরার বিভেদমূলক প্রভাবগুলোর ওপর একটি নতুন গবেষণা প্রকাশ করেছেন। ভূমি অবক্ষয়িত হলে নারী এবং মেয়েরা যে অসমান প্রভাবের সম্মুখীন হয় এবং সুযোগ দেওয়া হলে কিভাবে তারা বিশ্বব্যাপী ভূমি পুনরুদ্ধারের প্রচেষ্টার অগ্রভাগে থাকতে পারে সে বিষয়ে গবেষণাটি আলোকপাত করেছে।

#

দীপংকর/পাশা/নাইচ/রফিকুল/রেজাউল/২০২২/১৭৪০ ঘণ্টা

Handout                                                                                                            Number : 1875

Bangladesh is taking effective measures for vulnerable women
                           -- Environment Minster in COP-15 of UNCCD


Dhaka, 10 May 2022:

            Environment, Forest and Climate Change Minister Md. Shahab Uddin said with its scarce resources, Bangladesh has taken a number of measures for uplifting the conditions of vulnerable women. The Government is trying to its best to ensure gender equity. Women have been given equal opportunity in all sphere of life in the Constitution of Bangladesh. Bangladesh has formulated a range of policies, laws and guidelines to ensure gender equity. The government has introduced gender budget in national budgeting system. With the dynamic leadership of our Prime Minister Sheikh Hasina, now a number of top posts are possessed by women.

            The Environment Minister said this at the High-Level event of the Gender Caucus in the conference of the parties (COP-15) to the United Nations Convention to Combat Desertification (UNCCD) held last night in Abidjan, Côte dIvoire hosted by the First Lady of Cote dIvoire Dominique Ouattara.

            The Minister said climate change related risks and vulnerabilities adversely affect women and tend to loss their lives and livelihood. In Bangladesh, climate change obstructs countrys sustainable food security and makes its population especially women vulnerable to health as well as environmental shocks. Yet, women play a significant role in reducing and reversing land degradation. Women contributes to restore, protect and improve land in a range of ways.

            The Minister said the 8th five-year plan of Bangladesh undertakes a number of activities which will help to mitigate the severe problem of land degradation in Bangladesh and will support the global agenda of achieving sustainable development goals. He said, we are encouraging and welcoming international cooperation and support through UNCCD secretariat as well as Global Mechanism for improving the conditions of affected people especially for women.

            It is mentionable that in the Gender Caucus, the First Lady of Côte dIvoire Dominique Ouattara and the United Nations Deputy Secretary-General Amina Mohammed launched a new study on the differentiated impacts of desertification, land degradation and drought on men and women. The study shines the spotlight on the disproportionate impacts women and girls are facing when land is degraded and how, if given the agency, they can be at the forefront of global land restoration efforts.

#

Dipankar Bar/Pasha/Nice/Rafiqul/Joynul/2022/1730 hours

তথ্যবিবরণী                                                                                                নম্বর : ১৮৭৪

পণ্য প্রদর্শনী ও বিক্রয় কেন্দ্র নারী উদ্যোক্তাদের বিকাশে গুরত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে

                                                                    -- মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী

ঢাকা, ২৭ বৈশাখ (১০ মে) :

          মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা বলেছেন, দেশের নারীদের মধ্যে উদ্যোক্তা হওয়ার বিপুল সম্ভাবনা রয়েছে। মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয় এই সম্ভাবনাকে বাস্তবে রূপ দিয়ে অর্থনৈতিক উন্নয়ন ও সামাজিক অগ্রগতির মাধ্যমে নারীর ক্ষমতায়ন নিশ্চিত করতে বিভিন্ন  ট্রেডে প্রশিক্ষণ ও পণ্য বাজারজাতকরণে সহযোগিতা করে যাচ্ছে। তাদের উৎপাদিত পণ্যের ব্রান্ডিং, ডিজাইন, উৎপাদন ও ই-কমার্স বিষয়ে প্রশিক্ষণ প্রদান করা হচ্ছে। যা নারী উদ্যোক্তাদের সক্ষমতা বৃদ্ধি ও তাদের ব্যবসা পরিচালনায় দক্ষ করে গড়ে তুলছে। আইজিএ প্রকল্পের পণ্য প্রদর্শনী ও বিক্রয় কেন্দ্র নারী উদ্যোক্তাদের বিকাশে গুরত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

          প্রতিমন্ত্রী আজ ঢাকায় লালমাটিয়ায় মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর ভবনে আইজিএ প্রকল্পের আওতায় নারী উদ্যোক্তাদের তৈরি পণ্যের প্রদর্শনী ও বিক্রয় কেন্দ্র উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

          প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয় তৃণমূল পর্যায়ে নারীর ক্ষমতায়ন এবং আইজিএ প্রকল্পের মাধ্যমে জেলা ও উপজেলায় নারী উদ্যোক্তাদের তৈরি পণ্যের বিক্রয় ও প্রদর্শনী কেন্দ্র এবং বিউটি পার্লার স্থাপন করা হচ্ছে। বিভাগ, জেলা ও উপজেলায় যেসকল ভবন করা হবে, সেসব ভবনে নারী উদ্যোক্তাদের তৈরি পণ্যের বিক্রয় ও প্রদর্শনী কেন্দ্র এবং বিউটি পার্লার স্থাপন করা হবে। এসব বিক্রয় ও প্রদর্শনী কেন্দ্র নারী উদ্যোক্তাদের দ্বারা পরিচালিত হবে। এখানে নারীরা উদ্যোক্তারা তাদের উৎপাদিত পণ্য সামগ্রী বিক্রয়ের সুযোগ পাবে। তারা নতুন নতুন পণ্য উৎপাদন ও ডিজাইন তৈরিতে উৎসাহিত হবেন। যা নারীর আত্মকর্মসংস্থান, ক্ষমতায়ন ও দেশের উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

          মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ফরিদা পারভীনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. মুঃ আনোয়ার হোসেন হাওলাদার ও জয়িতা ফাউন্ডেশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আফরোজা খান। আইজিএ প্রকল্প পরিচালক মোঃ তরিকুল ইসলামসহ মন্ত্রণালয় এবং দপ্তর সংস্থার বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তাবৃন্দ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

          মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয় পাঁচশত একানব্বই কোটি টাকা ব্যয়ে ২০১৭ থেকে ২০২২ সাল মেয়াদে ইনকাম জেনারেশন একটিভিটিস (আইজিএ) প্রকল্প বাস্তায়ন করছে। এ প্রকল্পের মাধ

2022-05-10-16-12-9c1ed72e18ed8e8c97091eb4deca07e7.doc 2022-05-10-16-12-9c1ed72e18ed8e8c97091eb4deca07e7.doc

Share with :

Facebook Facebook