তথ্য অধিদফতর (পিআইডি) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ১৭ নভেম্বর ২০২১

তথ্যবিবরণী ১৭ নভেম্বর ২০২১

তথ্যবিবরণী                                                                                           নম্বর :  ৫৪৬৩

 

সাবেক প্রতিমন্ত্রী এড. আফসার উদ্দিন আহমদ খানের

মৃত্যুতে মন্ত্রী প্রতিমন্ত্রীবর্গের শোক

 

ঢাকা, ২ অগ্রহায়ণ (১৭ নভেম্বর) :

 

          বাংলাদেশের প্রথম প্রধানমন্ত্রী শহীদ তাজউদ্দীন আহমদের ছোট ভাই এবং সাবেক গৃহায়ন ও গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আফসার উদ্দিন আহমদ খানের মৃত্যুতে মন্ত্রী ও প্রতিমন্ত্রীবর্গ গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন।

 

          পৃথক শোকবার্তায় তাঁরা মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানান।

 

          সাবেক প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আফসার উদ্দিন আহমদ খানের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান; বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি; পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মোঃ শাহাব উদ্দিন; রেলপথ মন্ত্রী মোঃ নূরুল ইসলাম সুজন এবং ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী। 

 

          এছাড়া শোক প্রকাশ করেছেন পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক; তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী ডা. মোঃ মুরাদ হাসান এবং পানিসম্পদ উপমন্ত্রী এ কে এম এনামুল হক শামীম। 

 

#

 

মারুফ/নাইচ/এনায়েত/রফিকুল/সেলিম/২০২১/২১.৩০ ঘণ্টা 

তথ্যবিবরণী                                                                                                                   নম্বর : ৫৪৬২

বাল্যবিয়ে হলে সে পরিবার সরকারি সামাজিক নিরাপত্তার সুবিধা পাবে না

                                                                                        -- ফজিলাতুন নেসা

ঢাকা, ২ অগ্রহায়ণ (১৭ নভেম্বর) :

          মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা বলেছেন, কোনো পরিবারে বাল্যবিয়ে হলে সে পরিবার সরকারি সামাজিক নিরাপত্তার সুবিধা পাবে না। বাল্যবিয়ে কিশোরীদের অধিকার থেকে বঞ্চিত করছে। বাল্যবিয়ের কারণে শিশু ও নারীর কল্যাণে গৃহীত সরকারের উন্নয়ন কার্যক্রম ব্যহত হচ্ছে।

          প্রতিমন্ত্রী আজ ঢাকায় ইস্কাটনে মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের মাল্টিপারপাজ হলে ‘বাল্যবিবাহ প্রতিরোধের নিমিত্ত জাতীয় কমিটি’র প্রথম সভায় সভাপতির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

          প্রতিমন্ত্রী বলেন, ২০০৭ সালে ১৮ বছরের পূর্বে বাল্যবিয়ের হার ছিল ৭৪ শতাংশ যা ২০১৭ সালে ৫২ শতাংশের নিচে নেমে এসেছে। ২০০৭ সালে ১৫ বছরের নিচে বাল্যবিয়ের হার ছিল ৩২ শতাংশ যা ২০১৭ সালে এই হার নেমে এসেছে ১০ শতাংশে। বাল্যবিয়ের হার দ্রুতই কমে আসছে। সকলের সম্মিলিত প্রেষ্টায় ২০৪১ সালের আগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষিত ২০৪১ সালের আগেই বাংলাদেশ বাল্যবিয়ে মুক্ত হবে।

          প্রতিমন্ত্রী বলেন, বাল্যবিয়ে বন্ধে সরকারের সকল মন্ত্রণালয়-বিভাগের মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের সঠিকভাবে দায়িত্ব পালন করতে হবে। স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, শিক্ষক, ইমাম, ধর্মীয় নেতা, এনজিও প্রতিনিধি ও কমিউনিটি নেতৃবৃন্দকে বাল্যবিয়ে রোধ করতে ভূমিকা রাখতে হবে।

          সংসদ সদস্য বেগম মেহের আফরোজ, মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ সায়েদুল ইসলাম, ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব কাজী এনামুল হাসান এনডিসি, মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের মহাপরিচালক রাম চন্দ্র দাস, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ, বাংলাদেশ নারী প্রগতি সংঘের নির্বাহী পরিচালক রোকেয়া কবির, বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও বিভাগ, ঢাকা দক্ষিণ ও উত্তর সিটি কর্পোরেশন এবং বেসরকারি সংস্থা ব্র্যাকের প্রতিনিধি সভায় উপস্থিত ছিলেন।

#

আলমগীর/পাশা/নাইচ/এনায়েত/রফিকুল/জয়নুল/২০২১/২১৩০ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                                   নম্বর : ৫৪৬১

  সাবেক প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আফসার উদ্দিন আহমদ খানের মৃত্যুতে সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রীর শোক

ঢাকা, ২ অগ্রহায়ণ (১৭ নভেম্বর) :

          বাংলাদেশের প্রথম প্রধানমন্ত্রী শহীদ তাজউদ্দীন আহমদের ছোট ভাই এবং সাবেক গৃহায়ন ও গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আফসার উদ্দিন আহমদ খানের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন সংস্কৃতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ।

          প্রতিমন্ত্রী আজ এক শোকবার্তায় মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন এবং তাঁর শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানান।

          উল্লেখ্য, অ্যাডভোকেট আফসার উদ্দিন আহমদ খান (৮১) আজ ভোররাতে ঢাকার নিজ বাসায় বার্ধক্যজনিত কারণে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।

#

ফয়সল/পাশা/রাহাত/এনায়েত/রফিকুল/জয়নুল/২০২১/১৮৩০ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                                   নম্বর : ৫৪৬০

শ্রম খাতে কর্মকর্তাদের সততা ও দক্ষতার সাথে ভূমিকা রাখতে হবে

                                                                                    -- শ্রম প্রতিমন্ত্রী

ঢাকা, ২ অগ্রহায়ণ (১৭ নভেম্বর) :

          শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান বলেছেন, শ্রম খাতের উন্নয়নে কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তরের (ডাইফ) কর্মকর্তাদের সততা, নিষ্ঠা ও দক্ষতার সাথে ভূমিকা রাখতে হবে। ২০৪১ সালের মধ্যে জাতির পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়তে আত্মনিয়োগ করতে হবে।

          আজ রাজধানীর ইস্কাটনে আঞ্চলিক লোক প্রশাসন প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তর (ডাইফ) এর কর্মকর্তাদের প্রথমবারের মতো বিশেষ বুনিয়াদি প্রশিক্ষণ কোর্স-এসএফটিসি’র সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় প্রতিমন্ত্রী একথা বলেন।

          প্রতিমন্ত্রী বলেন, কলকারখানায় শ্রম পরিদর্শনকে আরো জোরদার করতে হবে। প্রশিক্ষিত কর্মকর্তাদের শ্রম পরিদর্শনে আরো দায়িত্বশীল হতে হবে। শ্রম পরিদর্শনে যেকোনো প্রকার ত্রুটি অনেক সময় কারখানার দুর্ঘটনার কারণ হয়ে দাঁড়ায়। কারখানার শোভন কর্মপরিবেশ নিশ্চিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে হবে শ্রম পরিদর্শকগণকে।

          দুই মাসব্যাপী বিশেষ বুনিয়াদি প্রশিক্ষণে অর্জিত জ্ঞান এবং কর্মক্ষেত্রের বাস্তব জ্ঞানের মিশেলে কর্মকর্তাগণ সত্যিকারের দক্ষ কর্মকর্তা হিসেবে গড়ে উঠবেন এবং প্রতিষ্ঠানের মান-মর্যাদা বৃদ্ধি করবেন বলে প্রতিমন্ত্রী এ সময় আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

          সমাপনী অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ লোক প্রশাসন প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের এমডিএস আবু মমতাজ সাদউদ্দীন আহমেদ, শ্রম ও কর্মসংস্থান সচিব মোঃ এহছানে এলাহী, আইএলও এর কান্ট্রি ডিরেক্টর তোমো পুতিয়াইনেন, কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তরের মহাপরিদর্শক মোঃ নাসির উদ্দীন আহমেদ এবং আরপিএটিসি’র উপপরিচালক সাব্বির আহমেদ এবং দু’জন প্রশিক্ষণার্থী বক্তৃতা করেন। 

          বাংলাদেশ লোক প্রশাসন প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের আয়োজনে কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তরের ৩০ জন কর্মকর্তা প্রথমবারের মতো ২ মাসব্যাপী বিশেষ বুনিয়াদি প্রশিক্ষণে অংশ গ্রহণ করেন। পরে প্রতিমন্ত্রী প্রশিক্ষণার্থীদের হাতে প্রশিক্ষণ সমাপনী সনদ তুলে দেন।

#

আকতারুল/পাশা/রাহাত/এনায়েত/রফিকুল/জয়নুল/২০২১/১৮৩০ঘণ্টা 

তথ্যবিবরণী                                                                                                          নম্বর: ৫৪৫৯

 

সরকারি দপ্তরের সেবাদান পদ্ধতি জনগণকে জানান

                                               --তথ্য ও সম্প্রচার সচিব

 

ঢাকা, ২ অগ্রহায়ণ (১৭ নভেম্বর) :

          সরকারের বিভিন্ন দপ্তর থেকে জনগণ কিভাবে সেবা পেতে পারে সে বিষয়েও দেশের মানুষকে যত্নসহ জানাতে তথ্য কর্মকর্তাদের প্রতি নির্দেশনা দিয়েছেন তথ্য ও সম্প্রচার সচিব মোঃ মকবুল হোসেন। 

          আজ ঢাকার কাকরাইলে গণযোগাযোগ অধিদপ্তরের সভাকক্ষে বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি (এপিএ) এর আওতায় আয়োজিত কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় সচিব এ নির্দেশনা দেন।

          অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বিধান চন্দ্র কর্মকারের সভাপতিত্বে সদর দপ্তরের কর্মকর্তাবৃন্দ সরাসরি এবং ৬৮ তথ্য অফিসের কর্মকর্তারা সভায় ভার্চুয়ালি অংশ নেন। সচিব এ সময় গাজীপুর, চাঁপাইনবাবগঞ্জ ও বরিশালে উন্মুক্ত বৈঠক ও মহিলা সমাবেশে অনলাইনে যুক্ত হয়ে অংশগ্রহণকারীদের সাথে মতবিনিময় করেন।

          ‘সরকারের উন্নয়নমূলক কাজ জনগণের কাছে তুলে ধরার পাশাপাশি জনগণকে প্রয়োজনীয় তথ্যসেবা দেওয়া তথ্য কর্মকর্তাদের দায়িত্ব’ উল্লেখ করে তথ্যসচিব মোঃ মকবুল হোসেন বলেন, সরকারি দপ্তরগুলো থেকে সেবা পাওয়ার বিষয়ে জনগণকে জানানোর ক্ষেত্রে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, প্রশাসন এবং অন্যান্য সরকারি দপ্তরের কর্মকর্তাদেরও সম্পৃক্ত করলে ভালো ফল হবে। সেইসাথে জনস্বার্থে আয়োজিত সকল অনুষ্ঠান মানসম্মত হওয়া প্রয়োজন, বলেন তিনি। 

#

আকরাম/পাশা/রাহাত/রফিকুল/রেজাউল/২০২১/১৭১৮ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                          নম্বর: ৫৪৫৮

 

কোভিড-১৯ সংক্রান্ত সর্বশেষ প্রতিবেদন

 

ঢাকা, ২ অগ্রহায়ণ (১৭ নভেম্বর) :

 

            স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এবং রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর)-এর তথ্যানুযায়ী গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ১৯ হাজার ৬৭০ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ২৬৬ জনের শরীরে করোনা সংক্রমণ পাওয়া গেছে।  নিয়ে বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত কোভিড-১৯ আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ১৫ লাখ ৭৩ হাজার ২১৪ জন। 

 

          গত ২৪ ঘণ্টায় ৬ জন-সহ এ পর্যন্ত ২৭ হাজার ৯৩৪ জন এ রোগে মৃত্যুবরণ করেছেন।

 

          করোনা ভাইরাস আক্রান্তদের মধ্যে এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ১৫ লাখ ৩৭ হাজার ২২৪ জন।

#

কবীর/পাশা/রাহাত/রফিকুল/রেজাউল/২০২১/১৭১০ ঘণ্টা

 

Handout                                                                                                                     Number: 5457

First Bangladesh Mexico Foreign office Consultation held

Dhaka, (17 November):

 

The first-ever Foreign Office Consultation (FOC) between the People’s Republic of Bangladesh and the United Mexican States was virtually held yesterday. Both sides expressed their firm convictions in finding new avenues to further deepen the existing friendly bilateral relationship. 

Director General (Americas) of the Ministry of Foreign Affairs Toufiq Islam Shatil led the Bangladesh Delegation whereas Director General (Asia-Pacific) of Mexican Foreign Ministry Ambassador Claudia Franco Hijuelos led the Mexican delegation. As members of delegations of their respective countries, Bangladesh Ambassador to Mexico Abida Islam and Ambassador of Mexico to India Federico Salas Lotfe concurring to Bangladesh, participated during the discussions. Bangladesh delegation comprised of representatives from Ministry of Foreign Affairs, Commerce and Cultural Affairs and from National Board of Revenue (NBR). The entire gamut of bilateral relations between Bangladesh and Mexico were discussed during the meeting focusing on economy and trade, exchanges between Foreign Service academies, bilateral cooperation in cultural, gender equality, defense and tourism including visa exemption for diplomatic and official passport holders. 

The leader of the Bangladesh delegation also emphasized the need to carry forward the momentum that was created during the successful visit of the State Minister of Foreign Affairs in September 2021 while attending the 200- year celebration of Mexican Independence. Bangladesh side requested for opening a resident mission of Mexico in Dhaka in near future. Mexican side proposed to form a Parliamentary Friendship Group between lawmakers of two countries.

In the area of trade and investment, Bangladesh highlighted the impressive investment possibilities and benefits provided by the Government to the foreign investors.  In response, the Mexican side showed its keen interest in the sector of constructionand auto parts industries in Bangladesh. Terming economic affairs as a key aspect and one of the priorities in foreign policy, both sides agreed to create a Joint Working Group between the governments to explore the potential untapped areas and take advantage of their respective economic opportunities. Referring to the recently concluded MOU between COMCE and the FBCCI in September 2021, both sides stressed on their frequent engagements even in virtual platforms in the coming days.  

            To improve the people-to-people contacts, the Bangladesh side requested the Mexican government to establish a Visa Facilitation Services (VFS) Center in Dhaka .

            The Bangladesh side received a positive response from its Mexican counterparts regarding its proposal to enhance military cooperation and sharing its vast experience in the tourism sector. 

            The 2nd FOC is expected to take place during the second half of 2022 preferably in person if the conditions permit, either in Mexico City or Dhaka, at a mutually convenient date and time. 

#

 

Mohsin Reza/Anasuya/Parikshit/Shammi/Masum/2021/1418 Hrs
তথ্যবিবরণী                                                                                                                   নম্বর :  ৫৪৫৬

 

বন্যপ্রাণীর অবৈধ বাণিজ্য দমনে সরকার আন্তরিকভাবে কাজ করছে

                                                       - পরিবেশ ও বনমন্ত্রী

ঢাকা, ২ অগ্রহায়ণ (১৭ নভেম্বর) :

          পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মোঃ শাহাব উদ্দিন বলেছেন, বন্যপ্রাণীর অবৈধ বাণিজ্য দমনে সরকার আন্তরিকভাবে কাজ করছে। বন্যপ্রাণীর অবৈধ বাণিজ্য নিয়ন্ত্রণকারীদের নির্মূল করার কৌশলসমূহ চিহ্নিত করা হচ্ছে। বন অধিদপ্তরের নেতৃত্বে বন্যপ্রাণী অপরাধ উদঘাটন, সনাক্তকরণ এবং বিচারে আইন প্রয়োগকারী সংস্থাসমূহের কর্মকর্তাদের সক্ষমতা জোরদার করার ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি ঘটেছে।

বন্যপ্রাণীর অবৈধ বাণিজ্য দমনে সরকারের প্রচেষ্টাকে প্রসারিত ও শক্তিশালী করার উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে। সকলের সহায়তায় বন্যপ্রাণীর অবৈধ বাণিজ্য দমনের লড়াইয়ে আমাদের জয়ী হতেই হবে বলে উল্লেখ করেন তিনি।


          পরিবেশমন্ত্রী আজ হোটেল প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও এ বন অধিদপ্তর এবং ওয়াইল্ডলাইফ কনজারভেশন সোসাইটি আয়োজিত ‘বন্যপ্রাণীর অবৈধ বাণিজ্য দমনে আইন প্রয়োগ শক্তিশালী করার লক্ষ্যে পরামর্শ সভা’র উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।


          বনমন্ত্রী বলেন, যৌথভাবে বন্যপ্রাণীর অবৈধ বাণিজ্য দমনের উদ্দেশ্যে সংশ্লিষ্ট  সেক্টরসমূহের মধ্যে কৌশলগত পরিকল্পনা প্রণয়ন করা হবে। বন্যপ্রাণী অপরাধ দমনের লক্ষ্যে প্রণীত আইন-কানুন, কর্মসূচি এবং প্রকল্প কার্যকরভাবে বাস্তবায়ন করার উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে। তিনি এসময় বন্যপ্রাণীর অবৈধ বাণিজ্য নিয়ন্ত্রণকারীদের নির্মূল করার বাস্তবসম্মত পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট সংস্থাসমূহের প্রতি আহ্বান জানান। তিনি বলেন, বন্যপ্রাণী অপরাধের নেতিবাচক পরিণতি সম্পর্কে জনসচেতনতা বৃদ্ধির কার্যক্রম জোরদার করতে হবে। বন্যপ্রাণী অপরাধীদের বিচারের আওতায় এনে কঠোর শাস্তি নিশ্চিত করা হবে । আমাদের নিজেদের স্বার্থে বন ও বন্যপ্রাণী সংরক্ষণে সকলকে এগিয়ে আসতে হবে।


          পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ মোস্তফা কামাল এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত পরামর্শক সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী হাবিবুন নাহার, অতিরিক্ত সচিব (প্রশাসন) ইকবাল আব্দুল্লাহ হারুন, প্রধান বন সংরক্ষক মোঃ আমির হোসেন চৌধুরী এবং ওয়াইল্ডলাইফ কনজারভেশন সোসাইটির কান্ট্রি রিপ্রেজেনটেটিভ জাহাঙ্গীর আলম প্রমুখ।


          উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের পর বন্যপ্রাণীর অবৈধ বাণিজ্য দমনে আইন প্রয়োগ শক্তিশালীকরণে করণীয় বিষয়ে ইউএসএআইডি, ইউএনওডিসি এবং এনজিও ব্যুরোসহ বিভিন্ন সংস্থা এবং বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও আইন প্রয়োগকারী সংস্থার কর্মকর্তাবৃন্দ নিজ নিজ সংস্থার পক্ষে বক্তব্য রাখেন।

                                                              #

দীপংকর/অনসূয়া/পরীক্ষিৎ/শাম্মী/কুতুব/২০২১/১৩৩০ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                 নম্বর : ৫৪৫৪

 
আগামী ১৯ নভেম্বর অনুষ্ঠিতব্য উপ-খাদ্য পরিদর্শক পদের পরীক্ষায়

প্রার্থীদের প্রবেশপত্রের ভুল সংশোধন

 

ঢাকা, ২ অগ্রাহায়ণ (১৭ নভেম্বর) :

 

          খাদ্য অধিদপ্তরের শূন্যপদ পূরণের লক্ষ্যে গত ১১ জুলাই ২০১৮ এর নিয়োগ বিজ্ঞপ্তির আলোকে টেলিটক বাংলাদেশ লি. এর htt://dgfood.teletalk.com.bd/ ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আবেদন গ্রহণ করা হয়। টেলিটক বাংলাদেশ লিমিটেড এসএমএস ও অনলাইন বেজড সিস্টেমের মাধ্যমে আগ্রহী প্রার্থীদের আবেদন গ্রহণ করে এবং সংরক্ষণ করে। গ্রহীত আবেদনের তথ্যের ভিত্তিতেই স্বয়ংক্রিয়ভাবে পরীক্ষার্থীদের অনুকূলে প্রবেশপত্র ইস্যু থেকে শুরু করে পরীক্ষার যাবতীয় কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়েছে। আগামী ১৯ নভেম্বর অনুষ্ঠিতব্য উপ-খাদ্য পরিদর্শক পদের পরীক্ষায় কয়েকজন পরীক্ষার্থী ডাউনলোডকৃত প্রবেশপত্রে তাদের ছবি ও স্বাক্ষর পরিবর্তন হয়ে গেছে মর্মে খাদ্য অধিদপ্তরের নিয়ন্ত্রণ কক্ষকে জানিয়েছেন।

 

          টেলিটক বাংলাদেশ লিমিটেডকে বিষয়টি অবহিত করা হলে টেলিটক বাংলাদেশ লিমিটেড মূল সার্ভারের লগ চেক করে আবেদনের সময়কালে আপলোডকৃত ছবি ও স্বাক্ষর অপরিবর্তিত আকারে সংরক্ষিত আছে মর্মে মতামত প্রদান করে। এর ফলে সংশ্লিষ্ট অভিযোগকারী পরীক্ষার্থীদের আবেদনকালীন ভুল ছবি ও স্বাক্ষর আপলোডের কারণেই স্বয়ক্রিয়ভাবে প্রবেশপত্রেও উক্ত ছবি ও স্বাক্ষর কপি হয়েছে বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে। তারপরও পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য কোনো পরীক্ষার্থীর ছবি ও স্বাক্ষর পরিবর্তনের বিষয়টি উপযুক্ত প্রমাণাদিসহ পরীক্ষার নির্ধারিত সময়ের পূর্বে খাদ্য অধিদপ্তর, ১৬ আব্দুল গণি রোড, ঢাকা অফিসে যোগাযোগ করা হলে প্রবেশপত্রের ছবি ও স্বাক্ষর সংশোধন করার ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। সংশোধন না করে ভুল ছবি ও স্বাক্ষর সম্বলিত প্রবেশপত্র নিয়ে কোনো পরীক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করলে কেন্দ্র কর্তৃপক্ষ পরীক্ষা গ্রহণে বাধ্য নয়।

 

          খাদ্য অধিদপ্তরের এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

#

মামুন/অনসূয়া/পরীক্ষিৎ/শাম্মী/মাসুম/২০২১/১১৩৫ ঘণ্টা

 

Handout                                                                                                                                  Number : 5453

Permanent Secretary of Foreign Affairs of Madagascar calls on Dr. Momen

Dhaka, 17 November :

            Permanent Secretary of Foreign Affairs of Madagascar Ratsimandao Tahirimiakadaza called on Foreign Minister Dr. A K Abdul Momen at the State Guest House Padma yesterday. The Madagascar Permanent Secretary of Foreign Affairs was accompanied byofficial of Madagascar government who are participating at 21st Indian Ocean Rim Association (IORA) Council of Ministers and related meetings.

            At the outset of the meeting, Dr. A K Abdul Momen said, Bangladesh has achieved tremendous socio-economic progress during the last decade. He also said, that Bangladesh has expertise in IT & ICT sector and the government is offering various types of digital services to the people. He suggested that both countries may establish cooperation in IT and ICT sector and Madagascar may import RMG and pharmaceutical products from Bangladesh.

            The Permanent Secretary of Foreign Ministry of Madagascar briefed about the measures taken by the government of Madagascar in order to contain the spread of Covid-19 pandemic. He congratulated Bangladesh government for the measures undertaken by the government of Bangladesh for containing the spread of Covid-19 pandemic. Mentioning Madagascar and Bangladesh are working together at international platforms on matters of mutual interest, Ratsimandao Tahirimiakadaza commended the role of Bangladesh at IORA in protecting interest of the developing countries.

            Ratsimandao Tahirimiakadaza proposed both countries may establish in cooperation in blue economy including cooperation between maritime universities as well as in extraction of marine nutrients. He suggested establishing G2G cooperation with Bangladesh in IT and ICT areas.

            Recognising the importance of cooperation in agriculture areas both side agreed to establish cooperation in food and agriculture areas including cooperation in seed technology and agricultural production, Dr. Momen suggested a Fact Finding Mission may go to Madagascar to discuss the possibilities of contract farming opportunities. He also sought continued support of Madagascar on the Rohingya repatriation issue. The Permanent Secretary assured of their continued support to Bangladesh on the Rohingya issue. Dr. Momen also sought support of the Madagascar government in favour of the candidature of Bangladesh at the forthcoming IMO election as well as at Humans Right Council.

#

Mohsin Reza/Anasuya/Parikshit/Shammi/Kutub/2021/1130 Hrs

 

তথ্যবিবরণী                                                                                                   নম্বর : ৫৪৫২

আন্তর্জাতিক সমুদ্র তলদেশ কর্তৃপক্ষের প্রতি রাবার ফাতিমা

সমুদ্র সম্পদের ন্যায্য অংশীদারিত্ব নিশ্চিত করুন

 

নিউইয়র্ক, (১৭ নভেম্বর) :

 

          সমুদ্রের বিস্তীর্ণ এলাকার অনাবিষ্কৃত সম্পদের মাধ্যমে স্বল্পোন্নত দেশসমূহের এক বিলিয়নেরও বেশি মানুষের জীবন ও জীবিকায় রুপান্তরধর্মী পরিবর্তন আনা সম্ভব। তাই সমুদ্র আইন সম্পর্কিত জাতিসংঘ কনভেনশন (আনক্লজ) হতে পারে তাদের জন্য সমুদ্রসম্পদকে কাজে লাগানোর পথ। আজ স্বল্পোন্নত দেশ, ভূবেষ্টিত স্বল্পোন্নত দেশ ও ক্ষুদ্র উন্নয়নশীল দ্বীপ রাষ্ট্রসমূহের জন্য সুযোগ-সুবিধার বিষয়ে আন্তর্জাতিক সমুদ্র-তলদেশ কর্তৃপক্ষ আয়োজিত উচ্চ পর্যায়ের এক সভায় জাতিসংঘে নিযুক্ত বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি   রাবাব ফাতিমা একথা বলেন ।

 

স্বল্পোন্নত দেশগুলো বিশ্বের সবচেয়ে সীমাবদ্ধ সম্পদের অর্থনীতিভুক্ত দেশ বলে উল্লেখ করে স্থায়ী প্রতিনিধি তাদের জন্য গভীর সমুদ্রের বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা বিশেষ করে মহাসমুদ্রে বৈজ্ঞানিক গবেষণা, সক্ষমতা বৃদ্ধি ও সমুদ্রসম্পদ অনুসন্ধানের জন্য সমুদ্রপ্রযুক্তিতে প্রবেশসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে ন্যায্য অংশীদারিত্ব নিশ্চিত করতে আন্তর্জাতিক সমুদ্র-তলদেশ কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানান।

 

রাষ্ট্রদূত ফাতিমা ২০২২ সালের জানুয়ারি মাসে দোহা’তে অনুষ্ঠেয় এলডিসি-৫ কনফারেন্সের প্রস্তুতিমূলক কমিটির যৌথ সভাপতি হিসেবে দায়িত্বপালন করছেন। দোহা সম্মেলনের ‘প্রোগ্রাম অভ্ অ্যাকশ’  -এ সন্নিবেশনের জন্য সমুদ্রের ওপর জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রভাব বিষয়ক যে খসড়া তৈরি করা হয়েছে তার উদাহরণ টেনে রাষ্ট্রদূত ফাতিমা বলেন, বিভিন্ন ধরনের দূষণ সামুদ্রিক খাদ্যজাল ও বাস্তুতন্ত্রের ভারসাম্যকে মারাত্মকভাবে ব্যাহত করছে। এ প্রেক্ষাপটে মহাসমুদ্রে দূষণ ও অনিয়ন্ত্রিত কার্যকলাপ মোকাবিলায় বৈশ্বিক প্রচেষ্টা আরো বৃদ্ধি করার প্রয়োজনীয়তার ওপর জোর দেন তিনি।

 

সমুদ্র জগতের নতুন ও উদীয়মান সম্ভাবনাসমূহে স্বল্পোন্নত দেশগুলোর নারী ও যুবদের আরো বেশি প্রবেশের সুযোগ প্রদানের জন্য ক্ষেত্র তৈরি করার আহ্বান জানান বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি।

 

উচ্চ পর্যায়ের এই সভায় সঞ্চালক ছিলেন আন্তর্জাতিক সমুদ্রতলদেশ কর্তৃপক্ষের মহাসচিব মাইকেল ডব্লিউ লজ। এলডিসি’র সভাপতিসহ সদস্য দেশসমূহের উল্লেখযোগ্য সংখ্যক রাষ্ট্রদূত এতে অংশগ্রহণ করেন।

 

#

অনসূয়া/পরীক্ষিৎ/শাম্মী/মাসুম/২০২১/১০ ঘণ্টা

 

 

 

Handout                                                                                                                     Number : 5451

Foreign Minister of Comoros calls on Dr. Momen

Dhaka, 17 November:

            Foreign Minister of Comoros Dhoihir Dhoulkamal called on Foreign Minister of Bangladesh Dr. A K Abdul Momen at the State Guest House Padma in yesterday. Foreign Minister of Comoros is visiting Dhaka for participating at 21st Indian Ocean Rim Association (IORA) Council of Ministers and related meetings.

            At the outset of the meeting, the Foreign Minister of Bangladesh welcomed the Foreign Minister of Comoros to Bangladesh. He expressed thanks to the Foreign Minister of Comoros for the support of Comoros government for the chairship of Bangladesh at Indian Ocean Rim Association (IORA). Dr. Momen requested the Comoran side for extending support at the candidature at the IMO and Human Rights Council.

            Dr.  Momen mentioned that Bangladesh has achieved remarkable progress in the socio-economic sectors. Bangladesh has maintained robust growth in the economy during the last decade. He also cited the excellent achievement of Bangladesh in agricultural sector. The Foreign Minister mentioned that Bangladesh exports various goods to the African countries including RMG, leather, jute and pharmaceutical products.

            The Foreign Minister of Comoros commended the excellent economic performance of Bangladesh. He mentioned that Comoros would consider importing RMG and other products from Bangladesh.

            Mentioning that both Bangladesh and Comoros are growing economies, The Comoran Foreign Minister said, both countries may enhance cooperation in trade and economic sectors. He underlined the importance of signing a trade agreement between the two countries. The Comoran Foreign Minister also proposed that the Comoran officials may be trained in natural gas exploration field at Bangladesh institutes.

            The Comoran Foreign Minister also showed interest in visiting some pharmaceuticals and garment industries in Bangladesh. Bangladesh side proposed that there may be direct trade of goods like spices and vanilla from Comoros to Bangladesh. It was also agreed that there would be exchanges of visits between business delegations of the two countries. As IORA members States, both countries expressed intention to continue cooperation under the framework of IORA.

#

Mohsin Reza/Anasuya/Parikshit/Shammi/Kutub/2021/1100 Hrs  

 

 

 

তথ্যবিবরণী                                                                                                    নম্বর : ৫৪৫০


দেশে চর্মরোগীদের জন্য আলাদা ইনস্টিটিউট করা হবে

                                                -স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক


ঢাকা, ২ অগ্রাহায়ণ (১৭ নভেম্বর) :


          দেশে চর্মরোগে আক্রান্তদের চিকিৎসায় আলাদা অত্যাধুনিক একটি ডার্মাটোলজি ইনস্টিটিউট হবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক । এ প্রসঙ্গে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, অন্যান্য রোগের ন্যায় দেশে চর্ম ও যৌন রোগের সংখ্যাও আশঙ্কাজনকভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। চিকিৎসকদেরও দাবি একটি ইনস্টিটিউট প্রতিষ্ঠার। কাজেই, বর্তমান সরকারের ক্ষমতাকালেই দেশে চর্মরোগীদের জন্য আলাদা একটি ইনস্টিটিউট করা হবে।

          গতকাল রাজধানীর হোটেল সোনারগাঁওয়ে বাংলাদেশ অ্যাকাডেমি অভ্ ডার্মাটোলজি বিভাগ আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

          মন্ত্রী বলেন, স্বাস্থ্যখাতকে ডিজিটালাইজড করার চেষ্টাও চলছে। আটটি নতুন হাসপাতাল নির্মাণের কাজ চলছে। সেগুলোতে প্রায় তিন হাজার কোটি টাকা খরচ করা হবে। আমরা শেখ হাসিনা বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক ইনস্টিটিউট তৈরি করেছি, সেখানেও চর্ম রোগের চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

          টিকা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব কমাতে আমরা ২১ কোটি ডোজ টিকা কিনেছি। চলতি মাসেই তিন কোটি ডোজ টিকা দেওয়ার পরিকল্পনা সরকারের রয়েছে। ইতোমধ্যে আমরা ১১ কোটি টিকা হাতে পেয়েছি। পাঁচ কোটিরও বেশি মানুষকে প্রথম ও দ্বিতীয় ডোজ টিকা দেওয়া হয়েছে। সব মিলিয়ে ইতোমধ্যেই প্রায় নয় কোটি ডোজ ভ্যাক্সিন দেয়া হয়ে গেছে। বর্তমানে দৈনিক ১৫ লাখ ডোজ টিকা দেওয়া হচ্ছে। বস্তিবাসীকেও টিকার আওতায় আনা হচ্ছে। চিকিৎসা ব্যবস্থাও উন্নত করা হয়েছে। এগুলোর কারণে, দেশে করোনা এখন নিয়ন্ত্রণে চলে এসেছে।

          অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ অ্যাকাডেমি অভ্ ডার্মাটোলজির সভাপতি ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএমএমএমইউ) চর্মরোগ ও যৌনব্যাধি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. মো. শহীদুল্লাহ সিকদারের সভাপতিত্বে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিএসএমএমইউয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. মো. শারফুদ্দিন আহমেদ, বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের (বিএমএ) সভাপতি অধ্যাপক ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, বাংলাদেশ অ্যাকাডেমি অভ্ ডার্মাটোলজির জেনারেল সেক্রেটারি ডা. মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম ভূইয়া প্রমুখ।

#

মাইদুল/অনসূয়া/পরীক্ষিৎ/শাম্মী/মাসুম/২০২১/১০ ঘণ্টা

 

2021-11-17-16-35-90c02feb548f1b9bdc59d498fadbb7ff.doc 2021-11-17-16-35-90c02feb548f1b9bdc59d498fadbb7ff.doc

Share with :

Facebook Facebook