তথ্য অধিদফতর (পিআইডি) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ২১st মে ২০২২

তথ্যবিবরণী ২১ মে ২০২২

তথ্যবিবরণী                                                                                                       নম্বর : ২০৪৫

 

মহাকাশ বিজ্ঞানী ড. এ এম চৌধুরীর মৃত্যুতে

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী এবং সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রীর শোক

 

ঢাকা, ৭ জ্যৈষ্ঠ (২১ মে) :

 

          বিশিষ্ট মহাকাশ বিজ্ঞানী ও দুর্যোগ পূর্বাভাস বিশেষজ্ঞ ড. এ এম চৌধুরীর মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান এবং সংস্কৃতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ।

 

          পৃথক শোকবার্তায় মন্ত্রী এবং প্রতিমন্ত্রী বলেন, ৭০-এর দশক থেকে তাঁর যুগান্তকারী মডেলগুলোর সাথে ঘূর্ণিঝড়ের ভবিষ্যৎ বাণীতে মূল অবদানের জন্য বাংলাদেশ মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্রের সাবেক এই চেয়ারম্যান ১৯৯৮ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাত থেকে দেশের সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মান ‘স্বাধীনতা পদক’ গ্রহণ করেন। এছাড়া বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল (বিসিসি)-এর নির্বাহী পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করায় নাসা গ্রুপ অ্যাচিভমেন্ট পুরস্কার অর্জন করেন।

 

          বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান এবং সংস্কৃতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

 

#

 

বিবেকানন্দ/এনায়েত/সঞ্জীব/সেলিম/২০২২/২২১৫ ঘণ্টা

 

 

তথ্যবিবরণী                                                                                                       নম্বর : ২০৪৪

 

২০২৩ সালে মুন্সিগঞ্জে বিসিক কেমিক্যাল শিল্পপার্কের প্লট বরাদ্দ দেওয়া হবে

                                                                               -- শিল্পমন্ত্রী

 

সিরাজদিখান (মুন্সিগঞ্জ), ৭ জ্যৈষ্ঠ (২১ মে) :

 

          শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন বলেছেন, ২০২৩ সালের জুনের মধ্যে মুন্সিগঞ্জে বিসিক কেমিক্যাল শিল্পপার্কের প্লট বরাদ্দ দেওয়া হবে। মুন্সীগঞ্জে বিসিক কেমিক্যাল শিল্পপার্ক, বিসিক মুদ্রণ শিল্পপার্ক, বিসিক হালকা প্রকৌশল ও বৈদ্যুতিক পণ্য উৎপাদন শিল্পপার্ক, বিসিক প্লাস্টিক শিল্প পার্ক বাস্তবায়িত হচ্ছে। এছাড়া ইতোমধ্যে বিসিক এপিআই শিল্পপার্ক বাস্তবায়িত হয়েছে। ফলে মুন্সীগঞ্জ জেলা মাল্টিসেক্টরাল শিল্প হাব হিসেবে গড়ে উঠবে। তিনি বলেন, মুন্সীগঞ্জের বিসিক কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিয়াল পার্কে প্রত্যক্ষভাবে ৮০ হাজার মানুষের কর্মসংস্থান হবে। সব মিলিয়ে পরোক্ষভাবে সাড়ে ৪ লাখ মানুষের কর্মসংস্থান সৃষ্টি করবে এই শিল্পপার্ক।

 

          আজ মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখানে ইছামতি নদীর তীরে কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিয়াল পার্ক পরিদর্শনে এসে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

 

          এ সময় শিল্প সচিব জাকিয়া সুলতানা, বিসিক চেয়ারম্যান মুহা. মাহবুবুর রহমান, শিল্প মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব নূরুল আলম, যুগ্ম সচিব আনোয়ারুল আলম, মুন্সিগঞ্জের জেলা প্রশাসক কাজী নাহিদ রসুল, প্রকল্প পরিচালক মুহাম্মদ  হাফিজুর রহমান  প্রমুখ  উপস্থিত ছিলেন।

 

#

 

মাহমুদুল/এনায়েত/সঞ্জীব/সেলিম/২০২২/২১১০ ঘণ্টা

 

তথ্যবিবরণী                                                                                                       নম্বর : ২০৪৩

 

সিলেটের বন্যাকবলিত তিন উপজেলায় প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রীর ত্রাণ বিতরণ

 

সিলেট, ৭ জ্যৈষ্ঠ (২১ মে) :

 

          প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ আজ সারা দিন সিলেটের কোম্পানিগঞ্জ, গোয়াইনঘাট ও জৈন্তাপুরের বন্যাকবলিত এলাকায় ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করেন। ত্রাণসামগ্রী বিতরণের পর মন্ত্রী বন্যা দুর্গতদের সাথে মতবিনিময় করেন।

 

          ত্রাণ বিতরণকালে মন্ত্রী বলেন, যেকোনো দুর্যোগে দেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আপনাদের পাশে রয়েছেন। তিনি আরো বলেন, বন্যাদুর্গতদের জন্য পর্যাপ্ত পরিমাণে ত্রাণসামগ্রীর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

 

          এই আকস্মিক বন্যায় এলাকার রাস্তা-ঘাটসহ জনগণের ঘর-বাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, বন্যার পানি নেমে যাওয়ার পরে ক্ষতিগ্রস্ত রাস্তাঘাট মেরামত ও বন্যার্তদের পুনর্বাসনের দ্রুত উদ্যোগ নেওয়া হবে।

 

          ত্রাণ বিতরণকালে মন্ত্রীর সাথে আরো উপস্থিত ছিলেন সিলেটের জেলা প্রশাসক মোঃ মুজিবুর রহমান, জেলা পরিষদের প্রশাসক মোঃ জয়নাল আবেদীন, কোম্পানিগঞ্জ, গোয়াইনঘাট ও জৈন্তাপুর উপজেলার চেয়ারম্যান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এবং স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানবৃন্দ প্রমুখ।

 

#

 

রাশেদুজ্জামান/এনায়েত/সঞ্জীব/সেলিম/২০২২/২১০০ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                                    নম্বর : ২০৪২

 

  বঙ্গবন্ধুর হত্যাকাণ্ড একটি দেশকে হত্যা করার সুগভীর ষড়যন্ত্র ছিল

                                               ---নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী

 

বিরল (দিনাজপুর), ৭ জ্যৈষ্ঠ (২১ মে):  

 

নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেছেন, শিক্ষা ছাড়া একটি দেশ কখনও মাথা উঁচু করে দাঁড়াতে পারে না। সে উপলব্ধি থেকে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান দেশ স্বাধীনের পর বাংলাদেশের শিক্ষা ব্যবস্থা কী হবে-সেজন‍্য বিখ্যাত বিজ্ঞানী ড. কুদরত ই খুদাকে দিয়ে একটি শিক্ষা কমিশন গঠন করেছিলেন এবং এই শিক্ষা কমিশনের রিপোর্ট সরকারের কাছে দেয়া হয়েছিল, কিন্তু সেটা আর বাস্তবায়ন হয় নাই। কারণ ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়েছে। এই নির্মম হত্যাকাণ্ড একজন ব্যক্তি কিংবা একটি পারিবারিক হত্যাকাণ্ড নয়। এই হত্যাকাণ্ড একটি দেশকে হত্যা করার সুগভীর ষড়যন্ত্র ছিল।

নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী আজ দিনাজপুরের বিরলের রামপুর উচ্চ বিদ্যালয় ও কানাইবাড়ী উচ্চ বিদ্যালয়ের ৪ তলা ভিতবিশিষ্ট ১ তলা একাডেমিক ভবন নির্মাণ কাজের ভিত্তিপ্রস্তরের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমাদের মুক্তিযদ্ধ ছিল আমাদের গর্ব ও অহংকারের। এই মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে আমরা পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীকে পরাজিত করেছি। একটি অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ বিনির্মাণ এবং বাংলাদেশ একটি সোনার বাংলা হবে, বিশ্ব ভূখন্ডে মাথা উঁচু করে দাঁড়াবে, এটাইতো ছিল আমাদের স্বপ্ন। বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করার মধ্য দিয়ে আমরা দেখলাম একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধে যারা গণহত্যা সংঘটিত করেছে, মা-বোনের ইজ্জত লুন্ঠন করেছে, তাদের বিচারের জন্য যে দালাল আইন করা হয়েছিল সেই দালাল আইন বাতিল করে দেয়া হলো এবং ঐ দালালদেরকে ও অপরাধীদেরকে রাজনীতিতে পুনর্বাসিত করা হলো। পাশাপাশি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের খুনিদের বিচার করা যাবে না সংবিধানের মধ্যে ইনডেমনিটি এ্যাক্ট ঢুকিয়ে দেয়া হলো। এর মধ্য দিয়ে একটি গর্বিত জাতির গর্বিত যে ইতিহাস সেই ইতিহাসকে ভূলণ্ঠিত করা হলো।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, জিয়াউর রহমান বলেছিলেন, ‘রাজনীতি আমি জটিল করে দিবো, রাজনীতিবিদদের জন্য’। রাজনীতি যদি জটিল হয়ে যায়, কেমন হয়? এইরকম একটি জটিল অবস্থা জিয়াউর রহমান বাংলাদেশে তৈরি করতে চেয়েছিল। বাংলাদেশে একটি জটিল অবস্থা তৈরি করতে কিছু মুক্তিযোদ্ধা, কিছু রাজাকার, কিছু খুনি, কিছু বামপন্থী, কিছু ডানপন্থী, নিয়ে একটি রাজনৈতিক দল গঠন করলেন। তাদের কাজই হলো বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে উল্টোদিকে ঘুরিয়ে দেয়া। এই ধারাবাহিকতা একুশ বছর যাবৎ বজায় রয়েছে। এই ধারাবাহিকতার মধ্যে একমাত্র বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ যুদ্ধ করেছে। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ আজ উন্নয়নের রোল মডেলে পরিণত হয়েছে।   

রামপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের সভাপতি ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রমা কান্ত রায়ের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেব উপস্থিত ছিলেন জেলা শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরে নির্বাহী প্রকৌশলী এ এস এম শাহিনুর ইসলাম।

এর আগে প্রতিমন্ত্রী ৪ নং শহরগ্রাম ইউনিয়নের নওপাড়া গ্রামে স্বর্গীয় বীর মুক্তিযোদ্ধা অমল চন্দ্র রায়ের বিদেহী আত্মার সৎ গতি ও শান্তি কামনার্থে আদ্যশ্রাদ্ধ অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ এবং পরে উপজলা পরিষদ চত্বরে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর কর্তৃক স্থানীয় কৃষকদের মাঝে কম্বাইন হারভেস্টর বিতরণ, বিরল মডেল সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জাতীয় গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট বালক (অনূর্ধ্ব-১৭) এর চূড়ান্ত খেলার পুরস্কার বিতরণ এবং শ্রী শ্রী কান্তজিউ মন্দিরে মহানামযজ্ঞ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।

                                         #

জাহাঙ্গীর/পাশা/এনায়েত/সঞ্জীব/আব্বাস/২০২২/২১০০ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                       নম্বর : ২০৪১

জনগণ সময়মতো বিচার না পেলে বিচার বিভাগের ওপর আস্থা হারাবে

                                                                     -- আইনমন্ত্রী

ঢাকা, ৭ জ্যৈষ্ঠ (২১ মে) :

          মামলার জট কমিয়ে আনতে বার বার সময় চেয়ে আবেদন না করতে আইনজীবীদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক। তিনি বলেন, বলা হতো- সিভিল কেস বেগুন খেতের মতো। এটা প্রচলিত ছিল। এই অবস্থার পরিবর্তন করতে হবে। জনগণ সময়মতো বিচার না পেলে বিচার বিভাগের ওপর আস্থা হারাবে।

          আজ রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে আইন ও বিচার বিভাগের আয়োজনে মামলাজট নিরসনে জিপি (গভর্নমেন্ট প্লিডার) ও পিপি (পাবলিক প্রসিকিউটর) গণের সাথে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন মন্ত্রী।

          মন্ত্রী বলেন, সারা বিশ্বে মামলাজট এক বিরাট সমস্যা হিসেবে চিহ্নিত হয়েছে। মামলাজট থেকে বেড়িয়ে আসার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার অনেক রকম পদক্ষেপ নিয়েছে। আরো অনেক পদক্ষেপ নিতে যাচ্ছে। এর অংশ হিসেবে দেওয়ানী কার্যবিধির (সিপিসি)  কিছু ধারা সংশোধনের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। তিনি বলেন, সিপিসি যখন তৈরি করা হয়েছিল তখন প্রযুক্তির এত উন্নয়ন হয়নি। প্রযুক্তির উন্নয়নের কারণে এখন বাংলাদেশ থেকে আমেরিকায় খবর পাঠাতে সময় লাগে কয়েক সেকেন্ড। পৃথিবী যখন এত এগিয়ে গেছে, আমার মনে হয় সিপিসির যেখানে বলা আছে অমুকটার জন্য ৪৫ দিন সময় দিতে হবে, অমুকটার জন্য ৬০ দিন সময় দিতে হবে। এত সময়ের আর প্রয়োজন নেই। তিনি বলেন, আদালত ও বিচারক সংখ্যা বাড়ানোর উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। সাক্ষ্য আইন যুগোপযোগী করা হচ্ছে। এই আইনের ১৫৫(৪) ধারা বাতিল করা হচ্ছে।  এনআই অ্যাক্ট, ১৮৮১ সংশোধনের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এছাড়া বিকল্প বিরোধ নিষ্পত্তির (এডিআর) ওপর জোর দেওয়া হয়েছে। তিনি বলেন, দেওয়ানী আদালতগুলোতে অনেক আপষযোগ্য মামলা দীর্ঘদিন যাবৎ পড়ে রয়েছে। এই মামলাগুলো এডিআর পদ্ধতিতে নিষ্পত্তির ব্যবস্থা করা গেলে মামলাজট অনেক কমে আসবে।

          ডিজিটাল সিকিউরিটি অ্যাক্ট প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সংবিধানে সংযোজন করে দিয়ে গিয়ে গেছেন সংবাদ মাধ্যমের স্বাধীনতার কথা, যেটা অনেক গণতান্ত্রিক দেশের সংবিধানে নেই। বঙ্গবন্ধু এটা সংবিধানে মৌলিক অধিকার হিসেবে সংযোজন করে দিয়ে গেছেন।  তার কন্যার সরকার এমন কোনো আইন করবে না, যাতে বাক-স্বাধীনতা বা গণমাধ্যমের স্বাধীনতা ব্যাহত হয়। আমরা সেটা করিনি।  তিনি বলেন, প্রযুক্তির উন্নয়নের সঙ্গে সঙ্গে কিছু সমস্যারও সৃষ্টি হয়েছে। সেসব সমস্যা হলো সাইবার ক্রাইম। আমরা সে জন্য ডিজিটাল সিকিউরিটি অ্যাক্ট করেছি।

          মন্ত্রী বলেন, ডিজিটাল সিকিউরিটি অ্যাক্ট করার পরে কিছু মিসইউজ এবং অ্যাবিউজ যে হয়নি তা তো নয়। তিনি বলেন, আগে দেখা যেত, থানায় ডিজিটাল সিকিউরিটি অ্যাক্টে মামলা হলেই একজন সাংবাদিককে গ্রেপ্তার করা হতো। আমি সেখানেও বলেছি যাতে এই মামলা করার সঙ্গে সঙ্গে যেন কাউকে গ্রেপ্তার না করা হয়। আদালত যদি মনে করেন এটা অত্যন্ত গর্হিত অপরাধ তাহলে, সে রকম ব্যবস্থা নেবে। আর যদি মনে করেন, সমন দিলেই যথেষ্ট, সমন দেবেন। তাই বলে ডিজিটাল সিকিউরিটি অ্যাক্ট বাতিল করে ফেলতে হবে, আমি এটা সমর্থন করি না। আইনজীবীদের উদ্দেশ্যে আইনমন্ত্রী বলেন, আপনারা আগে দেখবেন ডিজিটাল সিকিউরিটি অ্যাক্টে কোনো একটি ঘটনায় আদৌ মামলা হয়েছে কি না। তারপর সেটা বিবেচনা করবেন।

          আইন ও বিচার বিভাগের সচিব মোঃ গোলাম সারওয়ারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় দেশের আট বিভাগের আটজন জিপি ও আটজন পিপি মামলাজট নিরসনের বিষয়ে নিজেদের মতামত ব্যক্ত করেন।

#

রেজাউল/পাশা/এনায়েত/সঞ্জীব/সেলিম/২০২২/১৯৫০ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                            নম্বর : ২০৪০

 

ত্রাণ প্রতিমন্ত্রীর সাথে ইউএনএইচসিআর প্রতিনিধিদলের সাক্ষাৎ

 

ঢাকা, ৭ জ্যৈষ্ঠ (২১ মে):

 

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. মোঃ এনামুর রহমানের সাথে আজ বাংলাদেশ সচিবালয়ে তাঁর দপ্তরে ইউএনএইচসিআর হাইকমিশনার Filippo Grandi এর নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধিদল সাক্ষাৎ করে।

সাক্ষাৎকালে কক্সবাজারের শরণার্থী ও তাদের শিশুদের লেখাপড়া, ক্যাম্পসমূহের অতি ঘনবসতি এবং আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা হয়।

প্রতিমন্ত্রী মিয়ানমারের জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত নাগরিক রোহিঙ্গাদের তাদের নিজ দেশে প্রত্যাবর্তনের ওপর গুরুত্বারোপ করেন| সাক্ষাৎকালে প্রতিমন্ত্রী বলেন, রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠী তাঁদের নিজ দেশে প্রত্যাবর্তনের পর যাতে হাতে-কলমে কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করতে পারে সেলক্ষ্যে তাদেরকে কারিগরি ও অন্যান্য বিষয়ে লেখাপড়ার ওপর গুরুত্ব দিয়ে সরকার কাজ করছে । তিনি বলেন, কক্সবাজারের রোহিঙ্গা ক্যাম্পে প্রতিবছর হাজার হাজার নতুন শিশু জন্ম নিচ্ছে, এতে প্রতিবছরই রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। মিয়ানমার যেহেতু এ সমস্যা সৃষ্টি করেছে তাই তাদেরকেই এ সমস্যার সমাধানে এগিয়ে আসতে হবে। রোহিঙ্গা শরণার্থীদের নিজ দেশে প্রত্যাবর্তনে মিয়ানমারের ওপর চাপ সৃষ্টির লক্ষ্যে বিশ্ব জনমত গঠনে এগিয়ে আসতে প্রতিমন্ত্রী বিশ্ব নেতৃবৃন্দের প্রতি আহ্বান জানান।

প্রতিনিধিদলের নেতা বাংলাদেশ কর্তৃক রোহিঙ্গাদের কারিগরিসহ শিক্ষার ব্যবস্থা নেয়ায় সরকারের প্রশংসা করেন।

এ সময় মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ কামরুল হাসান উপস্থিত ছিলেন।

 

#

সেলিম/পাশা/এনায়েত/সঞ্জীব/আব্বাস/২০২২/১৯০৩ ঘণ্টা

 

 

 

তথ্যবিবরণী                                                                                            নম্বর : ২০৩৯

 

ওরাকল ডিসেম্বরের মধ্যে বাংলাদেশে তাদের কার্যক্রম

শুরু ও ওরাকল একাডেমি স্থাপনের আগ্রহ প্রকাশ

 

ঢাকা, ৭ জ্যৈষ্ঠ (২১ মে):

 

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক বহুজাতিক কম্পিউটার প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান ওরাকল কর্পোরেশন চলতি বছরের ডিসেম্বরের মধ্যে বাংলাদেশে তাদের কার্যক্রম শুরু করবে। এছাড়া কম্পিউটার হার্ডওয়্যার সিস্টেম এবং এন্টারপ্রাইজ সফটওয়্যার পণ্যতে পারদর্শী এই প্রতিষ্ঠানটি বাংলাদেশের মাটিতে স্থাপন করতে যাচ্ছে ওরাকল একাডেমি। প্রতিষ্ঠানটি ইতোমধ্যে বাংলাদেশের ই-গভর্নমেন্ট অ্যাপ্লিকেশনের জন্য জি-ক্লাউড স্থাপনে ৪ টায়ার ডেটা সেন্টারে বিনিয়োগ করেছে।

আইসিটি বিভাগের সাথে যৌথ অংশীদারিত্বে বাংলাদেশ আয়োজন করবে জাতীয় পর্যায়ের হ্যাকাথন।

সিঙ্গাপুরে অবস্থিত ওরাকল অফিসে গতকাল তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলকের সাথে দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে এ আগ্রহের কথা জানান প্রতিষ্ঠানটির জাপান ও এশিয়া প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের প্রেসিডেন্ট গ্যারেট। 

বৈঠকে বাংলাদেশ প্রতিনিধিদলে ছিলেন স্টার্টআপ বাংলাদেশে লি. এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক সামি আহমেদ, ওরাকল ক্লাউড প্ল্যাটফর্মের সিনিয়র সেলস ডিরেক্টর অ্যানি টিও এবং ক্লাউড প্ল্যাটফর্ম ব্যবসার কান্ট্রি ডিরেক্টর আরশাদ ও ওরাকলের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠকের পর ওরাকলে কর্মরত বেশ কয়েকজন বাংলাদেশির সাথে দেখা করেন আইসিটি প্রতিমন্ত্রী।  এ সময় ওরাকলে তাদের চমৎকার পারফরম্যান্সের কথাও প্রকাশ করেন প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপনা পর্ষদের শীর্ষ কর্মকর্তারা।

 

#

শহিদুল/পাশা/এনায়েত/সঞ্জীব/আব্বাস/২০২২/১৮৪১ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                  নম্বর : ২০৩৮

কোভিড-১৯ সংক্রান্ত সর্বশেষ প্রতিবেদন

 

ঢাকা, ৭ জ্যৈষ্ঠ (২১ মে) :

 

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এবং রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউট (আইইডিসিআর)-এর তথ্যানুযায়ী গতকাল শুক্রবার সকাল ৮টা থেকে শনিবার সকাল ৮টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ১৬ জনের শরীরে করোনা সংক্রমণ পাওয়া গেছে। নমুনা পরীক্ষার বিপরীতে রোগী শনাক্তের হার শূন্য দশমিক ৪১ শতাংশ। এ সময়
৩ হাজার ৯২৭ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে।    

গত ২৪ ঘণ্টায় কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত হয়ে একজনের মৃত্যু হয়েছে। এ পর্যন্ত ২৯ হাজার ১২৮ জন করোনায় মৃত্যুবরণ করেছেন। করোনাভাইরাস আক্রান্তদের মধ্যে এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ১৯ লাখ ৭৪৭ জন।

#

কবীর/পাশা/এনায়েত/সঞ্জীব/রেজাউল/২০২২/১৭৫০ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                            নম্বর : ২০৩৭

 

মহাকাশ বিজ্ঞানী ড. এ এম চৌধুরীর মৃত্যুতে টেলিযোগাযোগ মন্ত্রীর শোক

 

ঢাকা, ৭ জৈষ্ঠ (২১ মে):

 

বিশিষ্ট মহাকাশ বিজ্ঞানী ও দুর্যোগ পূর্বাভাস বিশেষজ্ঞ ড. এ এম চৌধুরী’র মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার।

ড. এ. এম চৌধুরী বার্ধক্যজনিত কারণে গত বৃহস্পতিবার রাজধানী ঢাকার ধানমন্ডির নিজ বাসভবনে মৃত্যুবরণ করেছেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮১ বছর। মরহুম ড. এ. এম চৌধুরী এটুআই’র পলিসি এডভাইজার আনীর চৌধুরীর পিতা।

সিঙ্গাপুরে সফররত ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী আজ এক শোকবার্তায়  বলেন, ৭০-এর দশক থেকে তাঁর যুগান্তকারী মডেলগুলোর সাথে ঘূর্ণিঝড়ের ভবিষ্যদ্বাণীতে মূল অবদানের জন্য বাংলাদেশ মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্রের সাবেক এই চেয়ারম্যান ১৯৯৮ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাত থেকে দেশের সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মান ‘স্বাধীনতা পদক’ গ্রহণ করেন। এছাড়া বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের (বিসিসি) নির্বাহী পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করায় নাসা গ্রুপ অ্যাচিভমেন্ট পুরস্কার অর্জন করেন। তিনি বলেন, অসামান্য মেধাবী ড. এ. এম চৌধুরী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াকালীন সময়ে সে সময়ের শ্রেষ্ঠ রাজা কালী নারায়ণ বৃত্তির অধিকারী ছিলেন। নবেল বিজয়ী পদার্থবিজ্ঞানী অধ্যাপক আব্দুস সালামের সাথে কাজ করেছেন এই গুণীজন। গাণিতিক পদ্ধতিতে দুর্যোগের পূর্বাভাস নিয়ে তিনি দীর্ঘ সময় কাজ করেছেন বলে মন্ত্রী উল্লেখ করেন। ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী বলেন, ড. এ. এম চৌধুরী তার কাজের মাধ্য দিয়ে চিরঅম্লান হয়ে থাকবেন যুগ –যুগ মহাকাল। তার শূন্যতা পূরণ হবার নয়।

মন্ত্রী মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

                                                                   #

শেফায়েত/পাশা/সঞ্জীব/আব্বাস/২০২২/১৭৫০ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                               নম্বর : ২০৩৬

 

বাঙালি জাতিকে পরিত্রাণ দিতে বঙ্গবন্ধু সারা জীবন সাধনা করে গেছেন

                                                     --মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী

 

পিরোজপুর, জ্যৈষ্ঠ ( ২১ মে) :

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম বলেছেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম না হলে বাংলাদেশ হতো না। এখনো পাকিস্তানের কলোনিতে আমরা থাকতাম। এ অসম্মান থেকে বাঙালি জাতিকে পরিত্রাণ দিতে বঙ্গবন্ধু সারা জীবন সাধনা করে গেছেন। প্রায় চৌদ্দ বছর কারা অন্তরালে ছিলেন। অপরদিকে বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব ছিলেন বঙ্গবন্ধুর সকল কর্মের প্রেরণাদাতা। বঙ্গবন্ধুর শক্তি ছিল বাংলাদেশের জনগণ আর প্রেরণাদায়ী ছিলেন বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব।

 

আজ পিরোজপুর জেলা স্টেডিয়ামে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জাতীয় গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট বালক (অনূর্ধ্ব-১৭) এর উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এসব কথা বলেন। পিরোজপুর সদর উপজেলা প্রশাসন এ অনুষ্ঠান আয়োজন করে।

 

এ সময় মন্ত্রী বলেন, ক্রীড়াই শক্তি। সুস্থ-সবল জাতি গড়তে ক্রীড়ার বিকল্প নেই। মাদক আর অপসংস্কৃতি থেকে জাতিকে দূরে রাখতে ক্রীড়ার কোনো বিকল্প নেই। ক্রীড়া খাতকে যত বেশি বিকশিত করা যাবে তত বেশি আমাদের উন্নয়ন হবে। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ক্রীড়াবান্ধব সরকারপ্রধান। ক্রীড়াক্ষেত্রে সম্পৃক্তদের জন্য তাঁর অপরিসীম আবেগ ও ভালোবাসা রয়েছে। তাঁর সময়ে রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতায় বাংলাদেশের ছেলে-মেয়েরা ক্রীড়াক্ষেত্রে সুনাম বয়ে এনেছে। ভবিষ্যতে এ পৃষ্ঠপোষকতা অব্যাহত থাকবে।

 

পিরোজপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বশির আহমদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে পিরোজপুরের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ জাহেদুর রহমান, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ সাঈদুর রহমান, জাতীয় নিরাপত্তা গোয়েন্দা সংস্থার যুগ্মপরিচালক আব্দুল কাদের, জেলা কৃষক লীগের সভাপতি চান মিয়া মাঝি, সাধারণ সম্পাদক দিলীপ কুমার মাঝি, জেলা ইমাম সমিতির সভাপতি ফারুক আবদুল্লাহ, জেলা আওয়ামী যুবলীগের সিনিয়র সহসভাপতি জাহিদ হোসেন পিরু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জিয়াউল আহসানসহ স্থানীয় অন্যান্য সরকারি দপ্তরের কর্মকর্তাবৃন্দ ও স্থানীয় রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

#

 

ইফতেখার/পাশা/এনায়েত/সঞ্জীব/রেজাউল/২০২২/১৭২৫ ঘণ্টা

 

তথ্যবিবরণী                                                                                              নম্বর : ২০৩৫  

নদী ভাঙন মোকাবিলায় আন্তরিকভাবে কাজ করতে হবে

                                       -এনামুল হক শামীম

চট্টগ্রাম, জ্যৈষ্ঠ ( ২১ মে) :

পানি সম্পদ উপমন্ত্রী একেএম এনামুল হক শামীম বলেছেন, সারাদেশে তীব্র নদী ভাঙনকবলিত ও ঝুঁকিপূর্ণ এলাকা চিহ্নিত করে স্থায়ী সমাধানে নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। চট্টগ্রামেই ৭ হাজার ২শ কোটি টাকার ১৩টি প্রকল্প চালু রয়েছে। আগামীতে ভাঙন মোকাবিলায় সর্বোচ্চ আন্তরিকতার সাথে কাজ করতে হবে। কাজের গুণগত মান বজায় রাখতে নিয়মিত মনিটরিং করা হচ্ছে। এক্ষেত্রে কোনো প্রকার অনিয়ম, দূর্নীতি ও গাফিলতি সহ্য করা হবে না।

আজ চট্টগ্রামে  পানি উন্নয়ন বোর্ডের দক্ষিন-পূর্বাঞ্চল জোনের কাজের অগ্রগতি বিষয়ে কর্মকর্তা কর্মচারীদের সাথে মত বিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

উপমন্ত্রী বলেন, নদীভাঙনরোধে পর্যায়ক্রমে ভাঙন কবলিত সব এলাকায় স্থায়ী প্রকল্প নেয়া হচ্ছে। এসব প্রকল্প সম্পন্ন হলে কয়েক বছরের মধ্যে মানুষ অনেকাংশে জলাবদ্ধতা ও নদী ভাঙন থেকে রক্ষা পাবে। উপকূল অঞ্চলে প্রতিটি বাঁধ প্রশস্ত ও উঁচু করা হচ্ছে, বনায়ন করা হচ্ছে। আর এসব স্থায়ী প্রকল্পে নদী খনন বাধ্যতামূলক করা হচ্ছে এবং তা রক্ষণাবেক্ষণের জন্য জনবলও বাড়ানো হয়েছে। যথাসময়ে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণের ফলেই গত ১৩ বছরে সারাদেশে নদী ভাঙনের পরিমাণ সাড়ে ৯ হাজার হেক্টর থেকে কমে সাড়ে ৩ হাজার হেক্টরে নেমেছে। হাওড় অঞ্চলেও ভাঙনরোধে কাজ করা হচ্ছে।

উপমন্ত্রী আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামীর বাসযোগ্য বিশ্বমানের সুবিধা সম্বলিত বাংলাদেশ গড়তে চান। সেজন্য তিনি ডেল্টাপ্লান-২১০০ বাস্তবায়নের ঘোষণা দিয়েছেন। আর এই মহাপরিকল্পনার সিংহভাগ কাজই পানিসম্পদ মন্ত্রণালয় বাস্তবায়ন করবে।

এসময় চট্টগ্রামের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী শিবেন্দু খাস্তগীর, নির্বাহী প্রকৌশলী তয়ন কুমার ত্রিপুরাসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও অফিস প্রধানগণ উপস্থিত ছিলেন।

#

গিয়াস/মেহেদী/জুলফিকার/মানসুরা/২০২২/১৪৪৫ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                              নম্বর : ২০৩৪

মানুষের বাইরের চেয়ে অন্তরের সৌন্দর্য জরুরি

                            -সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী

ঢাকা, ৭ জ্যৈষ্ঠ ( ২১ মে) :

          সংস্কৃতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ বলেছেন, প্রকৃতিগতভাবেই মানুষ সুন্দরের পূজারী, যা নারী-পুরুষ উভয়েই সঠিকভাবে প্রকাশ করতে আগ্রহী। দিনে একবার হলেও আয়নায় নিজের চেহারা দেখে না, এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া কঠিন। সৌন্দর্য সঠিকভাবে উপস্থাপনের মূল কারিগর বিউটিশিয়ানগণ। তবে মানুষের বাইরের চেয়ে অন্তরের সৌন্দর্যের বহিঃপ্রকাশ বেশি জরুরি।

প্রতিমন্ত্রী আজ রাজধানীর আগারগাঁওস্থ বাংলাদেশ পর্যটন কর্পোরেশনের শৈলপ্রপাত হলে হোয়াইট বাংলা ও এটিএন বাংলা আয়োজিত 'বেস্ট বিউটি এক্সপার্ট ২০২১' এর মিরপুর জোনের ফ্রি প্রশিক্ষণ ক্লাসের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, বর্তমানে আয়বর্ধক পেশা হিসেবে বিউটিশিয়ান ও মেকাপ আর্টিস্টদের যথেষ্ট চাহিদা রয়েছে। এ শিল্পের দ্রুত প্রসার ঘটছে। তাই এ খাতে বেসরকারি উদ্যোগের পাশাপাশি সরকারও বিভিন্নভাবে পৃষ্ঠপোষকতা প্রদান করছে।

'বেস্ট বিউটি এক্সপার্ট ২০২১' এর চেয়ারম্যান ও হোয়াইট বাংলা'র প্রধান নির্বাহি কর্মকর্তা তূর্য নাসির এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম বাবু, ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের উপপুলিশ কমিশনার বিপ্লব কুমার সরকার, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা উপকমিটির সদস্য রাশেদুল ইসলাম। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন অনুষ্ঠানের সমন্বয়ক হৃদয় সরকার।

#

হাসান/মেহেদী/জুলফিকার/মানসুরা/২০২২/১৪১০ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                     

2022-05-21-16-46-1703015ff38cf514ba2a6d36d3f22643.doc 2022-05-21-16-46-1703015ff38cf514ba2a6d36d3f22643.doc

Share with :

Facebook Facebook