তথ্য অধিদফতর (পিআইডি) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ১১ নভেম্বর ২০২১

তথ্যবিবরণী ১১ নভেম্বর ২০২১

তথ্যবিবরণী                                                                                                          নম্বর: ৫৩৭৩

 

মাহমুদ সাজ্জাদ ছিলেন একজন সজ্জন, বন্ধুবৎসল ও পরোপকারী মানুষ

 

ঢাকা, ২৬ কার্তিক (১১ নভেম্বর) :

 

          মাহমুদ সাজ্জাদ ব্যক্তিগত জীবনে ছিলেন একজন সজ্জন, বন্ধুবৎসল ও পরোপকারী মানুষ। তিনি ছিলেন সর্বদা হাসিখুশি। হাসি দিয়ে খুব সহজে মানুষকে আপন করে নিতে পারতেন। শক্তিমান এ অভিনেতার অভিনয়ের সকল শাখায় ছিল সুদীপ্ত পদচারণা।

 

          দেশবরেণ্য বিশিষ্ট অভিনেতা ও নাট্যব্যক্তিত্ব মরহুম মাহমুদ সাজ্জাদের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনায় অনুষ্ঠিত দোয়া ও মিলাদ মাহফিলে তাঁর স্মৃতিচারণ করে বক্তারা এসব কথা বলেন।

 

          বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালা ভবনের সেমিনার কক্ষে আজ বাদ মাগরিব মুক্তাগাছা উপজেলা উন্নয়ন সমন্বয় কমিটি আয়োজিত দোয়া ও মিলাদ মাহফিলে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন মরহুম মাহমুদ সাজ্জাদের ছোট ভাই ও সংস্কৃতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ।

 

          প্রধান অতিথি বলেন, মাহমুদ সাজ্জাদের মৃত্যুতে আমি একাধারে ভাই, বন্ধু ও পিতাকে হারালাম। তিনি তাঁর বড় ভাইয়ের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে মুক্তাগাছা উপজেলাবাসী-সহ সমগ্র দেশবাসীর নিকট দোয়া কামনা করেন।

 

          অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন মুক্তাগাছা উপজেলা উন্নয়ন সমন্বয় কমিটির সভাপতি ও সাবেক সচিব আব্দুল হক, বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব ও প্রতিমন্ত্রীর মেজো ভাই ম হামিদ, বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকী। এর আগে মরহুমের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে কোরানখানি অনুষ্ঠিত হয়।

 

#

 

ফয়সল/সাহেলা/এনায়েত/রফিকুল/সেলিম/২০২১/২২.৩০ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                                   নম্বর : ৫৩৭২

ইলিশ উৎপাদনে বাংলাদেশ এখন সারাবিশ্বে রোল মডেল

                                                             -- সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী

ঢাকা, ২৬ কার্তিক (১১ নভেম্বর) :

          সংস্কৃতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ বলেছেন, ইলিশ উৎপাদনে বাংলাদেশ এখন সারাবিশ্বে রোল মডেল। ২০০৮-৯ সালে দেশে ইলিশের উৎপাদন ছিল ২ লাখ ৯২ হাজার টন যা বৃদ্ধি পেয়ে ২০১৮-১৯ সালে ৫ লাখ ৩৩ হাজার টনে উন্নীত হয়েছে। অর্থাৎ গত এক যুগে ইলিশের উৎপাদন বেড়েছে প্রায় ৮৩ শতাংশ। ২০০৯ সালের আগে দেশের মাত্র ২১টি উপজেলার নদ-নদীতে ইলিশ পাওয়া যেত। বর্তমান ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সরকারের ইলিশবান্ধব বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণের ফলে বর্তমানে ১২৫টি উপজেলার নদ-নদীতে ইলিশ মাছ পাওয়া যাচ্ছে। প্রচুর ইলিশ ধরা পড়ায় দেশের সাধারণ মানুষ এখন ইলিশ কিনে খেতে পারছেন।

          প্রতিমন্ত্রী আজ রাজধানীর হোটেল পূর্বাণী ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেডের দিলকুশা হলে 'পদক্ষেপ বাংলাদেশ' আয়োজিত ‘আন্তর্জাতিক ইলিশ, পর্যটন ও উন্নয়ন উৎসব ২০২১’ এর উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

          প্রধান অতিথি বলেন, এ ভূখণ্ডে ইলিশের ইতিহাস অনেক পুরনো। তবে দ্বাদশ শতাব্দী থেকে এ দেশের রসনায় ইলিশের নিয়মিত উপস্থিতির কথা জানা যায়। তখন থেকেই ইলিশ বাঙালির আবেগের নাম। তিনি বলেন, ইলিশ মিশে আছে বাঙালির শোণিতে, শোভায়, মননে, মর্যাদায়।

          বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থা (বাসস) এর চেয়ারম্যান ও পদক্ষেপ বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী পরিষদের উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য অধ্যাপক আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তৃতা করেন নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের সচিব মোহাম্মদ মেজবাহ উদ্দিন চৌধুরী, বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) এর চেয়ারম্যান শ্যামসুন্দর সিকদার এবং বিশিষ্ট কথাসাহিত্যিক ও পদক্ষেপ বাংলাদেশ এর কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী পরিষদের উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য সেলিনা হোসেন।

          অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তৃতা করেন পদক্ষেপ বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী পরিষদের সভাপতি বাদল চৌধুরী। রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শুভেচ্ছা বাণী পাঠ করে শোনান যথাক্রমে স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের শিল্পী বুলবুল মহলানবীশ ও পদক্ষেপ বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী পরিষদের সাংস্কৃতিক সম্পাদক ড. চঞ্চল সৈকত।

#

ফয়সল/পাশা/সাহেলা/রাহাত/এনায়েত/রফিকুল/জয়নুল/২০২১/২০৪৫ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                     নম্বর:  ৫৩৭০

 

সৌদি রাষ্ট্রদূতের তাসখন্দে বাংলাদেশ দূতাবাস পরিদর্শন

 

তাসখন্দ (উজবেকিস্তান), ১১ নভেম্বর:  

 

          উজবেকিস্তানে সৌদি আরবের রাষ্ট্রদূত ইইসেফ সালেহ আল গাহরাহ আল ওতাইবি আজ তাসখন্দে বাংলাদেশ দূতাবাস পরিদর্শন করেন। দূতাবাসের রেকর্ড অনুযায়ী এটি প্রথম বারের মতো কোনো সৌদি রাষ্ট্রদূতের বাংলাদেশ দূতাবাস পরিদর্শন।

 

          পরিদর্শনকালে সৌদি রাষ্ট্রদূত বিভিন্ন অর্থনৈতিক সূচকে বাংলাদেশের সাম্প্রতিক অগ্রগতিতে বিশেষ আগ্রহ দেখান এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার যোগ্য নেতৃত্বে বাংলাদেশের উল্লেখযোগ্য উন্নয়নের ভূয়সী প্রশংসা করেন। আলাপকালে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মোঃ জাহাঙ্গীর আলম বাংলাদেশের সঙ্গে সৌদি আরবের নিবিড় সহযোগিতার বিষয়টি উল্লেখ করেন এবং দুই দেশের জনগণের মধ্যে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কের গুরুত্বের বিষয় তুলে ধরেন।

 

          বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত বাংলাদেশি নাগরিকদের জন্য ওমরা এবং ভিজিট ভিসা সহজীকরণের বিষয়ে আলাপ করেন এবং এ ক্ষেত্রে বাধাসমূহ সহজীকরণে সৌদি রাষ্ট্রদূতের সহায়তা কামনা করেন। জবাবে সৌদি রাষ্ট্রদূত এ বিষয়ে সহায়তার আশ্বাস দেন।

 

          রাষ্ট্রদূত মোঃ জাহাঙ্গীর আলম রোহিঙ্গা শরণার্থী দ্রুত তাদের মাতৃভূমি মিয়ানমারে ফিরিয়ে নেয়ার বিষয়ে সৌদি আরবের সক্রিয় সহযোগিতা এবং সাহায্য কামনা করেন।

 

          সৌদি রাষ্ট্রদূত বাংলাদেশ দূতাবাসে স্থাপিত জেনোসাইড কর্নার এবং বঙ্গবন্ধু কর্নার পরিদর্শন করেন এবং দূতাবাসের পরিদর্শন বইতেও স্বাক্ষর করেন।

 

          এ সময় দূতাবাসের মিনিস্টার ও দূতালয় প্রধান নৃপেন্দ্র চন্দ্র দেবনাথ উপস্থিত ছিলেন।

         #

নৃপেন্দ্র/পাশা/সাহেলা/রাহাত/এনায়েত/রফিকুল/সেলিম/২০২১/২০.০০ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                                 নম্বর : ৫৩৬৯

 

বাংলাদেশকে যারা ব্যর্থ রাষ্ট্রে পরিণত করতে চেয়েছিল তারা নিজেরাই ব্যর্থ হয়েছে

                                                                         -- নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী

বিরল (দিনাজপুর), ২৬ কার্তিক (১১ নভেম্বর) :

           নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহ্মুদ চৌধুরী বলেছেন, স্বাধীনতার স্বপক্ষের শক্তি যেন রাষ্ট্র পরিচালনা করতে না পারে, স্বাধীনতার স্বপ্ন যেন বাস্তবায়ন না হয় সেজন্য ৭৫ এর ১৫ আগষ্ট বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যা করা হয়েছে। শুধু তাই নয় এই হত্যাকাণ্ডকে জায়েয করার জন্য ইনডেমনিটি আইন করে এ হত্যার বিচার বন্ধ করে দেয়া হয়েছিল, স্বাধীনতা বিরোধীদের পুরস্কৃত করা হয়েছিল। খুনি জিয়াসহ খালেদা ও এরশাদরা এই বাংলাদেশকে ব্যর্থ রাষ্ট্রে পরিণত করতে চেয়েছিল। কিন্তু তারা নিজেরাই ব্যর্থ হয়েছে।

          প্রতিমন্ত্রী আজ দিনাজপুরের বিরল কেন্দ্রীয় শহিদ মিনার চত্বরে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের ৪৯তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষ্যে আলোচনা সভায়  প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

          খালিদ মাহ্মুদ চৌধুরী বলেন, ১৯৭১ সনে মহান মুক্তিযুদ্ধের পরে সদ্য স্বাধীন বাংলাদেশকে পুনর্গঠিত করার সংকল্প  নিয়ে কাজ শুরু করেছিলেন বঙ্গবন্ধু। বাংলাদেশকে এগিয়ে নিতে বঙ্গবন্ধু যুবলীগ প্রতিষ্ঠা করার স্বপ্ন দেখেছিলেন। আর সেই স্বপ্ন বাস্তবায়ন করার দায়িত্ব দিয়েছিলেন মুজিব বাহিনীর সেই সময়ের রূপকার, যাকে বাংলাদেশের যুবকরা চীনের মাওসেতুং এর সঙ্গে তুলনা করতো। সেই মাওসেতুং খ্যাত শেখ ফজলুল হক মনিকে তিনি যুবলীগের চেয়ারম্যানের দায়িত্ব দিয়েছিলেন।

          প্রতিমন্ত্রী বলেন, স্বাধীনতা বিরোধী রাজাকার, আলবদর, আলশামস, স্বাধীনতাকে নস্যাৎ করে দেয়ার ষড়যন্ত্র করতে থাকে। স্বাধীনতা বিরোধীদের প্রতিহত করতে শেখ ফজলুল হক মনির নেতৃত্বে যুবলীগ দুর্বার গণআন্দোলন গড়ে সকল ষড়যন্ত্র ব্যর্থ করে দিয়েছিল। তিনি বলেন, ‘কিসিঞ্জার বলেছিল- বটমলেস বাস্কেট হচ্ছে বাংলাদেশ।’ ‘স্বাধীনতা বিরোধীরা বলেছিল-এই স্বাধীনতা বাংলাদেশ ধরে রাখতে পারবে না।’ আজকে সেই বাংলাদেশ প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এগিয়ে চলছে। সরকার মেগা প্রকল্প নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে।

          বিরল উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আব্দুল মালেকের সভাপতিত্বে ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বিরল উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পৌর মেয়র আলহাজ সবুজার সিদ্দিক সাগর, সাধারণ সম্পাদক রমাকান্ত রায়, সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল কাশেম অরু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোশারফ হোসেন ও মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা রহমান আলী, যুবলীগের সহসভাপতি মমিনুল ইসলাম মিন্টু, সাংগঠনিক সম্পাদক দিলিপ রায় , স্বেচ্ছাসেবক লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সুরজিৎ কুমার বাবুল ও ছাত্রলীগের সভাপতি সোহাগ বাবু।

#

জাহাঙ্গীর/পাশা/সাহেলা/রাহাত/এনায়েত/রফিকুল/জয়নুল/২০২১/২০৪০ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                                  নম্বর : ৫৩৬৮

গণমাধ্যম জাতির বিবেক ও সমাজের দর্পণ

                                             -- শিল্প প্রতিমন্ত্রী

ঢাকা, ২৬ কার্তিক (১১ নভেম্বর) :

          বাংলার প্রতিচ্ছবি স্লোগানে, সত্যকে তুলে ধরার অদম্য প্রেরণা নিয়ে ২০১০ সালের ১১ নভেম্বর স্যাটেলাইট টিভি চ্যানেল মোহনা টেলিভিশনের শুরু হয় পথচলা।

          আজ মোহনা ভবনে মোহনা টেলিভিশনের ১২ বছরে পদার্পণে জন্মদিনের কেক কাটেন প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান ও শিল্প প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার ও তাঁর কনিষ্ঠ পুত্র মোহনা টেলিভিশন লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক শাহেদ আহমেদ মজুমদার ।

          গণমাধ্যম জাতির বিবেক ও সমাজের দর্পণ উল্লেখ করে প্রতিমন্ত্রী বলেন, গণমাধ্যম সময়ের কথা বলে, অতীতের সাথে বর্তমানের যোগসূত্র স্থাপন করে এবং ভবিষ্যতে করণীয় বিষয়ে দিক নির্দেশনা দেয়। গণমাধ্যম কেবল তথ্য, বিনোদন ও সংবাদচিত্র জনসম্মুখে তুলে ধরে না, গণমানুষের বঞ্চনা ও চাওয়া-পাওয়ার কথা তুলে ধরে তাদের অধিকার প্রতিষ্ঠায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের শক্তির পক্ষে এবং বস্তুনিষ্ঠ, নিরপেক্ষ সংবাদ পরিবেশনের মাধ্যমে দর্শকের মণিকোঠায় স্থান করে নিতে সংবাদকর্মীদের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

          মোহনা টেলিভিশনকে আরো এগিয়ে নিতে স্বপ্নপূরণের প্রত্যয় জানান মোহনা টেলিভিশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক শাহেদ আহমেদ মজুমদার। মোহনা টেলিভিশনের অগ্রযাত্রা ও সাফল্য নিয়ে কথা বলেন বিভিন্ন বিভাগের কর্মকর্তারা।

          আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে আগামীতে দৃপ্ত পায়ে এগিয়ে যাবে মোহনা টেলিভিশন-এমনটাই প্রত্যাশা সবার।

#

রফিক/পাশা/সাহেলা/রাহাত/এনায়েত/রফিকুল/জয়নুল/২০২১/২০১০ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                                  নম্বর : ৫৩৬৭

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার করে ধর্মীয়

উন্মাদনা তৈরি করা হতে বিরত থাকার আহ্বান ধর্ম প্রতিমন্ত্রীর

                            

বাগেরহাট, ২৬ কার্তিক (১১ নভেম্বর) :

          ধর্ম প্রতিমন্ত্রী মোঃ ফরিদুল হক খান বলেছেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার করে দুষ্টুচক্র অনেক সময় ধর্মীয়  উন্মাদনা তৈরি করে সমাজে অশান্তি ও বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে। ধর্মীয় সম্প্রীতি  বিনষ্ট করে। এ অশুভ কাজ হতে সবাইকে বিরত থাকতে হবে। এ বিষয়ে দল, মত, ধর্ম নির্বিশেষে সকল জনগণকে সজাগ ও ঐক্যবদ্ধ  থাকতে হবে। তিনি বলেন, তথ্য যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারের বিষয়ে যুব সমাজকে আরো বেশি সতর্ক ও দায়িত্বশীল হতে হবে। কোনো ধরনের গুজব বা মিথ্যা তথ্য পেলে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে অবহিত করে সমস্যার সমাধান চাইতে হবে।

          আজ বাগেরহাট জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সভাকক্ষে ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয় আয়োজিত ‘ধর্মীয় সম্প্রীতি ও সচেতনতা বৃদ্ধিকরণ’ শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় অনুষ্ঠিত ধর্মীয় সম্প্রীতি ও সচেতনতামূলক আন্তঃধর্মীয় সংলাপ ও সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় প্রতিমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

          প্রতিমন্ত্রী বলেন, যারা দেশের মহান মুক্তিযুদ্ধের বিরোধিতা করেছিল, যারা জাতির পিতাকে হত্যা করেছিল, বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার জীবন নাশের চেষ্টা করেছিল, যারা দেশের  বর্তমান উন্নয়ন অগ্রযাত্রায় বিশ্বাস করে না, তারাই দেশে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির পরিবেশ বিনষ্ট করতে চায়। আগামী দিনে দেশে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির পরিবেশ অক্ষুণ্ন রাখতে সবাইকে সজাগ থাকতে হবে।

          সংলাপে  আলোচকবৃন্দ প্রাথমিক পর্যায় হতে শিক্ষার্থীদের মাঝে আন্তঃধর্মীয় ও সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিষয়ে শিক্ষা প্রদান, উপজেলা ও ইউনিয়ন পর্যায়ে নিয়মিত ভাবে আন্তঃধর্মীয় সংলাপ অনুষ্ঠানের আয়োজন, উপযুক্ত যোগ্যতা সম্পন্ন ব্যক্তিদের ইমাম হিসেবে নিয়োগ প্রদান এবং যেখানে সেখানে ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান ও উপাসনালয় না করে পরিকল্পিত বা উপযুক্ত স্থানে এ সকল প্রতিষ্ঠান স্থাপনের বিষয়ে সুপারিশ তুলে ধরেন।

          বাগেরহাট জেলা প্রশাসকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সংলাপ ও সেমিনারে বিশেষ  অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন বাগেরহাটের পুলিশ সুপার কে এম আরিফুর রহমান, ইসলামিক ফাউন্ডেশন খুলনা বিভাগীয়  কার্যালয়ের পরিচালক ফজলুল হক, বাগেরহাট জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ভূঁইয়া হেমায়েত উদ্দিন, সাংগঠনিক সম্পাদক মীর ফজলে সাঈদ বাবু, মোড়েলগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শহীদুল আলম বাচ্চু, চিতলমারী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অশোক কুমার বড়াল, মংলা উপজেলা প্রশাসনের নির্বাহী কর্মকর্তা কমলেশ মজুমদার, বাগেরহাট হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট মিলন ব্যানার্জি, বাগেরহাট পুরাতন কোর্ট মসজিদের খতিব মাওলানা রুহুল আমিন ও বাগেরহাট আলীয়া মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল মাওলানা আবুল কালাম।

#

আনোয়ার/পাশা/সাহেলা/রাহাত/এনায়েত/রফিকুল/জয়নুল/২০২১/১৯৫০ঘণ্টা 

তথ্যবিবরণী                                                                                                               নম্বর : ৫৩৬৬

অর্থমন্ত্রীর সঙ্গে জাতিসংঘের বিদায়ী আবাসিক

সমন্বয়ক এবং ইইউ’র নতুন রাষ্ট্রদূতের সাক্ষাৎ

ঢাকা, ২৬ কার্তিক (১১ নভেম্বর) :

          আজ বাংলাদেশ সচিবালয়ে অর্থমন্ত্রীর সঙ্গে বিদায়ী সাক্ষাৎ করেছেন বাংলাদেশে নিযুক্ত জাতিসংঘের আবাসিক সমন্বয়ক মিয়া সেপ্পো। অর্থনৈতিক অগ্রগতি, কোভিডকালিন অর্থনীতি এবং পুনরুদ্ধার, কর্মসংস্থান, নারীর উন্নয়ন, ক্ষমতায়ন ও সমতা অর্জনসহ বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়।

          অর্থমন্ত্রী বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আজীবনের স্বপ্ন ছিল একটি দারিদ্র্য ও শোষণমুক্ত সমৃদ্ধ সোনার বাংলাদেশ গড়ে তোলা। জাতির পিতার সেই অর্থনৈতিক দর্শন অনুসরণ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দৃঢ় নেতৃত্বে গত এক দশক গড়ে ৭ দশমিক ৪ ভাগ অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি অর্জিত হয়েছে। অতি সম্প্রতি অনুষ্ঠিত জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের সভায় টেকসই উন্নয়নে আন্তর্জাতিক সম্মেলন ২০২১-এ আমাদের উন্নয়ন প্রচেষ্টাকে স্বীকৃতি দিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে এসডিজি প্রগ্রেস অ্যাওয়ার্ডে ভূষিত করেছে। তিনি আগামী ২০৩০ সালের মধ্যে বাংলাদেশ ক্ষুধামুক্ত, দারিদ্র্যমুক্ত হবে বলে আশা প্রকাশ করেন।

          জাতিসংঘের আবাসিক সমন্বয়ক মিয়া সেপ্পো বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অগ্রগতি, নারীর কর্মস্থান ও নারী ক্ষমতায়নের প্রশংসা করেন এবং আগামীতে বাংলাদেশের সাথে জাতিসংঘের বিদ্যমান বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক আরো দৃঢ় হবে বলে আশা ব্যক্ত করেন। তিনি বাংলাদেশের সঙ্গে জাতিসংঘের দীর্ঘ কূটনৈতিক সুসম্পর্কের ধারাবাহিকতা উল্লেখ করে বলেন, জাতিসংঘ বাংলাদেশে নারী উন্নয়ন, নারীর ক্ষমতায়ন ও আর্থসামাজিক উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছে। বাংলাদেশের ৮ম পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনা এবং টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) অর্জনে জাতিসংঘ সহযোগিতা অব্যাহত রাখবে বলে মিয়া সেপ্পো জানান। তিনি বলেন, বাংলাদেশে চার বছরের কর্মকাল তার জীবনে উজ্জ্বল স্মৃতি হয়ে থাকবে। তিনি ঢাকায় অবস্থানকালে সার্বিক সহযোগিতার জন্য ধন্যবাদ জানান।

          এর পূর্বে অর্থমন্ত্রীর সাথে বাংলাদেশে নিযুক্ত ইউরোপীয় ইউনিয়নের নতুন রাষ্ট্রদূত Charles Whiteley সাক্ষাৎ করেন।

          অর্থমন্ত্রী স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশের শ্রেণিতে উত্তরণের পরও বাংলাদেশের জন্য বাণিজ্য ক্ষেত্রে প্রদত্ত অগ্রাধিকার সুবিধাদি অব্যাহত রাখার জন্য ইউরোপীয় ইউনিয়নের প্রতি আহ্বান জানান।

          ইউরোপীয় ইউনিয়নের নতুন রাষ্ট্রদূত চার্লস হোয়াইলি বলেন, বিভিন্ন খাতে বাংলাদেশের প্রতি ইইউয়ের সমর্থন ও সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে। বাংলাদেশের অভূতপূর্ব উন্নয়নের ভূয়সী প্রশংসা করে তিনি বলেন, ২০০৫ সাল থেকে ২০০৯ সাল আমি বাংলাদেশে ইউরোপীয় ইউনিয়নের পলিটিক্যাল, ইকোনমিক, ট্রেড, প্রেস এবং ইনফরমেশন বিভাগের প্রধান হিসাবে থাকাকালীন তখনকার বাংলাদেশের তুলনায় বর্তমান বাংলাদেশের উন্নয়ন আমাকে অভিভূত করেছে।

#

তৌহিদুল/পাশা/সাহেলা/রাহাত/এনায়েত/রফিকুল/জয়নুল/২০২১/১৯৩০ঘণ্টা 

তৌহিদুল/পাশা/সাহেলা/রাহাত/এনায়েত/রফিকুল/জয়নুল/২০২১/১৯৩০ঘণ্টা


তথ্যবিবরণী                                                                                     নম্বর:  ৫৩৬৫

 

বাংলাদেশ রেলওয়ের পশ্চিমাঞ্চলের বিভিন্ন স্টেশনের

উন্নয়ন কাজের উদ্বোধন করলেন রেলপথ মন্ত্রী

 

সৈয়দপুর, ২৬ কার্তিক (১১ নভেম্বর):  

          রেলপথ মন্ত্রী মোঃ নূরুল ইসলাম সুজন আজ মুজিববর্ষ উপলক্ষ্যে সারাদেশে ৫৫টি স্টেশন আধুনিকায়ন, প্ল্যাটফর্ম শেড নির্মাণ, অ্যাক্সেস কন্ট্রোল নিয়ন্ত্রণ, স্টেশন প্ল্যাটফর্ম উঁচু করাসহ যাত্রী সাধারণের আরামদায়ক ভ্রমণ নিশ্চিতকরণের লক্ষ্যে পশ্চিমাঞ্চলের বিভিন্ন স্টেশন আধুনিকায়ন কাজের উদ্বোধন করেন। একটি বিশেষ ট্রেন যোগে ঢাকা থেকে যাত্রা শুরু করে এসব স্টেশনের আধুনিকায়ন কাজের উদ্বোধন করেন মন্ত্রী।

          উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মন্ত্রী বলেন, বর্তমান সরকার রেলকে অধিক গুরুত্ব দিয়েছে। অনেক নতুন প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে। সারাদেশের সিঙ্গেল লাইনকে পর্যায়ক্রমে ডাবল লাইন করা হবে। রেলওয়েতে চলমান বেশ কয়েকটি উন্নয়ন প্রকল্পের কথা উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, চট্টগ্রাম থেকে কক্সবাজার পর্যন্ত নতুন রেললাইন, খুলনা থেকে মংলা পর্যন্ত রেললাইন নির্মাণ, যমুনা নদীর উপর আলাদা বঙ্গবন্ধু রেল সেতু নির্মাণ করা হচ্ছে। বগুড়া থেকে সিরাজগঞ্জ পর্যন্ত নতুন রেললাইন নির্মাণ করা হবে। ফলে উত্তরাঞ্চলের মানুষের যাতায়াতের সময় ও খরচ কমে যাবে। জয়দেবপুর থেকে ঈশ্বরদী পর্যন্ত ডাবল লাইন নির্মাণ প্রকল্প হাতে নেয়া হয়েছে। এটি বাস্তবায়িত হলে এই অঞ্চলে অধিক পরিমাণে ট্রেন চালানো সম্ভব হবে বলে মন্ত্রী উল্লেখ করেন।

          মন্ত্রী বলেন, বর্তমান সরকার বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের ক্ষুধামুক্ত, দারিদ্র্যমুক্ত, আত্মনির্ভরশীল জাতি গঠনের লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে। সরকার রেলওয়েকে একইভাবে আধুনিক উন্নত  যোগাযোগ ব্যবস্থা হিসাবে গঠনের লক্ষ্যে কাজ করছে। যাত্রীসেবার মানোন্নয়নে স্টেশনসমূহের আধুনিকায়ন করা হচ্ছে। স্টেশনের ওয়েটিং রুম, টয়লেট ব্যবস্থাপনাসহ সার্বিক উন্নয়ন ঘটানো হচ্ছ। 

          আজ যে সব স্টেশনের আধুনিকায়ন কাজের উদ্বোধন করছেন সেগুলো হচ্ছে টাঙ্গাইল, শহীদ মনসুর আলী, জামতৈল, উল্লাপাড়া, বড়াল ব্রিজ, চাটমোহর, নাটোর, সান্তাহার, জয়পুরহাট বিরামপুর, পার্বতীপুর, সৈয়দপুর, নীলফামারী ও ডোমার রেলওয়ে স্টেশন।

          এ সময় রেলপথ মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ সেলিম রেজা, বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাপরিচালক ধীরেন্দ্র নাথ মজুমদার, বাংলাদেশ রেলওয়ের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (অবকাঠামো) কামরুল আহসান, পশ্চিমাঞ্চলের মহাব্যাবস্থাপক মিহির কান্তি গুহসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

#

শরিফুল/পাশা/সাহেলা/রাহাত/এনায়েত/রফিকুল/সেলিম/২০২১/১৯.০০ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                   নম্বর:  ৫৩৬৪

 

জলবায়ু অর্থায়নে এখনো উন্নত দেশসমূহের আন্তরিকতার অভাব

                                                                                      -- ড. হাছান

ঢাকা, ২৬ কার্তিক (১১ নভেম্বর):  

          জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় প্রতিশ্রুত অর্থায়নে এখনো উন্নত দেশসমূহের আন্তরিকতা ও সদিচ্ছার অভাব রয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বিশ্ব জলবায়ু সম্মেলনে যোগদানরত  তথ্যমন্ত্রী ও পরিবেশ গবেষক ড. হাছান মাহ্‌মুদ। একইসাথে জলবায়ু পরিবর্তনে সৃষ্ট দুর্যোগ প্রশমন এবং পরিবর্তিত পরিবেশের সাথে অভিযোজনে সমান অর্থ বরাদ্দের জন্যও উন্নত দেশগুলোর প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

 

          ড. হাছান বলেন, জলবায়ু অর্থায়নে উন্নত দেশগুলোর নানান বাহনা ও দীর্ঘসূত্রিতা বাংলাদেশসহ সমগ্র বিশ্বকে বিপর্যয়ের দিকে ঠেলে দিচ্ছে। এর বড় প্রমাণ বাংলাদেশ জলবায়ু পরিবর্তনের নিষ্পাপ শিকার। অথচ এতে আমাদের দায় একেবারেই নগণ্য। শিল্পোন্নত ও ধনী দেশগুলো দায়ী হলেও তারা এর দায় নিচ্ছে না, বরং দায় এড়িয়ে যাচ্ছে।

 

          স্কটল্যান্ডের স্থানীয় সময় বুধবার সন্ধ্যায় কপ ২৬ এর বাংলাদেশ প্যাভিলিয়নে প্যারিস চুক্তির আর্থিক স্বচ্ছতা প্রক্রিয়া বিষয়ে ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের সেন্টার ফর  ক্লাইমেট চেঞ্জ এন্ড এনভায়রনমেন্টাল রিসার্চ (সিথ্রিআর) আয়োজিত ‘ট্রান্সপারেন্সি মেকানিজম ইন প্যারিস এগ্রিমেন্ট: ইস্যুজ, কনসার্নস এন্ড অপরচুনিটি ফর ইফেকটিভ ইমপ্লিমেনটেশান’ শীর্ষক সাইড ইভেন্টে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

 

          সিথ্রিআর উপদেষ্টা ড. আইনুন নিশাতের সভাপতিত্বে ক্লাইমেট চেঞ্জ সংক্রান্ত বাংলাদেশ সংসদীয় দলের প্রতিনিধি তানভীর শাকিল জয়, অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের সচিব ফাতিমা ইয়াসমিন, পরিবেশ বিশেষজ্ঞ গ্যারি ফক্স ড. সেলিমুল হক, ড. আতিক রহমান প্রমুখ অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন।

 

          তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ড. হাছান মাহ্‌মুদ বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনজনিত ক্ষতি পোষাতে প্রতিশ্রুত অর্থায়নে উন্নত দেশগুলোর গড়িমসি কাম্য নয়। এক্ষেত্রে তাদের স্বচ্ছতা, সদিচ্ছা এবং আন্তরিকতারও অভাব রয়েছে। কিন্তু  বাংলাদেশ এ ক্ষতির কাছে অসহায়ভাবে আত্মসমর্পণ করেনি। বরং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দূরদর্শী ও সময়োপযোগী পদক্ষেপের কারণে নিজস্ব অর্থায়নে কাজ করে যাচ্ছে, যা ইতোমধ্যেই বিশ্বে সমাদৃত।

 

          তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ ক্ষুধাকে জয় করে এখন খাদ্যউদ্বৃত্ত দেশে পরিণত হয়েছে। আমাদের সরকারের নানামুখী পদক্ষেপ, উদ্যোগ, বিজ্ঞানী ও গবেষকদের গবেষণায় জলবায়ুসহিঞ্চু বিভিন্ন জাতের ধান উৎপাদন করা হয়েছে এবং হচ্ছে। আমাদের গবেষকরা খরা, বন্যা, জলমগ্নতা ও লবণাক্ততা সহিঞ্চু জাতের ধান উৎপাদন করেছেন, সভায় জানান তথ্যমন্ত্রী।

 

          জলবায়ু সম্মেলনে যোগদান শেষে ১৭ নভেম্বর তথ্যমন্ত্রীর দেশে ফেরার কথা রয়েছে।

#

আকরাম/পাশা/সাহেলা/রাহাত/রফিকুল/সেলিম/২০২১/১৯.০০ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                          নম্বর: ৫৩৬৩

কোভিড-১৯ সংক্রান্ত সর্বশেষ প্রতিবেদন

ঢাকা, ২৬ কার্তিক (১১ নভেম্বর) :

            স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এবং রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর)-এর তথ্যানুযায়ী গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ১৯ হাজার ৫৪৪ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ২৩৭ জনের শরীরে করোনা সংক্রমণ পাওয়া গেছে। এ নিয়ে বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত কোভিড-১৯ আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ১৫ লাখ ৭১ হাজার ৯০৬ জন। 

          গত ২৪ ঘণ্টায় ১ জন-সহ এ পর্যন্ত ২৭ হাজার ৯০৭ জন এ রোগে মৃত্যুবরণ করেছেন।

          করোনা ভাইরাস আক্রান্তদের মধ্যে এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ১৫ লাখ ৩৫ হাজার ৮৯২ জন।

#

ফেরদৌস/পাশা/সাহেলা/রাহাত/রফিকুল/আব্বাস/২০২১/১৮১০ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                                   নম্বর : ৫৩৬২

ডায়াবেটিস রোগীদের বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা দিচ্ছে সরকার

                                                                                  -- স্বাস্থ্যমন্ত্রী

ঢাকা, ২৬ কার্তিক (১১ নভেম্বর) :

          স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, সরকারি হাসপাতালে ডায়াবেটিস রোগীদের বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা দেয়া হচ্ছে, আগামীতে ইনসুলিনও ফ্রি দেওয়ার উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে। আজ ঢাকায় দৈনিক সমকাল পত্রিকা অফিসে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নন কমিউনিকেবল ডিজিজ কন্ট্রোল প্রোগ্রাম (এনসিডিসি) এবং বাংলাদেশ ডায়াবেটিস সমিতি (বাডাস) কর্তৃক বিশ্ব ডায়াবেটিস দিবস উপলক্ষ্যে আয়োজিত ‘ডায়াবেটিস চিকিৎসা: বর্তমান ও আগামীর ভাবনা’ বিষয়ে গোলটেবিল আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী একথা বলেন।

          তিনি আরো বলেন, কমিউনিকেবল ডিজিসের কারণে দেশের অন্তত ৬১ ভাগ মানুষ কোনো না কোনো স্বাস্থ্য সমস্যায় ভোগেন। নন কমিউনিকেবল অন্যান্য রোগের মধ্যে ডায়াবেটিস রোগ অন্যতম। ডায়াবেটিস রোগটি নীরবে শরীরে চলে আসে। দেশের প্রান্তিক অঞ্চলের পাশাপাশি শহরের মানুষজনও অনেকেই স্বাস্থ্য বা ডায়াবেটিস নিয়ে তেমন একটা সচেতন নয়।

          একটি জরিপ থেকে জানা গেছে, দেশের মাত্র ১২ ভাগ মানুষের ডায়াবেটিস এখন নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। আবার অনেক মানুষই চিকিৎসার টাকার অভাবে ডায়াবেটিস রোগের চিকিৎসা করাতে হাসপাতালে যান না। এ বিষয়ে সবার জানা প্রয়োজন, শহর বা গ্রামের প্রতিটি হাসপাতাল থেকেই এখন বিনামূল্যে ডায়াবেটিস রোগের প্রায় সকল ওষুধ ও চিকিৎসা সেবা বিনামূল্যে দেয়া হচ্ছে। এর পাশাপাশি খুব দ্রুতই ডায়াবেটিস রোগের জন্য ব্যয়বহুল চিকিৎসা সামগ্রী ইনসুলিনও বিনামূল্যে দেয়ার উদ্যোগ গ্রহণ করা হচ্ছে। এর মাধ্যমে সরকারের অন্যান্য জটিল রোগের চিকিৎসা সেবা বিনামূল্যে পাবার পাশাপাশি ডায়াবেটিস রোগের চিকিৎসাও মানুষ ঘরের পাশে থাকা যেকোনো হাসপাতাল বা কমিউনিটি ক্ল

2021-11-11-16-39-5bd47189a2edc1f0f0e7ce7961e6fc72.doc 2021-11-11-16-39-5bd47189a2edc1f0f0e7ce7961e6fc72.doc

Share with :

Facebook Facebook